অনলাইনে ঘরে বসে ইনকাম করার সহজ উপায় গুলি কি কি? ১৬টি কাজ

Last updated on May 21st, 2024 at 01:43 pm

কিভাবে ঘরে বসে টাকা ইনকাম করা যায় (work from home and earn money online) এবং অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো কি কি ? আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে আমি এই দুটু প্রশ্নের উত্তর একি জায়গায় দিয়ে দিচ্ছি। ঘরে বসে ইনকাম করার সেরা এবং লাভজনক উপায় হিসেবে আমি নিচে কিছু জনপ্রিয় অনলাইন কাজ গুলোর বিষয়ে আপনাদের বলবো। 

ঘরে বসে ইনকাম করার উপায়
কিভাবে ঘরে বসে টাকা ইনকাম করা যায় ?

এমনিতে, আমি আগেও আপনাদের ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার বিভিন্ন উপায় বলেছি।

তবে, আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা কেবল সেই অনলাইন ইনকাম পদ্ধতি (Best Work from home online jobs list) গুলোর বিষয়ে বলবো যেগুলো ঘর থেকে ইনকাম করার ক্ষেত্রে সেরা এবং লাভজনক। 

হতে পারে আপনি একজন ছাত্র, মহিলা বা full-time job করা একজন ব্যক্তি।

তবে চিন্তা নেই, প্রত্যেকেই এই অনলাইন ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো ব্যবহার করে ঘরে বসে অনলাইনে রোজগার করতে পারবেন।

এমনিতে, আপনারা যদি ঘরে বসে মোবাইলে আয় করার উপায় খুঁজছেন, তাহলে সেই বিষয়েও আমি আগেই আর্টিকেল লিখেছি।

Corona virus এর এই জটিল মহামারীর সময় আমরা প্রত্যেকেই ঘরে বসে রয়েছি।

এক্ষেত্রে আমাদের হাতে সময় প্রচুর রয়েছে, এবং আমরা চাইলে অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারি।

হে, ইন্টারনেট থেকে বিভিন্ন ধরণের কাজ গুলো করে আজ বিশ্বজুড়ে হাজার হাজার লোকেরা লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছেন।

তবে, এই সুযোগের লাভ নিয়ে আপনিও অনলাইনে ঘরে বসে আয় করুন এটাই আমার পরামর্শ।

ঘর থেকে কাজ করে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার প্রচুর ধর্য্য রাখতেই হবে এবং কিছুটা সময় দিয়ে সঠিক ভাবে কাজ করতে হবে।

কিভাবে ঘরে বসে টাকা ইনকাম করা যায় ?

দেখুন বন্ধুরা, ঘরে বসে ইনকাম করার উপায় গুলির ক্ষেত্রে অনলাইন পদ্ধতি (online income tips in Bangla) প্রচুর রয়েছে।

তবে, এই প্রচুর অনলাইন উপায় গুলোর মধ্যে আমি কেবল সেই উপায় গুলোর বিষয়ে বলবো যেগুলোর মাধ্যমে বর্তমানে লোকেরা প্রচুর টাকা ইনকাম করছেন।

এই কাজ গুলো করার জন্য আপনার কাছে একটি computer desktop বা laptop এবং internet থাকলেই হবে।

তবে, প্রায় কিছু সংখ্যক কাজ গুলো আপনারা নিজের মোবাইল থেকেও করে নিতে পারবেন।

এছাড়া, আমি আপনাকে কেবল সেই কাজ গুলো করার পরামর্শ দিবো যেগুলোর সাথে জড়িত জ্ঞান আপনার রয়েছে।

এনাহলে, কাজ গুলো করতে আপনার রুচি থাকবেনা বা কাজ গুলো শিখতে আপনার অনেক সময় লেগে যেতে পারে।

তাই, নিজের interest হিসেবে home based online work গুলো করার পরামর্শ আমি দিচ্ছি।

ঘরে বসে ইনকাম করতে চান ? অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করুন 

তাহলে চলুন, ঘর থেকে কাজ করে অনলাইনে টাকা আয় (How to make money online) করার কি কি সেরা পদ্ধতি রয়েছে সেগুলোর তালিকা দেখেনেই।

১. কনটেন্ট রাইটিং

২. সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার

৩. Meesho app

৪. Blogging

৫. YouTube channel

৬. Graphics designer

৭. অনলাইন টিউশন (online tutor)

৮. ওয়েবসাইট ডেভেলপার

৯. ডিজিটাল মার্কেটিং

১০. সার্ভে করে ইনকাম

১১. অনলাইনে ছবি বিক্রি করুন

১২. ডাটা এন্ট্রি জব

১৩. এফিলিয়েট মার্কেটিং 

১৪. ফ্রীল্যানসিং 

১৫. কোডিং (coding)

১৬. App design / developing 

চলুন, প্রত্যেকটি বিষয় গুলো নিয়ে নিচে বিস্তারিত ভাবে চর্চা করাযাক।

১. কনটেন্ট রাইটিং

যদি আপনি লেখালেখি করে ভালো পান এবং ঘরে বসে পার্ট-টাইম টাকা ইনকাম (online part-time income) করার উপায় খুঁজছেন, তাহলে কনটেন্ট রাইটিং এর কাজ আপনার জন্য সেরা।

বর্তমান সময়ে প্রচুর online blogs, websites, news portal ইত্যাদি রয়েছে যেখানে article লেখার কাজ লোকেদের দেওয়া হয়।

প্রায় ১৪০০ থেকে ১৫০০ ওয়ার্ড এর একটি ভালো কোয়ালিটির আর্টিকেল লিখে দিতে পারলে আপনি ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এই ধরণের online content writing work গুলো খোঁজার জন্য আপনাকে blogging এবং content writing এর সাথে জড়িত Facebook পেজ গুলো জয়েন করতে হবে।

এছাড়া, ইন্টারনেটে সক্রিয় বিভিন্ন online news portal বা blogs গুলোর contact পেজ থেকে তাদের email address সংগ্রহ করে সরাসরি কাজের জন্য খবর নিতে পারবেন।

যদি আপনি সঠিক ভাবে SEO optimized articles লিখতে জানেন, তাহলে অনলাইনে প্রচুর কাজ পাবেন।

২. সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার

Social media influencing করে ঘর থেকে কাজ করে অনলাইনে টাকা আয় করার সুযোগ প্রত্যেকের জন্যেই রয়েছে।

আজ হাজার হাজার লোকেরা নিজের জনপ্রিয় social media page / account এর মাধ্যমে ঘরে বসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছেন।

এটাকে part time job form home হিসেবে নিয়েও কাজ করতে পারবেন।

আজকাল online industry হলো referral এবং promotion এক সাংঘাতিক দারুন মাধ্যম।

তাই, আজকাল প্রায় প্রত্যেক কোম্পানি গুলো তাদের products এবং services গুলোর অনলাইন প্রচার (marketing) করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন social media influencers দের সাহায্য টাকার বিপরীতে নিয়ে থাকেন।

আপনার মধ্যে যদি নিজের social media পেজ গুলোতে followers নিয়ে আসার দক্ষতা (skill) রয়েছে তাহলে আপনি ঘর থেকে কাজ করে দারুন ইনকাম করতে পারবেন।

কিভাবে একটি social media page তৈরি করে সেখানে আকর্ষণীয় কনটেন্ট (images, videos, text etc.) পাবলিশ করে নিজের social media profile এর followers বাড়াতে পারবেন, সেটা আপনার জানা থাকতে হবে।

প্রথম অবস্থায় আপনার social media page এর মধ্যে কমেও ৫০০০ ফলোয়ার্স থাকলে আপনাকে social media influencer category তে ধরা যেতে পারে।

একবার ভালো পরিমানে followers হয়ে গেলে আপনারা বিভিন্ন কোম্পানি গুলোর products এর paid promotion/review এবং affiliate marketing এর মাধ্যমে প্রচুর ইনকাম করতে পারবেন।

যদি আপনি ভারতে (India) বসবাস করছেন তাহলে আপনার জন্য টাকা আয় করার একটি দারুন সুযোগ রয়েছে।

আপনারা Meesho app এর মাধ্যমে ঘরে বসে কাজ করে মাসে প্রায় ১৫ থেকে ২৫ হাজার টাকা পার্ট-টাইম ইনকাম করতে পারবেন।

৩. Meesho app

Meesho হলো একটি product reselling company যেখানে একটি account তৈরি করে জেকেও তাদের products গুলোকে নিজের দামে বিক্রি করিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Products এর মধ্যে মূলত kitchen items, clothing, fashion ইত্যাদি এই ধরণের প্রচুর categories রয়েছে।

Customer এর দেওয়া order এর delivery, payment collect ইত্যাদি সবটাই meesho company দ্বারা করা হবে।

আপনাকে কেবল ভালো ভালো products গুলো select করে সেগুলোকে বিভিন্ন social media platforms গুলোতে নিজের লাভ সহ দাম লাগিয়ে শেয়ার করে বিক্রি করাতে হবে।

৪. Blogging

Blogging সব সময় best work from home business model ছিল এবং এখনো রয়েছে।

আমার মতোই বিশ্বজুড়ে লক্ষ লোকেরা professionally blogging করে online income করছেন।

এবং সত্যি বললে, সঠিক ভাবে করলে blogging থেকে যেকোনো সাধারণ চাকরির তুলনায় প্রচুর টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

আমার নজরে blogging একটি সেরা online business যেটাকে একজন student, housewife, retired person বা যেকোনো ব্যক্তি শুরু করতে পারবেন।

আজ school এবং college এর ছাত্ররা পর্যন্তই ঘরে বসে ব্লগিং করে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করছেন।

এখানে আপনি যত বেশি কাজ করবেন ততটাই অধিক টাকা ইনকাম করার সুযোগ হয়ে দাঁড়াবে।

তবে, ব্লগিং এর ক্ষেত্রে আপনাকে ধর্য্য ধরে হাতে কিছুটা সময় নিয়ে কাজ করতে হবে।

কেননা, একটি ব্লগ থেকে ইনকাম করার ক্ষেত্রে সেখানে প্রত্যেক দিন কমেও ১০০০ user / visitors আসতেই হয়।

এবং, ভালো পরিমানে traffic / visitors আসার ক্ষেত্রে প্রায় ৫ থেকে ৬ মাসের সময় লেগে যেতে পারে।

৫. YouTube channel

Blogging এর মতোই YouTube অবশই একটি professional business model যেটা online income করার প্রমাণিত একটি পদ্ধতি বা উপায়।

Students থেকে শুরু করে বয়স্ক লোকেরাও নিজের একটি YouTube channel তৈরি করে এর থেকে ইনকাম করছেন।

আপনাকে নিজের একটি YouTube চ্যানেল তৈরি করে সেখানে নিয়মিত ভাবে videos বানিয়ে upload করতে হয়।

আপনি নিজের রুচি এবং অভিজ্ঞতা হিসেবে যেকোনো ধরণের ভিডিও তৈরি করে আপলোড করতে পারবেন।

ধীরে ধীরে যখন আপনার চ্যানেলে প্রচুর subscribers হতে থাকবে তখন আপনার video গুলোতে views বাড়বে এবং আপনি বিভিন্ন মাধ্যমে নিজের চ্যানেল থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

যেমন, Google AdSense, affiliate marketing, paid promotion ইত্যাদি।

Blogging এর মতোই এখানেও আপনারা এক রাতের মধ্যে ধনী হয়ে যেতে পারবেননা।

আপনাদের কিছুটা সময় নিয়ে ধর্য্য ধরে নিয়মিত content publish করতে থাকতেই হবে।

ইউটিউব মনিটাইজেশন চালু করে সহজেই নিজের ভিডিও গুলোতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে অনলাইন আয় করা সম্ভব।

আপনি ঘরে বসে বা যেকোনো জায়গার থেকে এই অনলাইন ব্যবসা চালিয়ে যেতে পারবেন।

একটি laptop বা desktop দিয়ে কাজ করাটা সুবিধাজনক যদিও আপনি চাইলে নিজের মোবাইল থেকে কাজ করেও ইউটিউব থেকে আয় করতে পারবেন।

৬. Graphics designer

যদি আপনার মধ্যে গ্র্যাফিক্স ডিজাইনিং, লোগো তৈরি করা ইত্যাদি এই ধরণের দক্ষতা (skills) রয়েছে, তাহলে অবশই এর মাধমেও ইনকাম সম্ভব।

অনলাইনে প্রচুর website, business, social media page রয়েছে যারা তাদের online portal গুলোর জন্য বিভিন্ন ধরণের graphics designing এর কাজ করাতে চান।

তাই, যদি আপনি এই কাজে ভালো অভিজ্ঞতা রাখেন, তাহলে অবশই কাজটি করেও ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি সম্পূর্ণ কাজ ঘর থেকে একটি laptop এর মাধ্যমে করতে পারবেন।

কাজ খোঁজার জন্যে আপনি বিভিন্ন জনপ্রিয় freelancing website বা Facebook page গুলোতে গিয়ে কাজ খুঁজতে পারবেন।

৭.অনলাইন টিউশন (online tutor)

করোনা ভাইরাস এর সংক্রমণ এর ভয়ে school, college, coaching classes ইত্যাদি সবটাই বন্ধ রাখা হয়েছে।

তবে এক্ষেত্রে আমাদের কাছে একটি নতুন পার্ট-টাইম ব্যবসার সুযোগ হয়ে দাঁড়িয়েছে যেটা ঘরে বসেই করা যাবে।

আর সেই ব্যবসাটি হলো ঘরে বসে অনলাইনে টিউশন ক্লাস করিয়ে ইনকাম করাটা।

আজ ছাত্র-ছাত্রীরা অনলাইনে নিজের smartphone থেকে video calling apps এর মাধ্যমে tuition classes করছেন।

এক্ষেত্রে, আপনিও সাধারণ ইন্টারনেটের জ্ঞান এর সাথে এই ধরণের online tutor business শুরু করতে পারবেন।

এভাবে, আপনি ঘরে বসেই নিজের সুবিধে হিসেবে একাধিক ছাত্র দের অনলাইন ক্লাস করিয়ে ইনকাম করতে পারবেন।

যিহেতু class সম্পূর্ণ online হচ্ছে, তাই জায়গা নিয়ে কোনো সমস্যা থাকছেনা।

আপনি প্রচুর ছাত্রদের একসাথেই class করাতে পারবেন।

৮. ওয়েবসাইট ডেভেলপার

যদি আপনার website development ও designing নিয়ে জ্ঞান, অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা রয়েছে, তাহলে অবশই অন্যদের জন্য website তৈরি করে টাকা আয় করতে পারবেন।

আমি প্রচুর ব্যক্তিদের দেখেছি যারা বিভিন্ন ধরণের blog site, business page, portfolio website বা e-commerce ওয়েবসাইট তাদের clients দের জন্যে তৈরি করে থাকেন।

তাই, website বানাতে ও design করতে জানলে এর সাথে জড়িত কাজ আপনি খুঁজে করতে পারবেন।

Freelancing websites গুলোতে গিয়ে, Facebook group এর মাধ্যমে বা online paid ads চালিয়ে আপনি কাজ খুঁজতে পারবেন।

৯. ডিজিটাল মার্কেটিং

বিভিন্ন ছোট-বড় company গুলো রয়েছে যারা digital marketing এর মাধ্যমে নিজেদের products, business এবং brands গুলোকে অনলাইনে প্রচার করতে চান।

এবং এক্ষেত্রে, তাদের প্রয়োজন হয়ে থাকে একজন ডিজিটাল মার্কেটিং করতে জানা ব্যক্তির।

তাই, আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং এর সাথে জড়িত অভিজ্ঞতা, জ্ঞান এবং দক্ষতা রাখেন, তাহলে অবশই ঘরে বসে clients দের জন্য অনলাইন মার্কেটিং এর কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন।

মনে রাখবেন এই ধরণের অনলাইন মার্কেটিং এর কাজ সবাই করতে পারেননা।

আর তাই, এই কাজে প্রচুর ইনকাম করার সুযোগ থাকে।

Digital marketing এর বিভিন্ন ভাগ রয়েছে যেমন, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ইমেইল মার্কেটিং, ইউটিউব মার্কেটিং ইত্যাদি।

একটি laptop এবং internet connection থাকলেই আপনি যেকোনো জায়গায় বসে কাজ করতে পারবেন।

১০. অনলাইনে সার্ভে করে ইনকাম

ইন্টারনেটে এমনিতে online income করার প্রচুর পদ্ধতি বা উপায় রয়েছে।

এবং এই উপায় গুলোর মধ্যে একটি সেরা উপায় হলো “paid survey website” গুলোর থেকে ইনকাম করা।

এরকম অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোতে একাউন্ট তৈরি করে আপনারা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিয়ে ইনকাম করতে পারবেন।

Paid survey গুলো প্রায় ১০ থেকে ২০ মিনিটের সময় নিয়ে আপনাকে বিভিন্ন products, company বা services এর সাথে জড়িত প্রশ্ন করবেন।

আপনাকে, নিজের মতামত গুলো জমা দিতে হবে এবং প্রত্যেক survey করে প্রায় $0.50 থেকে প্রায় $10 বা তার থেকেও অধিক ইনকাম করা সম্ভব।

Paid survey করে আপনারা তেমন বেশি টাকা আয় করতে পারবেননা যদিও ঘরে বসে পার্ট-টাইম ইনকাম কিছুটা হয়েই যাবে।

১১. অনলাইনে ছবি বিক্রি করুন

অবশই, ইন্টারনেটে এরকম অনেক ইমেজ ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোতে account তৈরি করে জেকেও নিজের তোলা ছবি গুলো আপলোড করে সেগুলোকে বিক্রি করতে পারবেন।

এই ধরণের ওয়েবসাইট গুলোকে বলা হয় স্টক ইমেজ ওয়েবসাইট।

যেমন, iStock photo, Shutterstock, BigStock, Adobe Stock, Getty Images ইত্যাদি।

তবে এই ওয়েবসাইট গুলোর মাদ্ধমে আপনি কেবল সেই ছবি গুলো বিক্রি করতে পারবেন যেগুলো আপনি নিজে তুলেছেন এবং যেগুলোর কোয়ালিটি প্রচুর ভালো (HD).

এছাড়া, আপনি যত বেশি unique images তুলে upload করবেন সেগুলো বিক্রি সবার সুযোগ অধিক থাকবে।

আপনার কাছে যদি একটি DSLR camera আছে এবং আপনি ছবি তুলে ভালো পান, তাহলে অবশই অনলাইনে ছবি বিক্রি করে ইনকাম করাটা আপনার জন্যে লাভজনক প্রমাণিত হতে পারে।

১২. ডাটা এন্ট্রি জব

ইন্টারনেটে ডাটা এন্ট্রি (data entry) করে টাকা আয় করার জন্য আপনারা প্রচুর ডাটা এন্ট্রি সাইট অবশই পাবেন।

Google এর মধ্যে সার্চ করলেই আপনারা প্রচুর ডাটা এন্ট্রি ওয়েবসাইট পাবেন যেগুলোর থেকে ইনকাম সম্ভব।

তবে এই কাজ আপনি ফুল-টাইম বা পার্ট-টাইম দুধরণেই করতে পারবেন।

এছাড়া, ডাটা এট্রির কাজ করার জন্য আপনার কাছে একটি ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ থাকতে হবে।

যতটা সম্ভব ভুলভাল না করে তাড়াতাড়ি data type বা entry করতে পারলেই এই কাজে লাভ আছে।

Data entry কাজ বলতে সে বিভিন্ন ধরণের কাজ হতে পারে।

যেমন, captcha এন্ট্রির কাজ, translation, editing, copy pasting ইত্যাদি।

বর্তমান সময়ে যদি আপনি এমন একটি অনলাইন কাজ খুজছেন যার মাধ্যমে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করা যাবে,

তাহলে আমি এফিলিয়েট মার্কেটিং এর কথা আপনাদের বলবো।

এটা হলো এমন একটি অনলাইন ব্যবসা (online business) যেখানে আপনি বিভিন্ন e-commerce company গুলোর থেকে টাকা ইনকাম করেন। 

আসলে, এই প্রক্রিয়াতে আপনাকে একটি অনলাইন কোম্পানির এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর সাথে যুক্ত হতে হয়। 

এর পর, সেই কোম্পানির পণ্য বা সেবা গুলোকে আপনাকে নিজের অনলাইন প্লাটফর্ম গুলোতে শেয়ার করতে হয়। 

Products / services শেয়ার করার জন্য আপনাকে একটি বিশেষ ধরণের link দেওয়া হবে। আর এই link-এর নাম হলো, “affiliate link”.

এখন, যদি আপনার প্রচার করা product / service টি কোনো user আপনার সেই বিশেষ affiliate link-এর মধ্যে click করে কিনেন,

তাহলে সেই বিক্রির জন্যে আপনাকে কোম্পানির তরফ থেকে কমিশন দেওয়া হবে। 

আর, এভাবেই কাজ করে affiliate marketing business model. 

আপনি নিজের social media profile (Facebook, Instagram, YouTube, Telegram) বা নিজের blog / website এর মাধ্যমে এফিলিয়েট প্রোডাক্ট গুলোর প্রচার করতে পারেন। 

অধিক জানার জন্যে আমাদের এই আর্টিকেল পড়ুন – এফিলিয়েট মার্কেটিং কি ? কিভাবে করবেন

১৪. ফ্রিল্যান্সিং

অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করার একটি অনেক দারুন ও জনপ্রিয় উপায় হলো, “ফ্রিল্যান্সিং“.

এক্ষেত্রে, আপনি নিজের ঘরে বসে নিজের সুবিধা হিসেবে কাজ করতে পারবেন। 

কাজ সম্পূর্ণ অনলাইনে করতে হবে আর তার জন্যে আপনার প্রয়োজন হবে একটি laptop এবং internet এর। 

আপনি নিজের কাছে থাকা সময় এবং নিজের দক্ষতা (skill) হিসেবে কাজ খুঁজতে পারবেন তবে সেগুলোকে দিয়ে দেওয়া সময় মতো সম্পূর্ণ করতে হয়। 

ফ্রীল্যানসিং এর কাজের মধ্যে বিভিন্ন ধরণের কাজ গুলো রয়েছে। 

যেমন, video editing, content writing, animation, coding, app / website development, SEO এবং আরো অনেক। 

তাই, আপনি যেই কাজ জানেন সেই হিসেবে কাজ খুজুন এবং কাজ সম্পূর্ণ করে টাকা ইনকাম করুন। 

অবশই পড়ুন – ফ্রিল্যান্সিং কি ? কিভাবে শুরু করব ?

আপনি নিচে দিয়ে দেওয়া এই  freelancing websites গুলোতে গিয়ে কাজ খুঁজতে পারবেন,

১৫. কোডিং (coding)

কোডিং কি ? এই বিষয়ে আমি আপনাদের আগেই বলেছি। 

যদি আপনার কাছে কোডিং এর ভালো জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা আছে এবং আপনি ঘরে বসে ইনকাম করার উপায় খুঁজছেন,

তাহলে আপনি একজন Developer, programmer, এবং analysts হিসেবে অনলাইনে কাজ করতে পারেন। 

অনলাইনে এমন অনেক freelancing marketplace গুলো রয়েছে যেগুলোতে বিভিন্ন coding ও development-এর কাজ পাবেন। 

যেমন, Upwork, Fiverr, PeoplePerHour এবং Freelancer, কোডিং এর কাজ পাওয়ার জন্যে অনেক জনপ্রিয় প্লাটফর্ম। 

মনে রাখবেন, বিভিন্ন ছোট কোম্পানি থেকে শুরু করে বড় বড় ব্র্যান্ড ও কোম্পানি গুলো এরকম coders-দের খুজেঁ যারা ঘর থেকেই কাজ করতে পারবেন। 

তাই, একজন professional coder হিসেবেও আপনি ঘরে বসে অনলাইনে টাকা আয় অবশই করতে পারবেন। 

১৬. App design / developing

ঘরে বসে অনলাইন কাজ করে টাকা ইনকাম করার আরেকটি দারুন উপায় হলো mobile app designing এবং developing.

বর্তমান সময়ে একজন সেরা app developer (mobile app developer) বা app designer হওয়াটা এতটা কঠিন কাজ না।

আপনি একটি সেরা ও ভালো কোর্স এর দ্বারা app development-এর কাজ শিখতে পারবেন। 

 বিজিত কিছু বছর থেকেই, android app development experts-দের চাহিদা প্রচুর বেড়েছে। 

আপনাকে বিভিন্ন জনপ্রিয় freelancing website গুলোতে একজন app developer হিসেবে নিজের একটি portfolio তৈরি করতে হবে।

আপনি, Upwork বা Fiverr থেকে শুরু করতে পারেন।  

ধীরে ধীরে আপনি বিভিন্ন app development এর কাজ গুলোর notification পেতে থাকবেন। 

এখন, সরাসরি projects গুলোতে গিয়ে apply করুন, কত টাকা নিবেন সেটা আলোচনা করুন এবং সময় মতো কাজ করে জমা দিয়ে দিন। 

 

আজকে আমরা কি শিখলাম ?

বন্ধুরা আজকে আমরা জানলার যে ঘরে বসে কি কি কাজ করে অনলাইনে টাকা ইনকাম সম্ভব (make money online working from home).

আর্টিকেলের মধ্যে বলা অনলাইনে টাকা ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো যদি আপনাদের পছন্দ হয়ে থাকে, তাহলে অবশই আর্টিকেলটি শেয়ার করবেন।

আমি আশা করছি যে ওপরে বলা ঘরে বসে ইনকাম করার উপায় গুলো আপনাদের কাজে অবশই আসবে।

এছাড়া, আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরনের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে নিচে অবশই কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

 

3 thoughts on “অনলাইনে ঘরে বসে ইনকাম করার সহজ উপায় গুলি কি কি? ১৬টি কাজ”

  1. Avatar
    Sanchaya Biswas

    দাদা আপনার লিখা মানেই নতুন তথ্য। ঘরে বসে ইনকামের সব থেকে সেরা উপায় হলো অনলাইনের মাধ্যমে আয় করা, অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সিং করা।

  2. Avatar

    ব্লগিং করে ইনকাম করা খুব কঠিন কাজ। দাদা কতোদিন কাজ করলে ইনকাম শুরু করা যাবে? একটি ব্লগ সাইটে কতোগুলো পোস্ট করলে মাসে ১০০ ডলার আয় করা যায়। অর্থাৎ প্রতিদিন কতোগুলো গুগল সার্চ থেকে ক্লিক আসলে ১০০ ডলার ইনকাম আসবে? জানাবেন প্লিজ দাদা।

    1. Avatar

      ব্লগ থেকে ইনকাম করা কঠিন তবে সম্ভব। আপনাকে একটি প্রফিটেবলে নিচ নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রতিদিন ১০০০-১২০০ ইউনিক ভিউ আসলে সেখান থেকে প্রতিদিন ৫ থেকে ৭ ডলার ইনকাম করা যাবে। তবে ব্লগিং করে ১০০ ডলার ইনকাম করা সহজ। বাংলা ব্লগিং এর ক্ষেত্রে কষ্ট যথেষ্ট বেশি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top