অনলাইনে আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করুন – দিনে ২০০-৫০০ ইনকাম

Last updated on May 5th, 2024 at 09:20 pm

আপনি কি লেখালেখি করতে পছন্দ করেন ? আর্টিকেল রাইটিং এর সাধারণ অভিজ্ঞতা আপনার রয়েছে ? তাহলে আপনিও কিন্তু ঘরে বসে অনলাইনে আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন

কিভাবে ? দেখুন, বর্তমান সময়ে কন্টেন্ট লিখে টাকা আয় করার জন্য এবং বিভিন্ন কন্টেন্ট রাইটিং জব গুলির জন্য রয়েছে নানান ইংলিশ এবং বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং ওয়েবসাইট গুলো।

এই ওয়েবসাইট গুলিতে গিয়ে নিজের একটি একাউন্ট তৈরি করে সরাসরি আর্টিকেল লিখে ইনকাম করার সুযোগ আপনি পাবেন।

তবে মনে রাখবেন, এক্ষেত্রে বেসিক কনটেন্ট রাইটিং স্কিল গুলো আপনার থাকতে হবে। চিন্তা করবেননা, নিচে সবটা বলা হয়েছে। 

অনলাইনে কন্টেন্ট লিখে আয় করার উপায়। 

ইংলিশ বা বাংলা আর্টিকেল লিখার মাধ্যমে আপনি মিনিমাম $১০০ থেকে $৫০০ পর্যন্ত টাকা প্রতিমাসে আয় করে নিতে পারবেন। এমন অনেকেই আছেন যারা অনলাইনে আর্টিকেল লিখে এর থেকেও অনেক বেশি টাক ইনকাম করছেন।

এখন অনেকেই হয়তো বলবেন যে, অনলাইনে কি বাংলা আর্টিকেল রাইটিং জব গুলো পাওয়া যাবে ? বাংলাতে আর্টিকেল লিখে কি টাকা আয় করা সম্ভব ?

অবশই সম্ভব, আপনি যদি সেরা এবং জেনুইন উপায় এবং ভালো ভালো বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং ওয়েবসাইট গুলো ব্যবহার করে থাকেন, তাহলে অবশই ইনকামের সুযোগ থাকছে। 

আপনি যদি বাংলা কনটেন্ট রাইটিং এর ক্ষেত্রে দক্ষ এবং কিভাবে একটি সেরা আর্টিকেল লিখতে হয় এই বিষয়ে ঠিকঠাক জ্ঞান আছে, তাহলে LinkedIn এর মাধ্যমে প্রচুর বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং জব গুলো পেয়ে যাবেন।  

বাংলায় আর্টিকেল লিখে টাকা ইনকাম করার ক্ষেত্রে আপনি কনটেন্ট রাইটিং এর সাথে জড়িত বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপ গুলোতে গিয়েও কাজ পেতে পারবেন। এছাড়া, সরাসরি ব্লগ বা ওয়েবসাইট গুলোতে গিয়ে contact us পেজে প্রবেশ করে ওয়েবসাইটের মালিকদের যোগাযোগ করতে পারেন।

Also read

তাহলে চলুন, বেশি সময় না নিয়ে আমরা সোজা জেনেনেই যে আজকে আমরা কি কি শিখবো।

আজকে আমরা জানবো –

  1. আর্টিকেল রাইটিং কি ?
  2. কিভাবে আর্টিকেল লিখতে হয় ? সাধারণ জ্ঞান।
  3. অনলাইনে আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করার মাধ্যম গুলো কি কি ?
  4. আর্টিকেল লিখে আয় করার কিছু ওয়েবসাইট।
  5. সেরা বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং জব ওয়েবসাইট গুলোর নাম। 

আমি আপনাদের অনুরোধ করবো যাতে আপনারা এই আর্টিকেল টি সম্পূর্ণ পড়ে থাকেন। এতে আপনারা সবটা ভালোকরে বুঝতে পারবেন।

আর্টিকেল রাইটিং কি ?

আর্টিকেল বা আর্টিকেল রাইটিং সাধারণ ভাবে একটি লেখার টুকরা, ভাগ বা অংশ যেটা আমরা সাধারণ মিনিমাম ৩০০-১০০০ শব্দের ভেতরে লিখে থাকি।

যেকোনো আর্টিকেল আমরা একটি নির্দিষ্ট বিষয়, সাবজেক্ট বা টপিক এর ওপর লিখি। এমন একটি টপিক বা বিষয়, যেই বিষয়ে আপনার ভালো জ্ঞান আছে এবং সেই বিষয়ে আপনি আর্টিকেলের মাধ্যমে লোকেদের অনেক তথ্য দিতে পারবেন।

আগে, আর্টিকেল গুলি সাধারণ ভাবে newspaper এবং বই বা মেগাজিনে লেখা বা প্রকাশ করা হতো।

কিন্তু, এখনকার যুগে আপনি আর্টিকেল অনলাইন ব্লগ, ফোরাম, ওয়েবসাইট বা ডিজিটাল মার্কেটিং এর যেকোনো মাধ্যমে প্রকাশ বা publish করতে পারবেন। এখন, সময় বদলে গেছে এবং সবটাই ডিজিটাল।

আর্টিকেল কিভাবে লিখতে হয় ? কিছু সাধারণ নিয়ম

আপনি, আর্টিকেল একটি ব্লগে লিখছেন কিংবা কোনো মেগাজিনে, আর্টিকেল লেখার কিছু সাধারণ নিয়ম আছে যেগুলি আপনি মেনে না চললে আপনার লেখা টপিক বা বিষয় পড়ে লোকেরা ভালো পাবেননা।

আপনি অবশই, এইটা চেষ্টা করতে হবে যাতে আপনার কনটেন্ট পড়ে লোকেরা ইন্টারেস্ট বা রুচি পান। তারা যাতে, আপনার লেখা প্রত্যেক শব্দ পড়ে আনন্দ পান এবং যেই বিষয় নিয়ে আপনি লিখছেন, সেই বিষয় যাতে তারা ভালোকরে বুঝতে পারেন।

কেবল তখন আপনি একজন সফল কনটেন্ট রাইটার (content writer) হিসেবে নিজের পরিচয় তৈরি করতে পারবেন।

আপনি কি বিষয়ে আর্টিকেল লিখছেন বা কত ভালো ভাবে কোনো বিষয় বা টপিক শব্দের মাধ্যমে আর্টিকেলে প্রকাশ করছেন, সেটা আপনাকে শিখিয়ে দেওয়াটা আমার হাথে নেই। সেটা পুরোটাই, যেকোনো টপিক বা বিষয়ে আপনার থাকা knowledge এবং experience এর ওপর নির্ভর করবে।

নির্বাচিত বিষযয়ের ওপর আপনার যত বেশি knowledge এবং experience থাকবে, ততটাই ভালোকরে একটি বিশদ আর্টিকেল আপনি লিখতে পারবেন। কেবল তখনি লোকেরা আপনার আর্টিকেলে রুচি রাখবেন।

এবং তাই, সব সময় মনে রাখবেন “আর্টিকেল লেখার আগে, যেই বিষয় বা টপিকে লিখবেন ভাবছেন সেই বিষয়ে খানিকটা রিসার্চ অবশই করবেন।

আর্টিকেল লেখার কিছু সাধারণ নিয়মের বেপারে আমি নিচে বলে দিচ্ছি। এগুলি ব্যবহার করে আপনারা নিজের লেখা কনটেন্ট গুলি অনেক আকর্ষণীয় করতে পারবেন এবং সহজ ভাবে লোকেদের বুঝাতে পারবেন।

কিভাবে একটি আকর্ষণীয় আর্টিকেল লিখবেন ? (৫ টি টিপস)

আপনি যদি নিজেকে একজন সফল কনটেন্ট রাইটার হিসেবে দেখতে চান বা একজন content writer হিসেবে নিজের career তৈরি করতে চান, তাহলে কিছু সাধারণ content writing rules ফলো করতে হবে।

  1. আর্টিকেলে স্পষ্ট, আকর্ষণীয় এবং ছোট্ট টাইটেল এর প্রয়োগ করতে হবে। এতে টাইটেল পড়েই ভিসিটর্স রা আপনার আর্টিকেল পড়ার জন্য রুচি রাখবেন। এবং, ছোট্ট টাইটেল লেখার ফলে, আপনার আর্টিকেলের বিষয় সহজে স্পষ্ট হয়ে যাবে।
  2. মনে রাখবেন, ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ করে লিখতে হবে। একটি স্পষ্ট, পরিষ্কার এবং user friendly কনটেন্ট লেখার এইটা অনেক অনেক কার্যকর নিয়ম। ছোট ছোট্ট প্যারাগ্রাফ লোকেরা পড়তে অনেক পছন্দ করেন এবং এর ফলে অনেক বেশি সময় লোকেরা আপনার লেখন পড়েন।
  3. হেডিং অবশই ব্যবহার করবেন। হেডিং যেমন (H১, H২, H৩ এবং H৪ ব্যবহার করা অনেক জরুরি। এতে, সম্পূর্ণ আর্টিকেলের বিভিন্ন ভাগ গুলো তৈরি করা যায় এবং রিডাররা আপনার লেখন সুবিধাজনক ভাবে পড়তে ও বুঝতে পারেন।
  4. মিনিমাম ৫০০ থেকে ১০০০-এর মধ্যে আর্টিকেল লিখুন। হে আপনি চাইলে ১০০০ থেকেও অধিক শব্দের আর্টিকেল লিখতে পারবেন। কিন্তু, ৫০০ থেকে কম শব্দের আর্টিকেল লিখবেননা।
  5. ছবি ব্যবহার করবেন। একটি ভালো এবং আকর্ষণীয় লেখন ছবি ছাড়া তৈরি করা যায়না। আপনি নিজের টপিক বা বিষয়ের সাথে জড়িত ছবি আর্টিকেলে ব্যবহার করতে পারেন। এতে, আর্টিকেল আরো বেশি আকর্ষণীয় হবে এবং দেখতে ভালো লাগবে।

তাহলে বন্ধুরা, ওপরে আমি বলা নিয়ম গুলি ব্যবহার করে যদি আপনি আর্টিকেল লিখে থাকেন, তাহলে সে অবশই সম্পূর্ণ রূপে আকর্ষণীয় এবং স্পষ্ট হয়ে উঠবে এবং এর সাথেই লোকেরা আপনার লেখন পরে রুচি পাবেন।

কিভাবে আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করা যাবে ?

কনটেন্ট লিখে আপনি $১০০ থেকে $৫০০ টাকার মধ্যে সহজে ইনকাম করে নিতে পারবেন। তবে এইটা কেবল একটি মিনিমাম আয়ের সংখ্যা। লোকেরা online content writing jobs গুলো করার মাধ্যমে এর থেকে অনেক বেশি টাকা আয় করছেন।

১. Blogging এর মাধ্যমে ইনকাম করুন

যখনি আর্টিকেল লিখে আয় করার কথা আসবে,আমি blogging কেই সেরা এবং শ্রেষ্ঠ মাধ্যম হিসেবে বাছাই করবো। কেননা, একটি ব্লগ বানিয়ে তাতে আপনি নিজের মতো করে আর্টিকেল লিখতে পারবেন। আপনার যেই বিষয়ে লিখে ভালো লাগে ঠিক সেই বিষয়েই লিখতে পারবেন।

উদাহরণ স্বরূপে, আপনি যদি ইংরেজি জানেননা তাহলে হিন্দি বা বাংলা কনটেন্ট নিজের ব্লগে লিখতে পারবেন। যেরকম আমি করছি।

ব্লগ বানিয়ে টাকা আয় করার প্রক্রিয়া অনেক সোজা। আপনি চাইলে নিজেই একটি ব্লগ বানিয়ে তাতে আর্টিকেল লিখে তারপর ব্লগে গুগল এডসেন্সের বিজ্ঞাপন দেখিয়ে বা এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

পুরোটাই একটি সহজ এবং লাভজনক মাধ্যম যার দ্বারা আপনারা রেগুলার টাকা আয় করতে পারবেন। Blogging এর মাধ্যমে আর্টিকেল লিখে দেশ বিদেশের হাজার হাজার লোকেরা মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছেন।

আপনি যদি, রেগুলার ভালো ভালো আর্টিকেল লিখেন তাহলে কেবল ৬ থেকে ১০ মাসের মধ্যেই মাসে প্রায় $১০০ থেকে $২০০ মধ্যে আয় করা স্টার্ট করতে পারবেন।

আপনিও যদি blogging এবং কনটেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে অনলাইন ইনকাম করতে চান, তাহলে নিচে এই বিষয় গুলি পড়ুন।

ওপরে যা যা লিংক আমি দিয়েছি, সেগুলিতে গিয়ে আর্টিকেল গুলি পড়লেই আপনারা ব্লগ চালু করার বিষয়টা সম্পূর্ণ বুঝতে পারবেন।

২. অন্যদের ব্লগে আর্টিকেল লিখুন

Paid guest posting এমন একটি সার্ভিস যার মাধ্যমে আপনি অন্যদের ব্লগের জন্য এর আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করতে পারবেন।

আজ, অনেক ব্লগ বা ওয়েবসাইট মালিক রয়েছে যারা নিজেদের ওয়েবসাইটের জন্য আর্টিকেল লেখার সময় পাননা। এবং, তাই তারা তাদের ব্লগে আর্টিকেল লেখার জন্য অন্য ব্লগার বা কনটেন্ট রাইটার দের আমন্ত্রণ জানান।

আপনি যদি তাদের ব্লগে ব্লগের টপিক বা বিষয়ের সাথে জড়িত কনটেন্ট লিখেন তাহলে তারা আপনাকে কিছু টাকা সেই আর্টিকেল লেখার জন্য দেন।

কিন্তু, আপনাকে নিজের থেকে সম্পূর্ণ অরিজিনাল কনটেন্ট লিখতে হবে। তাহলেই, তারা আপনাকে সেই লেখনের জন্য টাকা দিবে। আর্টিকেল লিখার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করার জন্য এরকম প্রচুর সাইট বা ব্লগ গুলো ইন্টারনেটে পেয়ে যাবেন।

আপনি চাইলে সোশ্যাল মিডিয়া যেমন Facebook বা twitter ইত্যাদিতে গিয়েও কনটেন্ট রাইটিং জব খুঁজতে পারেন। Facebook এ অনেক digital marketing-এর সাথে জড়িত পেজ গুলো রয়েছে যেগুলিতে এরকম আর্টিকেল রাইটিং কাজ গুলো পাবেন।

এছাড়া, যা আমি ওপরে আগেই বলেছি, আপনারা LinkedIn-এ একটি একাউন্ট তৈরি করে সেখান থেকে প্রচুর বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং জবস গুলো পেয়ে যাবেন। 

Also read ডিজিটাল মার্কেটিং কি ? এর প্রকার এবং লাভ

৩. Article revenue sharing websites এর মাধ্যমে

আপনারা কি জানেন, আর্টিকেল লিখে ইনকাম করার অনেক ওয়েব সাইট গুলিও রয়েছে যেগুলি ব্যবহার করে ঘরে বসেই অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।

এই ধরণের ওয়েবসাইট গুলিকে “Article revenue sharing site” বলে।

কিন্তু হে, এই ধরণের সাইটে আপনারা যা তা লিখলে হবেনা। আমি ওপরে বলা আর্টিকেল লেখার নিয়ম গুলি ব্যবহার করে একটি আকর্ষণীয় আর্টিকেল লিখতে হবে এবং সেটা আপনার নিজে লেখা অরিজিনাল কনটেন্ট হতে হবে। এক্ষেত্রে আর্টিকেলে টোটাল শব্দের পরিমান ৮০০-১০০০ শব্দের মধ্যে থাকলেই ভালো।

সেই ওয়েবসাইট গুলি যদি আপনার লেখা কনটেন্ট গ্রহণ করেন তাহলে তারা তারপর আপনাকে সেই আর্টিকেলের জন্য টাকা দিবেন।

এই ধরণের পেইড কনটেন্ট রাইটিং সাইট ব্যবহার করে রেগুলার আর্টিকেল লিখলে আপনারা ঘরে বসেই নিয়মিত ২০০$ থেকে ৫০০$ ইনকাম করে নিতে পারবেন। চলুন, সেই ওয়েবসাইট গুলির বেপারে জেনেনেই।

Also readফেসবুক একাউন্ট থেকে কিভাবে টাকা আয় করবেন ?

আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করার ওয়েবসাইট গুলোর নাম:

এই ওয়েবসাইট গুলি আমি নিজেই ব্যবহার করে দেখিনাই। কিন্তু হে, অনেক অনলাইন রিভিউ পোড়ে এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে আমি এই ওয়েবসাইট গুলির ব্যাপারে খোঁজ পেয়েছি। তাই, আপনারা এই সাইট গুলো ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

১. Quora

Quora বর্তমান সময়ের একটি অনেক জনপ্রিয় ও প্রচলিত প্রশ্ন উত্তর ওয়েবসাইট যেখানে ইংলিশ, হিন্দি এবং বাংলা প্রত্যেক ভাষাতেই কনটেন্ট পাবলিশ হয়ে থাকে।

যদি আপনি ইংলিশ, হিন্দি বা বাংলাতে আর্টিকেল লিখে ইনকাম করার কথা ভাবছেন, তাহলে Quora website অবশই ব্যবহার করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার নিজের একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে। আমি নিজের জিমেইল একাউন্ট ব্যবহার করেও লগইন হতে পারেন।

যিহেতু এটা একটি প্রশ্ন উত্তর সাইট, তাই Quora-তে আপনাকে অন্যান্য লোকেদের দ্বারা করা প্রশ্নের উত্তর গুলো টেক্সট কনটেন্ট এর মাধ্যমে দিয়ে দিতে হয়।

কিছু বছর আগেই Quora Website দ্বারা Quora partner program চালু করা হয়েছে। এই প্রোগ্রাম এর মধ্যে এপলাই করার মাধ্যমে আপনি Quora থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

তবে এক্ষেত্রে, আপনাকে নিয়মিত প্রশ্ন করা এবং অন্যদের করা প্রশ্নের উত্তর গুলো জমা দেওয়ার মাধ্যমে সম্পূর্ণ ভাবে একটিভ থাকতে হবে। যদি লোকেরা আপনার প্রশ্ন এবং উত্তর গুলো পছন্দ করে থাকেন তাহলে আপনাকে partner program-এর সাথে যুক্ত হওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়।

টাকা ইনকামের জন্য আপনার কি কি লাগবে:

  • আপনার কনটেন্ট গুলো high-quality এবং original হতে হবে।
  • আপনার কিছু নির্দিষ্ট সংখ্যক দর্শন (views) থাকা জরুরি।
  • নির্দিষ্ট সংখ্যক ফলোয়ার্স থাকা জরুরি।
  • আপনার বয়েস কমেও ১৮ বছর হতে হবে।

২. Blogger.com

এটা এমন একটি অনলাইন প্লাটফর্ম যেখানে আপনি নিয়মিতই আর্টিকেল লিখে হাজার-লক্ষ টাকা প্রত্যেক মাসে ইনকাম করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনাকে নিজের একটি ফ্রি ব্লগ সাইট তৈরি করে সেখানে আর্টিকেল গুলি লিখতে হবে।

বিশ্বজুড়ে লক্ষ লক্ষ লোকেরা এই Blogger Platform এর ব্যবহার করে প্রচুর টাকা ইনকাম করে নিচ্ছেন।

যেই বিষয়ে আপনার ভালো জ্ঞান রয়েছে সেই বিষয় গুলো নিয়ে নিজের ব্লগে আর্টিকেল লিখে পাবলিশ করতে হবে। আপনি যেকোনো বিষয়েই আর্টিকেল লিখতে পারবেন। যেমন, খাবারের রেসিপি, কবিতা, প্রযুক্তি, গল্প ইত্যাদি।

আপনার তৈরি করা ব্লগে যখন নিয়মিত ভিউস আসতে শুরু হবে তখন আপনি বিভিন্ন মাধ্যমে নিজের ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

যেমন, বিজ্ঞাপন দেখিয়ে বা এফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে। তাই, চেষ্টা করলে একটি ফ্রি ব্লগ থেকে টাকা আয় করাটাও সম্ভব।

Blogger-এ ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনার কাছে একটি জিমেইল একাউন্ট থাকতে হবে। ভালো ভালো কনটেন্ট গুলো লিখে পাবলিশ করতে পারলে প্রায় ৬ থেকে ৮ মাস পর থেকেই ব্লগিং করে প্রতিদিন ১০০ থেকে ৫০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

৩. Fiverr.com

এটা হলো একটি প্রচলিত ও জনপ্রিয় ফ্রীল্যানসিং মার্কেটপ্লেস ওয়েবসাইট যেখানে কাজ করা এবং কাজ করানো উভয় পক্ষ উপস্থিত থাকছে। মানে, আপনি চাইলে যেকোনো কাজ করানোর জন্য বিভিন্ন ফ্রিল্যান্স লোকেদের এখানে পেয়েযাবেন। আবার, আপনি যদি নিজে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চান, তাহলেও এখানে নানান ধরণের ওয়ার্ক গুলো পেয়ে যাবেন।

Fiverr-এর মধ্যে আপনি কনটেন্ট রাইটিং রিলেটেড প্রচুর কাজ গুলো পেয়ে যাবেন। ভিন্ন কোম্পানি এবং ওয়েবসাইট গুলো আর্টিকেল লেখানোর উদ্দেশ্যে এখানে ভালো এবং দক্ষ কনটেন্ট রাইটার দের খুঁজে থাকেন। তাই, আপনি এখানে প্রচুর কন্টেন্ট রাইটিং জব গুলো নিয়মিত পাবেন।

এই ওয়েবসাইটের একটি অনেক বিশেষ কথা রয়েছে। এখানে, যেকোনো কাজ করার জন্য মিনিমাম 5$ অবশই দেওয়া হয়। আমাদের দেশের টাকায় 5$ কনভার্ট করলে এটি একটি অনেক ভালো অংকের টাকা বলে আমি মনে করি।

যখন আপনি কনটেন্ট রাইটার হিসেবে Fiverr-এর মধ্যে নিজের একটি ভালো ছবি তৈরি করে নিবেন, তখন 5$ থেকেও অধিক টাকা প্রত্যেক কাজের জন্য নিতে পারবেন।

৪. Upwork.com

এটাও একটি অনেক জনপ্রিয় ফ্রীল্যাংসিং ওয়েবসাইট যেখানে আপনারা প্রচুর কন্টেন্ট রাইটিং কাজ গুলো পাবেন। তবে মনে রাখবেন, নিয়মিত কাজ পাওয়ার জন্য এখানেও আপনাকে একজন দক্ষ কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিজের ভালো ছবি তৈরি করতে হবে। 

আপনি যদি অন্য কোনো জায়গাতেই আর্টিকেল লিখার কাজ পাচ্ছেননা তাহলে Upwork-এর ব্যবহার করুন এবং এখানে কনটেন্ট রাইটিং ওয়ার্ক শুরু করে নিয়মিত টাকা রোজগার করুন।

একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করে আপনি এখানে কন্টেন্ট রাইটিং ওয়ার্ক গুলো খুঁজতে পারবেন। সময় মতো কাজ গুলো সম্পূর্ণ করে জমা দিতে পারলে আপনাকে ভালো রেটিং দেওয়া হবে। ফলে, ভবিষ্যতে আরো কাজ পাওয়ার প্রচুর সম্ভাবনা থাকবে। 

সেরা বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং ওয়েবসাইট গুলোর নাম:

এখন নিচে আমি আপনাদের কয়টি ওয়েবসাইটের নাম বলবো যেগুলোতে গিয়ে বাংলা আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করা যাবে। দিয়ে দেওয়া ওয়েবসাইট গুলোতে গিয়ে আপনাকে একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করে তারপর আর্টিকেল লিখে জমা দিতে হয়। 

১. Techtunes.io – Best Bangla Article Writing Site

আপনি যদি কোনো ঝামেলা ছাড়া সরাসরি বাংলা কন্টেন্ট লিখে আয় করতে চাচ্ছেন তাহলে আপনার জন্য সেরা ওয়েবসাইট হবে “Techtunes”, বর্তমানে অনেকেই এখানে নিয়মিত আর্টিকেল লিখে পাবলিশ করছেন এবং টাকা ইনকাম করছেন। 

এখানে আপনি নিজের পছন্দ হিসেবে যেকোনো বিষয়ে আর্টিকেল লিখতে পারবেন। এছাড়া, এখানে আপনারা ‘Video Tune’ এবং ‘Audio Tune’ গুলিও পাবলিশ করতে পারেন।

Techtunes থেকে আপনারা প্রত্যেক আর্টিকেলের জন্য ভালো মানের টাকা ইনকাম করে নিতে পারবেন। জানা গেছে যে প্রত্যেক আর্টিকেলের জন্য এখানে ১০০ থেকে ২৫০০ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন।

২. Grathor.com – Bangla content writing

বাংলাতে আর্টিকেল লেখার মাধ্যমে টাকা আয় করার সুযোগ দেওয়া ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে Grathor.com, অনেক তাড়াতাড়ি জনপ্রিয়তা লাভ করছে। এখানে আপনাকে আপনার লেখা আর্টিকেল গুলির কুয়ালিটি দেখে সেই হিসেবে পেমেন্ট করা হবে।

এছাড়া, এখানে আপনাকে প্রত্যেকটি আর্টিকেল কমেও ৩৫০ ওয়ার্ড এর সাথে লিখতে হবে। এখানেও আপনারা News, Tutorial, Stories, poems ইত্যাদি যেকোনো বিষয়ে কনটেন্ট লিখে জমা দিতে পারবেন।

যদি আপনি বাংলা গল্প এবং কবিতা লিখে টাকা ইনকাম করতে চান, তাহলে এই ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারবেন। সাধারণত এখান থেকে আপনারা কমেও প্রায় ৮ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে প্রত্যেক আর্টিকেলের জন্য পেয়ে থাকেন। তবে, যদি আপনি একজন VIP member, তাহলে ১০ থেকে ১০০ টাকার মধ্যে ইনকাম করতে পারবেন।

৩. Incometunes.com

এই ওয়েবসাইটে মূলত ইনকাম রিলেটেড বিষয় গুলো নিয়ে আর্টিকেল পাবলিশ করা হয়। এখানে আর্টিকেল পাবলিশ করে প্রতিটি আর্টিকেল পোস্টের জন্য ১০ টাকা করে আয় করতে পারবেন। টোটাল ১০০ টাকা জমা হলে আপনি ইনকাম করা টাকা তুলতে পারবেন।

তবে, যদি আপনার লিখা আর্টিকেল গুলো ইউনিক হয় এবং ৫০০ ওয়ার্ডের হয়ে থাকে, তাহলে প্রতি পোস্টে ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া যেতে পারে।

মনে রাখবেন, আপনার প্রতিটি পোস্ট কমেও ৩০০ ওয়ার্ড এর হতে হবে এবং আর্টিকেলের হেডলাইন আকর্ষণীয় রাখাটা জরুরি। এছাড়া, পোস্ট এর মধ্যে একটি ইমেজ যোগ করতে হবে এবং ট্যাগস এর ব্যবহার করতে হবে।

এই ওয়েবসাইটে আপনারা অন্যদের রেফার করে ৫ টাকা প্রতি রেফার এর জন্য আয় করতে পারবেন। এছাড়া, সাইটে ডেইলি ভিজিট করার জন্য এবং পোস্টে কমেন্ট করার জন্য ০.১০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Some other websites

এগুলি ছাড়া আরো অনেক সাইট রয়েছে আর্টিকেল লিখে ইনকাম করার জন্য। যেমন –

ওপরে বলা নিয়ম বা ওয়েবসাইট গুলি ব্যবহার করে আপনারা আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করার সুযোগ পেয়ে যাচ্ছেন।

মনে রাখবেন, এই ওয়েবসাইট গুলি আমি নিজেই ব্যবহার করে দেখিনাই। ইন্টারনেটের বিভিন্ন মাধ্যম এবং রিভিউ গুলো পড়ার পর আমি এই সাইট গুলির বেপারে আপনাদের জানিয়েছি।

তাই, ওপরে বলে দেওয়া নিয়ম এবং ওয়েবসাইট গুলোর মাধ্যমে যদি আপনি আর্টিকেল লিখে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পেরেছেন তাহলে নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

 FAQ: Earn Money Writing Articles:

Q. কনটেন্ট লিখে কিভাবে আয় করা যায় ?

কনটেন্ট লিখে আয় করার জন্য আপনি Fiverr, Upwork ইত্যাদির মতো ফ্রীল্যাংসিং ওয়েবসাইট গুলোর ব্যবহার করতে পারবেন, নিজের একটি ব্লগ সাইট তৈরি করে সেখানে আর্টিকেল পাবলিশ করে ইনকাম করতে পারবেন বা সেরা আর্টিকেল রাইটিং সাইট গুলিতে গিয়ে কনটেন্ট লিখে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

Q. সেরা বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং ওয়েবসাইট কোনগুলি ?

আমার হিসেবে বাংলাতে আর্টিকেল লিখে নিয়মিত ইনকাম করার ক্ষেত্রে incometunes.com, grathor.com এবং Techtunes.io সেরা।

Q. বাংলায় ব্লগ লিখে আয় করা কি বর্তমানে সম্ভব ?

অবশই, বর্তমান সময়ে বাংলা কনটেন্ট এর চাহিদা এবং জনপ্রিয়তা প্রচুর বৃদ্ধি পেয়েছে। আপনি নিজের একটি বাংলা ব্লগ তৈরি করে সেখানে বাংলাতে আর্টিকেল লিখে নিয়মিত রোজগার করতে পারবেন।

Q. আর্টিকেল লিখে কত টাকা ইনকাম করা যাবে ?

আপনি যদি নতুন করে কনটেন্ট রাইটিং এর কাজ শুরু করছেন, তাহলে শুরুতে প্রত্যেক আর্টিকেলের জন্য প্রায় ২০০ থেকে ৩৫০ টাকা আয় করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা

আশা করছি, ঘরে বসে কিভাবে অনলাইনে আর্টিকেল লিখে আয় করবেন সেই বিষয়ে সম্পূর্ণটা ভালো করে বুঝতে পেরেছেন। এছাড়া, ওপরে বলা বাংলা আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করার ওয়েবসাইট গুলি কিন্তু অনেকেই ব্যবহার করছেন এবং নিয়মিত রোজগার করছেন। তবে, আপনি কতটা ইনকাম করতে পেরেছেন সেটা নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

এমনিতে, বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং জব ওয়েবসাইট কিন্তু তেমন একটা বেশি নেই। তাই, যেগুলোতে কাজ করে অনেকেই ইনকাম করতে পেরেছেন, কেবল সেই সাইট গুলির বিষয়ে আমি আজকের আর্টিকেলের মধ্যে বলেছি। 

26 thoughts on “অনলাইনে আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করুন – দিনে ২০০-৫০০ ইনকাম”

  1. Avatar

    আমি নিজের দক্ষতায় অনেক সুন্দর কবিতা, গল্প কৌতুক, ইত্যাদি লিখতে পারি,, আমি কি এসব লিখে আয় করতে পারবো,,

    1. Avatar

      পারবেন, আপনি যেকোনো বিষয়ে কনটেন্ট লিখেই ইনকাম করতে পারবেন।

  2. Avatar

    আমি আপনাদের এখানে পেইড ভাবে কাজ করতে চাই । আমার ডিমান্ড খুব কম , তবে কুয়ালিটি ভালো । আমি এস ই ও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখতে পারি । আমি কোথায় যোগাযোগ করব ?

  3. Avatar

    আপনার লেখার ধরণ অনেক ভালো। সবকিছু খুলে লিখেন। ধন্যবাদ।

  4. Avatar

    আমি কিভাবে মোবাইল দিয়ে এই কন্টেন্টরাইটিং করতে পারবো?

    1. Avatar

      মোবাইল দিয়ে এমনিতে অনেকেই কনটেন্ট লিখেন। এই ক্ষেত্রে, আপনি WPS office android app বা Microsoft word app ব্যবহার করতে পারেন।

      1. Avatar

        আমি বাংলা ভালো টাইপ করতে পারি,, আমার জন্য কোন কাজ আছে

  5. Avatar

    আপনার লেখা গুলো পড়ে ভালো লাগলো। কিন্তু কত কন্টেন্ট লিখলে এডসেন্সে আবেদন করা যাবে ?

    1. Avatar
      bdtechlite.com

      এডসেন্স পাওয়ার জন্য আর্টিকেলের কোনো নির্দিষ্ট সংখ্যা নেই। তবে আপনি 500+ শব্দের 25+ আর্টিকেল লিখে এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারেন।

  6. Avatar

    ধন্যবাদ আর্টিকেলটি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

  7. Avatar

    আপনার কথা গুলি খুবই ভালো লাগলো ভাই, এরকম একটি পোস্ট করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

  8. Avatar
    Sandip Kumar Das

    ভাই আমার blogএর blogspot domainয়ে আমার AdSense approve হয়েছে এখন আমি কী করব নতুন করে domain কিনব কী না blogspot রাখলে ভাল হবে । যদি কিনতে হয় কোন কিনলে ভাল হবে

    1. Avatar

      আনি যদি নিজের ব্লোগ্গিং ক্যারিয়ার নিয়ে সিরিয়াস, তাহলে একটি। কম বা যেকোনো top level ডোমেইন অবশই কিনুন। ফ্রি ডোমেইন, সেরকম ট্রাফিক গুগল থেকে আয় করতে পারেনা।

      1. Avatar

        ভাই খুব ভালো লেগেছে।
        আমি প্রতিনিয়ত আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট পড়ি।
        এবং সব সময় আপনার আর্টিকেল পড়েই যাবো।
        এতো এতো ভালো কন্টেন্ট পাবলিশ করার জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top