কিভাবে মোবাইলে ইন্টারনেটের গতি বৃদ্ধি করবেন – (ডাটা স্পিড বুস্ট)

মোবাইলে যখন ইন্টারনেট অনেক স্লো কাজ করে তখন আমাদের কাছে বিরক্ত হওয়া ছাড়া আর কোন উপায় থাকেনা। এতে আপনার অনলাইন ব্রাউসিং অভিজ্ঞতা খারাপ হওয়ার সাথে সাথে আপনার পছন্দের লেটেস্ট ওয়েব সিরিজ দেখতেও প্রচুর সমস্যা হয়ে থাকে। এছাড়া, অনেক সময় অনলাইন শপিং এবং বিভিন্ন দরকারি ব্যাংকিং ট্রান্সেকশন গুলো করার ক্ষেত্রেও অনেক সমস্যা হয়ে থাকে।

ইন্টারনেট স্পিড বৃদ্ধি
মোবাইলে ইন্টারনেট স্পিড বৃদ্ধির উপায়

এমনিতে আপনার মোবাইলের ইন্টারনেটের দ্রুততা বিভিন্ন বিষয় গুলোর ওপর নির্ভর করতে পারে। যেমন, আপনার এলাকাতে নেটওয়ার্ক কভারেজ কেমন, নেটওয়ার্ক কনজেশন এবং দিনের কোন সময় ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন।

যদি আপনি অনেক স্লো ইন্টারনেট কানেকশন এর সমস্যায় ভুগছেন তাহলে এখন কি করতে পারবেন ? কিভাবে মোবাইল ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ানো যাবে ?

চিন্তা নেই, এমন কিছু দারুন উপায় অবশই রয়েছে যেগুলো অনুসরণ করে আপনারা ইন্টারনেট এর গতি বৃদ্ধি করতে পারবেন। এই উপায় গুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনারা দুগুণ দ্রুততার সাথে ডাউনলোডিং এবং আপলোডিং এর মতো কাজ গুলো করতে পারবেন।

চলুন তাহলে, প্রথমে আমরা জেনেনেই কিভাবে আপনি জানবেন আপনার মোবাইল ইন্টারনেট ডাটা স্পিড কত এবং তারপর আমরা মোবাইলের ডাটা স্পিড বাড়ানোর উপায় গুলো জেনে নিবো।

কিভাবে মোবাইল ইন্টারনেটের গতি পরীক্ষা করবেন ?

ইন্টারনেট এর মধ্যে আপনারা এরকম কনেকে অ্যাপস এবং ওয়েবসাইট গুলো পাবেন যেগুলো ব্যবহার করে সহজেই নিজের mobile internet speed পরীক্ষা করে দেখতে পারবেন। এরকম একটি ভালো অ্যাপ / ওয়েবসাইট এর নাম হলো, Ookla Speedtest.

Ookla Speedtest ব্যবহার করে নিজের মোবাইল ইন্টারনেট স্পিড পরীক্ষা করার জন্যে নিচে বলে দেওয়া ধাপ গুলো অনুসরণ করুন।

১. সরাসরি Speedtest.net ওয়েবসাইটে ভিসিট করুন বা চাইলে মোবাইলের app store থেকে Ookla Speedtest app ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

২. অ্যাপটি ওপেন করার পর আপনাকে “GO” বাটনে সরাসরি click করতে হবে।

৩. এখন, অ্যাপ এর দ্বারা আপনার মোবাইল ইন্টারনেট এর download এবং upload speeds পরীক্ষা করে দেখা হবে।

৪. পরীক্ষা সমাপ্ত হওয়ার পর, আপনাকে আপনার ইন্টারনেট এর দ্রুততা দেখিয়ে দেওয়া হবে।

তাহলে, পরীক্ষা করার পর এখন যদি আপনি দেখছেন যে আপনার ইন্টারনেট স্পিড সত্যি অনেক স্লো, তাহলে নিচে বলে দেওয়া DNS server পরিবর্তনের ট্রিকটি ব্যবহার করে দেখুন। এই মাধ্যমে ইন্টারনেট স্পিড বুস্ট হতে লাগে।

DNS changer app-এর দ্বারা মোবাইল ইন্টারনেট গতি বাড়ান

Google Play Store-এর মধ্যে আপনারা প্রচুর DNS changer apps গুলো পেয়ে যাবেন। যেমন, DNS Changer, 1.1.1.1: Faster & Safer Internet এবং Google DNS Changer. আপনি যেকোনো একটিকে নিজের মোবাইল download ও install করুন। অ্যাপ ইনস্টল করার পর নিচে দেওয়া স্টেপ গুলো অনুসরণ করুন।

১. App install করার পর আপনাকে সেটাকে নিজের মোবাইলে open করতে হবে।

২. এখন app-টি আপনার থেকে মোবাইলের নেটওয়ার্ক সেটিংস এক্সেস করার ক্ষেত্রে কিছু অনুমতি (permissions) চাইবে।

৩. সরাসরি অ্যাপটি যা যা জরুরি অনুমতি গুলো চাইছে, সেগুলো দিয়ে দিন।

৪. এখন আপনি যেই DNS server-টি ব্যবহার করতে চাইছেন সেটা সিলেক্ট করুন।

৫. আপনি চাইলে অ্যাপ এর দ্বারা দিয়ে দেওয়া ডিফল্ট DNS সার্ভারটি ব্যবহার করতে পারেন। বা, DNS সার্ভার এর মধ্যে ম্যানুয়ালি IP address যোগ করার অপশনও আপনার কাছে থাকছে।

৬. এখন আপনি অ্যাপ এর মধ্যে থাকা আলাদা আলাদা DNS সার্ভার গুলোকে একে একে ব্যবহার করে দেখুন।

৭. আপনি প্রত্যেকটি DNS সার্ভার সিলেক্ট করে তাদের স্পিড দেখে নিতে পারবেন। এবং, যেই সার্ভার সব থেকে ফাস্ট কাজ করবে সেটা সিলেক্ট করে নিতে পারেন।

৮. “Start” এর মধ্যে click করার মাধ্যমে আপনি সিলেক্ট করা নতুন DNS settings-টি এক্টিভেট করতে পারবেন।

সবটা হওয়ার পর, আপনি আবার Ookla Speedtest app-এর মধ্যে গিয়ে ইন্টারনেট এর দ্রুততা চেক করে দেখুন। আপনার মোবাইল ইন্টারনেট স্পিড বেড়েছে না কমেছে সেটা নতুন করে পরীক্ষা করার পর বুঝতে পারবেন।

তবে মনে রাখবেন, আপনাকে একটি ভালো ও নিরাপদ DNS সার্ভার ব্যবহার করা দরকার যাতে আপনার অনলাইন নিরাপত্তা এবং গোপনীয়তা নিয়ে কোনো সমস্যা না হয়ে থাকে ।

মোবাইল ইন্টারনেট দ্রুততা বৃদ্ধির অন্যান্য উপায়

DNS server চেঞ্জ করা ছাড়াও অন্যান্য আরো দারুন কিছু উপায় রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে মোবাইল ইন্টারনেট স্পিড বুস্ট করা যাবে।

১. Disable auto-updates:

যখন আপনার মোবাইলের অটোমেটিক অ্যাপস আপডেট অন থাকবে তখন অ্যাপস গুলো নিজে নিজেই ইন্টারনেট ব্যবহার করে আপডেট হতে থাকে। এতে, প্রচুর মোবাইল ডেটা ব্যবহার হওয়ার সাথে সাথে ইন্টারনেট দ্রুততার ওপরেই প্রভাব পরে থাকে। মোবাইলে স্লো ইন্টারনেট এর এটাও একটি অনেক বড় কারণ। তাই, আমি পরামর্শ দিবো apps এর জন্যে automatic updates সবসময় অফ রাখবেন।

২. Close background apps:

আপনার মোবাইলে নানান ধরণের অ্যাপস গুলো রয়েছে যেগুলোকে ওপেন করে ব্যবহার করার পর সঠিক ভাবে বন্ধ করার কথা আপনার মনে থাকেনা। আর এই অ্যাপস গুলো প্রত্যেক দিন প্রত্যেক মুহূর্ত আপনার মোবাইলের ব্যাকগ্রাউন্ডে সক্রিয় থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকে। একসাথে একাধিক অ্যাপস গুলো ওপেন করে ব্যবহার করার ফলে আপনার ইন্টারনেট স্পিড অবশই কমে আসবে। তাই, যেই অ্যাপস গুলো আপনি ব্যবহার করছেননা সেগুলোকে বন্ধ করুন। এতে, মোবাইলের RAM ফ্রি হবে এবং ইন্টারনেট স্পিড বাড়বে।

৩. Turn on data saving mode:

স্মার্টফোনে থাকা data saving mode-টি অন করার দরুন আপনি আপনার মোবাইলের ডাটাপ্যাক সেভ করার সাথে সাথে ইন্টারনেট এর দ্রুততা বাড়িয়ে নিতে পারবেন। কারণ, data saving mode চালু করার পর আপনার মোবাইলে থাকা অ্যাপস গুলো ব্যাকগ্রাউন্ডে ইন্টারনেট ব্যবহার করার সুযোগ পায়না। এবং তাই, এর পর যখনই আপনি ইন্টারনেট ব্যবহার করবেন সম্পূর্ণ স্পিড এর সাথে ব্যবহার করতে পারবেন।

৪. Use Lite version apps

এই উপায় ব্যবহার করলে আপনার মোবাইল ডাটার স্পিড বৃদ্ধি হবেনা যদিও স্লো ইন্টারনেটের সাথে সুবিধাজনক ভাবে ইন্টারনেট ব্রাউসিং করতে পারবেন। বর্তমান সময়, প্রায় প্রত্যেকটি জনপ্রিয় অ্যাপ গুলোর একটি লাইট ভার্সন (Lite Version) অবশই থাকে। এই লাইট ভার্সন অ্যাপ গুলো অনেক কম ইন্টারনেট ডেটা ব্যবহার করে থাকে এবং স্লো ইন্টারনেট এর সাথেও অনেক ভালো ও সুবিধাজনক ভাবে ইন্টারনেট ব্রাউস করার সুবিধা দিবে। এছাড়া, আপনি Opera Mini-র মতো একটি অনেক ফাস্ট ওয়েব ব্রাউজার ব্যবহার করতে পারেন।

অবশই পড়ুনমোবাইলে ইন্টারনেট ডাটা সেভ করার দারুন ৭টি উপায়

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top