মোবাইলে ইন্টারনেট ডাটা সেভ করার দারুন ৭টি উপায়

Last updated on May 9th, 2024 at 04:00 pm

বর্তমান সময়ে সকাল থেকে বিকেল এবং রাত পর্যন্ত ক্রমাগত ভাবে আমরা ইন্টারনেট এর সাথে সংযুক্ত হয়ে থাকি। ইন্টারনেট এর কারণে আমাদের জীবন আগের থেকে অনেক সরল ও সোজা হয়ে পড়েছে। সোশ্যাল মিডিয়াতে ব্যস্ত থাকা থেকে শুরু করে বিভিন্ন OTT প্লাটফর্ম গুলো ওয়েব সিরিজ দেখা পর্যন্ত বিনোদন এর বিভিন্ন উপায় এই ইন্টারনেট এর কাছে রয়েছে।

তবে, নিজের মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহার করার ক্ষেত্রে একটি বিশেষ সমস্যা আমাদের প্রত্যেকের সামনেই চলে আসে। আর সেটা হলো, অনেক তাড়াতাড়ি মোবাইলের ইন্টারনেট প্যাক বা ডাটা শেষ হয়ে যায়। আর তাই কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস গুলো অনুসরণ করে কিভাবে মোবাইলে ইন্টারনেট ডাটা সেভ করা যাবে, এই বিষয়ে আমরা আপনাদের বলতে চলেছি।

মোবাইলের ইন্টারনেট ডাটা সেভ করার উপায়

কিভাবে মোবাইলে ইন্টারনেট ডাটা সেভ করবেন
How to reduce internet data usage in mobile ?

আপনার মোবাইল অনেক তাড়াতাড়ি ইন্টারনেট ডাটা শেষ হওয়ার কারণ অনেক কিছুই হতে পারে। মানে, একটি সাধারণ অ্যাপ বা একাধিক অ্যাপ গুলোও তাড়াতাড়ি নেট প্যাক শেষ করার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তবে, এই আর্টিকেল আমরা কারণ গুলোর বিষয়ে বিশেষ কথা বলতে যাবোনা, তবে কিছু সেরা ইন্টারনেট ডাটা সেভ করার টিপস ও নিয়ম গুলোর বিষয়ে জানবো।

১. Software Auto update বন্ধ রাখুন

যদি আপনি আপনার মোবাইলে software নিজে নিজে আপডেট হওয়ার ফীচারটি চালু করে রেখেছেন তাহলে সেই অপশনটি এখনই বন্ধ করতে হবে। কারণ, যখন এই automatic update option-টি enabled করা থাকবে তখন মোবাইলে যেকোনো নতুন update চলে আসলে সেটা নিজে নিজেই download হতে থাকবে।

আর এর কারণে ব্যাকগ্রাউন্ডে আপনার ইন্টারনেট ডাটা ব্যবহার হয়ে কমতে থাকবে। এমনিতে, সফটওয়্যার অটোম্যাটিক আপডেট চালু রাখাটা ভালো যদিও নিজের মোবাইলে ইন্টারনেটের ব্যবহার সীমিত রাখার জন্যে আপনাকে এই অপসন ডিসএবল রাখা উচিত।

২. Apps Auto Updates বন্ধ রাখুন

আমাদের মোবাইলে এমনিতে নানান ধরণের apps গুলো থেকে থাকে। আর বেশিরভাগ apps গুলোর ক্ষেত্রেই Automatic Updates-এর option-টি enable রাখা হয়। এতে, অ্যাপ এর সাথে জড়িত যখনি কোনো আপডেট চলে আসে তখন সেই আপডেট কোনো নোটিফিকেশন ছাড়া নিজে নিজে মোবাইলে ডাউনলোড হতে শুরু করে। ফলে আপনার অজান্তেই মোবাইলের ডাটা গুলো খরচ হতে থাকে।

তাই, যদি আপনি মোবাইলের ডাটা সেভ করতে চাইছেন, তাহলে এই automatic apps update-এর অপশনটি disable করতে হবে। আর চাইলে, যখনই আপনি কোনো ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক এর সাথে মোবাইল সংযোগ করবেন তখন এই অ্যাপস গুলোকে আপডেট করে নিতে পারবেন। এতে, অনেক ভালো মানের মোবাইল ডাটা আপনি বাঁচাতে পারবেন।

Android mobile-এ automatic apps update option বন্ধ করার জন্যে আপনাকে নিজের মোবাইলে, Google Play Store ওপেন করতে হবে। এবার চলে যেতে হবে, Settings >> select Network preferences >> Auto-update apps.

এখন দিয়ে দেওয়া option থেকে “Don’t auto-update apps” বা “Over Wi-Fi only“, যেকোনো একটি সিলেক্ট করতে পারেন।

৩. Low quality video streaming

বর্তমান সময়ে আমরা আমাদের মোবাইলে YouTube থেকে শুরু করে বিভিন্ন OTT platform, যেমন Zee5, Hotstar, Netflix ইত্যাদিতে নানান ওয়েব সিরিজ এবং সিনেমা গুলো দেখে থাকি। আর ভিডিও দেখার সময় আমাদের ভিডিও কোয়ালিটি নিজে নিজেই High quality-তে সেট হয়ে থাকে। মনে রাখবেন High quality ভিডিও স্ট্রিমিং এর কারণেও কিন্তু অনেক তাড়াতাড়ি মোবাইলের ডাটা প্যাক শেষ হয়ে আসে। তাই, এই অ্যাপস গুলোতে ভিডিও দেখার সময় সবসমই “মিডিয়াম ভিডিও কোয়ালিটি” সেট করবেন।

High quality এবং medium quality ভিডিও স্ট্রিমিং এর মধ্যে বিশেষ পার্থক্য বুঝতে পারবেননা। তবে, এভাবে প্রচুর ইন্টারনেট ডাটা সেভ করতে পারবেন। আর যদি low quality video-র সাথে স্ট্রিমিং করে থাকেন, তাহলে আপনার মোবাইলের ডাটা একেবারেই কম ব্যবহার হয়ে থাকবে।

৪. App Background Data সীমিত রাখা

আমি আগেই বলেছি, আমাদের মোবাইলের বেশিরভাগ ইন্টারনেট ডাটা খরচ হয় এমন বিভিন্ন অ্যাপস গুলোর কারণে যেগুলো ইন্টারনেট ডেটা ব্যাকগ্রাউন্ডে ব্যবহার করে থাকে। তাই, ইন্টারনেট ডাটা সেভ করার জন্যে আপনাকে এই অ্যাপস গুলোকে অপ্রয়োজনীয় ভাবে ইন্টারনেট ব্যবহার করার থেকে দূরে রাখতে হবে। এতে, যখনি আপনি অ্যাপটি ব্যবহার করে সেটাকে বন্ধ করে দিবেন, তারপর সে আর আপনার অজান্তে ইন্টারনেট ডেটার ব্যবহার করতে যাতে না পারে। এই মাধ্যমে আপনার মোবাইল থেকে খরচ হওয়া ইন্টারনেট ডেটার পরিমান অনেকটা কমে আসবে।

  1. সবচেয়ে আগেই আপনাকে নিজের মোবাইলের settings-এর মধ্যে চলে যেতে হবে।
  2. এখন apps-এর option-এর মধ্যে চলে যেতে হবে।
  3. Apps-এর মধ্যে আপনারা app management-এর অপসন দেখবেন যেখানে click করতে হবে।
  4. এখন আপনার মোবাইলে যতগুলো অ্যাপস আছে, সব আপনারা দেখতে পাবেন।
  5. আপনি যেই অ্যাপস এর Background Data use বন্ধ করতে চান সেই apps-এর মধ্যে click করুন।
  6. এখন Data Usage-এর একটি option দেখবেন, সেখানে click করুন।
  7. এখানেই আপনারা Background Data-র একটি অপসন দেখতে পাবেন যেটাকে off / disable করতে হবে।

এভাবেই আপনারা নিজের মোবাইলে থাকা যেকোনো অ্যাপস এর Background Data Restrict করতে পারবেন। আপনি নিজের মোবাইলে যেই অ্যাপস গুলো নিয়মিত কিছুক্ষন পর পর ব্যবহার করেন, সেই অ্যাপস গুলোর জন্যে অবশই Background Data ব্যবহার করার option-টি বন্ধ করে রাখবেন। এছাড়া, চাইলে মোবাইলের প্রত্যেকটি অ্যাপস এর ক্ষেত্রে Background Data ব্যবহার করার option-টি বন্ধ রাখতে পারেন। এতে, আপনি প্রচুর মোবাইল ইন্টারনেট ডাটা সেভ করতে পারবেন।

৫. WhatsApp-এ Internet Data Save করুন

আমাদের প্রত্যেকের মোবাইলেই WhatsApp অবশই আছে, এবং প্রত্যেক দিন নানান contacts এবং groups গুলোর থেকে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ এর মধ্যে নানান media file গুলো চলে আসে। এদের মধ্যে এরকম video বা image file গুলিও থাকে যেগুলো আমরা কখনো খুলেও দেখিনা। তবে, একটি স্মার্টফোনে হোয়াটসঅ্যাপ এর দ্বারা নিজে নিজে হওয়া Media File Automatic Download-এর কারণে প্রচুর ইন্টারনেট ডাটা খরচ হয়ে থাকে।

তাই নিজের হোয়াটসঅ্যাপ প্রোফাইলে আপনাকে automatic media download-এর option-টি চেঞ্জ করে manually-তে সেট করতে হবে। এতে, হোয়াটসঅ্যাপে চলে আসা যেকোনো মিডিয়া ফাইল গুলি নিজে নিজে ডাউনলোড হয়ে ইন্টারনেট ডাটা খরচ করতে পারবেনা।

WhatsApp-এর মধ্যে থাকা Data Setting অপশনের মাধ্যমে আপনারা এটা করতে পারবেন।

  1. সবচে আগেই আপনাকে নিজের mobile থেকে WhatsApp ওপেন করতে হবে।
  2. এবার চলে যেতে হবে Storage and data-এর অপশনে।
  3. এখানে আপনারা Media auto download-এর নিচে কিছু options দেখতে পাবেন।
  4. এবার সরাসরি “When using mobile data” অপশনে click করুন।
  5. এখন, photos, audio, video, documents প্রত্যেক অপসন গুলোতে untick করুন।

কেবল এতটুকু করলেই, আপনার মোবাইলে WhatsApp automatic media download-এর কারণে হওয়া ডেটার খরচ একেবারেই কমে যাবে।

৬. YouTube Video Download করুন

আমরা প্রত্যেকেই নিজেদের স্মার্টফোনে YouTube অবশই ব্যবহার করে থাকি। আর, YouTube-এর মধ্যে ভিডিও দেখার সময় আমাদের প্রচুর ইন্টারনেট ডাটা খরচ হওয়াটা স্বাভাবিক। এক্ষেত্রে, আপনি দুটো কাজ করতে পারেন যাতে কম ইন্টারনেট ডাটা ব্যবহার হয়ে থাকে। প্রথমত, আপনি চাইলে যেকোনো ইউটিউবের ভিডিও দেখার সময় সেটাকে medium বা low quality-র settings এর সাথে দেখুন।

এবং দ্বিতীয়ত, আপনি চাইলে প্রত্যেকটি ভিডিও আগে ডাউনলোড করুন এবং তারপর সেগুলোকে দেখুন। YouTube video গুলো সরাসরি অনলাইনে দেখলে তুলনামূলক ভাবে প্রচুর ইন্টারনেট ডাটা ব্যবহার হয়ে থাকে। এছাড়া, আগে ডাউনলোড করে রাখলে সেই ভিডিও গুলোতে অপ্রয়োজনীয় বিজ্ঞাপন গুলোও দেখানো হয়না। YouTube-এর যেকোনো ভিডিওর নিচেই আপনারা download link পেয়ে যাবেন।

৭. Data Limit-এর ব্যবহার

আপনি আপনারা mobile internet data সেভ করার জন্যে মোবাইলে থাকা Data Limit অপসন টির ব্যবহার অবশই করতে পারবেন। এই feature-টি চালু করার পর আপনি আপনার সেট করা ডাটা লিমিট হিসেবেই মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন। মোবাইলে থাকা settings >> mobile network >> data usage-এর মধ্যে গিয়ে Data usage limit সেট করতে পারবেন।

ধরুন, আপনি আপনার মোবাইলে 500MB পর্যন্ত ইন্টারনেট ডাটা ব্যবহার করার লিমিট সেট করে রাখলেন। এক্ষেত্রে, এখন আপনি কেবল 500MB পর্যন্ত internet data নিজের মোবাইলে ব্যবহার করতে পারবেন। এর থেকে বেশি ডাটা ব্যবহার করতে হলে আপনাকে Data usage limit সরাতে হবে।

 

উপসংহার,

তাহলে বন্ধুরা, আমাদের আজকের আর্টিকেল, মোবাইলে ইন্টারনেট ডাটা সেভ করার উপায় (how to save mobile internet data in Bengali) আপনাদের কেমন লাগলো ? আশা করছি আমাদের আজকের আর্টিকেল আপনাদের অবশই পছন্দ হয়েছে। যদি আপনার মোবাইল থেকে নিজে নিজে প্রচুর ইন্টারনেট খরচ হয়ে যায়, তাহলে ওপরে বলা উপায় গুলো একবার অবশই অনুসরণ করে দেখুন। শেষে, আর্টিকেলটির সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, নিচে কমেন্ট করে অবশই জানাবেন।

অবশই পড়ুন – 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top