ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন – (সেরা ৭টি উপায়)

Last updated on May 5th, 2024 at 08:41 pm

ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা করুন: বর্তমান সময়ে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইন ইনকাম করার প্রচুর উপায় আমাদের কাছে রয়েছে। যেমন, ব্লগিং করে, ইউটিউবের মাধ্যমে ইনকাম বা ফ্রিল্যান্সিং এর দ্বারা ইনকাম করা।

কিছু জনপ্রিয় social media platform যেমন, Facebook একাউন্ট থেকে টাকা আয় করার আজ প্রচুর রাস্তা আমাদের কাছে রয়েছে। আপনি, যদি একটি অনলাইন ব্যবসা শুরু করার কথা ভাবছেন, তাহলে ফেসবুকের মাধ্যমে নিজের ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

কারণ, যেকোনো ব্যবসার জন্য প্রয়োজন হয়ে থাকে গ্রাহকের (customers), এবং ফেসবুকের মধ্যে আমরা যেকোনো ধরণের গ্রাহক পেয়ে যেতে পারি।

বর্তমান সময়ে, বাচ্চাদের থেকে শুরু করে যুবকেরা এবং বয়স্ক লোকেরাও অনেক বেশি পরিমানে ফেসবুক ব্যবহার করছেন।

তাছাড়া, আপনার আসে পাশে থাকা লোকেদের থেকে শুরু করে, অলি-গলি, আপনার শহর, দেশ এবং সমস্ত বিশ্বজুড়ে ফেসবুক ব্যবহার করা অসংখক লোকেরা রয়েছেন।

আর এটাই কারণ যে, যেকোনো ধরণের product বা service এর প্রচার এবং বিক্রি এই ফেসবুক এর মাধ্যমে করা সম্ভব। ফেসবুক এর মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসা করার উপায় গুলো আজ ছোট-বড় প্রত্যেক ব্যবসায়ীরা গ্রহণ করছেন।

তাই, আপনিও চাইলে নিজের ফেসবুক একাউন্ট এর ব্যবহার করে অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে পারবেন। কিভাবে ??? নিচে সম্পূর্ণ বিষয়টা ভালো করে জেনেনিন।

ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা কিভাবে শুরু করবো ?

ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন
How To Start Online Business Using Facebook? 7 Ideas.

নিজের একটি ফেসবুক একাউন্ট এর মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন, সেটা জানার আগে চলুন একটি ছোট্ট গল্প শুনে নেই।

এই সফলতার গল্পটি শুনুন

কিছুদিন আগেই, আমার এক বন্ধু চাকরির অভাবে ঘরে বসে থাকে। এবং, সেই ঘরে বসে থাকা সময়টিতে সে আধুনিক ও সুন্দর সুন্দর কেক (cake) বানানোর কৌশল শিখে।

সে কিছুদিন ভালো করে কেক বানানো শিখে নেওয়ার পর, অনেক সুন্দর সুন্দর এবং কাস্টোমাইজ করা কেক তৈরি করতে শিখে গেলো। এবার, সে ভাবলো যে কেননা আমি কেক তৈরি করার ব্যবসা শুরু করি।

যেকোনো অনুষ্ঠান যেমন জন্মদিন, নিউ ইয়ার ইত্যাদিতে লোকেদের কেক এর প্রয়োজন হয়েই থাকে। কিন্তু তার মাথায় একটা প্রশ্ন চলে আসলো যে,

বাজারে এমনিতে অনেক কেকের দোকান রয়েছে, নামি দামি দোকান গুলোকে ছেড়ে লোকেরা আমার থেকে কেক কেন নিবেন ?

সে নিজের তৈরি করা কেক কিভাবে বিক্রি করলো?

কিছুদিন হতাশ হয়ে দিন কাটানোর পর, তার মাথায় একটি দারুন বুদ্ধি চলে আসে।

সে ভাবে, গ্রাহক (customers) যদিও আমার কাছে আসছেনা, তবে, আমি তো গ্রাহকের কাছে গিয়ে আমার কেক গুলোর quality, design এবং price এর বিষয়ে প্রচার করতে পারি। এক্ষেত্রে, সে ফেসবুক এর ব্যবহার করে থাকে।

তার Facebook profile এর মধ্যে কয়েক হাজার বন্ধু আগের থেকেই ছিল।

এবং প্রত্যেক জন তার শহরের ভেতরে থাকা friends তার Facebook account এর মধ্যে ছিল। সে প্রত্যেক দিন তার তৈরি করা কেক (cake) গুলোর design / photo তার ফেসবুক একাউন্টে ছারে। এতে, ঘরে বসেই সে তার কেক এর মার্কেটিং ও প্রচার করে নিয়েছে।

এবার, ধীরে ধীরে সে অল্প অল্প করে cake বানানোর order পেতে থাকলো এবং এই করে আজ তার নিজের কেক তৈরি করার কোম্পানি রয়েছে।

সে, ফসেবুক এর মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে নিজের product (cake) টিকে লোকেদের ঘরে ঘরে পোহাচ্ছে দিয়েছে।

আর যেহেতু, তার তৈরি করা কেক গুলো দেখতে ও খেতে দারুন, তাই ধীরে ধীরে তার বানানো কেক লোকেদের মধ্যে প্রচুর জনপ্রিয়তা লাভ করলো।

একটি সাধারণ কেক তৈরি করা ছেলের থেকে সে আজ একটি ব্র্যান্ড (brand) হিসেবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আর সবটাই হয়েছে তার ফেসবুক একাউন্ট থেকে করা ফেসবুক মার্কেটিং এর ফলে।

কিভাবে ফেসবুক একাউন্ট এর মাধ্যমে ব্যবসা করবেন ?

ওপরের সত্যির কাহিনীটা শুনে এখন হয়তো আপনিও Facebook এর মাধ্যমে online business করার কথা ভাবছেন।

দেখুন, ওপরে বলা কাহিনীটি সম্পূর্ণ সত্যি এবং ফেসবুক এর মাধ্যমে বিজনেস করার প্রচুর প্রক্রিয়া অবশই রয়েছে।

তবে, এক্ষেত্রে আপনার সম্পূর্ণ প্লানিং করে সঠিক ভাবে কাজ শুরু করতে হবে।

চলুন, নিচে আমরা এমন কিছু উপায় গুলো জেনেনি, যেগুলো ব্যবহার করে আমরা নিজের ফেসবুক প্রোফাইল এর ব্যবহার করে ব্যবসা করতে পারবো।

১. Facebook marketplace

ফেসবুক মার্কেটপ্লেস
ফেসবুক মার্কেটপ্লেস

Facebook marketplace, হলো ফেসবুকের একটি অফিসিয়াল সার্ভিস যেখানে যেকোনো ফেসবুক ইউসার বিভিন্ন products গুলোকে অনলাইনে বিক্রি করানোর জন্য লিস্ট করতে পারবেন।

Electronics, music instruments, office supplies, property, clothing’s ইত্যাদি যেকোনো ধরণের পণ্য বা সেবা আপনারা এখানে লিস্ট করতে পারবেন।

  • আপনি সোজা নিজের ফেসবুক আইডি এবং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে লগইন করতে হবে।
  • এবার আপনি কোন product অনলাইনে বিক্রি করতে চাচ্ছেন, সেটার ছবি সহ ডিটেলস দিয়ে মার্কেটপ্লেসে আপলোড দিতে হবে।
  • আপনি কত টাকা নিয়ে প্রোডাক্ট বিক্রি করবেন সেটাও দিয়ে দিতে পারবেন।
  • এবার, মার্কেটপ্লেস এর মধ্যে আপনার product list হওয়ার পর সেগুলোকে অনেক লোকেরা ফেসবুক এর মাধ্যমে দেখতে পারবেন।
  • আপনি আপনার পাবলিশ করা product গুলোকে নিজের ফেসবুক প্রোফাইল, গ্রুপ ইত্যাদিতেও শেয়ার করতে পারবেন।
  • মনে রাখবেন, কম দামে ভালো ভালো product পেলে লোকেরা অবশই আপনার প্রোডাক্ট কিনবেন।
  • আপনার প্রচার করা প্রোডাক্ট কেনার জন্য লোকেরা আপনাকে ফেসবুক এর মাধ্যমেই যোগাযোগ করতে পারবেন।

আপনি যেকোনো product যেমন, শাড়ী, কাপড়-জামা, ইলেকট্রনিক্স ইত্যাদি এখানে লিস্টিং করে গ্রাহক খুঁজতে ও পেয়ে যেতে পারবেন।

Facebook marketplace এর মাধ্যমে অনেকেই নিজেদের online business চালিয়ে যাচ্ছেন।

এই মাধ্যমে অনেকেই, ফেসবুকে কাপড়ের ব্যবসা করছেন।

২. Facebook Page-এর মাধ্যমে ব্যবসা

Facebook page theke income

যদি আপনার কাছে একটি ভালো product আছে, তাহলে আপনি একটি ফেসবুক ফ্যান পেজ তৈরি করে ফেইসবুকের মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসা চাহিয়ে যেতে পারবেন।

তবে এক্ষেত্রে আপনার ফেসবুক ফ্যান পেজের মধ্যে ভালো পরিমানে followers থাকতেই হবে।

যখন আপনার page এর মধ্যে হাজার হাজার followers থাকবে, তখন আপনি আপনার products এবং services গুলোকে সেখানে পাবলিশ করে সেগুলোর প্রচার করতে পারবেন।

এবং, যদি কেও আপনার শেয়ার করা products গুলোকে কিনে নিতে চান, তাহলে সোজা আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।

মনে রাখবেন, বর্তমান সময়ে প্রচুর লোকেরা নিজেদের Facebook fan page এর মাধ্যমে product selling এর ব্যবসা চালিয়ে চলেছেন।

এমনিতে, আপনার ফেসবুক পেজে প্রচুর ফলোয়ার থাকলে, আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধমেও আয় করতে পারবেন।

এফিলিয়াতে মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে,

আপনি বিভিন্ন অনলাইন কোম্পানি বা ই-কমার্স ওয়েবসাইট গুলোর প্রোডাক্ট গুলোকে নিজের ফ্যান পেজের মাধ্যমে বিক্রি করিয়ে ভালো কমিশন আয় করতে পারবেন।

অবশই পড়ুন: কিভাবে ফেসবুকে প্রতিদিন 500 আয় করা যায়

৩. Facebook group 

ফেসবুক পেজ এর মতোই একটি অনলাইন ফেসবুক দল (group) তৈরি করে আপনারা বিভিন্ন মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসা চালিয়ে যেতে পারবেন।

একটি Facebook group যেকোনো একটি বিশেষ বিষয় নিয়ে তৈরি করা হয়।

যেমন, আমার একটি Facebook group রয়েছে “Banglatech (bloggers)” নামের।

এখন, আমি গ্রুপ তৈরি করেছি blogging, SEO এর বিষয় নিয়ে।

তাই, যখন আমার গ্রুপে হাজার হাজার ফলোয়ার্স হয়ে যাবে,

তখন আমি hosting, domain বা blogging এর সাথে জড়িত affiliate product links বা নিজের products গুলোকে এই গ্রুপে প্রচার করতে পারবো।

যেহেতু, আমার গরূপে থাকা প্রত্যেক ব্যক্তির blogging এবং SEO এর ওপর রুচি রয়েছে,

তাই, blogging, hosting, domain ইত্যাদি বিষয়ের সাথে জড়িত product গুলো তারা সহজেই কিনে নেওয়ার সুযোগ প্রচুর থাকছে।

আর এভাবেই, নিজের ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে আমি একটি ছোট্ট অনলাইন ব্যবসা শুরু করে নিতে পারবো।

তাই, এভাবে একটি ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করে আপনিও নিজের অনলাইন পার্ট-টাইম ব্যবসা করতে পারবেন।

৪. Facebook online ads 

বর্তমান সময়ে যেকোনো কোম্পানি বা ব্যক্তি নিজের product এবং service গুলোকে ফেসবুক এর মাধ্যমে মার্কেটিং করতে চান।

এর কারণ হলো,

বর্তমান সময়ে ফেসবুক এর মাধ্যমে যেকোনো product / service গুলোকে, লক্ষবস্তু গ্রাহকের কাছে সহজেই প্রচার করা সম্ভব।

এবং, এভাবে ফেসবুক পেইড মার্কেটিং (Facebook online ads) করে অনেক সহজেই যেকোনো নতুন ব্যবসাকে জনপ্রিয় করানো সম্ভব।

তাছাড়া, ফেসবুক পেইড মার্কেটিং এর মাধ্যমে লক্ষবস্তু গ্রাহকের কাছে মার্কেটিং করানোর ফলে, সহজেই গ্রাহক পাওয়ার সম্ভাবনা ২০০% বেড়ে যায়।

তবে, এখানে মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে আপনাকে ফেসবুককে কিছু টাকা অবশই দিয়ে দিতে হবে।

এবং, আপনার দেওয়া টাকার বিনিময়ে ফেসবুক আপনার product গুলোকে লোকেদের কাছে প্রচার করবে।

আপনি কমেও ১০০ টাকা দিয়েও ফেসবুকে পেইড মার্কেটিং শুরু করতে পারবেন।

তাই, আপনি যদি ভাবছেন ঘরে বসে ফেসবুক এর মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসা করার কথা,

তাহলে অবশই, একটি ভালো product সিলেক্ট করে সেটাকে Facebook online ads এর মাধ্যমে দ্রুত গতিতে প্রচার ও বিক্রি করাতে পারবেন।

আপনি products বা stocks গুলোকে নিজের ঘরেই রাখতে পারবেন।

এবং, লোকেরা যখন আপনার প্রোডাক্ট কিনতে চাইবেন, তখন সেগুলোকে ঘর থেকেই delivery দিতে পারবেন।

৫. Facebook in-stream ads 

Earn money with Facebook
Earn money with Facebook ads

এখন ইউটিউবের মতোই ফেসবুক এর একাউন্টেও ভিডিও আপলোড করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এবং অবশই, এটাকেও আপনারা একটি পার্ট-টাইম বা ফুল-টাইম ব্যবসা হিসেবে নিয়ে কাজ করতে পারবেন।

ফেসবুক নিয়ে এসেছে একটি নতুন ফীচার যেটাকে বলা হয় “In stream ads“.

Facebook এর এই service এর মাধ্যমে আপনারা, নিজের ফেসবুক একাউন্টে আপলোড করা ভিডিও গুলোতে বিজ্ঞাপন লাগিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে হে, আপনার প্রত্যেকটি ভিডিও বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্যে যোগ্য (eligible) নাও থাকতে পারে।

কিন্তু, নিজের তৈরি করা অরিজিনাল এবং লম্বা লম্বা ভিডিও গুলোতে approval সহজেই পেয়ে যাবেন।

এছাড়াও, আপনার যদি একটি Facebook page রয়েছে, তাহলে “Instant Articles” এবং “Paid online events” এর মাধমেও ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

এমনিতে, Facebook In-stream ads থেকে টাকা আয় করার জন্য আপনার কোন বিষয়ে নজর দিতে হবে ?

  • আপনার একটি Facebook page থাকতে হবে।
  • আপনার ফেসবুক পেজে কমেও ১০,০০০ ফলোয়ার থাকতেই হবে।
  • বিগত ৬০ দিনের মধ্যে কমেও ৩ মিনিটের ভিডিও গুলোতে কমেও ১ মিনিটের (টোটাল ৩০,০০০ মিনিট) ভিউ থাকতে হবে।
  • আপনার ভিডিওর কনটেন্ট গুলো ads এর জন্য উপযুক্ত হতে হবে।

এই মাধ্যমে টাকা আয় করার জন্য, আপনি নিজের Facebook account এবং Facebook page এর যোগ্যতা দেখে নিতে হবে।

আর তাই, আপনাকে যেতে হবে – Facebook creator studio এর একাউন্ট এর মধ্যে।

৬. Affiliate marketing business:

যদি আপনার ফেসবুক প্রোফাইল এর মধ্যে ভালো পরিমানে friends আছে, বা, আপনার এমন একটি ফেসবুক পেজ বা গ্রুপ আছে যেখানে হাজার হাজার followers-রা রয়েছে, সেক্ষেত্রে আপনি affiliate marketing করেও ফেসবুক থেকে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Affiliate marketing, মূলত এমন একটি online business model যেখানে নানান online e-commerce company গুলির products এবং services গুলিকে প্রচার এবং বিক্রি করিয়ে কমিশনের মাধ্যমে ইনকাম করা হয়।

ইন্টারনেটে এমন নানান affiliate program গুলি পাবেন, যেখানে গিয়ে নিজের একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করে নানান প্রোডাক্টস এবং সার্ভিস গুলির এফিলিয়েট লিংক প্রাপ্ত করতে পারবেন।

এবার, সেই affiliate link গুলিকে নিজের Facebook profile/page/group-এর মধ্যে সরাসরি শেয়ার করে, পণ্যের বিষয়ে কিছুটা তথ্য দিয়ে পোস্ট করে দিতে হবে।

এবার, আপনার শেয়ার করা পণ্য বা পরিষেবাগুলি যদি লোকেরা পছন্দ করেন এবং আপনার দিয়ে দেওয়া লিংক থেকে কিনেন, সেক্ষেত্রে সেই বিক্রির জন্য আপনি কিছু টাকা কমিশন হিসেবে পেয়ে যাবেন।

বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সাররা affiliate marketing-এর দ্বারা তাদের সোশ্যাল মিডিয়া পেজ থেকে প্রচুর ইনকাম করছেন।

অবশই পড়ুন: আমাজন এফিলিয়েট মার্কেটিং করে কিভাবে আয় করবেন?

৭. ফেসবুকে নিজের অনলাইন কোর্স বিক্রি:

আজকের এই আধুনিক সময়ে যেকোনো বিষয়ে জ্ঞান লাভ করতে হলে আমরা সরাসরি ইন্টারনেটের সাহায্য নিয়ে থাকি। গিটার শেখা থেকে শুরু করে ডিজিটাল মার্কেটিং, গান শেখা থেকে শুরু করে কোডিং, সবটাই অনলাইন মাধ্যমে শেখা সম্ভব।

বেশিরভাগ লোকেরাই, পড়াশোনা, চাকরি এবং ঘরের কাম কাজের পর যেই খালি সময়টুকু পান সেই সময়ে কিছু না কিছু নতুন শিখতে শিখতে আগ্রহী হন। আর এটাই কারণ যার জন্যে বর্তমান সময়ে অনলাইন কোর্স গুলির চাহিদা শীর্ষে রয়েছে।

এক্ষেত্রে, যদি আপনার মধ্যে কোনো বিষয়ে বিশেষ দক্ষতা, জ্ঞান, এবং অভিজ্ঞতা থাকে, তাহলে আপনি নিজের অভিজ্ঞতাকে ভিডিওর মাধ্যমে রেকর্ড করে একটি ভিডিও কোর্স তৈরি করতে পারবেন।

সব থেকে মজার বিষয় এটাই যে, একবার আপনার দ্বারা তৈরি করা ভিডিও কোর্সটি আপনি বছরের পর পচর অনলাইনে বিক্রি করে প্যাসিভ ইনকাম করতে পারবেন।

গান, গিটার, তব্লা, কোডিং, কম্পিউটার, SEO, ডিজিটাল মার্কেটিং, স্পোকেন ইংলিশ, ইত্যাদি যেকোনো ধরণের অনলাইন কোর্স আপনি তৈরি করতে পারবেন।

এখন সব থেকে জরুরি বিষয়টি হলো যে, তৈরি করা কোর্সটি বিক্রি কিভাবে করবেন? এমনিতে, একটি অনলাইন ভিডিও কোর্স তৈরি করে বিক্রি করার উপায় অনেক রয়েছে।

তবে, যিহেতু আজকের এই আর্টিকেলে আমরা ফেসবুকের দ্বারা ব্যবসা করার নিয়ম নিয়ে আলোচনা করছি, তাই ফেসবুকের দ্বারা কিভাবে অনলাইন কোর্স বিক্রি করবেন, সেই বিষয়েই আমরা জানবো।

আপনারা অনেক সহজেই নিজের তৈরি করা কোর্স গুলিকে, Facebook Ads-এর মাধ্যমে হাজার হাজার লোকেদের কাছে বিক্রি করিয়ে নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য কিছু টাকা খরচ করতে লাগবে যদিও এক্ষেত্রে লাভের সুযোগ অনেক বেশি।

এছাড়া, যদি আপনার একটি ফেসবুক পেজ বা গ্রুপ আছে, তাহলে সেগুলির মাধ্যমেও সম্পূর্ণ ফ্রি ভাবে নিজের কোর্স অনলাইন বিক্রি করতে পারবেন।

FAQ:

১. ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসা করার সেরা উপায় কি?

যদি আপনি ফেসবুকের দ্বারা অনলাইনে ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন, সেক্ষেত্রে আমার হিসেবে সব থেকে কার্যকর উপায়টি হলো, Facebook Marketplace”। এটাও একটি online e-commerce website-এর মতোই যেখানে জেকেও যেকোনো ধরণের product এবং services গুলিকে অনলাইন মাধ্যমে কেনা-বেচা করতে পারবেন।

২. ফেসবুক থেকে কি কি উপায়ে টাকা আয় করা যায়?

ফেসবুক থেকে ইনকাম করার উপায় অনেক রয়েছে। এদের মধ্যে কিছু সেরা ও জনপ্রিয় উপায়গুলি হলো, affiliate marketing, online product selling, In-stream ads।

৩. Facebook In-stream ads কি?

Facebook In-stream ads হলো ফেসবুক দ্বারা চালু করা একটি পরিষেবা যার দ্বারা ফেসবুক ইউজাররা তাদের আপলোড করা ভিডিও গুলিতে কিছু শর্ট বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ফেসবুক থেকে ইনকাম করার সুযোগ পান।

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, আশা করছি ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবসা করার নিয়ম ৫ টি আপনারা অনেক সহজেই বুঝতে পেরেছেন। ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা শুরু করার ক্ষেত্রে ওপরে বলা উপায় গুলো প্রচুর পরিমানে ব্যবহার করা হয়।

তাছাড়া, আপনি যদি কাপড়ের ব্যবসা বা যেকোনো পণ্য বিক্রি করার ক্ষেত্রে ফেসবুকের ব্যবহার করতে চাচ্ছেন, তাহলে অবশই Facebook marketplace এবং Facebook online ads আপনার প্রচুর কাজে আসবে।

আমার সব সময় এটাই চেষ্টা রয়েছে যাতে আমি আপনাদেরকে সম্পূর্ণ কাজের তথ্য প্রদান করতে পারি।

তাই, যদি আমাদের আজকের আর্টিকেল “নিজের ফেসবুক একাউন্ট থেকে ব্যবসা কিভাবে করবেন“, আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে আর্টিকেলটি অবশই শেয়ার করবেন।

আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

অবশই পড়ুন: ফেসবুকে লেখালেখি করে ইনকাম করুন

6 thoughts on “ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন – (সেরা ৭টি উপায়)”

  1. Avatar

    প্রশ্ন১. ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল নিয়ে একটি পোস্ট চাই!

    প্রশ্ন২.আপনার কি কোন ইউটিউব চ্যানেল আছে। থাকলে লিংক টা শেয়ার করুন প্লিজ?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top