গুগল ড্রাইভ কি এবং কিভাবে ব্যবহার করব – বিস্তারিত তথ্য

আপনারা হয়তো Google এর একটি সার্ভিস “Google drive” এর বিষয়ে অবশই শুনেছেন। শুনেছেন যদিও হতে পারে এবেপারে বেশি কিছু জ্ঞান আপনার নেই। জেনেরাখুন, গুগল এর এই নতুম এবং মজার সার্ভিস আপনার দৈনিক জীবনে অনেক ভাবেই কাজে আসতে পারে। কিভাবে? সেটাই আজকে আমরা জানবো। আর তাই, আজ আমি এই আর্টিকেলে, গুগল ড্রাইভ কি ? গুগল ড্রাইভের সুবিধা এবং গুগল ড্রাইভ কিভাবে ব্যবহার করব, সবটাই বুঝিয়ে বলবো।

What is google drive ? How to use

এছাড়া, গুগল ড্রাইভে ফাইল বা ছবি রাখার নিয়ম কি এবং ড্রাইভ থেকে ফাইল ডাউনলোড কিভাবে করবেন সেটাও আমি আপনাদের বলবো। কিন্তু, সবচে আগেই Google drive আসলে কি, সেটা আপনার জানতে হবে। (Google drive Bangla tutorial).

গুগল ড্রাইভ কি ? (What is google drive in Bangla)

গুগল ড্রাইভ (Google drive) একটি cloud based file storage সার্ভিস যেটা Google এর দ্বারা নির্মিত। এই সার্ভিস ২৪ এপ্রিল ২০১২ সালে গুগল দ্বারা শুরু করা হয়েছিল।

Google drive-কে সোজাভাবে একটি অনলাইন file storage service বলা যেতে পারে, যেখানে আমরা আমাদের প্রয়োজনীয় files যেমন “images“, “videos“, “documents“, “apps” বা যেকোনো digital file আপলোড করে সেখানে স্টোর করে রাখতে পারি।

এভাবে গুগল ড্রাইভে ফাইল গুলো স্টোর করার মাধ্যমে আপনারা যেকোনো সময় যেকোনো কম্পিউটার বা মোবাইলে Google drive app বা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সেই upload করা files গুলি আবার দেখতে, ব্যবহার করতে ও ডাউনলোড করতে পারবেন।

এর ফলে, আপনার প্রয়োজনীয় ছবি বা ফাইল গুলো সব সময় নিরাপদ থাকে এবং মোবাইল বা কম্পিউটার খারাপ হয়ে গেলেও আপনি ফাইল বা ছবি আবার গুগল ড্রাইভ থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

গুগল ড্রাইভে যেকোনো ফাইল ব্যাকআপ করার জন্য ফাইল আপলোড এর মাধ্যম অনেক সোজা। এবং, এর সাথেই ড্রাইভ থেকে আপলোড করা ছবি বা অন্য ফাইল আবার ডাউনলোড করার নিয়ম ও অনেক সোজা।

Google drive এ ফাইল ব্যাকআপ (upload) এবং ডাউনলোড দুটো প্রক্রিয়ার জন্যই আপনার একটি কম্পিউটার, ল্যাপটপ বা স্মার্টফোনের প্রয়োজন হবে। এবং, এর সাথে আপনার ডিভাইসে ইন্টারনেটের প্রয়োজন হবে।

মনে রাখবেন, Google drive গুগল এর একটি সার্ভিস এবং তাই গুগল ড্রাইভ ব্যবহার করার জন্য আপনার একটি Google account বা Gmail account-এর প্রয়োজন হবে।

আপনার যদি একটি জিমেইল একাউন্ট নেই, তাহলে জিমেইল একাউন্ট কিভাবে বানাবেন, সেটা এখনি জেনেনিন।

অবশই পড়ুন

তাহলে বন্ধুরা, গুগল ড্রাইভ কি সেটা হয়তো আপনারা বুঝেগেছেন। চলুন, এখন আমরা নিচে গুগল ড্রাইভের কিছু সুবিধা এবং লাভের বিষয়ে জেনেনেই।

গুগল ড্রাইভের সুবিধা এবং লাভ (Benefits of Google drive)

যারা গুগল ড্রাইভ ব্যবহার করেন তারা ভালো করেই এর লাভ এবং সুবিধার ব্যাপারে জানেন। এমনিতে, smartphone-এর মাধ্যমে এর ব্যবহার অধিক বেশি হয়ে থাকে এবং মোবাইল ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রে গুগল ড্রাইভের সুবিধা সবথেকে বেশি।

গুগল ড্রাইভের সেরা ১০ টি সুবিধা বা লাভ

  1. আপনি যেগুলি ছবি বা ফাইল ড্রাইভে আপলোড করেছেন সেগুলি যেকোনো smartphone বা computer এবং Google ড্রাইভের ওয়েবসাইট ব্যবহার করে আবার ডাউনলোড করা যাবে।
  2. আপনি যতদিন না ফাইল গুলি নিজের গুগল ড্রাইভ একাউন্ট থেকে ডিলিট করবেন, সেগুলি আপনার গুগল একাউন্টে স্টোর হয়েই থাকবে। আপনার মোবাইল চুরি হয়ে গেলে বা খারাপ হয়ে গেলেও ছবি বা ফাইল গুলি ড্রাইভে নিরাপদ থাকবে।
  3. ১৫ জিবি (GB) পর্যন্ত free storage space দেওয়া হবে। ১৫ জিবি, ছবি এবং ফাইলস রাখার জন্য অনেক বেশি।
  4. যেকোনো ছবি বা ফাইল আপনি নিজের একাউন্ট থেকেই সরাসরি বিভিন্ন মাধ্যমে শেয়ার করতে পারবেন। শেয়ার করা লিংক দিয়েই ফাইল গুলো সরাসরি ডাউনলোড করা যাবে।
  5. Google drive এর app যেকোনো ডিভাইস যেমন, mobile, computer বা laptop এর জন্য ফ্রীতেই উপলব্ধ রয়েছে।
  6. গুগল ড্রাইভ অনলাইন এবং অফলাইন দুই ধরণের ব্যবহার করতে পারবেন।
  7. এখানে বিভিন্ন রকমের presentation file, document files, excel sheet files ইত্যাদি বানানো যাবে।
  8. যদি আপনি একজন blogger তাহলে নিজের ব্লগের full automatic backup এখানে নিতে পারবেন।
  9. নিজের ড্রাইভের ড্যাশবোর্ডে ফোল্ডার বানানো যাবে এবং ফোল্ডারের ভেতরে যেকোনো ফাইলস বা ছবি আপলোড করতে পারবেন।
  10. Google এর অনলাইন ক্লাউড ডাটাবেসে ফাইল গুলো স্টোর হওয়ার কারণে, আপনি নিজের স্মার্টফোনের অনেক জায়গা সেভ করে নিতে পারবেন।

তাহলে, ওপরে গুগল ড্রাইভের কিছু লাভ এবং সুবিধার ব্যাপারে জানার পর চলুন এখন আমরা কিভাবে google drive ব্যবহার করবেন, সেটা জেনেনেই।

অবশই পড়ুন জিমেইল থেকে ইমেইল কিভাবে পাঠাবেন ?

গুগল ড্রাইভ কিভাবে ব্যবহার করব? (How to use Google drive)

এখন আপনি যদি গুগল ড্রাইভ ব্যবহার করতে চান এবং নিজের মোবাইলের বা কম্পিউটারের সব ধরণের ছবি (images) বা ফাইল অনলাইন ড্রাইভে স্টোর করে রাখতে চান, তাহলে তার দুটি মাধ্যম রয়েছে।

  • Google drive website ব্যবহার করে
  • গুগল ড্রাইভ অ্যাপ ব্যবহার করে

এমনিতে, অ্যাপ এর মাধ্যমে গুগল ড্রাইভ ব্যবহার করার নিয়ম অনেক সোজা। Windows, Android, IOS সব OS এর জন্যই এর app রয়েছে। গুগল ড্রাইভ অ্যাপ দ্বারা ফাইল বা ইমেজ গুলো অটোমেটিক ভাবে পরিচালনা করা সম্ভব। চলুন নিচে দেখেনেই কিভাবে।

গুগল ড্রাইভ ওয়েবসাইট দ্বারা ফাইল বা ছবি রাখার নিয়ম:

Google drive এর ওয়েবসাইট আপনারা মোবাইল বা কম্পিউটার দুটোতেই ব্যাবহ্যার করতে পারবেন। আপনার প্রয়োজন হবে একটি গুগল বা জিমেইল একাউন্ট এবং ইন্টারনেটের।

স্টেপ ১.

সবচে আগেই আপনার যেতে হবে Google drive website এ।

তারপর Go to drive এর একটি লিংক দেখবেন যেখানে আপনার ক্লিক করতে হবে।

গুগল ড্রাইভ ওয়েবসাইট
Go to Google drive website

এখন পরের পেজে হয়তো আপনি গুগলের লগইন পেজ দেখবেন যেখানে আপনার জিমেইল একাউন্ট আইডি এবং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে লগইন করতে হবে।

যদি আপনার web browser এ আগের থেকেই গুগল একাউন্টে লগইন করা থাকে তাহলে আপনি google account login পেজ দেখবেননা।

ওপরে ছবিতে দেখার মতোই, আপনার গুগল একাউন্ট ডিটেলস আপনি ওপরে দেখতে পাবেন। একাউন্টের প্রোফাইল আইকনে ক্লিক করে আপনি চাইলে অন্য কোনো google account দিয়েও গুগল ড্রাইভে লগইন করতে পারবেন।

স্টেপ ২.

Google drive এ লগইন করার সাথে সাথে আপনি নিজের একাউন্ট ড্যাশবোর্ড দেখবেন। যদি আগের থেকে কোনো ফাইল বা ছবি গুগল ড্রাইভে আপলোড করা হয়েছে তাহলে আপনার ড্যাশবোর্ডে সব ধরণের ফাইল বা ইমেজ গুলো দেখিয়ে দেওয়া হবে।

ওপরে ছবি দেখলে আপনারা সবটাই ভালো করে বুঝতে পারবেন।

ওয়েবসাইটের বামদিকে থাকা “New” অপসন থেকে আপনারা নতুন ফাইল বা ছবি একাউন্টে আপলোড করতে পারবেন।

স্টেপ ৩.

এখন যেকোনো ফাইল বা ছবি গুগল ড্রাইভে রাখার জন্য আপনার হাতের বামদিকে থাকা “New” অপশনে ক্লিক করতে হবে।

New-তে ক্লিক করার পর আপনি নিজের কম্পিউটারের স্টোরেজ থেকে ফাইল আপলোড করার অপসন পাবেন।

Upload a file to Google Drive.

এখন New option এ ক্লিক করার পর আপনারা দুটো option দেখবেন।

  • File upload
  • Folder upload

আপনি যদি কেবল একটি সিঙ্গেল ফাইল বা ছবি আপলোড করতে চান তাহলে “File upload” অপশনে ক্লিক করুন।

যদি একটি সম্পূর্ণ ফোল্ডার একসাথে আপলোড করে ড্রাইভে রাখতে চান, তাহলে “Folder upload” অপশনে ক্লিক করতে হবে।

ওপরে আপনি ছবিতে file upload এর দুটো option দেখতে পাবেন।

মনে রাখবেন, ওপরে থাকা “Folder” অপশনে ক্লিক করে আপনারা আলাদা আলাদা ফাইলের জন্য আলাদা আলাদা ফোল্ডার বানাতে পারবেন।

স্টেপ ৪.

আপনি নিজের গুগল ড্রাইভ একাউন্টে থাকা ফ্রি ১৫ জিবি স্টোরেজ স্পেস থেকে কতটা ব্যবহার করেছেন এবং কত জায়গা আপনার একাউন্টে রয়েছে সেটা dashboard এর বামদিকে দেখতে পাবেন।

যা আপনারা ওপরে ছবিতে দেখছেন, আমি আমার ড্রাইভের ১.৩ জিবি ব্যবহার করেছি মোট ১৫ জিবি থেকে। সেরকম আপনারাও নিজের ফ্রি স্টোরেজ স্পেসের বেপারে দেখতে পাবেন।

গুগল ড্রাইভ থেকে ডাউনলোড কিভাবে করবেন?

এখন সবটা হওয়ার পর, আপনারা হয়তো ভাবছেন যে আপলোড করা ছবি গুগল ড্রাইভ থেকে কিভাবে ডাউনলোড করবেন।

তাই তো ?

যেকোনো ছবি, ডকুমেন্ট বা ফাইল ড্রাইভ থেকে ডাউনলোড করার জন্য সরাসরি সেই ছবি বা ডকুমেন্টে ক্লিক করুন। ক্লিক করার পর, ওপরে ছবিতে যেভাবে দেখছেন সেভাবেই ছবি বা ডকুমেন্টটির প্রিভিউ আপনিও দেখতে পাবেন।

ছবির preview-তে ওপরে ডানদিকে একটি ডাউনলোড অপসন আপনারা দেখবেন। সেই ডাউনলোড অপশনে ক্লিক করলেই ডকুমেন্ট বা ইমেজ ফাইলটি ডাউনলোড হয়ে যাবে।

তাহলে, গুগল ড্রাইভ ওয়েবসাইট কিভাবে ব্যবহার করবেন, সেটা হয়তো আপনারা জেনেগেছেন। ড্রাইভে ফাইল আপলোড কিভাবে করবেন এবং ড্রাইভ থেকে ফাইল ডাউনলোড কিভাবে করবেন, সবটাই আমি আপনাদের বলে দিয়েছি।

Google drive mobile app কিভাবে ব্যবহার করবেন ?

ওয়েবসাইট ব্যবহার করে প্রত্যেকবার google drive account খুলে ফাইল রাখাটা এতটা সুবিধাজনক না।

তাই, সহজে যেকোনো ছবি বা ফাইল ড্রাইভে আপলোড বা ড্রাইভ থেকে ডাউনলোড করার জন্য ৯০% ব্যবহারকারীরা মোবাইলে google drive app ব্যবহার করেন। এতে ফাইল ব্যাকআপ করার প্রক্রিয়াটি অনেক সোজা এবং সহজ হয়ে দাঁড়ায়।

স্টেপ ১.

সবচে আগেই ডাউনলোড করতে হবে Google drive app যেটা Google play store-এ ফ্রীতেই পাবেন। ডাউনলোড করার পর নিজের মোবাইলে app-টি open করুন।

ডাউনলোড করুন Google drive app.

স্টেপ ২.

মোবাইলেও গুগল একাউন্ট ব্যবহার করেই আপনাকে গুগল ড্রাইভ অ্যাপে লগইন করতে হবে।

এমনিতে, আপনার মোবাইলে জেই গুগল একাউন্ট রেজিস্টার করা আছে, সেটা দিয়েই app-টি automatically লগইন হয়ে যাবে।

অ্যাপটি ওপেন করার পর, নিচের দিকে আপনি একটি “+” icon দেখবেন।

সেই plus icon-এ ক্লিক করলেই file upload করার অপসন চলে আসবে।

Plus icon-এ ক্লিক করার পর আপনারা “Create folder” এবং “Upload file” এর অপসন দেখতে পাবেন।

স্টেপ ৩.

এখন আপনার যদি কোনো ফাইল ডাউনলোড করতে হয়, তাহলে সোজা সেই ফাইল বা ইমেজে (ছবি) ক্লিক করুন।

ইমেজ বা ফাইলে ক্লিক করার পর আপনি নিচে কিছু নতুন অপসন দেখবেন, যেখানে “Download” অপসন দেখতে পাবেন।

তাহলে দেখলেনতো, মোবাইল থেকে গুগল ড্রাইভ ব্যবহার করা কত সোজা। মোবাইল থেকে আপনি অনেক সহজে নতুন নতুন ছবি গুগল ড্রাইভে আপলোড বা ব্যাকআপ করেনিতে পারবেন।

তাছাড়া, আপলোড করা সব ধরণের ফাইল বা ছবি অ্যাপ থেকে আবার ডাউনলোড করা ছাড়াও সেগুলিকে আপনারা যখন তখন দেখতে পারবেন। আপনার সব ছবি গুলো মোবাইলে দিয়ে সরাসরি এক্সেস করতে পারছেন আবার মোবাইলের স্টোরেজ স্পেস ও নষ্ট হচ্ছেনা।

FAQ: কিছু সাধারণ প্রশ্ন ও উত্তর:

Q. Google drive কি?

গুগল ড্রাইভ হলো একটি ফাইল স্টোরেজ এবং সিঙ্ক্রোনাইজেশন সেবা যেটাকে গুগল দ্বারা উন্নত করা হয়েছে। গুগল ড্রাইভ দ্বারা ব্যবহারকারীরা যেকোনো ফাইল, ছবি বা ডিজিটাল ডক্যুমেন্ট গুলো গুগলের ক্লাউড স্টোরেজে সেভ করে রাখতে পারেন। সরাসরি বললে, এটা মূলত একটি ক্লাউড স্টোরেজ পরিষেবা।

Q. গুগল ড্রাইভ কেন ব্যবহার করা হয় ?

আপনি নিরাপদে নিজের files এবং digital document গুলি এখানে সংরক্ষিত করে রাখতে পারেবন। এছাড়া, সংরক্ষিত ফাইল গুলোকে যেকোনো ডিভাইসে নিজের গুগল একাউন্ট ব্যবহার করার মাধ্যমে open, edit এবং download করা যাবে।

Q. গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ কিভাবে বাড়াবেন?

যদি আপনার গুগল ড্রাইভ স্টোরেজ সম্পূর্ণ ব্যবহার করা হয়ে গিয়েছে তাহলে আপনি গুগল কে প্রতি মাসে ১৩০ বা বছরে ১৩০০ টাকা পেমেন্ট করার মাধ্যমে ১০০জিবি স্টোরেজ স্পেস বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এছাড়া, পুরোনো এবং অপ্রয়োজনীয় ফাইল গুলি ডিলিট করার মাধ্যমে গুগল ড্রাইভের ফ্রি স্টোরেজ স্পেস বাড়ানো যাবে।

Q. গুগল ড্রাইভ কি নিরাপদ?

হ্যা, কেননা গুগল ড্রাইভ হলো সবচেয়ে নিরাপদ ক্লাউড স্টোরেজ পরিষেবাগুলির মধ্যে একটি। এখানে, সার্ভারে সংরক্ষিত ডাটা গুলিকে রক্ষা করার জন্য AES 256-bit encryption ব্যবহার করা হয়।

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা আশা করছি আমি আপনাদের গুগল ড্রাইভের বিষয়ে সবটাই বুঝিয়ে বলতে পেরেছি। গুগল ড্রাইভ কি ধরণের সফটওয়্যার, এর কাজ কি এবং গুগল ড্রাইভ কিভাবে ব্যবহার করব এই প্রশ্ন গুলির উত্তর ভালো করে বুঝিয়ে বলতে পেরেছি বলে আশা করছি।

এমনিতে সব android mobile এই Google drive এর app দেওয়া থাকে। তাই, এই দারুন সার্ভিস এখনই ব্যবহার করা শুরু করুন এবং নিজের storage space বাঁচানোর সাথে সাথে ইমেজ বা ছবি নিরাপদ ভাবে ব্যাকআপ (backup) করে রাখুন।

12 thoughts on “গুগল ড্রাইভ কি এবং কিভাবে ব্যবহার করব – বিস্তারিত তথ্য”

  1. Avatar

    অসাধারন ভাইয়া । অনেক সহজে আপনার article গুলা বুজতে পেরেছি ধন্যবাদ

    1. Avatar

      ধন্যবাদ, আপনার অসমীয়া ব্লগ টি ও আমার ভালো লেগেছে।

  2. Avatar
    মোঃ সুজন

    ভাই আমি একজন ব্লগার। আমি প্রতিদিন আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করি। আমি যে সব আর্টিকেল গুলো লিখি সে গুলো ১০০% ইউনিক হয় না ৭০-৭৫% ইউনিক হয়। এতে কি আমি গুগল এডসেন্স পেতে সমস্যা হবে? দয়াকরে জানাবেন।

    1. Avatar

      আসসালামু আলাইকুম
      ভাই মেমোরিকার্ড খালি আছে, ফোন খালি আছে । pictur, apps,song,movie ডাউনলোড দিলে
      Input/output error. Stotage may be ful. এই লেখা আসে কি করবো এখন ।

      1. Avatar

        এই ক্ষেত্রে আপনার কাছে একটাই সমাধান রয়েছে, সেটা হলো mobile টি একবার ফুল format করে নিন। যেকোনো সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে বললেই করে দিবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top