ফেসবুকের ১০ টি উপকারিতা এবং লাভ (Advantages Of Facebook)

Internet এবং social media, আমাদের সম্পূর্ণ জীবনধারার (lifestyle) প্রক্রিয়াটি পরিবর্তন করে ফেলেছে।

Advantages and benefits of using Facebook.

তবে, এই Internet এবং social networking platform গুলির কথা আসলেই, আমাদের মনে “Facebook” নামটি সবচেয়ে আগেই চলে আসে।

কেননা, Facebook হলো সব থেকে বেশি লোকপ্রিয় / জনপ্রিয় এবং বিখ্যাত একটি “social networking website“, যার বিভিন্ন উপকারিতা ও লাভ রয়েছে।

তাই, আজকের এই আর্টিকেলে, আমি আপনাদের “ফেসবুকের উপকারিতা ও লাভ” নিয়ে কিছু তথ্য দিবো। (Advantages Of Facebook In Bangla).

মানে, একটি ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করলে, আপনার কি কি লাভ হতে পারে, সেই বিষয়ে আমরা আজকে জানবো।

এমনিতে, ফেসবুক ব্যবহারের উপকারিতা প্রচুর।

আমার এবং আপনার মতো “Internet lovers” রা সেটা ভালো করেই জানি।

শিক্ষা ক্ষেত্রে হোক, যোগাযোগের ক্ষেত্রে, ডিজিটাল মার্কেটিং বা ব্যবসার ক্ষেত্রে ব্র্যান্ড তৈরি করা কথাই হোক, ফেসবুক অনেক individuals এবং business এর জন্য লাভজনক হিসেবে প্রমাণিত হয়ে এসেছে।

তাছাড়া, দেশ বিদেশে online entertainment এর ক্ষেত্রে ফেসবুককে প্রধান উৎস হিসেবে এখনো ব্যবহার করা হয়।

আমরা সবাই জানি যে, ফেসবুক হলো এমন একটি “global social networking platform“.

তাই, এখানে জায়গা বা লোকেশন (location) নিয়ে কোনো সীমাবদ্ধতা নেই।

আপনি, ভারতের থেকে আমেরিকার লোকেদের সাথে কথা ও video chat করতে পারছেন।

দেশ বিদেশের বিভিন্ন জায়গা, লোক এবং পরিবেশের সাথে আপনার চেনা পরিচিত হচ্ছে।

এবং সবটাই, ফেসবুকের মাধ্যমে।

তাই, ফেসবুকের উপকারিতা ও লাভ কতটা হতে পারে, সেটা হয়তো বুঝতেই পারছেন।

তাছাড়া, Facebook translation feature এর মাধ্যমে, আমরা দেশ বিদেশে থাকা এমন বিভিন্ন Facebook users দেড় সাথে সংযুক্ত (connect) হতে পারি, যারা বিভিন্ন রকমের আলাদা আলাদা ভাষাতে কথা বলেন।

শেষে, এখনের এই প্রযুক্তির (technology) যুগে, ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা প্রচুর রয়েছে।

তাহলে চলুন, নিচে “ফেসবুক ব্যবহারের উপকারিতা এবং লাভ ১০ টির” বেপারে জেনেনি।

ফেসবুকের উপকারিতা ও লাভ (Advantages Of Facebook)

যখন কথা আসে, ফেসবুকের সুবিধা, লাভ এবং উপকারিতার, তখন নিচে দেয়া বিষয় গুলি নিয়ে আমরা আলোচনা করতে পারি।

১. Facebook for networking

নিঃসন্দেহে, ফেসবুক সবচেয়ে শক্তিশালী, সব থেকে জনপ্রিয় এবং বিখ্যাত একটি social media এবং social networking ওয়েবসাইট।

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি যেকোনো জায়গার থেকে যেকোনো জায়গায় থাকা লোকেদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।

নিজের পরিবারের সদস্যদের সাথে, school বা college friends, প্রিয়জনের সাথে বা নতুন নতুন লোকেদের সাথে, ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি যেকোনো ব্যাক্তির সাথে অনলাইন যোগাযোগ করতে পারবেন।

আজ, স্কুলে শিক্ষা গ্রহণ করা ছাত্র দেড় থেকে আরম্ভ করে বয়স্ক লোকেরাও একটি ফেসবুক একাউন্ট (Facebook account) অবশই ব্যবহার করেন।

তবে সত্যি বললে, একটি computer device এবং internet থাকা যেকোনো একজন বাক্তি ফেসবুক অবশই ব্যবহার করেন।

এখানে যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে আপনারা, text chatting, private message, video chatting, live video এবং voice call service ব্যবহার করতে পারবেন।

তাহলে ভাবুন, অনলাইন কোনো টাকা না দিয়েই ফ্রীতে যেকোনো ব্যাক্তির সাথে কথা বলার জন্য ফেসবুকের এই সুবিধা কি কম ?

তাছাড়া, ফেসবুকের মাধ্যমে নতুন লোকেদের সাথে যোগাযোগ করার আগেই, তাদের location, interest, relationship status, life events, images & photos, contact & basic information বা educational information বিষয়ে জেনেনিতে পারবেন।

মানে, আপনি যার সাথে কথা বলা বা যোগাযোগ করার কথা ভাবছেন, সেই বেক্তির বিষয়ে সম্পূর্ণটা জেনেনিতে পারবেন।

২. Make new friends 

হে, ফেসবুকের একটি বিশেষ লাভ হলো, “এর মাধ্যমে নতুন নতুন বন্ধু (friends)” বানিয়ে নিতে পারবেন।

সাধারনে আমরা বন্ধু বান্ধব বানাতে তেমন ইচ্ছুক থাকিনা।

কারণ, অজানা লোকেদের বিষয়ে না জেনেই বন্ধু বানানো যায়না।

তবে, যখন আপনি ফেসবুক ব্যবহার করবেন, তখন নতুন নতুন friends বানানোটা আপনার জন্য অনেক সহজ বিষয় হয়ে দাঁড়াবে।

কারণ, এখানে প্রত্যেক ব্যাক্তির বিষয়ে সব কিছুই আপনারা জেনেনিতে পারবেন।

ছোটবেলার চেনা পরিচত বন্ধুদের সাথে আবার সংযুক্ত হওয়া বা দেশ বিদেশের বিভিন্ন জায়গার থেকে নিজের হিসেবে friend circle তৈরি করতে পারবেন ফেসবুকের মাধ্যমে।

তাই, এটাও কিন্তু ফেসবুকের লাভ হিসেবেই বলা যেতে পারে।

৩. Free video call to friends 

মনে করুন সেই সময়, যখন video call এর মাধ্যমে যোগাযোগ করার জন্য “telecom company” গুলিকে কত বেশি টাকা দিতে হতো।

এক্ষেত্রে, জনসাধারনের ওপরে করা ফেসবুকের উপকার কখনোই ভুলা যেতে পারেনা।

কেননি, ফেসবুকের মাধ্যমে আমরা যেকোনো জায়গার থেকে যেকোনো জায়গায় থাকা “Facebook friends” দেড় সাথে “video calling” বা “video chatting” এর মাধ্যমে যোগাযোক করতে পারি।

এবং, সম্পূর্ণটা ফ্রীতেই করতে পারবেন।

তবে, ফেসবুকের মাধ্যমে ফ্রি ভিডিও কল করার জন্য, আপনার এবং জেক ভিডিও কল করবেন, দুজনেরি একটি Facebook profile থাকতে হবে।

৪. Sharing your thoughts & moments 

Facebook  এ থাকা “wall” এবং “create post” অপশনের মাধ্যমে, আপনি আপনার নিজের ধারণা, ভাব, বিচার বা ব্যক্তিগত জীবনের কিছু গুরুত্বপূর্ণ moments, লোকেদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

এভাবে, ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার চেনা পরিচিত লোকেরা আপনার ব্যাপারে সময় খবর পেতেই থাকবেন।

তাছাড়া আপনি, সব সময় socially সক্রিয় থেকে নিজের lifestyle এর গুরুত্বপূর্ণ moments গুলি, Facebook friends এবং প্রিয়জনের সাথে share করতে পারবেন।

৫. Stay updated with groups and pages 

ফেসবুকে আপনারা যেকোনো বিষয়, brand, company বা topic নিয়ে একটি group বা page অবশই পেয়েযাবেন।

এই groups এবং pages গুলির মাধ্যমে নিজেকে যেকোনো company, brand, product বা topic এ সব সময় update রাখতে পারবেন।

কারণ, এই groups বা pages গুলিতে, group বা page এর বিষয়ের সাথে জড়িত latest news সব সময় প্রচার করা হয়।

এতে, আপনি অনেক সহজেই যেকোনো বিষয়ে সহজেই নতুন খবর অনেক কম সময়েই পেয়ে যেতে পারবেন।

উদাহরণ স্বরূপে,

যদি আপনি “Samsung mobile এর Facebook page” লাইক করে রেখেছেন, তাহলে “samsung company” তরফ থেকে আশা যেকোনো নতুন মোবাইলের খবর বা অন্যান্য তথ্য গুলি সেখানেই পেয়ে যাবেন।

তাই, ফেসবুকের মাধ্যমে যেকোনো বিষয়ে তথ্য গ্রহণ করাটা অনেক সহজ বিষয় হয়ে পড়েছে।

এবং, অনলাইন সঠিক তথ্য সংগ্রহ করতে পারাটা কিন্তু, ফেসবুকের ব্যবহারের এক উপকারিতা হিসেবে ধরতেই হবে।

৬. Search for solutions 

যেহেতু, ফেসবুক হলো একটি বিখ্যাত social media site, তাই এখানে বিভিন্ন বিষয়ে জ্ঞান রাখা লোকেদের কোনো অভাব নেই।

মানে, এখানে আপনারা সম্পূর্ণ বিশ্বের থেকে বিভিন্ন পেশার (profession) লোকেদের সাথে বন্ধুত্ব করতে পারেন।

কেও হয়তো, doctor, কেও আবার engineer, lawyer, professional photographer, digital marketer, entrepreneur.

তাছাড়া, আরো অন্যান্য পেশা নিয়ে কাজ করা লোকেরা আপনার friend list এ থাকতে পারে।

এই ক্ষেত্রে, আপনি আপনার সমস্যার সমাধান বা প্রশ্নের উত্তর, সহজেই এই Facebook friends দেড় মাধমে পেয়ে যেতে পারবেন।

আমি যদি আমার কথা বলি, আমার কোনোরকমের সমস্যা থাকলে, আমি ফেসবুকের “wall” বা “create post” অপশনের মাধ্যমে নিজের সমস্যাটি পাবলিশ করি।

এবং, কিছু সময়ের মধ্যেই, বিভিন্ন লোকেরা comment এর মাধ্যমে, আমাকে অনেক ভালো ভালো সমাধান বা পরামর্শ দিয়ে দেয়।

তাছাড়া, আপনি যেকোনো বিশেষ ব্যাক্তিকেও direct message করে, নিজের সমস্যার সমাধান চাইতে পারবেন।

অনেক ভালো ভালো ব্যাক্তিরা বিভিন্ন groups, community বা pages এর মাধ্যমে, বিভিন্ন বিষয়ে লোকেদের সমস্যার সমাধান করে সাহায্য করছেন।

৭. Great platform for product promotion

আপনার যদি কোনো ব্যবসা রয়েছে, তাহলে ফেসবুক আপনার অনেক কাজে আসতে পারে।

কারণ, যা আমি আগেই বলেছি, ফেসবুকে যেকোনো বয়েস, যেকোনো ইন্টারেস্ট এবং যেকোনো জিনিসের চাহিদা রাখা লোকেদের কোনো অভাব নেই।

তাই, আপনি অনেক সহজে নিজের ব্যবসা (business) বা পণ্যের (products) প্রচার (promotion) বা মার্কেটিং এই ফেসবুকের মাধ্যমে করতে পারবেন।

এতে, আপনার ব্যবসা বা প্রোডাক্ট গুলিকে, নিজের ঘরে বসে বসেই লক্ষ্যবস্তু (targeted) গ্রাহকদের কাছে মার্কেটিং করা যাবে।

তাছাড়া, physical marketing এর তুলনায় এই ধরণের digital marketing এ অনেক কম খরচ হয়।

ফেসবুকের উপকারিতা নিয়ে যখন কথা হয়, তখন এটা সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ উপকার হিসেবে অবশই বলতে হবে।

কেননা, ব্যবসায়ীরা (businessman) এভাবে “Facebook marketing” করে প্রচুর পরিমানে লাভ পেয়ে যাচ্ছেন।

product marketing করার কিছু লাভজনক উপায় ফেসবুকে রয়েছে।

৮. Saving your images & videos remotely 

আপনি জানেন, আমার স্কুল (school) জীবনের থেকে শুরু করে বর্তমান সময়ের, প্রত্যেকটি স্মরণীয় ছবি (images) এবং videos কিন্তু এখনো আমার কাছে রয়েছে।

এবং, সেটা সম্ভব হয়েছে ফেসবুকের মাধ্যমে।

আমরা যখন ফেসবুকে যেকোনো ছবি বা ভিডিও, শেয়ার (share) করি, তখন সেগুলি Facebook এর hosting server এ সেভ হয়ে থাকে।

তাই, সেই ছবিগুলি যতই পুরোনো হয়ে যাকনা কেন, নিজের ফেসবুকের একাউন্ট থেকে যেকোনো সময় আবার ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

নিজের কম্পিউটার বা মোবাইলে ছবি বা ভিডিও রাখলে, সেগুলি ভবিষ্যতে হারিয়ে যাওয়ার অনেক কারণ থাকতেই পারে।

তবে, ফেসবুকে ছবি আপলোড করে রাখলে, সেগুলি চিরকাল Facebook এর server এ সুরক্ষিত থাকবে।

তাহলে, ফেসবুকের এটাও কিন্তু একটা সাংঘাতিক ভালো লাভ বা সুবিধা।

৯. Video, news & entertainment 

সত্যি বললে, ৭০% লোকেরা ফেসবুক ব্যবহার করেন, “মনোরঞ্জন” (entertainment) এর উদ্দেশ্যে।

কারণ, ফেসবুকে বিভিন্ন বিষয় রয়েছে যেগুলি মনোরঞ্জনের সাথে জড়িত।

যেমন, news, short films, videos, meme এবং আরো অন্যান্য entertainment related contents প্রত্যেকদিন ফেসবুকে publish করা হয়।

তাছাড়া, বিভিন্ন entertainment industry গুলির সাথে জড়িত pages এবং groups থাকার ফলে, মনোরঞ্জনের দিক দিয়ে ফেসবুকের ব্যবহার দুগুণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এর বাইরেও যেটা সবচেয়ে মজার জিনিস, সেটা হলো “Facebook news feed” বা “Home page“.

এখানে আপনারা অন্যদের শেয়ার ও আপলোড করা “status”, “images” এবং “videos” দেখতে পান।

এবং, ফেসবুকের এই ভাগটাই কিন্তু আমাদের সব থেকে বেশি মনোরঞ্জিত (entertain) করে।

এখনের এই ব্যস্ততা ভরা জীবনে, মনোরঞ্জন দেওয়ার  দিক দিয়ে, ফেসবুক কিন্তু আমাদের অনেক উপকার করছে।

১০. Earn money using Facebook 

হে, আপনারা ঠিকি শুনেছেন। ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইন টাকা আয় করা সম্ভব।

আমি আমার আগের কিছু আর্টিকেলে “ফেইসবুক থেকে আয়” করার বিষয় নিয়ে কথা বলেছি।

হাজার হাজার লোকেরা ফেসবুকের থেকে অনলাইন টাকা আয় করছেন।

তাই, আপনিও ওপরের আর্টিকেল গুলি পড়ে, Facebook থেকে income করার উপায় গুলি জেনেনিতে পারবেন।

এটা কিন্তু, ফেসবুক একাউন্ট থাকার সাংঘাতিক একটি লাভ।

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, আশা করছি আমি এই আর্টিকেলে “ফেসবুকের লাভ এবং উপকারিতা ” নিয়ে আপনাদের কিছু ভালো তথ্য দিতে পারলাম।

তবে, অনলাইন প্রযুক্তি এবং ফেসবুকের সুবিধা যতটাই রয়েছে, এদের অপকারিতাও কিন্তু প্রচুর।

সেই বিষয়ে আমরা পরে অন্য আর্টিকেলে কথা বলবো।

আজকেই বিষয় নিয়ে যদি আপনার মনে কোনো অন্য প্রশ্ন বা সমস্যা থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাকে জিগেশ করতে পারবেন।

 

Related Contents:

1 thought on “ফেসবুকের ১০ টি উপকারিতা এবং লাভ (Advantages Of Facebook)”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top