বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় কয়েকটি সার্চ ইঞ্জিনের নাম – (সেরা ১৪ টি)

যখন জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন শব্দটি বলা হয়, তখন আমরা গুগল (Google) সার্চ ইঞ্জিন এর কথা সর্ব প্রথমে ভেবে থাকি।

জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিনের নাম
গুগল সার্চ ইঞ্জিন ছাড়া অন্যান্য জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন।

সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন কোনটি এই প্রশ্নটি করলে আমাদের সরাসরি উত্তর হবে, “গুগল”.

কারণ, গুগল সার্চ ইঞ্জিন এর মার্কেট শেয়ার সব থেকে অধিক যেটা বর্তমানে প্রায় 92.47%.

এবং, গুগল এর পরেই বিং (Bing) হলো দ্বিতীয় সব থেকে অধিক ব্যবহার করা বা হওয়া সার্চ ইঞ্জিন যেটার মার্কেট শেয়ার বর্তমানে প্রায় 2.71%.

এমনিতে গুগল হতে পারে সার্চ ইঞ্জিন এর মধ্যে সেরা তবে গুগল এর বাইরেও কিছু জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন রয়েছে যেগুলোকে এখনো অধিক পরিমানে ব্যবহার করা হয়।

হতে পারে আপনি বা আমি এখন পর্যন্ত এই web search engine গুলোর বিষয়ে জানতামনা, তবে প্রত্যেক দিন millions এর মধ্যে search queries গুলোর সরবরাহ করা করা হয়।

তাই, যদি আপনি Google এর বাইরে কিছু অন্যান্য কিছু সার্চ ইঞ্জিন এর নাম জেনেনিতে চাইছেন, তাহলে এই আর্টিকেল আপনার কাজে আসবে।

আর আমার হিসেবে একবার হলেও এই ওয়েব সার্চ ইঞ্জিন গুলোকে আপনি ব্যবহার করে অবশই দেখুন।

চলুন নিচে আমরা সরাসরি Top 14 Most Popular Search Engines In The World এর তালিকা দেখেনেই।

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুলোর নাম কি ?

এখানে আমি আপনাদের গুগলের বাইরে অধিক ব্যবহার হওয়া কয়েকটি জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন এর নাম তালিকা সহিসেবে দিয়ে দিচ্ছি।

তালিকার শেষে, প্রত্যেকটি সার্চ ইঞ্জিন এর বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য নিচে দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

  1. Microsoft Bing 
  2. Yahoo 
  3. Baidu 
  4. Yandex 
  5. DuckDuckGo 
  6. Ask.com 
  7. Swisscows.com
  8. Startpage.com
  9. Searchencrypt.com
  10. Excite.com
  11. Onesearch.com
  12. Wolframalpha.com
  13. Archive.org
  14. Aol.com

তাহলে চলুন বন্ধুরা এখন আমরা ওপরে বলা প্রত্যেকটি সার্চ ইঞ্জিন গুলোর বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে জেনেনেই।

১. Microsoft Bing 

২০২০ সালে Bing সার্চ ইঞ্জিন এর নামটি Microsoft Bing হিসেবে পাল্টে রাখা হয়েছিল।

Google search পরে যদি কোনো সেরা এবং জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন এর কথা বলা হয়, তাহলে সেটা Microsoft Bing search engine কে বলা যেতে পারে।

Microsoft এর তরফ থেকে Google সার্চ কে প্রতিযোগিতা দেওয়ার ক্ষেত্রে Bing search engine টিকে নিয়ে আসা হয়।

তবে, অবশই অধিক সংখ্যক সাধারণ ইউসার (user) এর ক্ষেত্রে Bing এর তুলনায় Google অনেকটাই প্রাসঙ্গিক (relevant) সমাধান বা সার্চ রেজাল্ট দিয়ে থাকে।

আর এটাই কারণ যে গুগল এর তুলনায় Bing search এর ব্যবহার প্রচুর কম।

তবে মনে রাখবেন, Microsoft Bing কিন্তু Google পরে দ্বিতীয় সব থেকে অধিক ব্যবহার হওয়া সার্চ ইঞ্জিন।

Microsoft এর আগেকার কিছু সার্চ ইঞ্জিন গুলোর (MSN Search, Windows Live Search, Live Search) থেকেই Microsoft Bing উৎপন্ন করা হয়েছে।

২. Yahoo 

Yahoo হলো একটি অনেক জনপ্রিয় ইমেইল প্রোভাইডার (e-mail provider) যেটার ইমেইল সার্ভিস অনেক বেশি পরিমানে ব্যবহার করা হয়।

ইয়াহু ইমেইল সার্ভিস এর সাথে সাথে Yahoo search নামের একটি সার্ভিস তাদের রয়েছে যেটা মূলত একটি সার্চ ইঞ্জিন।

আর যদি আমি ভুল বলছিনা তাহলে Yahoo search engine হলো তৃতীয় সব থেকে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন যেটার মার্কেট শেয়ার প্রায় 1%.

যদি আপনি নিজের কম্পিউটার বা মোবাইলে ফায়ারফক্স ওয়েব ব্রাউজার ব্যবহার করে থাকেন তাহলে দেখবেন যে Yahoo search সেখানে default web browser হিসেবে set রয়েছে।

March 2, 1995 সালে Yahoo search engine  টিকে launch করা হয়।

৩. Baidu 

বাইডু (baidu) সার্চ হলো একটি জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন যেটাকে চীনের (China) দ্বারা তৈরি করা হয়েছে।

এর সুবিধা এবং ফীচার গুলো প্রায় গুগল সার্চ এর মতোই যদিও সার্চ ইঞ্জিন এর মূল ফোকাস (focus) তাদের চীন দেশের ভেতরেই রয়েছে।

Baidu search result গুলোতে চীন দেশের সম্পূর্ণ আইন কানুন মেনে সেই হিসেবে কনটেন্ট বা রেজাল্ট গুলোকে দেখানো হয়।

চীন দেশের সার্চ ইঞ্জিন মার্কেট শেয়ার এর মধ্যে বাইডুর প্রায় 80.14% শেয়ার রয়েছে।

মানে বুঝতেই পারছেন যে, চীন দেশের ভেতরে তাদের নিজের এই সার্চ ইঞ্জিন কতটা অধিক পরিমানে ব্যবহার করা হয়।

৪. Yandex 

Yandex অবশই একটি বিখ্যাত ওয়েব সার্চ ইঞ্জিন যেটা যেকোনো অন্য সার্চ ইঞ্জিন এর মতোই কাজ করে থাকে।

এই সার্চ ইঞ্জিন এর মাধ্যমে সরাসরি images, videos, maps, text search results ইত্যাদি সার্চ করতে পারবেন।

এদের আবার Yandex mail নামের একটি email service এবং Yandex web browser ও রয়েছে।

Yandex search একটি Russia র কোম্পানি Yandex এর দ্বারা প্রদান করা সেবা (service).

Russia দেশের মধ্যে তাদের নিজের ইয়ানডেক্স সার্চ ইঞ্জিন অনেক বেশি পরিমানেই ব্যবহার করা হয়।

৫. DuckDuckGo 

DuckDuckGo একটি জনপ্রিয় internet search engine যেটা সঠিক সার্চ রেসাল্ট দেওয়ার সাথে সাথে ইউসার (user) এর প্রাইভেসী (privacy) রক্ষা করার ওপরেও প্রচুর জোর দিয়ে থাকে।

এই উন্নত সার্চ ইঞ্জিন এর একটি দারুন বৈশিষ্ট রয়েছে যেটা হলো, এখানে যেকোনো একটি search term বা search term এর বিপরীতে একি search results প্রত্যেক user এর ক্ষেত্রে দেখানো হয়।

এখানে user এর রূপরেখার আন্দাজ নিয়ে সার্চ রেজাল্ট গুলোকে আলাদা আলাদা ভাবে দেখানো হয়না।

তাই এখানে, প্রত্যেক প্রশ্ন, সমস্যা বা সার্চ টার্ম এর বিপরীতে একি সার্চ রেজাল্ট প্রত্যেককেই দেখানো হয়।

এই সার্চ ইঞ্জিন ২০০৮ সালে সর্ব প্রথমে নিয়ে আসা হয়।

DuckDuckGo সার্চ ইঞ্জিন এর মার্কেট শেয়ার প্রায় 0.45% বলা যেতে পারে।

৬. Ask.com 

Ask.com কে আবার অনেকেই Ask Jeeves নামেও চেনেন।

সার্চ মার্কেট শেয়ার এর কথা যদি বলা হয় তাহলে Ask.com প্রায় 0.42% সার্চ শেয়ার পেয়ে থাকে।

Ask মূলত একটি প্রশ্ন উত্তর অনলাইন পোর্টাল হিসেবেই কাজ করে থাকে যেখানে জিগেশ করা বেশিরভাগ প্রশ্নের উত্তর অন্যান্য user দ্বারা বা polls এর মাধ্যমে দেওয়া হয়।

এই search engine সর্ব প্রথমে 1996 সালে শুরু করা হয়েছিল।

এটা অনেক সোজা এবং সরল সার্চ ইঞ্জিন যেখানে সরাসরি আপনার সার্চ করা প্রশ্নের উত্তর হিসেবে প্রাসঙ্গিক ওয়েব পেজ গুলো দেখিয়ে দেওয়া হয়।

৭. Swisscows.com 

Swisscows হলো Switzerland-based একটি private search engine যেটা user এর privacy রাখা করার সাথে সাথে সঠিক সার্চ রেজাল্ট গুলো দিয়ে থাকে।

Privacy এবং security র ক্ষেত্রে এই সার্চ ইঞ্জিন এর নিয়ম অনেকটাই কড়া।

তাদের হিসেবে তারা প্রতিশ্রুতি নিয়ে রেখেছেন যে user এর data, personal information সংগ্রহ বা ট্র্যাক করা হবেনা।

এছাড়া এটাও বলা হয়েছে যে, যখন swisscows.com ব্যবহার করা হয় তখন আমাদের আইপি এড্রেস (IP address) এবং browser details কোনোটাই রেকর্ড করা হয়না।

এর বাইরেও, device operating system এবং আপনার search terms কোনোটার রেকর্ড রাখা হবেনা।

তাই, যদি সত্যি বলা হয় নিজের প্রাইভেসী সম্পূর্ণ ভাবে রক্ষা করে ইন্টারনেটে সার্চ করার ক্ষেত্রে এই সার্চ ইঞ্জিন এর ভূমিকা কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ।

৮. Startpage.com 

এই সার্চ ইঞ্জিনটিও কিন্তু মূলত ইউসার (user) এর প্রাইভেসী রক্ষা করার ক্ষেত্রে জোর দিয়ে থাকে।

নিজের online privacy সম্পূর্ণ ভাবে রক্ষা করে আপনি ইন্টারনেটে সার্চ করতে পারবেন।

Google এবং Bing এর তুলনায় startpage.com অধিক user privacy এবং protection প্রদান করে থাকে।

এই search engine টিকে launch করা হয়েছিল 1998 সালে।

এখানে মূলত গুগল থেকে উত্তর সরবরাহ করে এনে আমাদের দেখানো হয়, তবে এখানে আমাদের সার্চ হিস্ট্রি গুলোকে স্টোর বা ট্র্যাক করা হবেনা।

৯. Searchencrypt.com 

এটাও একটি ইন্টারনেট সার্চ ইঞ্জিন যেটার বিষয়ে অনেকেই জানেন।

বলা হয়েছে যে এখানে আমরা উন্নত সার্চ রেজাল্ট এবং ভালো ইউসার এক্সপেরিয়েন্স পেয়ে থাকি।

Search engine টির গঠন কিন্তু দেখতে কিছুটা Google search এর মতোই।

এখানে আপনারা web, image, news, videos এই আলাদা আলাদা ক্যাটাগিরি গুলোতে রেজাল্ট সার্চ করতে পারবেন।

১০. Excite.com 

Excite অবশই চেনা পরিচিত একটি জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন যেটাকে অনেকেই ব্যবহার করে থাকেন এবং তাই টপ ১০ এর তালিকাতেও এর উল্লেখ জরুরি।

এটা মূলত একটি online service portal যেটা বিভিন্ন রকমের ইন্টারনেট সেবা আমাদের প্রদান করে থাকে।

যেমন, email, search engine, news, instant messaging এবং weather updates.

১১. Onesearch.com 

এটা দেখতে অনেক simple একটি online search engine যেখানে user এর privacy রক্ষা করা ক্ষেত্রে Advanced Privacy Mode দেওয়া হয়েছে।

তাই এখানে কোনো ধরণের user tracking করা হয়না এবং search history record করা হয়না।

Search engine এর user interface অনেক পরিষ্কার এবং স্পষ্ট।

সার্চ করার আগে আপনারা চাইলে location, time এবং Region সেট করতে পারবেন।

User এর সুবিধার জন্য এখানেও All, images, videos, news এই আলাদা আলাদা ক্যাটেগরিতে তথ্য সার্চ করতে পারবেন।

১২. Wolframalpha.com 

এটা মূলত একটি computational knowledge সার্চ ইঞ্জিন যেখানে আপনারা Mathematics, science & technology, society & culture, everyday life ইত্যাদির সাথে জড়িত প্রশ্ন গুলোর উত্তর বা সমাধান খুঁজে পাবেন।

এখানে সার্চ রেজাল্ট হিসেবে আমাদের কোনো ধরণের documents এর লিস্ট বা web pages গুলোকে দেখানো হয়না।

প্রত্যেকটি সার্চ করা প্রশ্নের রেজাল্ট গুলো এখানে facts & data গুলোর ওপরে দেওয়া হয়।

১৩. Archive.org 

এটা হলো একটি internet archive search engine যেটার মাধ্যমে আমরা যেকোনো ওয়েবসাইটের অতীত (past) দেখে নিতে পারি।

ধরুন একটি ওয়েবসাইট ২০১৫ সালে দেখতে কিরকম ছিল এবং সেখানে কি কি তথ্য থাকতো সবটাই আপনারা দেখতে পারবেন।

এভাবে যেকোনো ওয়েবসাইটের অতীত 1996 পর্যন্ত দেখে নিতে পারবেন।

এটা আপনার জন্য অনেক কাজের টুল প্রমাণিত হতে পারে যদি আপনি কোনো ডোমেইন এর ইতিহাস এর বিষয়ে জানতে চাইছেন।

১৪. Aol.com 

AOL অনেক পুরোনো একটি ওয়েব সার্চ ইঞ্জিন যেটার বিষয়ে অনেকেই হয়তো শুনেছেন।

এই পুরোনো সার্চ ইঞ্জিন এর মার্কেট শেয়ার প্রায় 0.05%.

এই online service provider কোম্পানিটির নিজের একটি free web-based email service রয়েছে যেটা AOL Mail নাম বিখ্যাত।

AOL search এর মাধ্যমে web, image, multimedia, shopping, news এবং local search results গুলোকে খুঁজে পাওয়া যাবে।

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, গুগল ছাড়া অন্যান্য জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুলোর নাম আমি ওপরে আপনাদের এক এক করে বললাম।

সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন কোনটি, এই প্রশ্নটি করলে ওপরে বলা সার্চ ইঞ্জিন গুলোর কথা বলা যেতেই পারে।

তাই, সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুলো (Most Popular Search Engines) নিয়ে লিখা আমাদের আর্টিকেল যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে,

তাহলে অবশই আর্টিকেলটি শেয়ার অবশই করবেন।

এছাড়া, আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, নিচে কমেন্ট করে কিন্তু অবশই জানাবেন।

 

>> Related Articles <<

1 thought on “বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় কয়েকটি সার্চ ইঞ্জিনের নাম – (সেরা ১৪ টি)”

  1. আমরা সাধারণত সার্চ ইঞ্জিন বলতে গুগল অথবা ইয়াহুকে চিনি।

    তবে, পৃথিবীতে আরও অনেক সার্চ ইঞ্জিন আছে, যেগুলির নাম আমরা অনেকেই জানি না।

    ধন্যবাদ আপনাকে

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap