পডকাস্ট (podcast) কি ? (What Is Podcast in Bangla) – সম্পূর্ণ তথ্য

আজকে আমরা জানবো, পডকাস্ট কি (What Is Podcast in Bangla) এবং কিভাবে পডকাস্ট (podcast) করবেন সেই বিষয়ে।

Podcast মানে কি ?

বর্তমান সময়ে প্রায় অনেকেই YouTube এর মধ্যে নিজেদের তৈরি করা video গুলো upload করেন।

তাছাড়া, অনেকে আবার নিজের ব্লগ সাইটে article, images বা অন্যান্য content publish করে থাকেন।

তবে আপনি কি কখনো নিজের voice record করে সেগুলোকে ইন্টারনেটে আপলোড বা শেয়ার করেছেন ?

করেননি ? তবে, পডকাস্টিং মানে কিন্তু এটাই।

দেখুন, যেভাবে আমরা আমাদের social media profile, blog বা YouTube চ্যানেলে, নিজেদের জ্ঞান, অভিজ্ঞতা এবং বিচার গুলো শেয়ার করে থাকি,

ঠিক সেভাবেই, পডকাস্ট (podcast) এর ক্ষেত্রেও আমরা আমাদের বিচার, আইডিয়া, জ্ঞান ইত্যাদি ইন্টারনেটের মাধ্যমে লোকেদের সাথে শেয়ার করি।

কিন্তু, পডকাস্টিং (podcasting) এর ক্ষেত্রে আপনাকে কথা বলে নিজের voice record করে সেগুলো শেয়ার বা আপলোড করতে হয়।

আর তাই, পডকাস্টিং এর বিষয়টা অন্যান্য platform গুলোর থেকে সামান্য আলাদা।

বিভিন্ন developed countries গুলোতে আগের থেকেই podcasting করা হয় এবং সেখানে এটা অনেক জনপ্রিয়।

তবে, ভারত কে নিয়ে কিছু এশিয়ান দেশ গুলোতে podcast এর বিষয়টা নতুন।

তাই, যদি আপনিও জানেননা যে, “পডকাস্ট কাকে বলে (about podcast in Bengali)”, তাহলে আজকের আর্টিকেল আপনার কাজে আসবে।

পডকাস্ট মানে কি ? (What Is Podcast in Bangla)

যখন প্রশ্ন হচ্ছে যে, পডকাস্ট কি ? তখন এর উত্তর অনেক সোজা।

যেকোনো একটি কনটেন্ট যেটা audio এর form এর মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছে, সেই content টিকে podcasting বা podcast বলা যেতে পারে।

Podcast এর বিষয়ে লিখা আমার এই আর্টিকেলটি আপনারা বর্তমানে পড়ছেন।

কারণ, আমি আর্টিকেলটি আমার ব্লগে text এর form এ publish করেছি।

কিন্তু যদি, আমি এই একি আর্টিকেলটি যেকোনো “mobile” বা “audio recorder” এর মাধ্যমে voice  record করে তৈরি করি এবং সেই voice file টি ইন্টারনেটে শেয়ার করি,

তাহলে সেই digital audio file টিকেই বলা হবে “podcast”.

তাই মনে রাখবেন, podcast হলো যেকোনো বিষয়ে audio হিসেবে record করা আমাদের আলোচনা বা কথাবার্তা।

যখন আমরা কথা বলে voice এর মাধ্যমে record করে কনটেন্ট তৈরি করি, তখন সেই voice content টিকে podcast বলা হয়।

এবং, যখন সেই podcast টি বা voice file টি আপনি ইন্টারনেটে এমন একটি platform এর মধ্যে upload বা share করবেন যেখানে অনেক লোকেরা আপনার record করা audio file টি শুনবেন,

তখন এই প্রক্রিয়াকেই পোলা হয় পডকাস্টিং (podcasting).

আপনি পডকাস্টিং (podcasting) কে নিজের একটি radio station বলে বুঝে নিতে পারবেন।

পডকাস্টিং কিভাবে শুরু করবেন ?

দেখুন আমরা বুঝে তো গেলাম যে পডকাস্ট মানে হলো “রেকর্ড করা একটি অডিও ফাইল”.

তবে, আমাদের রেকর্ড করা অডিও ফাইলটি আমরা যাতে ইন্টারনেটে শেয়ার ও আপলোড করতে পারি, তার জন্য আমাদের একটি platform এর প্রয়োজন হবে।

ইন্টারনেটে এমনিতে অনেক গুলো podcasting platforms রয়েছে, যেগুলোতে আপনি আপনার podcast শেয়ার করতে পারবেন।

এর ফলে অন্যান্য লোকেরাও আপনার রেকর্ড করা অডিও বা পডকাস্ট শুনে নিতে পারবেন।

বর্তমানে জনপ্রিয় কিছু podcasting website গুলো হলো,

এই online podcasting platforms গুলো আপনারা ফ্রীতেই ব্যবহার করতে পারবেন।

Podcast record করা এবং সেগুলোকে distribute / share / upload করা, সবটাই এক জায়গাতেই করে নিতে পারবেন।

তাছাড়া, যদি আপনার একটি WordPress website / blog রয়েছে,

তাহলে আপনারা সোজা পডকাস্ট গুলোকে তৈরি করে নিজের ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ বা ওয়েবসাইটে আপলোড করে দিতে পারবেন।

এমনিতে, podcast শেয়ার করার সব থেকে ভালো platform আমার হিসেবে “Google podcasts“.

পডকাস্ট করতে কি কি লাগবে ?

যিহেতু পডকাস্ট মানে হলো আপনার রেকর্ড করা অডিও ফাইল।

তাই, পডকাস্টিং করতে আপনার voice recording এর সাথে জড়িত জিনিস গুলো লাগবে।

  • একটি ভালো voice recorder.
  • ভালো মানের একটি mic (microphone).
  • আপনার রেকর্ড করা voice এর quality যতটা ভালো এবং স্পষ্ট থাকবে, লোকেরা ততটাই পছন্দ করবেন আপনার পডকাস্ট।

মনে রাখবেন, এক্ষেত্রে আপনার কনটেন্ট হলো আপনার record করা audio টি।

তাই, audio এর quality নিয়ে compromise করা চলবেনা।

  • যদি আপনার কাছে একটি ভালো smartphone আছে, তাহলে সেটাকে voice recorder হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।
  • পডকাস্ট রেকর্ড করার ক্ষেত্রে আপনার একটি শান্ত জায়গার প্রয়োজন অবশই হবে।

Record করা audio ফাইলে যাতে কোনো রকমের background noise না থাকে, এক্ষেত্রে একটি শান্ত জায়গার প্রয়োজন।

তাছাড়া, একটি ভালো audio editor আপনার অবশই ব্যবহার করা দরকার।

এতে, আপনার audio file টির background noise সরানোর সাথে সাথে audio quality ভালো করা যাবে।

আপনি, Audacity download করে ব্যবহার করতে পারবেন। এটা সম্পূর্ণ ফ্রি এবং ভালো অডিও এডিটর।

কোন বিষয়ে পডকাস্ট তৈরি করবেন ?

দেখুন, যখনি পডকাস্ট রেকর্ড করার সিদ্ধান্ত নিবেন তখন পডকাস্ট এর বিষয় নিয়ে আগেই ভেবে রাখতে হবে।

কেননা, আপনার সময়ে সময়ে পডকাস্ট গুলোকে পাবলিশ করতে হয়।

তাই, যদি অজানা বিষয় নিয়ে পডকাস্ট তৈরি করতে যাচ্ছেন, তাহলে কিছু দিন পরে topic নিয়ে আপনার সমস্যা হবে।

এজন্যে, আপনি ভালো করে ভেবে দেখুন আপনার কোন বিষয়ে রুচি (interest) রয়েছে।

কোন বিষয়ে পডকাস্ট তৈরি করলে আপনি প্রচুর তথ্য প্রদান করতে পারবেন, কোন বিষয়ে আপনার অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান রয়েছে, এই নিয়ে আপনার চিন্তা করতে হবে।

এমনিতে, আপনি যেকোনো বিষয়েই পডকাস্ট তৈরি করতে পারবেন।

এগুলো হলো কিছু জনপ্রিয় টপিক (topic) যেগুলো ওপরে পডকাস্ট শুরু করতে পারবেন – 

  • ভালোবাসার গল্প (love story).
  • প্রেরণামূলক কথা বা গল্প (motivational).
  • খবর (latest news).
  • স্বাস্থ্য (Health). 
  • প্রযুক্তি (technology).
  • ইন্টারনেট টিপ্স (Internet tips).
  • মনোরঞ্জন (entertainment).

এছাড়াও আরো অনেক topics রয়েছে যেগুলোর ওপরে podcast শুরু করা যেতে পারে।

পডকাস্ট করে কি লাভ হবে ? (Advantages of podcasting)

যেভাবে blogging বা YouTube এর বিভিন্ন লাভ রয়েছে, ঠিক সেভাবেই podcasting করেও আপনার প্রচুর লাভ হতে পারে।

যেমন,

১. নিজের ব্র্যান্ড তৈরি করতে পারবেন

যখন আপনার আপলোড করা পডকাস্ট গুলো শুনে লোকেরা পছন্দ করবেন তখন তারা বার আপনার নতুন পডকাস্ট গুলোকে শুনতে চলে আসবেন।

এভাবে, আপনি ইন্টারনেটে নিজের একটি ভালো ছবি বা ব্র্যান্ড (brand) বানিয়ে নিতে পারবেন।

লোকেরা আপনাকে চিনবেন এবং আপনার পডকাস্ট গুলোর মাধ্যমে আপনাকে পছন্দ করবেন।

২. পডকাস্ট করে টাকা আয় করুন

হে, পডকাস্টিং এর মাধ্যমে টাকা আয় করা সম্ভব।

টাকা আয় করার জন্য আপনারা বিভিন্ন উপায় গুলোর ব্যবহার করতে পারবেন।

যেমন,

  • Sponsorship 
  • Monthly subscription model 
  • Direct promotion 

চলুন বিষয় গুলো একটি বিস্তারিত ভাবে জেনেনেই।

Sponsorship – যখন আপনার podcast শোনা listeners দের সংখ্যা প্রচুর হয়ে যাবে তখন আপনারা sponsorship এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

পডকাস্টিং থেকে টাকা আয় করার এই প্রক্রিয়া অনেক জনপ্রিয় ও সোজা। কেবল আপনার userbase প্রচুর থাকতে হবে।

কোম্পানি গুলো আপনাকে তাদের product বা services এর বিষয়ে আপনার listeners দের বলতে বলবে। যার বিপরীতে, কোম্পানি গুলো আপনাকে টাকা দিবে।

এটাই হলো sponsorship.

Monthly Subscription Modelএক্ষেত্রে আপনি আপনার পডকাস্ট গুলোকে পেইড (paid) হিসেবে publish করে টাকা আয় করতে পারবেন।

মানে, আপনি আপনার কিছু podcast গুলোকে ফ্রীতে শোনার জন্য রাখতে পারেন।

এবং, আপনার listeners দের বলে দিন যে, যদি তারা আপনার আরো পডকাস্ট গুলো শুনতে চান, তাহলে monthly subscription plan নিতে হবে।

ধরুন আপনি আপনার podcast গুলোর জন্য ১০০ টাকার monthly subscription plan রাখলেন।

তাহলে যদি কেবল ৩০০ জন আপনার podcast এর monthly subscription কিনেন, তাহলে ১০০ X ৩০০ = ৩০,০০০ টাকা এক মাসেই।

পডকাস্টিং এর মাধ্যমে টাকা আয় করার এই মডেলটি দারুন।

Direct promotion যখন আপনার userbase বা listeners দের সংখ্যা প্রচুর থাকবে, তখন নানান product, website, blog বা business গুলোর direct promotion করেও টাকা আয় করতে পারবেন।

এই ক্ষেত্রে আপনার কিছু ভালো clients বা company গুলোকে খুঁজে বের করতে হবে যারা আপনার পডকাস্ট গুলোতে তাদের product গুলো promote করতে চাইবেন।

পডকাস্টিং এর ভবিষ্যৎ কি ?

বর্তমান সময়ে পডকাস্টিং এর বিষয়টা লোকেদের মধ্যে অনলাইনে টাকা আয় করার একটি নতুন বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তাই, যদি আপনার listeners দের একটি ভালো userbase রয়েছে,

তাহলে পডকাস্টিং করে ভালো টাকা আয় করা সম্ভব।

তাছাড়া, নানান podcasting platforms রয়েছে যারা আপনার podcast গুলোতে বিজ্ঞাপন (ads) এর প্রচার করে এবং যার বিপরীতে আপনি ইনকাম করতে পারেন।

তাই, এই ক্ষেত্রে লাভ অবশই রয়েছে।

এখন, যদি podcasting এর ভবিষ্যতের কথা বলা হয়,

তাহলে, এর ভবিষ্যৎ কিন্তু উজ্জ্বল।

কেননা, বর্তমানের internet এবং digital world এর সময়ে আমরা যেকোনো বিষয়ে পরে জ্ঞান অর্জন করতে পছন্দ করিনা।

তাই, আমরা ভিডিও দেখে ইন্টারনেট থেকে যেকোনো বিষয়ে জ্ঞান নিয়ে নেওয়াটা অধিক পছন্দ করি।

কিন্তু, podcasting এর ফলে আপনার যেকোনো বিষয়ে দেখে বা পড়ে জ্ঞান নিতে হয়না।

এক্ষেত্রে, কেবল কানে শুনে আমরা যেকোনো বিষয়ে জেনেনিতে পারছি।

মনোরঞ্জন হোক বা গল্প, যেকোনো বিষয়ে কেবল শুনেই মজা নিতে পারছি podcasting এর মাধ্যমে।

তাই, আসছে সময়ে podcast এর প্রচলন ও ব্যবহার আরো অধিক বাড়ার সম্ভাবনা প্রচুর।

এর future আমার হিসেবে অনেক ভালো।

 

আজকে আমরা কি শিখলাম ?

তাহলে বন্ধুরা, আজকে আমরা জানলাম, পডকাস্ট কি বা পডকাস্ট কাকে বলে (what is podcast in Bengali)।

তাছাড়া, এর লাভ এবং কিভাবে করব পডকাস্ট ? এই বিষয় গুলো নিয়েও আমরা কথা বললাম।

আমার সব সময় এটাই চেষ্টা থাকে যাতে আমি আপনাদের সম্পূর্ণ সঠিক ও কাজের তথ্য দিয়ে দিতে পারি।

তাই, পডকাস্ট এর বিষয়ে (about podcast) লিখা আজকের আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

তাছাড়া, আজকের এই আর্টিকেল “podcast meaning in Bangla” যদি আপনাদের ভালো লেগেছে, তাহলে আর্টিকেলটি শেয়ার অবশই করবেন।

 

0 Shares

A Blogger & Author ! Rahul Das is recognized as a technology Blogger who founded "BanglaTech" & "SidhaJawab". He is passionate about blogging. ❤️

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap