নেটফ্লিক্স কি ? কিভাবে ব্যবহার করব – (নেটফ্লিক্সের সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান)

নেটফ্লিক্স কি ? (What is Netflix in Bengali), নেটফ্লিক্স এর কাজ কি ? নেটফ্লিক্স কিভাবে ব্যবহার করব এবং এর বিভিন্ন সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান (Netflix subscription plan) গুলোর বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে জেনে রাখুন। 

নেটফ্লিক্স কি
Netflix কি ?

‘Netflix অ্যান্ড Chill’ – সম্প্রতি এই সময়ে, এই কথাটি ব্যাপকভাবে জনপ্রিয় হয়েছিল, এমনকি এখনও এটা সমানভাবেই জনপ্রিয়। 

যেখানে বিশ্ব তথা ভারতের মতো দেশে ওয়েব সিরিজ, অনলাইনে মুভি ও টিভি সিরিয়াল দেখার দৌরাত্ম যেভাবে বেড়ে চলেছে,

তাতে মানুষের থিয়েটারমুখী ও সোপ অপেরা-নির্ভর জীবনযাত্রার মালিকাধীন হওয়ার প্রবণতা চরম হারে কমছে।   

শুধুমাত্র ইন্টারনেট সংযোগ, স্মার্টফোন বা যেকোনো ইলেকট্রনিক ডিসপ্লে ডিভাইস থাকলেই, আপনি একেবারেই এন্টারটেইনমেন্ট রেডি!

এমনই একটা অন্যতম, আন্তর্জাতিক ও লোকপ্রিয় ওভার-দ্য-টপ বা OTT প্ল্যাটফর্ম হল নেটফ্লিক্স। 

যেখানে ঘরে বসেই দুনিয়া-রাজ্যের টিভি ও মুভি কনটেন্ট দেখা কোনো ব্যাপারই না!

আজকে আমাদের এই আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করতে চলেছি, Netflix কি ? (about Netflix in Bengali), এর কাজ, ব্যবহারের পদ্ধতিঅ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম এবং আরও নানান দরকারি বিষয় সম্পর্কে।

চলুন, প্রথমে জানা যাক যে, নেটফ্লিক্স আসলে কি ?

নেটফ্লিক্স কি – (What is Netflix)

Netflix হল এক ধরণের সাবস্ক্রিপশন-ভিত্তিক স্ট্রিমিং সার্ভিস, যা সাবস্ক্রাইবড সদস্যদের ইন্টারনেট-সংযুক্ত ডিভাইসে বিজ্ঞাপনহীনভাবে টিভি শো ও সিনেমা দেখতে দেয়। 

এটি হল পৃথিবীর সেরা নেতৃস্থানীয় প্রিমিয়াম মিডিয়া স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম।

আমেরিকা-ভিত্তিক এই মিডিয়া-স্ট্রিমিং ও ভিডিও-রেন্টাল কোম্পানিটি স্থাপিত হয়েছিল ১৯৯৭ সালে। 

প্রথমদিকে, এই ধরণের প্ল্যাটফর্মটি মেইল-ইন DVD ভাড়া দেওয়ার পরিষেবা দেওয়ার মাধ্যমে শুরু হয়েছিল। 

যদিও, এখনও তারা এই পরিষেবাটি দিয়ে থাকে, তবে এটা কেবলমাত্র আমেরিকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ। 

তবে, ১৯৯৯ সালে নেটফ্লিক্স তাদের অনলাইন সাবস্ক্রিপশন পরিষেবা দেওয়া শুরু করে।

ইন্টারনেটের বিশ্বব্যাপী দখলের সম্ভাবনাকে সফলভাবে আন্দাজ করে এই কোম্পানিটি তাদের ব্যবসায়িক মডেলকে পরিবর্তিত প্রযুক্তির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ রূপান্তরিত করতে পেরেছে বলেই নেটফ্লিক্স হয়ে উঠেছে অন্যান্য অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিস কোম্পানি গুলোর তুলনায় অনেকটাই বেশি সফল। 

এই প্ল্যাটফর্মটি তার Netflix Originals প্রোগ্রামের সাহায্যে দুনিয়ার অন্যতম বৃহত্তম মিডিয়া প্রকাশক হিসাবে শীর্ষ স্থান সুরক্ষিত করেছে।    

বর্তমানে, সারা বিশ্বে এই কোম্পানির প্রায় ২,২০০ লক্ষেরও বেশি সাবস্ক্রাইবার রয়েছে। 

Netflix এর মাধ্যমে কি করা যাবে ?

নেটফ্লিক্সের মাধ্যমে আপনি আপনার Android, iOS, কিংবা Windows 10 ডিভাইস থেকে অনলাইনে ইন্টারনেট সংযোগের সাহায্যে বিভিন্ন টিভি শো ও সিনেমা দেখতে পারবেন অথবা ডাউনলোড করে অফলাইনেও দেখতে পারবেন।

এখানে আপনার কনটেন্ট গুলো অঞ্চলভেদে পরিবর্তিত হয় কিংবা সময়ের সাথে-সাথেও পরিবর্তিত হতে পারে। 

আপনি এখানে নানান অ্যাওয়ার্ড-উইনিং Netflix Originals প্রোগ্রাম, টিভি শো, ডকুমেন্টারী, ফিল্ম ও আরও অনেক কিছু দেখতে পারেন। 

আর, আপনি যত বেশি নেটফ্লিক্স কনটেন্ট দেখবেন, ততই ভালোভাবে আপনি এখান থেকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী টিভি শো কিংবা ফিল্মের রেকোমেন্ডেশন পাবেন। 

এর অরিজিন্যাল কনটেন্টগুলো খুবই উন্নতমানের ও বিনোদনমূলক হয়ে থাকে – যাকে এর লোকপ্রিয়তার অন্যতম কারণ হিসেবে ধরা হয়। 

এই নেটফ্লিক্স অরিজিনাল প্রোগ্রামটি শুরু হয় ২০১৩ সাল থেকে। 

এদের প্রথম অরিজিনাল প্রোগ্রাম ছিল ‘হাউস অফ কার্ডস’। 

আর, এখনও পর্যন্ত এদের সেরার সেরা অরিজিনাল কনটেন্ট ‘স্ট্রেঞ্জার থিংস’ ভারতের মতোই সারা পৃথিবীতেও ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

কোন কোন ডিভাইসে নেটফ্লিক্স দেখা যায় ?

নেটফ্লিক্স এর ক্ষেত্রে আপনি যেকোনো স্ট্রিমিং মিডিয়া প্লেয়ার, স্মার্ট টিভি, গেম কনসোল, সেট-টপ বক্স, স্মার্টফোন, ট্যাবলেটের মতো ইন্টারনেট-সংযুক্ত ডিভাইসে, এর নিজস্ব অ্যাপ্লিকেশন বা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কনটেন্ট গুলো দেখতে দেয়। 

এমনকি, এর ইন্টারনেট ব্রাউজার ব্যবহার করেও আপনি কম্পিউটারেও Netflix দেখতে পারেন। 

এই প্ল্যাটফর্মে বিনাবাধায় কনটেন্ট অ্যাক্সেস করার জন্যে, আপনার স্টেডি ইন্টারনেট সংযোগ ও সাপোর্টেড ডিভাইসের প্রয়োজন হয়।

নেটফ্লিক্সে ইন্টারনেট সংযোগের প্রয়োজনীয়তা ও ডেটার ব্যবহার:

অনেক সাবস্ক্রাইবারই এখনও ডেটা ক্যাপ ও কম ব্যান্ডউইথের প্ল্যান ব্যবহার করে। 

তাই, নেটফ্লিক্সের কাছে ডেটার ব্যবহার একটা উদ্বেগের বিষয় হয়ে উঠেছে। 

আপনি যেকোনো ল্যাপটপ, স্মার্টফোন, কিংবা স্মার্ট টিভিতেই সংযুক্ত থাকুন না কেন, ভালো ইন্টারনেট সংযোগ ছাড়া এর স্ট্রিমিং বাধাগ্রস্ত হতে পারে।

তবে, Netflix-এ সর্বনিম্ন ০.৫ Mbps-এর ইন্টারনেট স্পিড প্রয়োজন হয়।

কিন্তু, স্মুথ স্ট্রিমিং অভিজ্ঞতার জন্য এই প্ল্যাটফর্মটি আপনাকে ১.৫ Mbps ইন্টারনেট স্পীড রাখার সুপারিশ দিয়ে থাকে। 

নীচে নেটফ্লিক্সের প্রস্তাবিত ইন্টারনেট গতির একটা সম্পূর্ণ তালিকা দেওয়া হল –

০.৫ Mbps: ন্যূনতম প্রয়োজনীয় ইন্টারনেট স্পিড।

১.৫ Mbps: প্রস্তাবিত প্রয়োজনীয় ইন্টারনেট স্পিড।

৩.০ Mbps: SD স্ট্রিমিংয়ের জন্য প্রস্তাবিত ইন্টারনেট স্পিড।

৫.০ Mbps: HD স্ট্রিমিংয়ের জন্য প্রস্তাবিত ইন্টারনেট স্পিড।

২৫ Mbps: UHD (4K) স্ট্রিমিংয়ের জন্য প্রস্তাবিত ইন্টারনেট স্পিড।

নেটফ্লিক্স এর কাজ কি ?

নেটফ্লিক্সের স্ট্রিমিং সার্ভিসের সবচেয়ে বিস্তৃত লাইব্রেরিগুলো রয়েছে আর এটিকে ব্যবহার করাও বেশ সহজ। 

এখানে একবার সাইন আপ করে লগ ইন করলে, আপনি এর ইউসার-ফ্রেন্ডলী ইন্টারফেসের অ্যাক্সেস পাবেন

যেখানে আপনি এর জনপ্রিয় শোগুলোকে তালিকাভুক্ত অবস্থায় আলাদা আলাদা ক্যাটেগরি থেকে দেখতে পাবেন।

Netflix-এর সমস্ত ভিডিও ফাইল বিভিন্ন দূরবর্তী সার্ভারে সংরক্ষিত থাকে। 

আপনাকে ভিডিওগুলো স্ট্রিম করার জন্যে যেকোনো ফিল্ম বা শো নির্বাচন করতে হয়। 

আর, এই স্ট্রীম শুরু হতে কয়েক মুহূর্ত সময় লাগতে পারে। 

কিন্তু, ইন্টারনেট সংযোগ স্থিতিশীল না হলে, বাধাহীন ভাবে নেটফ্লিক্স দেখার ক্ষেত্রে বাফার বা প্রি-লোডের জন্যে কয়েক সেকেন্ড বা মিনিট সময় দেওয়া উচিত।

আপনি এখানে যত বেশি সিনেমা বা শো দেখবেন, ততই নেটফ্লিক্স আপনার দেখার ইতিহাসের উপর নির্ভর করে নতুন শো বা সিনেমাগুলো সুপারিশ করে থাকে। 

তবে, এইভাবে আপনি যে সবসময় সঠিক সুপারিশ পাবেন তা নয়,

তাই নেটফ্লিক্সে ভালো শো দেখতে গেলে আপনি বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট বা বন্ধুর সুপারিশের উপরও নির্ভর করতে পারেন। 

এছাড়াও, আপনি স্মার্টফোন ও টিভি অ্যাপে ‘Play Something’ বাটনে ক্লিক করতে পারেন ও Netflix আপনার আগের দেখার ইতিহাস ও পছন্দের ভিত্তিতে করে যা খুশি প্লে করতে পারে। 

এইগুলো বাদ দিলেও, আপনি নিজের মতো নেটফ্লিক্সে উপলব্ধ যা খুশি কনটেন্ট সার্চ করে দেখতে পারেন।

নেটফ্লিক্স কিভাবে ব্যবহার করব ?

নেটফ্লিক্স ব্যবহার করার আগে, আপনাকে জানানোটা জরুরি যে, এটি হল একটি পেইড স্ট্রিমিং সার্ভিস। 

অর্থাৎ, এখান থেকে কনটেন্ট দেখার জন্যে আপনাকে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা দিতে হয়,

ঠিক যেমন আপনার টেলিভিশনে কেবিল চ্যানেল দেখতে আপনি আপনার কেবিল নেটওয়ার্ক প্রোভাইডারদের একটা নির্দিষ্ট ফী দিয়ে থাকেন। 

তবে, নেটফ্লিক্স ব্যবহার করা অনেকটাই সোজা। 

আপনি কিভাবে নেটফ্লিক্স ব্যবহার করবেন, তা ধাপে ধাপে বর্ণনা করা হল –

আপনাকে আপনার ডিভাইসের ভিত্তিতে নেটফ্লিক্স ব্রাউসার বা অ্যাপ্লিকেশন ওপেন বা ডাউনলোড করতে হবে। 

তারপর, আপনাকে নেটফ্লিক্সে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্যে প্রয়োজনীয় বিবরণ দিতে হবে।

এরপর, আপনি যে মাসিক বা বাৎসরিক প্ল্যান নিতে চান, সেটা বেছে নিয়ে অনলাইনে পেমেন্ট করতে হবে। 

পেমেন্ট সফলভাবে হয়ে গেলে আপনি আপনার নেটফ্লিক্স অ্যাকাউন্ট থেকে এই প্ল্যাটফর্মের অ্যাক্সেস পেয়ে যাবেন। 

 সাইনআপ করার পরে, আপনার সাবস্ক্রিবার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ ইন করতে হবে।

এরপর আপনি আপনার যেকোনো ডিভাইস থেকে আপনার সাবস্ক্রাইবার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে নেটফ্লিক্স ব্যবহার করতে পারবেন।    

নেটফ্লিক্সের সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান:

২০১৬ সালে নেটফ্লিক্স ভারতে প্রবেশ করেছিল প্রচুর অরিজিনাল মুভি ও টেলিভিশন শোয়ের একচেটিয়া বিক্রির প্রস্তাব নিয়ে। 

প্রথমদিকে, এই প্ল্যাটফর্মের ভারত-ভিত্তিক বা আঞ্চলিক কন্টেন্টের অভাব থাকলেও, এটি অনেক মৌলিক ও স্থানীয় কনটেন্ট তৈরির জন্যে যথেষ্ট বিনিয়োগ করে। 

তবে, ইন্ডিয়ার ওটিটি মার্কেট ধরার জন্যে নেটফ্লিক্স জিও ও এয়ারটেলের সাথে পার্টনারশীপ করে একসাথে অনেক সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান অফার করছে।

এই প্ল্যানগুলো যাতে প্রতিটা আর্থিক স্তরের মানুষের সাধ্যের মধ্যে হয়, তাই এই কোম্পানিটি বিভিন্ন ধরণের আর্থিক পরিকল্পনা দিয়ে থাকে। 

এখানে আমরা ২০২২ সাল অনুযায়ী, নেটফ্লিক্স ইন্ডিয়ার সাবস্ক্রিপশন প্ল্যানের তালিকা প্রস্তুত করলাম, যাতে আপনি আপনার সবচেয়ে উপযুক্ত প্ল্যানটি বেছে নিতে পারেন। 

তবে, আপনার বাছা প্ল্যানটি সম্পূর্ণভাবে ভিডিওর গুণমান ও একই সময়ে আপনি কতগুলি স্ক্রীনে নেটফ্লিক্স দেখতে চান, তার উপর নির্ভর করে –

নেটফ্লিক্স ইন্ডিয়ার সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান:

 

এই প্ল্যানগুলো ছাড়াও, নেটওয়ার্ক সার্ভিস প্রোভাইডারের সাথে পার্টনারশিপের ভিত্তিতেও নেটফ্লিক্স বিভিন্ন ধরণের সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান অফার করে থাকে 

আপনি আপনার প্রোভাইডারের উপর ভিত্তি করে, আপনার প্ল্যানগুলো একবার দেখে নিতে পারেন। 

নেটফ্লিক্স অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম:

দুর্দান্ত স্ট্রিমিং কনটেন্টসহ নেটফ্লিক্স নিঃসন্দেহে অনেকেরই প্রিয় একটা ওটিটি প্ল্যাটফর্ম। 

যদি, আরও অনেকের মতোই আপনিও নেটফ্লিক্সের সেরা কন্টেন্টগুলোর অ্যাক্সেস পেতে চান,

তাহলে নিচে বর্ণিত ধাপগুলো অনুসরণ করে খুলে ফেলুন একটা নেটফ্লিক্স অ্যাকাউন্ট –

  1. গুগল প্লে স্টোর, অ্যাপল অ্যাপ স্টোর থেকে নেটফ্লিক্স অ্যাপ ডাউনলোড করুন কিংবা ওয়েব ব্রাউসার থেকে নেটফ্লিক্স ওয়েবসাইটে যান।
  2. এরপরে, Netflix অ্যাপ খুলুন বা ওয়েবসাইটের মাঝখানে থাকা লাল রঙের ‘get started’ বাটনে ক্লিক করুন।
  3. আপনার ইমেল আইডি ও পাসওয়ার্ড যুক্ত করে আপনার নিজস্ব নেটফ্লিক্স অ্যাকাউন্ট তৈরি করুন
  4. আপনার সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান নির্বাচন করুন।
  5. আপনার ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের বিবরণ যোগ করুন।
  6. পেমেন্ট পদ্ধতি কন্ফার্ম করতে হলে OTP লিখুন।
  7. আপনার প্রোফাইল চয়ন করুন, যেখান থেকে আপনি নেটফ্লিক্স কনটেন্ট দেখতে চান।
  8. সবশেষে, আপনার ডিভাইস এখন আপনার নেটফ্লিক্স অ্যাকাউন্টের সাথে সংযুক্ত হল।

নেটফ্লিক্স সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান কীভাবে বন্ধ করা যায় ?

যদি নেটফ্লিক্স আপনার পছন্দ না হয়, তাহলে আপনি এই স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম থেকে যেকোনো মুহূর্তেই আপনার সাবস্ক্রিপশন তুলে নিতে পারবেন।

তবে, আপনি শুধুমাত্র ওয়েব ব্রাউজার থেকেই সাবস্ক্রিপশন বাতিল করতে পারবেন। 

নিচে ধাপে ধাপে আনসাবস্ক্রাইব করার পদ্ধতিগুলো বর্ণনা করা হল – 

১. আপনি আপনার যেকোনো ওয়েব ব্রাউসার খুলে আপনার নেটফ্লিক্স অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করুন।

২. আপনার প্রোফাইল ক্লিক করে ওপেন করুন।

৩. ডানদিকে থাকা আপনার প্রোফাইল ডিসপ্লে পিকচারে ক্লিক করে অ্যাকাউন্ট নির্বাচন করুন।

৪. অ্যাকাউন্টের অধীনে থাকা আপনার ‘membership and billing’-এর বিভাগের  ‘cancel membership’ বিকল্পটি দেখতে পাবেন।

৫. ‘unsubscribe’-এ ক্লিক করুন।

আমাদের শেষ কথা,,

আজকে আমাদের নেটফ্লিক্স কি ?, এর ব্যবহার, কাজঅ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম নিয়ে লেখা আর্টিকেলটি এখানেই শেষ হল।

তাহলে, আপনি কোন নেটফ্লিক্স প্ল্যানিং নিতে আগ্রহী কিংবা কোন শোটি আপনার সবথেকে বেশি পছন্দ হয়েছে, তা অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

(উপরে আলোচিত নেটফ্লিক্সের সাবস্ক্রিপশন প্ল্যানটি সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তনসাপেক্ষ).

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top