ফ্রিল্যান্সিং কাজ কিভাবে শিখবো এবং শুরু করবো? (২০২৪)

Last updated on April 14th, 2024 at 12:42 pm

আপনিও অবশই ঘরে বসে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার উদ্দেশ্যে ফ্রিল্যান্সিং করার কথা ভাবছেন।

এক্ষেত্রে, কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবো বা কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো এই দুটি প্রশ্ন আপনার মনে অবশই চলে আসতে পারে।

আর তাই, আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আমরা সমস্ত কিছু জানার চেষ্টা করবো।

আজকে আমরা কি কি শিখবো?

  • ফিলাংসি কাজ কিভাবে শিখবো?
  • কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট খুলব?
  • অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কিভাবে নিতে পারবেন?
  • কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো ?
  • Freelancing এর কাজ কিভাবে পাবো ?
  • সেরা কিছু ফ্রিল্যান্সিং কাজ / দক্ষতা (skills) যেগুলোর চাহিদা প্রচুর 

আমরা প্রত্যেকেই জানি, ফ্রিল্যান্সিং হলো এমন এক ট্রাস্টেড উপায় যার দ্বারা অনলাইন মাধ্যমে প্রচুর পরিমান টাকা ইনকাম করা যেতে পারে।

আজ বিশ্বজুড়ে হাজার লক্ষ freelancers রয়েছে, যারা নিজের পছন্দ মতো যেকোনো জায়গার থেকে freelancing কাজ গুলি করছেন এবং সাধারণ চাকরির তুলনায় দুগুণ থেকেও অধিক টাকা আয় করছেন।

তাহলে চলুন, বেশি সময় নষ্ট না করে আমরা জেনেনি, ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য আপনাকে কি কি করতে হবে এবং কোন কোন বিষয়ে জানতে হবে।

আর্টিকেল সূচি: show

ফ্রিল্যান্সিং মানে কি? (What is freelancing)

ফ্রিল্যান্সিং কাজ কিভাবে শিখবো
How to get freelancing knowledge and training?

ফ্রিল্যান্সিং হলো এমন একটি প্রক্রিয়া, যেখানে আপনি নিজের skills, knowledge, experience, qualification ইত্যাদি ব্যবহার করে, অন্য ব্যক্তি দের জন্য কাজ করবেন।

এবং, আপনি যেই ব্যক্তির জন্য কাজ করবেন, সেই ব্যক্তি কাজ করার বিনিময়ে আপনাকে কিছু টাকা দিয়ে দিবে।

Freelancing হলো সেই পরিবেশ যেখানে আপনি একজন freelance বা self-employed হিসেবে জীবন-নির্বাহ করছেন এবং আপনার ওপর কারো মালিকানা অধিকার থাকবেনা।

সোজা ভাবে বললে, চাকরির চিন্তা না করে আপনি একটি boss free life এর মজা নিতে পারবেন।

এই ক্ষেত্রে, আপনি কোনো নির্দিষ্ট নিয়োগকর্তা (employer), সংগঠন, কোম্পানি বা দল এর সাথে সংযুক্ত থাকছেননা।

Freelancing এর ক্ষেত্রে, আপনি একজন self-employed যে কেবল নিজের জন্য নিজের মালিক হয়ে কাজ করছে। যেই ব্যক্তি freelancing এর কাজ করে জীবন-নির্বাহ করছেন, তাকে “Freelancer” বলা হয়।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করা মানেই, অন্যান্ন ব্যক্তি বা কোম্পনির জন্য চুক্তি হিসেবে কাজ করা।

আর তাই, freelancing এর কাজ করার জন্য আপনার মধ্যে কিছু বিশেষ talent বা skills থাকতেই হবে, যেগুলো আপনি সার্ভিস হিসেবে অন্যদের বিক্রি করতে পারবেন।

তবে এক্ষেত্রে, আপনার মধ্যে যেকোনো ধরণেরই skills বা talent থাকতে পারে।

যেমন, web designing, app developer, graphic designer, content writer, WordPress developer ইত্যাদি হাজার হাজার ধরণের কাজ রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে freelancing করতে পারবেন।

ফিলাংসি কাজ কিভাবে শিখবো? (ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ)

বন্ধুরা, আগের সেই সময় চলে গেছে যেখানে একটি নতুন বিষয়ে জানার ও প্রশিক্ষণ নেওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের অনেক সময় লেগে যেতো।

আজ হলো ইন্টারনেটের সময়। আর তাই, যেকোনো নতুন বিষয়ে নিমিষের মধ্যে জেনে নেওয়া সম্ভব এই ইন্টারনেটের মাধ্যমে।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব“, এই প্রশ্ন করার সাথে সাথে দুটো বিষয়ে আপনার জেনে রাখা দরকার।

প্রথম বিষয়,

Freelancing হলো একটি profession যেখানে আপনার মধ্যে কিছু বিশেষ কাজের দক্ষতা, অভিজ্ঞতা বা জ্ঞান থাকাটা জরুরি।

তাই, যখনি freelancing শেখার কথা চলে আসছে তখন আপনাকে মূলত একটি বা একাধিক ক্ষেত্রে ভালো দক্ষতা অর্জন করতে হয়।

Digital marketing, social media management, content writing, android developer, প্রচুর বিষয় গুলি রয়েছে, যেগুলিতে দক্ষতা অর্জন করার পর আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

তাই প্রথমেই আপনার যেকোনো বিষয়ে সম্পূর্ণ জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করতে হবে। এতে, ভবিষ্যতে আপনি অন্যদের জন্য সেই কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

দ্বিতীয় বিষয়,

কেবল প্রফেশনাল কাজ জানা থাকলেই আপনি ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে পারবেননা।

ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য আপনার সাধারণ প্রশিক্ষণ অবশই নিয়ে নিতে হবে যাতে সঠিক ভাবে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শুরু করা যেতে পারে।

তাই এখানে, শেখার মধ্যে আপনার মূলত, ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য প্রথমে কি কি করতে হয় সেই বিষয় গুলি ভালো করে জেনে রাখতে হবে।

উদাহরণ স্বরূপে,

  • অনলাইনে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট খুলব?
  • সেরা ফ্রিল্যান্সিং সাইট কোনগুলো?
  • কিভাবে কাজ খুজবেন?
  • সঠিক ভাবে কাজ করার নিয়ম কি?
  • ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ গুলো করার কৌশল 
  • কিভাবে নিজেকে জনপ্রিয় freelancer হিসেবে তৈরি করবেন ?

শুরুতেই আপনাকে এই ধরণের বিষয় গুলো নিয়ে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে, যদি আপনি নিজের একটি ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার তৈরি করার কথা ভাবছেন।

এখন ঘুরে ফিরে প্রশ্ন এটাই আসলো যে, প্রথম এবং দ্বিতীয় ভাগে বলা এই কাজ গুলো কিভাবে শিখবো? আর এর সোজা উত্তর হলো অনলাইনে ইন্টারনেটের মাধ্যমে

অনলাইন মাধ্যমে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবো?

দেখুন, সত্যি বলতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হলে উপায় অনেক পাবেন। আর এই উপায় গুলির মধ্যে কিছু কার্যকর উপায়গুলি নিচে শেয়ার করা হয়েছে।

অনলাইনে ইন্টারনেটের মাধ্যমে freelancing এর প্রশিক্ষণ ও কাজ শেখার বিভিন্ন প্লাটফর্ম রয়েছে।

Google Search:

আপনারা অনেক সহজেই Google search করে প্রচুর ওয়েবসাইট খুঁজে পাবেন যেখানে freelancing এর গুরুত্বপূর্ণ প্রশিক্ষণ রয়েছে।

YouTube:

YouTube হলো এমন একটি জনপ্রিয় platform, যেখানে ফ্রীতেই যেকোনো বিষয়ে ভিডিওর মাধ্যমে জেনে নেওয়া সম্ভব। তাই, YouTube এর মাধমেও freelancing এর বিষয়ে সম্পূর্ণ প্রশিক্ষণ ও জ্ঞান পেয়ে যাবেন।

Udemy:

Udemy হলো এমন একটি জনপ্রিয় online website যেখানে যেকোনো professional course আপনারা পেয়ে যাবেন। হে, কিছু টাকা আপনার অবশই দিতে হবে।

তবে, professional ভাবে freelancing শেখার জন্য Udemy video courses কিন্তু সেরা।

Lynda.com:

Lynda.com হলো একটি জনপ্রিয় online platform, যেখানে ভিডিওর মাধ্যমে freelancing সহ অন্যান্য অনেক ধরণের courses করে নিতে পারবেন। এখানে আপনারা ১ মাসের জন্য ফ্রি এক্সেস পাবেন।

Khanacademy:

Khanacademy হলো জনপ্রিয় online platform যেখানে আপনারা freelancing এর সাথে জড়িত tutorials পাবেন।

Skillshare.com:

Skillshare.com হলো একটি অনেক জনপ্রিয় এবং বিখ্যাত online learning community যেখানে গিয়ে জেকেও নানান ধরণের কোর্স গুলি করতে পারবেন।

যেমন, illustration, design, photography, video, freelancing, এবং আরো অন্যান্য নানান বিষয়ে কোর্স গুলি করা যাবে।

তাহলে বুঝলেন তো, Freelancing শেখার জন্য আপনার কোন online platform গুলো ব্যবহার করা দরকার। তবে, আপনারা চাইলে local institute থেকেও freelancing এর training নিতে পারবেন।

কিন্তু, local institute গুলোর তুলনায় Udemy বা YouTube এর মাধ্যমে আপনারা অনেক সহজে, জলদি ও প্রফেশনাল ভাবে বিষয় গুলো বুঝতে পারবেন।

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করব – (How To Start Freelancing)

একজন Freelancer হিসেবে ক্যারিয়ার তৈরি করে কাজ শুরু করার জন্য আপনার শুরু থেকে স্টেপ বাই স্টেপ নানান কাজ গুলিকে করতে হবে।

  1. একটি বিশেষ কাজ বা স্কিল এর নির্বাচন করতে হবে।
  2. যেই কাজটি সিলেক্ট করেছেন, সেটিতে ভালো দক্ষতা অর্জন করুন।
  3. নিজের একটি ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট তৈরি করতে হবে।
  4. কাজের বিনিময়ে কত টাকা নিবেন সেটা ঠিক করুন।
  5. নেওয়া কাজ গুলো সঠিক সময়ে সঠিক ভাবে করুন এবং নিজের ভালো ছবি তৈরি করুন।

১. কাজ সিলেক্ট করুন:

আপনার যেকোনো একটি বিষয়, টপিক বা প্রফেশন নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং এর দুনিয়াতে আসতে হবে।

ধরুন, আপনি অনেক ভালো করে graphic design বা logo design করতে পারেন,

এক্ষেত্রে, আপনি graphic designer হিসেবে নিজের একটি একাউন্ট তৈরি করে logo designing এর কাজ গুলো খুঁজতে ও করতে পারবেন।

আপনি কোন কাজ সম্পূর্ণ নির্ভুল ভাবে করতে পারবেন, সেটা আগেই ভেবে নিতে হবে। কেননা, আপনার কাজ পছন্দ না হলে পরেরবার থেকে কাজ পেতে অসুবিধে হবে।

২. ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট তৈরি:

কোন স্কিল এর ওপরে কাজ করবেন সেটা ঠিক করার পর আপনার একটি ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট তৈরি করতে হবে। এক্ষেত্রে, প্রচুর জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্ম রয়েছে যেগুলোর ব্যবহার আপনি করতে পারবেন।

যেমন,

ওপরে বলা freelancing websites গুলোতে নিজের একটি account তৈরি করে, আপনারা নিজের জন্য দেশ বিদেশ থেকে প্রচুর কাজ পাওয়ার সুযোগ বানিয়ে নিতে পারবেন।

তবে, প্রথম অবস্থায় কাজ পেতে অসুবিধে হতেই পারে।

ধীরে ধীরে যখন আপনি নিজের একটি ভালো ছবি (brand) তৈরি করে নিবেন, তখন লোকেরা আপনাকে কাজ দিতে সংকোজ করবেননা।

৩. কাজের বিনিময়ে কত টাকা নিবেন:

প্রত্যেকটি কাজের বিনিময়ে আপনি ক্লায়েন্ট দের থেকে কত টাকা নিবেন, সেটা নিয়েও আপনার ভাবতে হবে।

দেখুন, প্রথম অবস্থায় আপনার অনেক কম টাকা নিয়েই কাজ করতে হবে।

কেননা, নতুন করে যখন আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করতে আসবেন, তখন লোকেরা আপনার ওপর তেমন বিশ্বাস রাখতে পারেনা।

তাই, শুরুতে অনেক কম charges রাখলে, কম টাকায় কাজ করিয়ে নেওয়ার লোভে আপনি অনেক clients এবং কাজ গুলি নিয়মিত পেতে থাকবেন।

৪. সঠিক সময়ে সঠিক ভাবে কাজ করুন:

মনে রাখবেন, ফ্রিল্যান্সিং এর জগতে প্রথম সময়টাই কিন্তু নিজের একটি ভালো ছবি তৈরি করার সুযোগ।

প্রথম সময়ে আপনি অনেক কম টাকা নিয়ে কাজ করবেন। আর তাই, কিছু clients/projects অবশই পাবেন।

আপনি কম টাকা নিচ্ছেন ঠিকি, কিন্তু ভালো করে সঠিক সময়ের মধ্যে কাজ করে দিতে পারলে,

আপনাকে ভালো ভালো review দেওয়া হবে এবং freelancing এর platform এর মধ্যে আপনার একটি ভালো ছবি তৈরি হবে।

আর একবার এটা হয়ে গেলে, পরের সময়ে আপনি নিজের মন মতো টাকা আদায় করতে পারবেন প্রত্যেক কাজের বিপরীতে।

নতুন নতুন ফ্রিল্যান্সিং কাজ বা প্রজেক্ট কিভাবে পাবো?

যখন আপনি নিজের একটি freelancing account তৈরি করে নিবেন, তখন সেই freelancing platform এর মধ্যে প্রচুর projects দেখতে পাবেন।

বিভিন্ন লোকেরা বা কোম্পানি গুলো তাদের প্রয়োজন হিসেবে কাজ/প্রজেক্ট গুলো পাবলিশ করে থাকেন।

আপনি কোন কাজ করতে চাচ্ছেন, সেই হিসেবে projects গুলো দেখে কাজ করার অনুরোধ জানাতে পারবেন।

যেই ব্যক্তি কাজ / প্রজেক্ট পাবলিশ করেছেন, সে যদি আপনাকে দিয়ে কাজ করাতে আগ্রহী হয়ে থাকে, তাহলে সে আপনাকে যোগাযোগ অবশই করবে।

তাছাড়া, Fiverr সহ অনেক freelancing platforms রয়েছে, যেগুলোতে আপনি কি কাজ কত টাকার মধ্যে করতে পারবেন, সেটা লিখে পাবলিশ করতে পারবেন।

এভাবে, কাজ করানোর জন্য আগ্রহী লোকেরা আপনাকে খুঁজে পেতে পারবেন এবং আপনার জন্য কাজ পাওয়ার সুযোগ হয়ে দাঁড়াবে।

জনপ্রিয় এবং লাভজনক ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলো কি?

যখন ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা আয় করার কথা হচ্ছে, তখন আমাদের মনে একটি বিশেষ প্রশ্ন অবশই চলে আসে।

ফ্রিল্যান্সিং এর ক্ষেত্রে কোন কাজ গুলো অধিক পরিমানে পাওয়া যাবে ? তাই তো ?

তাহলে জেনে রাখুন, এমনিতে বিভিন্ন ধরণের কাজ বা প্রজেক্ট করানোর উদ্দেশ্যে বিভিন্ন লোকেরা বা কোম্পানি এই ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্ম গুলোতে চলে আসে।

তবে, এমন কিছু বিশেষ কাজ রয়েছে যেগুলো করানোর জন্য ফ্রীল্যান্সার দের চাহিদা ও প্রয়োজন অধিক হয়ে থাকে।

সেই লাভজনক কাজ গুলো হলো,,

১. Content writing:

বর্তমান সময়ে যেকোনো business বা company, তাদের product, services বা business promotion এর ক্ষেত্রে article লিখানোর ক্ষেত্রে ভালো কনটেন্ট রাইটার দের খুজেঁ থাকে।

এই কাজ এর চাহিদা প্রচুর এবং তাই কনটেন্ট রাইটিং করে প্রচুর ইনকাম করা সম্ভব।

প্রত্যেকটি আর্টিকেল লিখার বিপরীতে আপনি $5 থেকে $15 বা তার থেকেও বেশি আদায় করতে পারবেন।

এছাড়াও, আরো অনেক কাজ রয়েছে যেগুলোর চাহিদা ফ্রিল্যান্সিং এর জগতে প্রচুর।

২. Web designing:

আজ যেকোনো business বা company নিজের একটি website design করিয়ে নিতে চান।

আর তাই, কমের মধ্যে একটি ভালো business website তৈরি করার জন্য একজন professional freelancer এর খোঁজ চলতেই থাকে।

৩. Graphic designer:

আপনি যদি গ্রাফিক ডিজাইন করতে জানেন, তাহলে freelancing করে ভালো টাকা আয় করতে পারবেন।

আজ যেকোনো business, website, product বা brand তাদের জন্য একটি ইউনিক লোগো (logo) বা গ্রাফিক্স ডিজাইন করানোর চাহিদা রাখেন।

তাই, একজন ফ্রীল্যান্সার এবং গ্রাফিক ডিজাইনার হিসেবে এই কাজ আপনি অবশই করতে পারবেন।

৪. Social media manager:

আজ প্রত্যেক company এবং business গুলোর নিজের নিজের social media profile রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে, কোম্পানি গুলো জনপ্রিয় কিছু সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলোতে প্রায় সব সময়ই সক্রিয় থাকেন।

এখন, এই account গুলোকে কম টাকায় manage করার ক্ষেত্রে কোম্পানিরা নানান freelancers দের hire করে থাকেন। এতে একজন freelancer হিসেবে আপনি ঘরে বসেই ইনকাম করার সুযোগ পেয়ে থাকেন।

৫. Digital marketing:

বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিং এর চাহিদা প্রচুর।

কোম্পানি গুলো তাদের business, product এবং services গুলোকে অনলাইনে প্রচার করানোর ক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ করানোর জন্য freelancers hire করেন।

৬. App developer:

আজ সবাই app তৈরি করে নিজের Android apps দিয়ে টাকা আয় করার কথা ভাবেন।

এক্ষেত্রে, অনেকেই এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করানোর ক্ষেত্রে freelancers দের এই কাজ দিয়ে থাকে। তাই, app developer হিসেবেও আজ freelancing করে প্রচুর ইনকাম সম্ভব।

৭. Animation:

হে, আপনি যদি animation এর কাজ জানেন তাহলেও freelancing এর মাধ্যমে অ্যানিমেশন এর সাথে জড়িত কাজ পেয়ে থাকবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর টাকা কিভাবে তুলতে হয়?

দেখুন যা আমি আগেই বলেছি, freelancing করে টাকা ইনকাম করতে হলে আপনাকে কিছু সেরা এবং ভালো freelancing marketplace গুলিতে গিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে হয়। যেমন ধরুন, Fiverr, Upwork, Guru, এই ধরণের মার্কেটপ্লেস গুলি হয়তো আপনি ব্যবহার করবেন বা করছেন।

যখন কোনো ব্যক্তি বা কোম্পানি এই freelancing marketplace গুলিতে এসে যেকোনো কাজ করানোর জন্য কাজ পোস্ট করে থাকে বা কোনো ধরণের কাজের অর্ডার প্লেস করে থাকেন, তখন সেই কাজের জন্য সে কত টাকা পেমেন্ট করতে চাইছে, সেই টাকা তাকে আগের থেকে মার্কেটপ্লেসে ডিপোজিট করতে হয়।

এবার, একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে এই freelancing website গুলিতে গিয়ে আপনি যখন কোনো কাজ সঠিক ভাবে এবং সঠিক সময়ে সম্পূর্ণ করে থাকেন, তখন আপনার একাউন্টে ক্লায়েন্ট থেকে আগের থেকে নিয়ে রাখা টাকা, পেমেন্ট হিসেবে ক্রেডিট করে দেওয়া হয়।

মনে রাখবেন, এক্ষেত্রে আপনার পাওয়া পেমেন্ট থেকে সামান্য কিছু অংশ freelancing marketplace দ্বারা কেটে নেওয়া হয়। এটা এক ধরণের সার্ভিস চার্জ বলেও বলা যেতে পারে।

এবার, নিজের freelancing account থেকে ইনকাম করা টাকা গুলিকে আপনারা PayPal, Bank Transfer, ইত্যাদি নানান মাধ্যমে তুলে নিতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো?

যদি আপনি মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাইছেন, তাহলে আপনাকে এমন কোনো online learning platform-গুলি ব্যবহার করা দরকার যেগুলি মোবাইলে ব্যবহার করা যাবে।

যদি আপনি একেবারে নতুন এবং জাস্ট ফ্রিল্যান্সিং স্টার্ট করছেন, সেক্ষেত্রে YouTube-থেকে নানান ফ্রিল্যান্সিং বাংলা কোর্স গুলি করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে, A-Z ফ্রিল্যান্সিং রিলেটেড সবটাই মোবাইল দিয়ে শিখতে পারবেন।

এছাড়া, ঘরে বসে মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হলে আপনারা নানান online freelancing course website/apps গুলির সাহায্য নিতে পারেন।

এই ধরণের ফ্রিল্যান্সিং শেখার কিছু সেরা অনলাইন ওয়েবসাইট/প্লাটফর্ম গুলি হলো,

ইন্টারনেটে এমন নানান ভালো ভালো ওয়েবসাইট গুলি পাবেন যেগুলিকে কাজে লাগিয়ে ঘরে বসে ফ্রীতে নিজের মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারবেন।

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট খুলব?

How to create a upwork freelancing account
Upwork freelancing account signup page.

ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট তৈরি করাটা অনেক সোজা এবং সরল একটি ব্যাপার।

আসলে এক্ষেত্রে আপনাকে একটি বা একাধিক freelancing website গুলিতে গিয়ে নিজের কিছু সাধারণ তথ্য গুলি জমা দিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে হয়।

যেকোনো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস ওয়েবসাইট এর মধ্যে প্রবেশ করার পর আপনারা একটি signup বা registration বাটন অবশই দেখবেন।

Freelancing account তৈরি করতে, আপনাকে সেই signup বাটনে click করতে হয়।

এবার আপনাকে আপনার নাম, ইমেইল আইডি এবং আপনি কি কাজ করবেন সেই কাজের বিষয়ে বলে দিয়ে একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করে নিতে হয়।

মনে রাখবেন, একটি ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট তৈরি করতে আপনাকে কোনো ধরণের টাকা দিতে হয়না এবং সম্পূর্ণ ফ্রেটেই আপনি আপনার পছন্দমতো কাজ গুলি খুঁজতে ও করতে পারবেন।

অবশই পড়ুন: কিভাবে আপওয়ার্কে কাজ পাওয়া যাবে?

FAQ: ফিলাংসি কাজ কিভাবে শিখবো?

১. ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো?

যদি আপনি সত্যি ফ্রিল্যান্সিং কাজ শিখতে চাইছেন, তাহলে আপনাকে শুরুতে ফ্রিল্যান্সিং এর বেসিক ধারণাটি নিয়ে নিতে হবে। তবে এর জন্য, আপনি YouTube এবং এই ধরণের অনলাইন প্লাটফর্ম গুলি ব্যবহার করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে, নিজের একটি niche, target client, freelance service rates কি নিবেন, portfolio তৈরি করা, এগুলি আগের থেকেই নিশ্চিত করতে হবে।

২. কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো?

Freelancing শুরু করার জন্য সবচেয়ে আগেই আপনাকে এমন একটি কাজ নিয়ে ভাবতে হবে যেই কাজে আপনি দক্ষ এবং যেই কাজটিকে একটি পরিষেবা হিসেবে আপনি অন্যদের দিতে পারবেন। এবার, দ্বিতীয়ত, আপনাকে Fiverr-এর মতো একটি ভালো freelancing marketplace-এর মধ্যে গিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে হবে। নিজের ফ্রিল্যান্সিং প্রোফাইলে জরুরি তথ্য, কাজের অভিজ্ঞতা, পূর্বে করা কাজের প্রমান, স্ক্রিনশট, প্রোফাইল পিকচার, ইত্যাদি যুক্ত করুন। এবার ধীরে ধীরে, পছন্দমতো কাজ গুলি খুজুন এবং ক্লায়েন্টদের থেকে কাজ নেওয়ার চেষ্টা করুন।

৩. আমি কিভাবে ফ্রিল্যান্স কাজ পেতে পারি?

ফ্রিল্যান্স কাজ পেতে আপনাকে নানান অনলাইন রিসোর্সেস গুলিকে কাজে লাগাতে হবে। যেমন, LinkedIn এবং এর মতো নানান সোশ্যাল মিডিয়া সাইট গুলি, অনলাইন জব সাইট গুলি এবং নানান ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলি।

৪. ফ্রিল্যান্সিং কি অনেক সহজ?

ফ্রিল্যান্সিং, অনলাইন মাধ্যমে টাকা ইনকাম করার একটি অনেক ট্রাস্টেড এবং কার্যকর উপায় হলেও ফ্রিল্যান্সিং কিন্তু অনেক সোজা একটি কাজ বা কাজের ধরণ না। তবে এটা সত্যি, যেকোনো ধরণেরই কাজের অভিজ্ঞতা বা দক্ষতা থাকলে, এই মাধ্যমে ইনকাম অবশই করা যেতে পারে। শুরুতে একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজের একটি ভালো ছবি বা পোর্টফোলিও তৈরি করার চেষ্টা আপনাকে করতে হবে। এটাই বেশিরভাগ ফ্রিল্যান্সারদের জন্য হয়ে দাঁড়ায় একটি অনেক চ্যালেঞ্জিং টাস্ক।

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, আশা করছি ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আপনাদের মনে থাকা প্রশ্ন গুলোর উত্তর আমি দিতে পেরেছি।

আমাদের আজকের এই আর্টিকেল, “how to learn freelancing” যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে আর্টিকেলটি শেয়ার অবশই করবেন।

এছাড়া, how to start freelancing নিয়ে লিখা আজকের আর্টিকেলের সাথে জড়িত যদি কোনো রকমের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকে, তাহলে নিচে কমেন্ট অবশই করবেন।

17 thoughts on “ফ্রিল্যান্সিং কাজ কিভাবে শিখবো এবং শুরু করবো? (২০২৪)”

  1. Avatar
    নাজিরা

    সাজিয়ে গুছিয়ে সুন্দর করে লেখার স্টাইলটায় আপনার আলাদা। খুবই ভালো লাগে আপনার পোস্টগুলো। অনেক অনেক ধন্যবাদ দাদা।

  2. Avatar

    নুতনদের জন্য নিঃসন্দেহে content টি suitable এবং perfect হয়েছে। অনেক অনেক ধন্যবাদ।

  3. Avatar

    সুন্দর ভাবে বুঝিয়েছেন। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

  4. Avatar

    খুব সুন্দর ভাবে বুঝতে পারলাম। অনেক ধন্যবাদ আপনাদেরকে।

  5. Avatar

    ভাই ওয়েবসাইট বানিয়ে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করাও কি ফ্রিল্যান্সিং একটু বলুন প্লিজ

    1. Avatar

      অবশই, সেটাও freelancing বলা যেতে পারে তবে আমি এভাবে আয় করার প্রক্রিয়াকে একটি professional business হিসেবে বলবো।

  6. Avatar

    আপনার লেখা পড়ে অনেক কিছু জানতে পারলাম। ধন্যবাদ আপনাকে।

      1. Avatar

        আপনার লেখা গুলো আমার খুব ভালো লেগেছে। ধন্যবাদ

        1. Avatar
          মোঃ সজল হোসেন

          আপনার লেখা গুলো পরে অনেক কিছু শিখতে পারছি ধন্যবাদ আপনাকে অনেক অনেক

  7. Avatar

    ধন্যবাদ, freelancing সম্পর্কে মোটামুটি ধারনা দেওয়ার জন্য

  8. Avatar

    অসাধারণ লেখা। নতুনদের জন্য ফ্রিলান্সিং নিয়ে একটি কমপ্লিট গাইডলাইন হবে।

  9. Avatar

    ভাই আপনাকে
    খুব ধন্যবাদ ইশ্বর আপনার ভালো করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top