মোবাইল ব্যাংকিং কি ? মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা এবং অসুবিধা

বর্তমান সময়ে আমরা প্রত্যেকেই মোবাইল ব্যাংকিং কি (what is mobile banking in Bengali) এই বিষয়ে অল্প হলেও কিছুটা জ্ঞান রাখি। তবে, mobile banking এর ফলে কি কি সুবিধা এবং অসুবিধা আমাদের হয়ে থাকে, এই বিষয়েও অনেকের মতামত খুবেক্টা পুরস্কার নয়।

মোবাইল ব্যাংকিং কি
মোবাইল ব্যাংকিং মানে কি ?

প্রায় কিছু বছর আগে, banking এর সাথে যেকোনো সেবার লাভ নেওয়ার জন্য আমাদের সরাসরি bank এর মধ্যে গিয়ে কাজ গুলো করতে হতো।

তবে, বর্তমান সময়ে উন্নত প্রযুক্তি (technology) এবং ইন্টারনেটের (internet) জনপ্রিয়তা এবং ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে banking sector এর ক্ষেত্রেও এদের ভূমিকা প্রচুর বৃদ্ধি পেয়েছে।

কেননা, আজ মোবাইল ব্যাংকিং (mobile banking) এবং ইন্টারনেট ব্যাংকিং (internet banking) এর সুবিধার ফলে ঘরে বসেই আমরা বিভিন্ন banking services গুলোর ব্যবহার করতে পারছি।

এই সবটাই সম্ভব হয়েছে উন্নত প্রযুক্তি এবং ইন্টারনেট এর ফলেই।

Mobile banking এবং internet banking দুটোই প্রচুর সুরক্ষিত এবং এদের ব্যবহার করে banking সেবা গুলোর ব্যবহার করাটাও কিন্তু অনেক সহজ।

আপনাকে বার বার bank এর মধ্যে গিয়ে নিজের সময় নষ্ট করার প্রয়োজন হয়না কেননা এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবার ব্যবহার করে একজন ব্যক্তি যেকোনো ধরণের লেন-দেন (transaction) যেকোনো জায়গার থেকে নিজের মোবাইলের মাধ্যমে করতে পারেন।

Balance enquiry, টাকা ট্রান্সফার (fund transfer), online payment, bill payment ইত্যাদি সবটাই করা যাবে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে।

আর এটাই কারণ যার ফলে বর্তমানে অধিক লোকেরা এই আধুনিক online banking technology টিকে নিজের জীবনধারার এক ভাগ বানিয়ে নিয়েছে।

এবং, আপনিও যদি মোবাইল ব্যাংকিং কাকে বলে (what is mobile banking in Bangla) এবং মোবাইল ব্যাংকিং এর বিষয়ে সবটাই জেনেনিতে চাইছেন,

তাহলে এই আর্টিকেল সম্পূর্ণ ভালো করে পড়ুন, সবটাই বুঝতে পারবেন।

মোবাইল ব্যাংকিং কি ? (what is mobile banking)

সোজা এবং সরল ভাবে যদি বলা হয় তাহলে মোবাইল এর মাধ্যমে ব্যাংকিং সেবার ব্যবহার করার প্রক্রিয়াকেই বলা হয় mobile banking.

যেমন, bank account এর balance check করা, fund transfer করা, bill payment করা ইত্যাদি এই ধরণের কাজ গুলো মোবাইল ব্যাংকিং দ্বারা করা সম্ভব।

আবার এভাবেও বলা যেতে পারে,

Mobile banking মানে হলো, “একটি mobile device এর মাধ্যমে করা প্রত্যেক আর্থিক লেনদেন (financial transaction) এর সাথে জড়িত কার্যকলাপ (Activity) গুলো”.

একটি ব্যাংক (bank) বা যেকোনো আর্থিক প্রতিষ্ঠান (financial institute) দ্বারা এই mobile banking service তাদের গ্রাহকদের (customers) প্রদান করা হয়।

এই mobile banking সেবার মাধ্যমে, গ্রাহকেরা তাদের সঠিক credentials (user ID, password ইত্যাদি) ব্যবহার করে নিজের smartphone বা tablet থেকে প্রায় প্রত্যেক ধরণের financial transactions গুলোকে remotely যেকোনো জায়গার থেকে পরিচালনা করতে পারেন।

এর মাধ্যমে ঘরে বসেই নিজের মোবাইল থেকে যেকোনো ব্যক্তির bank account এর মধ্যে নিজের bank account থেকে টাকা ট্রান্সফার (money transfer) করা সম্ভব।

আপনি যদিওবা নিজের শহর বা দেশের থেকে দূরে আছে, সেক্ষেত্রেও আপনার চিন্তা করতে হবেনা।

আপনি নিজের mobile device এর মধ্যে থাকা mobile banking app এর ব্যবহার করে যেকোনো ধরণের banking transaction সম্পন্ন করে নিতে পারবেন যার জন্য হয়তো আপনি ব্যাংকে যাওয়ার কথা ভাবছেন।

মূলত mobile banking এর সম্পূর্ণ লাভ smartphone থেকেই নেওয়া সম্ভব যদিও SMS এর মাধ্যমে সাধারণ মোবাইল থেকেও এর ব্যবহার করা সম্ভব।

তাই, বর্তমান সময়ে আমাদের প্রত্যেককেই এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবার বিষয়ে জেনে এর লাভ নেওয়াটা অনেক জরুরি।

তাহলে আশা করছি, মোবাইল ব্যাংকিং কাকে বলে এই বিষয়ে সম্পূর্ণটা আপনারা বুঝতেই পেরেছেন।

Mobile banking apps কি ?

একটি mobile banking app যেকোনো অন্য mobile app এর মতোই যেটাকে আপনারা নিজের bank এর official website বা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে Google play store থেকে download করতে পারবেন।

মোবাইলে নিজের ব্যাংক এর সাথে জড়িত সেবা গুলোর ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আপনার একটি platform এর প্রয়োজন হয়ে থাকে।

আর, সরাসরি bank এর server এর সাথে সংযুক্ত হয়ে থাকা সেই banking platform তৈরি করার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয় একটি application এর।

Bank এর server এর সাথে connected এই ধরণের official apps গুলোকেই বলা হয় mobile banking apps.

এই application এর মধ্যে সঠিক credentials (user ID, passcode ইত্যাদি) দিয়ে আপনি সুরক্ষিত ভাবে app এর মাধ্যমে সরাসরি নিজের bank এর সাথে সংযোগ স্থাপন করতে পারেন এবং জরুরি banking transactions গুলো করার সুবিধে আপনাকে দেওয়া হয়।

আপনার যেই bank এর account রয়েছে সেই ব্যাংক এর application (apps) আপনাকে ব্যবহার করতে হয়।

মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা ও লাভ

মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা ও লাভ কতটা রয়েছে সেটার অনুমান এর থেকেই লাগানো সম্ভব যে আজ প্রচুর লোকেরা banking এর দ্বারা প্রদান করা এই সেবার ব্যবহার করছেন।

বলতে গেলে এখনের আধুনিক সময়ের প্রত্যেক ব্যক্তি এই সেবার ব্যবহার করে banking transactions গুলো নিজের mobile থেকেই করছেন।

তবে, আগেকার সময়ের কিছু সংখ্যক লোকেরা এর সেবার ব্যবহার নিয়ে তেমন একটি জ্ঞান রাখেননা বলেই তারাও এখন মোবাইল ব্যাংকিং এর বিষয়ে অধিক জেনেনিতে চাইছেন।

Banking institutes গুলো তাদের mobile banking services গুলোকে সুরক্ষিত রাখার জন্যে প্রচুর কাজ করেছেন।

আর তাই, আসছে সময়ের মধ্যে এই আধুনিক banking service এর ব্যবহার আরো প্রচুর লোকেরা অবশই করবেন।

চলুন, নিচে আমরা মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা ও লাভ গুলো সরাসরি জেনেনেই।

Benefits of mobile banking service

Mobile banking এর ব্যবহার মূলত ইন্টারনেটের সাহায্যে করা হয়। তবে, এখনো প্রচুর গ্রাম রয়েছে যেখানে ইন্টারনেটের সুবিধে নেই। তাই, সেই জায়গা গুলোতে ইন্টারনেট ছাড়া SMS এবং phone call এর মাধ্যমে এই সেবার লাভ নেওয়া সম্ভব।
আপনি নিজের ঘরে বসে বা যেকোনো অন্য জায়গার থেকে কেবল mobile বা tablet এর মাধ্যমে ২৪ ঘন্টা এবং ৩৬৫ দিন মোবাইল ব্যাংকিং সেবার লাভ নিতে পারবেন।
Mobile banking কে internet banking এর তুলনায় অনেক সোজা, সহজ এবং সুরক্ষিত সেবা হিসেবে ধরা হয়।
Login credentials, pass code, transaction code ইত্যাদি ছাড়া কেও আপনার banking app এর অননুমোদিত ব্যবহার করতে পারবেননা। এই প্রত্যেকটি details কেবল আপনার কাছেই থাকবে।
যেকোনো সময় নিজের banking app এর মাধ্যমে recharge, bill payment, online payment, fund transfer ইত্যাদি কাজ গুলো করতে পারবেন। এই জরুরি কাজ গুলোর জন্য আপনাকে bank যেতে হবেনা।
যেকোনো সময় নিজের মোবাইলে bank account balance check করতে পারবেন।
মোবাইল ব্যাংকিং activate করে সেবার ব্যবহার করার প্রক্রিয়া অনেক সোজা যেটা জেকেও করতে পারবেন।
বর্তমান সময়ে প্রায় প্রত্যেক banking institute তাদের customers দের এই mobile banking এর সুবিধা দিয়ে থাকে। Bank এর official mobile banking app মোবাইলে download ও install করে এই সেবা চালু করা সম্ভব।
কিছু কিছু bank এই সেবার বিপরীতে অনেক সামান্য একটি charge নিয়ে থাকে। এবং, অনেক bank এই সেবা একেবারে বিনামূল্যে প্রদান করে থাকে।
Mobile banking এর মাধ্যমে bank এর সাথে জড়িত অন্যান্য সেবা গুলোর জন্য ঘরে বসেই সরাসরি apply করতে পারবেন। যেমন personal loan, home loan, RD, fixed deposit ইত্যাদি।
অনেক ব্যাংক এর মোবাইল ব্যাংকিং সেবার দ্বারা আপনি আপনার bank statement নিজের মোবাইলে download করে নিতে পারবেন।

মোবাইল ব্যাংকিং দ্বারা কি কি করা যাবে ?

  • Fund transfer (টাকার লেন-দেন)
  • Transaction history check করা।
  • RTGS, NEFT, IMPS ইত্যাদি।
  • Mobile এবং DTH recharge.
  • Online ticket booking.
  • Loan এর জন্য apply করা।
  • Electricity ইত্যাদি bill payment.
  • বিভিন্ন ধরণের online payment.
  • Bank statement check এবং download করা।
  • Account balance check করা।
  • RD, fixed deposited, mutual fund ইত্যাদি investment করতে পারবেন।

মোবাইল ব্যাংকিং এর অসুবিধা গুলো কি কি ?

যেই জিনিসের লাভ ও সুবিধা রয়েছে সেই জিনিসের কিছুটা হলেও অসুবিধা তো থাকবেই।

ওপরে আমরা মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা ও লাভ প্রচুর জানলাম।

চলুন, এখন আমরা এই ব্যাংকিং সেবার সাথে জড়িত কিছুটা অসুবিধার বিষয়ে জেনেনেই।

যিহেতু এই ব্যাংকিং সেবার এর দ্বারা যেকোনো সময় যেকোনো জায়গার থেকে নিজের মোবাইল থেকে payment বা money transfer সম্ভব, তাই এর ফলে আপনার খরচ বেড়ে যাওয়ার সুযোগ প্রচুর। ব্যাংকে যাওয়ার ঝামেলা না থাকার ফলে আপনি যেকোনো সেবা বা পণ্যের ওপরে আকর্ষিত হয়ে সেটাকে সেই সময় কিনে নেওয়ার কথা ভাবতে পারেন।
এমনিতে mobile banking প্রচুর secure একটি service. তবে, যদি কেও আপনার mPIN, passcode ইত্যাদি জেনে ফেলেন, তাহলে আপনি আপনার মোবাইলের সামনে না থাকা অবস্থায় তাদের একাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করে নিতে পারবেন। তবে, আপনি যদি কাওকে mPIN বা passcode না বলে থাকেন তাহলে সেটা কেও জানতে পারবেননা।
অনেক সময় hacker দের দ্বারা Smishing করা হয় যেখানে আপনাকে fake SMS পাঠানো হয় এবং আপনার থেকে টাকা আদায় করার চেষ্টা করা হয়। তাই, এগুলো ঝামেলার থেকে আপনাকে সতর্ক থাকতে হয়।
যদি আপনার কাছে একটি smartphone নেই, তাহলে আপনি সাধারণ মোবাইল থেকে অনেক সীমিত সেবার লাভ নিতে পারবেন।
Mobile banking সেবার জন্য অনেক bank তাদের গ্রাহকের থেকে কিছু টাকা charges হিসেবে নিয়ে থাকে। তবে, cheque book, debit card ইত্যাদি সেবা গুলোর জন্যেও bank আমাদের থেকে কিছু charges কেটে থাকে।
মোবাইল চুরি হয়ে গেলে বা হারিয়ে গেলে আপনার banking details খারাপ হাতে পড়ার ভয় থাকছে।

কিভাবে মোবাইল ব্যাংকিং চালু এক্টিভেট করব ?

দেখুন আলাদা আলাদা bank এর ক্ষেত্রে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা এক্টিভেট করার প্রক্রিয়া আলাদা আলাদা হতে পারে।

আপনারা নিজের bank এর official website বা branch এর মধ্যে visit করে activate করার প্রক্রিয়া জেনেনিতে পারবেন।

  • মূলত বেশিরভাগ bank এর official mobile banking app download করার পর সেখানে সরাসরি account register করার option দেওয়া থাকবে।
  • Account তৈরি করার সময় আপনাকে আপনার ATM card password, bank এর সাথে রেজিস্টার করা মোবাইল নম্বর এবং ATM/debit card এর details দিতে লাগতে পারে account verification এর ক্ষেত্রে।
  • এছাড়া, অনেক bank এর ক্ষেত্রে আপনাকে bank এর ATM সেবার দ্বারা mobile banking activate করতে হয়।

তাই, আপনি আপনার bank এর branch বা ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখেনিন কোন প্রক্রিয়াতে আপনাকে মোবাইল ব্যাংকিং এক্টিভেট করতে হবে।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং এবং মোবাইল ব্যাংকিং এর মধ্যে পার্থক্য কি ?

দেখুন মোবাইল ব্যাংকিং এবং ইন্টারনেট ব্যাংকিং দুটোর মাধ্যমেই প্রায় একি ধরণের banking transactions গুলো করা সম্ভব।

এছাড়া, এই দুটোই banking service এর ব্যবহার করার ক্ষেত্রে একটি device এর প্রয়োজন হয়।

তবে, এদের মধ্যে যেই মূল পার্থক্য রয়েছে সেটা হলো,

  • মোবাইল ব্যাংকিং শব্দটি বললেই আমরা বুঝতে পারি যে এই ধরণের banking এর ক্ষেত্রে আমাদের একটি mobile device, tablet বা smartphone এর প্রয়োজন হয়ে থাকে।
  • কেননা, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মোবাইল ব্যাংকিং এর জন্যে আমাদের মোবাইলে bank এর একটি official app install করার প্রয়োজন হয় যার মাধ্যমে banking transactions গুলো করা যাবে।
  • কিন্তু, online banking বা internet banking বলতে সেই banking transactions গুলোকে বলা হয় যেগুলো সরাসরি ইন্টারনেটের এর ব্যবহার করে করা হয়েছে।
  • Internet banking এর ক্ষেত্রে আপনাকে সরাসরি ইন্টারনেটের মাধ্যমে ব্যাংক এর official website এর মধ্যে লগইন করে transactions গুলোকে করতে হয়।
  • Internet banking আপনি মোবাইল বা ডেস্কটপ কম্পিউটার যেকোনো ডিভাইস থেকে করতে পারবেন। তবে, মোবাইল ব্যাংকিং এর জন্য একটি মোবাইল ডিভাইস জরুরি।

আজকে আমরা কি শিখলাম ?

তাহলে বন্ধুরা, আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা জানলাম মোবাইল ব্যাংকিং কি ? (about mobile banking in Bangla) এবং এর সাথে জড়িত অন্যান্য কিছু জরুরি তথ্য।

মোবাইল ব্যাংকিং বলতে কি বোঝায় এবং এর সুবিধা অসুবিধা নিয়ে লিখা আজকের এই আর্টিকেল যদি আপনাদের পছন্দ হয়ে থাকে, তাহলে অবশই আর্টিকেলটি শেয়ার করবেন।

এছাড়া, আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

আশা করছি, আমি আপনাকে আপনার প্রত্যেক প্রশ্নের উত্তর ভালো করে দিতে পেরেছি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap