OPPO কোন দেশের কোম্পানি ? এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও (CEO) কে

OPPO কোন দেশের কোম্পানি, এই কোম্পানীর মালিক ও সিইও (CEO) কে ও আরও কিছু তথ্য গুলো আজে আমরা এই আর্টিকেলের মাধ্যমে জানবো। 

oppo কোন দেশের কোম্পানি
OPPO mobile founder and CEO ?

OPPO একটি চীনা ইলেকট্রনিক্স এবং মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থা।

এর প্রধান কার্যালয় চীনের গুয়াংডং-এর ডংগুয়ানে অবস্থিত।

ব্র্যান্ড নাম OPPO চীনে রেজিস্টার্ড হয়েছিল এবং পরবর্তীকালে, সংস্থাটি ভাল নামী সংস্থা হিসেবে জনপ্রিয়তা লাভ করে। 

OPPO হ’ল চীনা ফোন ব্র্যান্ডগুলির মধ্যে একটি যা বর্তমানে পাশ্চাত্যে জনপ্রিয়তা অর্জন করছে।

স্মার্টফোনের ক্রেতাদের কাছে আকর্ষণীয় করার জন্য এই ফোনের দাম খুবই কম রাখা হয়েছে কিন্তু এতে features রয়েছে খুবই উচ্চমানের।

আপনি যদি প্রিমিয়াম-সেগমেন্ট স্মার্টফোন, খুব ভাল মনের ক্যামেরা এবং উচ্চ স্ক্রিন resolution পছন্দ করেন তবে OPPO আপনার জন্যে একটি খুব ভাল অপশন।

এছাড়া, কোম্পানির তরফ থেকে কি কি ডিভাইস বাজারে আনছে সে দিকেও আপনার নজর রাখা উচিৎ| 

OPPO কোম্পানির মালিক কে ? Owner / CEO)

OPPO Mobile এর প্রতিষ্ঠাতা (founder) হলেন “টনি চেন(Tony Chen)

তিনি Oppo Telecommunications Corp. Ltd. এর প্রতিষ্ঠাতা এবং বর্তমান সি ই ও (CEO) হলেন Tony Chen / Worldwide.

তবে, বর্তমানে ভারতের OPPO কোম্পানির CEO হলেন, Charles Wong.

OPPO Co. Ltd. ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস এবং টেক্নিক্যাল সার্ভিস প্রদান করে থাকে।

এটি BBK Electronics এর একটি সাবসিডিয়ারি কোম্পানি।

সংস্থাটি স্মার্টফোন, ইউনিভার্সাল সিরিয়াল বাস কেবল, গাড়ী চার্জার, হেডসেট, প্রতিরক্ষামূলক কেস এবং পাওয়ার ব্যাংক এর মতো বহু ইলেকট্রনিক ডিভাইস তৈরি করে।

অপো বিশ্বব্যাপী ক্লায়েন্টদের কাছে খুবই জনপ্রিয় একটি নাম। 

OPPO কোন দেশের কোম্পানি ?

OPPO মোবাইল ২০০১ সালে রেজিস্টার করা হয়েছিল এবং ২০০৪ সালে চীনে সেটি চালু করা হয়

কোম্পানিটি তখন থেকে মায়ানমার, ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড এবং ভারতের মতো বিভিন্ন দেশে তার নাম রেজিস্টার করে থাকে। 

OPPO সিঙ্গাপুর এবং ইন্দোনেশিয়াতে তার ফোন বিক্রি করার জন্য ফিজিক্যাল স্টোর খুলেছে।

তবে, স্টোরে কোম্পানি বেশি সংখ্যায় ফোন বিক্রি করে না যদিও, স্টোরফ্রন্টগুলি OPPO ব্র্যান্ডের সচেতনতা বাড়াতে সাহায্য করে থাকে।

অপো বিশ্বের ৫ নম্বর স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসাবে পরিচিত। 

অপো ২০০৯ সালে থাইল্যান্ডে ব্যবসা শুরু করে। ২০১৬ সালে, অপো ফিলিপাইন বাস্কেটবল এসোসিয়েশনের অফিসিয়াল স্মার্টফোন পার্টনার হয়ে ওঠে।

২০১৬ সালের জুনে, অপো চীনের বৃহত্তম স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক হয়ে ওঠে এবং ২০০,০০০ এরও বেশি খুচরা বিক্রয়কেন্দ্রে তার ফোন বিক্রি করা শুরু করে

আপনি হয়তো জানেননা যে, অপো ২০১৯ সালে চীনের শীর্ষ স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ছিল।

বর্তমান সময়ে, OPPO ভারতের একটি জনপ্রিয় স্মার্টফোন কোম্পানি।

বর্তমানে, ওপ্পোর ফোনগুলি ভারতের মানুষ খুবই পছন্দ করে ও অধিক পরিমানে ব্যবহারও করে।

এই কারণে OPPO ভারতের একটি বড় এবং জনপ্রিয় স্মার্টফোন কোম্পানি হিসেবে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

OPPO মোবাইল দুনিযায় এতটাই উন্নতি করছে যে  অ্যাপল এবং স্যামসাং-এর মতো নামকরা নির্মাতাদের উপর তা  চাপের সৃষ্টি করছে এবং আগামী দিনে তা অব্যাহত রাখবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

কারণ OPPO কোম্পানির স্মার্টফোনগুলি কম খরচে বাজারে পাওয়া যায় অথচ এই ফোনগুলির features খুবই আকর্ষণীয় ও উচ্চ বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন হয়।

OPPO কোম্পানির ইতিহাস

OPPO মাত্র ১৬ বছরে ৪০টি দেশে তার ব্যবসা সম্প্রসারণ করেছে

২০১৬ সালে মাত্র ১২ বছরের মধ্যে কোম্পানিটি চীনের সবচেয়ে বড় মোবাইল ফোন প্রস্তুতকারক হয়ে ওঠে।

একই বছরে, অপো তার স্মার্টফোন বিক্রি করার জন্য 200,000 খুচরা আউটলেট তৈরি করে। 

২০১৯ সালে, অপো চীনের শীর্ষ মোবাইল ফোন ব্র্যান্ড হয়ে ওঠে

আমরা যদি মার্কেট শেয়ার এবং বিশ্বব্যাপী rank এর কথা বলি, তাহলে OPPO এখন শীর্ষ ৫ টি মোবাইল প্রস্তুতকারকের মধ্যে স্থান করে নিয়েছে

বর্তমানে সারা বিশ্বে OPPO কোম্পানিতে ৪০ হাজারেরও বেশি কর্মী কাজ করছেন।

নীচে কোম্পানি তার চলার পথে কি কি পদক্ষেপ ফেলে ক্রমশঃ উন্নতি করেছে তার ইতিহাস দেওয়া হল :

  • ২০০৫ সালে প্রথম এমপিথ্রি প্লেয়ার চালু করা হয়।
  • ২০০৮ সালে প্রথম স্মাইলি ফেসমোবাইল ফোন বাজারে আনা হয়।
  • ২০০৯ সালে, থাইল্যান্ডে প্রথম মোবাইল ফোন চালু করার সাথে সাথে; সংস্থাটি সারা বিশ্ব জুড়ে তার সম্প্রসারণ শুরু করে।
  • লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও ২০১১ সালে OPPO কর্তৃক চালু করা ফাইন্ডপ্রথম স্মার্টফোনটি endorse করেছিলেন। 
  • ২০১২ সালে, সংস্থাটি তাদের স্মার্টফোনগুলিতে ফেস বিউটিফিটিফিকেশন বৈশিষ্ট্যটি চালু করে।
  • ২০১৩ সালে বিশ্বের প্রথম স্মার্টফোন যাতে ঘূর্ণায়মান ক্যামেরা আছে সেটি চালু করা হয়েছিল।
  • একই বছর, ColorOS কে কোম্পানির প্রথম অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে চালু করা হয়।
  • ২০১৪ সালে, অপো VOOC দ্বারা দ্রুত চার্জিংয়ের বিপ্লব নিয়ে আসে।

OPPO সম্প্রতি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং ভারতে অনেক বেশি বিক্রি হয়েছে পাশাপাশি চীনে বিক্রি ধীরগতিতে হওয়া দেখা গেছে।

আক্রমনাত্মক বিপণন হলো এর কারণ।

OPPO তার ব্র্যান্ড তৈরিতে সাহায্য করার জন্য সেই অঞ্চলের বড় নামী বিনোদনকারীদেরও স্পনসর করেছে।

OPPO এখন F1 প্লাস এবং সমতুল্য R9 এর মত টপ ক্লাস মডেল এবং অন্যান্য জনপ্রিয় ডিভাইসগুলিতে ফোকাস করে ভারী বিপণন চালাচ্ছে।

স্মার্টফোনের বাজারে কোম্পানির এই কার্যকলাপ উচ্চাকাঙ্ক্ষার একটি স্পষ্ট ইঙ্গিত দেয়।

অপোর সেরা কিছু প্রোডাক্ট – (Best products)

OPPO Find X2 Neo: এই ফোনটি দামের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আপনাকে দেয় প্রচুর ফিচার। 

এতে রয়েছে 90Hz রিফ্রেশ রেট, একটি মসৃণ এবং চমৎকার OLED স্ক্রিন এবং শক্তিশালী স্পিকার।

সামগ্রিকভাবে দেখলে এটি একটি প্রচন্ড ভাল গেমিং ফোন।

এই ফোনে রয়েছে ১২ জিবি ram ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ।

এছাড়াও রয়েছে:

  • OPPO  Find  X5 Pro
  • OPPO  Find  X5
  • OPPO  Find  N
  • OPPO  K10  Pro
  • OPPO  A96  5G
  • OPPO  A36  4G

২০২২ সালের সেরা অপো ফোনটি হল OPPO Find X5 Pro.

OPPO Find N হল সেরা OPPO ফোল্ডেবল ফোন (প্রকৃতপক্ষে এটি কোম্পানির একমাত্র ফোন)।

আপনি যদি Find X5 Pro কিনতে না পারেন, তাহলে OPPO Find X5 ব্যবহার করে দেখতে পারেন প্রায় একই রকম অভিজ্ঞতা পাবেন। 

OPPO A96 5G হল OPPO এর একটি সাশ্রয়ী 5G ফোন এবং OPPO A36 4G হল দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি লাইফের জন্যে সেরা একটি ফোন।

গবেষণা অনুসারে OPPO হল চীনের অন্যতম টপ ফোন ব্র্যান্ড। ২০২১ সালে এই কোম্পানি দেশীয় বাজারের ২১% দখল করেছে।

সুতরাং, এগুলি হল ২০২২ সালের সেরা OPPO ফোন।

আপনার বাজেট এবং ব্যবহারের উপর নির্ভর করে, আপনার জন্য যে একটি অপো ফোন বাজারে রয়েছে এ  সমন্ধে আপনি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন। 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top