OnePlus কোন দেশের কোম্পানি ? এই কোম্পানীর মালিক কে

OnePlus কোন দেশের কোম্পানি ? এই ওয়ানপ্লাস কোম্পানীর মালিক কে ও আরও কিছু তথ্য আমরা আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে জানতে চলেছি। 

oneplus কোন দেশের কোম্পানি
OnePlus কোম্পানির মালিক ও সিইও (CEO) কে ?

প্রত্যেকেই একটি দুর্দান্ত ডিজাইন, শক্তিশালী স্পেসিফিকেশন, দ্রুততম এবং খুব হালকা একটা সফ্টওয়্যার ওয়ালা ফোন কম দামে চায়।

২০১৪ সালে ONE PLUS One লঞ্চের মাধ্যমে সেই আশা বাস্তবে পরিণত হলো।

আমরা সবাই আজকাল স্মার্টফোন ব্যবহার করি এবং এটি কেনার আগেই এটির সম্পর্কে সবকিছু জানতে চাই।

চিনের স্মার্টফোন প্রস্তুতকারী কোম্পানি ONE PLUS সর্ববৃহৎ স্মার্টফোন কোম্পানি বি বি কে ইলেট্রনিক্স কর্পোরেশনের অংশ।

ONE PLUS সর্বদা প্রিমিয়াম ক্যাটাগরিতেই তাদের স্মার্টফোন লঞ্চ করেছে।

২০১৩-তে এই কোম্পানি  তাদের প্রথম ONE PLUS 1 স্মার্টফোন লঞ্চ করে।

ONE PLUS হল একটি চাইনিজ স্মার্টফোন ব্র্যান্ড যা Oppo-র  প্রাক্তন ভাইস-প্রেসিডেন্ট Pete Lau  এবং Carl Pei  দ্বারা ডিসেম্বর 2013 সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। 

কোম্পানিটি BKK  ইলেকট্রনিক্সের তিনটি সহযোগী সংস্থার মধ্যে একটি, অন্য দুটি হল Oppo এবং Vivo.

Owner / CEO

ONEPLUS, এই নতুন স্টার্টআপটি ১৬ ডিসেম্বর ২০১৩OPPO ইলেকট্রনিক্সের একজন প্রাক্তন কর্মী, PETE LAU  দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

এর সদর দপ্তর শেনঝেন,  গুয়াংডং প্রদেশের,  ফুটিয়ান জেলার চেগং টেম্পল সাবডিস্ট্রিক্টের তাইরান বিল্ডিংয়ে অবস্থিত।

মার্চ ২০১৬ পর্যন্ত বিশ্বের ৪৩ টি দেশে এর উপস্থিতি রয়েছে।

এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা হলেন কার্ল পেই।

প্রাথমিকভাবে এই দাবি অস্বীকার করা হয় যে ONE PLUS, OPPO-এর একটি সহায়ক ব্র্যান্ড কিন্তু পড়ে তা অবশই মেনে নেওয়া হয়।

প্রযুক্তিগতভাবে এটি BBK ইলেকট্রনিক্সের মালিকানাধীন একটি কোম্পানি | 

PETE LAU, একজন চীনা উদ্যোক্তা এবং ব্যবসায়ী।

ইনি চীনা স্মার্টফোন নির্মাতা ONE PLUS –এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং সি ই ও একথা আগেই বলেছি, কিন্তু ভারতে এই কোম্পানির সি ই ও হলেন NAVNIT NAKRA.

OnePlus কোন দেশের কোম্পানি  – (Country)

ONE PLUS TECHNOLOGY (Shenzhen) CO., LTD.  একটি চীনা consumer ইলেকট্রনিক্স প্রস্তুতকারক কোম্পানী। 

ONE PLUS এখন প্রধান অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন সংস্থাগুলির মধ্যে অন্যতম এবং ভারত সহ বিশ্বের ৩৪ টি দেশ ও অঞ্চলে এই ফোনএর বিভিন্ন মডেল বিক্রি হচ্ছে।

ONE PLUS-এর জনপ্রিয়তা ইউরোপ ও ভারতে সবচেয়ে বেশি।

২০১৪ সালে ভারতে ওয়ানপ্লাস নিষিদ্ধ করা হয়েছিল নানা কারণে। কিন্তু পরে হাইকোর্ট এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে।   

ধীরে ধীরে ওয়ানপ্লাস ভারতে একটি বিশাল বাজার তৈরি করতে সক্ষম হয়।

ONE PLUS ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ভারতে তার ডিভাইসগুলি তৈরি করছে। 

ONE PLUS ফোনগুলি, শুরুতে, শুধুমাত্র ভারতে বিক্রির জন্যে তৈরি হয়েছিল। 

কোম্পানির ব্যবসা বৃদ্ধির সাথে সাথে এটি এখন ইউরোপের পাশাপাশি অন্যান্য দেশ যেমন অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, বুলগেরিয়া, কানাডা, চীন, ক্রোয়েশিয়া, সাইপ্রাস, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, এস্তোনিয়া, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, গ্রীস, হংকং-এতেও বিক্রি করা হয়।

হাঙ্গেরি, ভারত, আয়ারল্যান্ড, ইতালি, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া, লুক্সেমবার্গ, মাল্টা, নেদারল্যান্ডস, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, রোমানিয়া, স্পেন, স্লোভাকিয়া, স্লোভেনিয়া, সুইডেন, যুক্তরাজ্য এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এইসব দেশগুলিতেও এখন ONE PLUS এর বিক্রি ভালই।

Oneplus মোবাইল এর ইতিহাস – (History)

প্রথম হ্যান্ডসেটটি আনে ২৩শে এপ্রিল ২০১৪ এ এবং এটির নাম দেওয়া হয় ONE PLUS One

কোম্পানিটি তাদের প্রথম হ্যান্ডসেট কেনার জন্য এক নতুন ধরনের আমন্ত্রণ পদ্ধতি চালু করেছিল।

এই স্মার্টফোনটি বাজারে তার গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রচুর  আদর ও কদর পেয়েছে। 

তখন অনেকেই হ্যান্ডসেটটি কিনতে চেয়েছিল কিন্তু আমন্ত্রণ সিস্টেমের কারণে কিনতে পারেনি।

এই মডেলটি সেই সময়ে খুব হিট মডেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিল।

এর পর আরও অন্যান্য মডেল লঞ্চ করা হয় যেগুলো কেনার জন্যে আর কোনো আমন্ত্রণ এর প্রয়োজন হলোনা।

২ জুলাই ২০১৫ সালে ONE PLUS 2 চীন দেশে উন্মোচন করা হয়।

২০১৫ সালের আগস্টে ONE PLUS 2 মডেলটির আন্তর্জাতিক বাজারে রিলিজ করা হয়।

ONE PLUS X-এর আন্তর্জাতিক প্রকাশ ৫ই নভেম্বর ২০১৫ সালে করা হয়।

ONE PLUS হল বাজারের অন্যান্য মোবাইল কোম্পানীগুলির তুলনায় তুলনামূলকভাবে একটি তরুণ কোম্পানি, কিন্তু চীন-ভিত্তিক এই কোম্পানিটি অত্যন্ত দ্রুত বেড়ে উঠেছে।

ONE PLUS –এর হ্যান্ড সেটগুলি অত্যন্ত আকর্ষক ও প্রিমিয়াম-গ্রেডের স্মার্টফোনগুলির সঙ্গে তুলনীয় কিন্তু এগুলির দাম বেশ কম অন্যান্য এই একই স্পেসিফিকেশন যুক্ত ফোনগুলির তুলনায়।

এই কোম্পানী এখন পর্যন্ত প্রচুর ডিভাইস বিক্রি করেছে এবং এইভাবে নিজেকে বাজারের সেরা স্মার্টফোন নির্মাতাদের মধ্যে একটি হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

ONE PLUS,  ANDOIRD-এ চলে এবং CYANOGEN INC. নামে একটি কোম্পানির সাথে ONE PLUS একটি একচেটিয়া চুক্তিতে আবদ্ধ।

CYANOGEN এই ONE PLUS ফোনের জন্য ANDROID OS টি তৈরি করে।

যদিও আমন্ত্রণ সিস্টেম বা INVITE PROCESS টি,  ONE PLUS One এবং ONE PLUS Two  কেনার প্রধান পদ্ধতি ছিল কিন্তু কোম্পানি ২০১৬ সালের জুনে ONE PLUS 3 লঞ্চ করার সাথে সাথে এই সিস্টেমটি বন্ধ করে দেয়।

Best products

ONE PLUS ৭টি জেনারেশনের স্মার্টফোন বাজারে এনেছে, যার মধ্যে ONE PLUS 7 এবং ONE PLUS PRO   একেবারে নতুন মডেলের স্মার্টফোন।

২০১৭ এবং ২০১৮এর মধ্যে এর বিক্রি ৪৫% বৃদ্ধি হয়েছে এবং এই কারণে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল স্মার্টফোন কোম্পানিগুলির মধ্যে একটি হয়ে উঠেছে ONE PLUS

মাত্র একটি আর্থিক বছরে এই ব্যবসা বৃদ্ধি মুখের কথা নয়।

এতটা উন্নতি কোনও কোম্পানিই সহজে করতে পারে না যা ONE PLUS করে দেখিয়ে দিয়েছে।

আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা না হলেও এই কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতারা ONE PLUS  টিভি বাজারে নিয়ে আসার একটি ইঙ্গিত দিয়েছিলো।

এবং বর্তমানে আপনারা ওয়ানপ্লাস স্মার্ট টিভি বাজারে অবশই দেখতে পাচ্ছেন হয়তো।

এটি ONE PLUS –এর একটি নতুন বিভাগ হবে।

কিছু সেরা ONE PLUS মডেলের নাম :

  • ONE PLUS Nord 2T – সামগ্রিক ভাবে ভাল |
  • ONE PLUS 10 Pro – ছবি তোলার জন্যে সেরা | 
  • ONE PLUS 10T – সবচেয়ে ভাল performance |
  • ONE PLUS 10T – এর performance-ও খুবই ভাল |
  • ONE PLUS Nord 2কম দামের মধ্যে ভাল ফোন |
  • ONE PLUS 10R – ভারতীয়দের জন্যে উপযুক্ত |

ONE PLUS এর লক্ষ্য হলো অনলাইন পরিষেবার মাধ্যমে তাদের পণ্য সরবরাহ ও বিক্রি করা।

গত কয়েক বছরে কোম্পানিটি বেশ কয়েকটি অনলাইন খুচরা বিক্রেতার সাথে এই ব্যাপারে চুক্তি করেছে ।

চীনের বাইরে বিক্রির ক্ষেত্রে তাদের হ্যান্ডসেট বিক্রি হয় মূলতঃ অ্যামাজনের মাধ্যমে।

কিন্তু নিজের দেশে, ONE PLUS ওয়েবসাইট স্টোরের মাধ্যমে তাদের পণ্য বিক্রি করে।

তাহলে আশা করছি, Oneplus কোম্পানির মালিক কে এবং ওয়ান প্লাস কোন দেশের কোম্পানি আপনারা সবটা বুঝতেই পেরেছেন।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top