শিক্ষার্থীদের জন্য সেরা ৯টি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট: সহজে পাবেন কাজ

ছাত্রজীবনে নানান ধরণের খরচ গুলি থাকে, এই বিষয়ে খুলে না বললেও আমরা প্রত্যেকেই এই বিষয়ে জানি। তবে বর্তমান সময়ে ছাত্ররা তাদের কলেজ লাইফ থেকেই পার্ট-টাইম ইনকাম করার ক্ষেত্রে প্রচুর রুচি রাখছেন।

ছাত্র ছাত্রীদের জন্য অনলাইনে পার্ট-টাইম ইনকাম করার সেরা উপায় গুলির মধ্যে একটি হলো ফ্রিল্যান্সিং

আর আমরা প্রত্যেকেই জানি, ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য নানান ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সাইট গুলিতে গিয়ে নিজের একটি একাউন্ট তৈরি করতে হয়। তবে এখন প্রশ্ন হলো, শিক্ষার্থীদের জন্য সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলি কি?

চিন্তা করতে হবেনা, আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে ৯টি সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলির বিষয়ে শেয়ার করতে চলেছি যেগুলি ছাত্রছাত্রীরা অনেক সহজে এবং সুবিধাজনক ভাবে ব্যবহার করতে পারবেন।

এছাড়া, শিক্ষার্থীরা তাদের কৌশল এবং দক্ষতার উপর ভিত্তি করে নানান ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলি এই মার্কেটপ্লেস গুলিতে পেতে পারবেন।

অবশই পড়ুন: 

ফ্রিল্যান্সিং কি স্টুডেন্টদের জন্যে কঠিন?

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ শুরু করতে গেলে সবার আগেই আপনাকে অনেকটা ধৈর্য রাখতে হবে। আর, স্টুডেন্ট হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং থেকে রোজগার করার জন্যে অনেকটাই বেশি পরিশ্রম ও স্মার্ট-ওয়ার্ক লাগে।

কারণ, একজন শিক্ষার্থীর কাছে সেরকমভাবে ওয়ার্ক এক্সপেরিয়েন্স থাকা সম্ভব নয়, যেখান থেকে তারা শুরুতেই অনেক টাকা আয় করতে পারবে।

আর সেই জন্যেই ফ্রিল্যান্সিং কাজে প্রথমেই আমাদের কাজের অভিজ্ঞতা বাড়ানোর বিষয়ে নজর রাখতে হবে। প্রথমদিকে ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলি খানিকটা শক্ত ও কঠিন মনে হলেও, একবার কাজ শুরু করলে ধীরে-ধীরে সেটা সোজা মনে হবে।

স্টুডেন্টদের জন্যে ফ্রিল্যান্সিং কাজগুলো কি নিরাপদ?

স্টুডেন্টদের কাছে পকেট মানি পাওয়ার বা এক্সট্রা ইনকামের অন্যতম সেরা মাধ্যম হল, ফ্রিল্যান্সিং। এখানে যেমন নিজের সময়মতো ফ্লেক্সিবলভাবে কাজ করা যায়, তেমনই এই ধরণের কাজগুলো নিজের ওয়ার্ক এক্সপেরিয়েন্স বাড়াতেও সাহায্য করে।

এছাড়াও, এখান থেকে নতুন-নতুন স্কিলসও শেখা যায়। এমনকি, আপনি কাজের পাশাপাশি নিজের পড়াশোনার সময়ও ম্যানেজ করতে পারবেন।

তাই, শিক্ষার্থীদের জন্যে ফ্রিল্যান্সিং কাজগুলো হল যথেষ্ট নিরাপদ ও সহজ আয়ের একটা দারুন উপায়।

ফ্রিল্যান্সিংয়ের জন্যে কোন স্কিলগুলো বেশি জরুরি?

এখনকার মার্কেটে বেশিরভাগ ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্যে নিচের স্কিলগুলোর অনেক চাহিদা রয়েছে, যেগুলো আপনাকে ভালো ইনকামের পাশাপাশি ভালো ক্যারিয়ার বানাতেও অনেকটা সাহায্য করবে।

  • সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং,
  • ফটোগ্রাফি,
  • SEO,
  • গ্রাফিক ডিজাইনিং,
  • কপিরাইটিং,
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট,
  • ভিডিও এডিটিং,
  • ইভেন্ট প্ল্যানিং,
  • প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট,
  • কনটেন্ট রাইটিং ম্যানেজমেন্ট এবং অন্যান্য।

শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের তালিকা: সেরা ৯টি

শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট
Best freelancing websites for students.

নিচে আমি শিক্ষার্থীদের জন্য যেই freelancing marketplace/website গুলির নাম আপনাদের বলতে চলেছি সেগুলি এমনিতে জেকেও ব্যবহার করতে পারবেন। তবে, বেশিরভাগ শিক্ষার্থীরা সহজেই করতে পারবেন এমন নানান ধরণের কাজ গুলি এই সাইট গুলিতে উপলব্ধ থাকা দেখা যায়।

১. Fiverr:

Fiverr হল এমন একটা জনপ্রিয় গ্লোবাল ফ্রীলান্সিং মার্কেটপ্লেস, যেখানে বিভিন্ন ধরণের ফ্রিল্যান্সিং প্রজেক্টের কাজ রয়েছে।

এখানে মূলত, প্রোগ্রামিং, ডিজিটাল মার্কেটিং, ট্রান্সলেশন, লাইফস্টাইল, গ্রাফিক ডিজাইনিং, মিউসিক ও অডিও এবং ট্রান্সলেশনের মতো জবের ১০০-এরও বেশি ক্যাটেগরি ও সাব-ক্যাটেগরি আছে।

আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজের কাজের ধরণ ও রেট অনুযায়ী সরাসরি এম্প্লয়ারের সাথে কন্ট্যাক্ট করতে পারবেন।

Fiverr-এর মাধ্যমে সমস্ত পেমেন্টের মাত্র ২০% অংশ কমিশন হিসেবে কেটে নেওয়া হয়।

সুবিধা:

  • অনেক বড় ক্লায়েন্ট বেস,
  • ফ্লেক্সিবল ওয়ার্কিং আওয়ার,
  • সহজে ফ্রিল্যান্স একাউন্ট তৈরি করা যায়,
  • স্কিল ও ইন্টারেস্ট অনুযায়ী টাস্ক পাওয়া যায়।

২. Upwork:

অনেক পুরানো ও বিশ্বস্ত ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের মধ্যে সেরা ওয়েবসাইট হল এই Upwork

বিভিন্ন ব্র্যান্ডেড ইন্টারন্যাশনাল প্রজেক্টে কাজ করতে চাইলে অবশ্যই এখানে রেজিস্টার করুন। এছাড়া, স্টুডেন্ট হিসেবে এখানে একাধিক রিমোটলি কাজ করারও সুবিধা রয়েছে।

এখানেও আবার ইচ্ছেমতো সময়ে কাজ করা সম্ভব। এই ওয়েবসাইটে আপনি সরাসরি নিজের ক্লায়েন্টের সাথে যোগাযোগ করে কাজ নিতে পারবেন।

সাইটটিতে, UI/UX ডিজাইনিং, ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট বা কনটেন্ট রাইটিংয়ের মতো কাজগুলো দেখতে পারেন।

সুবিধা:

  • ফ্রি রেজিস্ট্রেশন ও জয়েনিং,
  • প্রচুর রেজিস্ট্রার্ড ক্লায়েন্ট রয়েছে,
  • একাধিক স্কিল ডেভেলপ করা যায়,
  • ট্রেন্ডিং স্কিল বলে আলাদা সেকশন রয়েছে।

৩. Truelancer:

Truelancer হল ফ্রিল্যান্সারদের জন্যে খুবই ভালো একটা ওয়েবসাইট। এর ওয়েবসাইটে আপনি প্রচুর ইন্টারন্যাশনাল জব পোস্টিং পাবেন।

একজন স্টুডেন্ট এবং ফ্রিল্যান্সার হিসেবে এই পোস্টিংগুলোতে সহজেই অ্যাপ্লাই করা যায়।

এর সবথেকে ভালো ব্যাপার হল, এখানে প্রজেক্টে কাজ শুরুর আগেই আপনি নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা ক্লায়েন্টের থেকে ডাউন পেমেন্ট হিসেবে চার্জ করতে পারেন।

সুবিধা:

  • প্রজেক্টে রেকমেন্ডেশন আসে,
  • পেমেন্ট নিয়ে নেগোশিয়েট করা যায়,
  • ফ্রিল্যান্স নেটওয়ার্কিং তৈরী করা যায়,
  • ইচ্ছেমতো যতখুশি প্রজেক্টে কাজ করা সম্ভব।

৪. Freelancer.com:

বিশ্বের সবথেকে বড় ফ্রিলান্সিং মার্কেটপ্লেস হিসেবে, Freelancer.com-এ বেস্ট ক্লায়েন্ট ও দারুন প্রজেক্ট গুলি পাওয়া যায়।

একজন শিক্ষার্থী হিসেবে, এখানের সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, রাইটিং, ডেটা এন্ট্রি, ডিজাইনিং-এর উপর ফ্রিল্যান্সিং কাজগুলো দেখতে পারেন।

এছাড়াও, এখানে একাধিক ক্যাটেগরিতে প্রচুর জব পোস্টিং থাকে, যেখানে আপনি মিনিটের মধ্যেই পছন্দমতো প্রজেক্টে জয়েন করতে পারবেন।

সুবিধা:

  • প্রজেক্টে ইচ্ছেমতো বিড করা যায়,
  • অসংখ্য জব পোস্টিং লিস্ট আসতেই থাকে,
  • সরাসরি ক্লায়েন্টের সাথে ইন্টারভিউ করা যায়,
  • স্কিল, লোকেশন ও ক্যাটেগরির ভিত্তিতে কাজ করা যায়।

৫. Hubstaff Talent:

একদম বিনামূল্যে Hubstaff Talent ওয়েবসাইটিতে রেজিস্টার করে বিভিন্ন ইন্টারন্যাশনাল প্রজেক্টে কাজ করার সুযোগ পাওয়া যায়।

এই ওয়েবসাইটটি গ্রাফিক ডিসাইন, SEO, সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, ডেটা মাইনিং, প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট ও কনটেন্ট ক্রিয়েশন জবের জন্যে খুবই ভালো।

এখানে অন্যান্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের মতো আপনাকে বিডিং করতে হয় না। শুধুমাত্র কোম্পানির আপনার প্রোফাইল পছন্দ হলে, তবেই তারা আপনার সাথে যোগাযোগ করে নেবে।

সুবিধা:

  • এখানের সমস্ত জবই রিমোট জব,
  • পার্ট-টাইম ও ফুল-টাইম জব রয়েছে,
  • ঘন্টার ভিত্তিতে আয়ের সুযোগ আছে,
  • মোবাইল, PC বা ল্যাপটপ থেকে সহজেই এক্সেস করা যায়।

৬. 99designs:

গ্রাফিক ডিজাইনিং যদি আপনার শিক্ষার বিষয় হয়, তাহলে একজন শিক্ষার্থী হিসেবে আপনি 99designs-এ কাজ করতে পারেন।

এখানে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের কোম্পানি নানা ধরণের লোগো মেকিং কনটেস্ট পোস্ট করে। আপনি যদি এই কন্টেস্টে পার্ট নেন আর আপনার লোগো যদি উইনার হয়, তাহলে আপনি সেই কোম্পানির কাছে যথেষ্ট টাকা পেতে পারেন।

এছাড়া, ডিজাইনিং প্র্যাক্টিস করার জন্যে এই ফ্রীলান্সার ওয়েবসাইটটি যথেষ্ট ভালো।

সুবিধা:

  • ৯০+ ডিসাইন ক্যাটেগরি রয়েছে,
  • ওয়েব ও অ্যাপ ডিসাইন করা যায়,
  • সরাসরি ডিজাইনার হিসেবে কাজ করা যায়,
  • বিসনেস ও অ্যাডভার্টাইসিং সেক্শনের কাজ আছে।

৭. Youth4work:

একদম নতুন ফ্রীলান্সার হিসেবে কি ধরণের স্কিল থেকে ইনকামের সুযোগ রয়েছে, সেটা জানার জন্যে Youth4work-এর ওয়েবসাইটে রেজিস্টার করতে পারেন।

এখানে AI টেকনোলজির সাহায্যে অ্যাপটিটিউড টেস্ট নেওয়া হয়। এই টেস্ট আপনার কোন ধরণের স্কিল শিখলে লাভ হবে, তা জানতে সাহায্য করে। এছাড়াও, এখানে আপনি ফ্রেশারদের জন্যে নানান জব পোস্টিংও পেয়ে যাবেন।

সুবিধা:

  • নানান ধরণের প্রাকটিস টেস্ট আছে,
  • ফ্রিল্যান্সারদের স্কিল দেখে নেওয়া হয়,
  • বিভিন্ন ধরণের সার্টিফিকেশন কোর্স রয়েছে,
  • কম্পেটিটিভ এক্সামের জন্যে প্রিপেয়ার করে।

৮. Worknhire:

শিক্ষার্থী হিসেবে পার্ট-টাইম জব খোঁজার সেরা ঠিকানা হল এই Worknhire

এখানে এমপ্লয়াররা সরাসরি টাকার অ্যামাউন্ট উল্লেখ করে জব পোস্টিং করেন। আপনি নিজের পছন্দমতো জব পোস্টিং বেছে সেখানে অ্যাপ্লাই করতে পারবেন।

ওয়েবসাইটের নিজস্ব মেসেজিং সিস্টেমের সাহায্যে কন্টাক্ট ডিটেলস শেয়ার না করেই এমপ্লয়ারদের সাথে কথা বলা যায়। এখানে আপনাকে নিজের প্রোফাইল, প্রাইস, স্কিল ও ওয়ার্ক এক্সপেরিয়েন্স ক্লায়েন্টদের সাথে শেয়ার করলেই হবে।

সুবিধা:

  • স্বাধীনভাবে কাজ করা যাবে,
  • অনেক ধরণের জব পোস্টিং আসে,
  • জব পোস্টিংয়ে অ্যাপ্লাই করা সহজ,
  • নানান ধরণের জব সাব-ক্যাটেগরি আছে।

৯. Toptal:

Toptal হল এখনকার সময়ের সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলোর মধ্যে একটা। এখানে আপনি ইন্ডাস্ট্রি অনুযায়ী নিজের ইচ্ছেমতো ফ্রিল্যান্সিং কাজ সিলেক্ট করতে পারবেন।

সারা দুনিয়ার বড়-বড় ব্র্যান্ডের সাথে এই ওয়েবসাইটের কানেকশন রয়েছে। তাই, এখান থেকেও ইন্টারন্যাশনাল প্রজেক্টে/কাজ পাওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে।

সুবিধা:

  • ফাস্ট-হায়ারিং সিস্টেম,
  • নিরাপদ পেমেন্ট মেথড,
  • পোর্টফোলিও বানাতে সাহায্য করে,
  • ডাইরেক্ট ক্লায়েন্ট হ্যান্ডল করতে হয় না।

উপসংহার,,

যখন কথা বলা হয় একটি সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট বা মার্কেটপ্লেস নিয়ে, তখন আমাদের কাছে প্রচুর বিকল্প থেকে থাকে।

তবে যখন, শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার ওয়েবসাইট গুলির কথা বলা হয় তখন আমাদের বিভিন্ন বিষয়ের উপর নজর দিয়ে সাইট গুলি সিলেক্ট করতে হয়। কারণ, একজন শিক্ষার্থীর কাছে তেমন উন্নত কাজের অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতা গুলি থাকেনা।

তাই, এক্ষেত্রে আমাদের এমন ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলিতে কাজ করতে হয় যেগুলিতে নতুনদের এবং ফ্রেশারদের জন্য সোজা এবং সহজ কাজ গুলি পাওয়া যাবে।

আর তাই, যদি আপনি একজন শিক্ষার্থী বা নতুন করে freelancing শুরু করছেন, সেক্ষেত্রে উপরে বলে দেওয়া এই সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলি আপনাদের কাজে অবশই লাগবে।

শিক্ষার্থীদের জন্য থাকা সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলি নিয়ে লিখা আমাদের আর্টিকেলটি কেমন লাগলো? নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

 

অবশই পড়ুন:

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top