২০২২ এর সেরা ৯টি টাকা ইনকাম করার অ্যাপ গুলো

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ (২০২২): এখন অনলাইন মাধ্যমে ঘরে বসেই ইনকাম করা হয়ে গেছে অনেক সহজ। 

সঠিক ইন্টারনেট পরিষেবা ও একটা সাধারণ স্মার্টফোনই এনে দিতে পারে আপনার কাঙ্খিত ইনকাম। 

তাই, আজকের এই আর্টিকলে আমরা আলচনা করবো ‘২০২২ এর সেরা ৯টি টাকা ইনকাম করার অ্যাপ’ সম্পর্কে; যার সাহায্যে আপনি খুব সহজেই নিজের অর্থ উপার্জন করা শুরু করতে পারবেন।

২০২২ সালের সেরা ৯টি টাকা ইনকাম করার অ্যাপ:

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ
মোবাইল থেকে অনলাইন টাকা কমানোর অ্যাপ।

চলুন, নিচে আমরা সরাসরি সেই প্রত্যেক এন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন গুলোর বিষয়ে জেনেনেই যেগুলোর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যাবে। (Latest android apps to earn money online).

মনে রাখবেন, নিচে দেওয়া প্রত্যেকটি apps গুলো আপনারা Google Play Store থেকে ফ্রীতে ডাউনলোড করতে পারবেন।

১. গুগল ওপিনিয়ন রিওয়ার্ডস (Google Opinion Rewards):

গুগল ওপিনিয়ন রিওয়ার্ডস হল ভারতের সবচেয়ে বিখ্যাত অনলাইন অর্থ উপার্জনকারী অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম ও সবথেকে বিশ্বাসযোগ্য।

গুগলের সুরক্ষার সাথে, এই অ্যাপটি হল অত্যন্ত সুরক্ষিত ও ব্যবহারের পক্ষে অনেকটাই সুবিধাজনক। 

মূলত, এই অ্যাপ্লিকেশনটিতে আপনাকে আপনার অভিজ্ঞতা অনুযায়ী পরিচিত কোনো জায়গা ও চাহিদাসম্পন্ন কোনো পণ্যের ব্যাপারে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। 

যেহেতু, এটি একটি পেইড সার্ভে অ্যাপ, তাই এখানে আপনাকে নগদ অর্থের বিনিময়ে সমীক্ষা সম্পূর্ণ করার জন্য অর্থ প্রদানের প্রস্তাব দেওয়া হয়ে থাকে।

এই অ্যাপের সাথে যুক্ত হওয়া খুবই সহজ ব্যাপার। 

  • এখানে আপনাকে অ্যাপটি ডাউনলোড করার পরে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিজেকে রেজিস্টার করতে হবে। 
  • সাইন আপ করা হয়ে গেলে আপনাকে দ্রুত সার্ভের উত্তর দিতে হবে আর তার বদলে আপনি এই অ্যাপের মাধ্যমে পেয়ে যাবেন গুগল প্লে ক্রেডিট।

তবে, একটি বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে, যে গুগলের অ্যালগরিদম খুবই তীক্ষ্ণ। 

তাই, ভুলভাল তথ্য দিয়ে সার্ভে কমপ্লিট করলে গুগল আপনার সার্ভে ফর্মটি বরখাস্ত করে দিতে পারে ও তার জন্যে আপনি টাকাও পাবেন না। 

এখান থেকে পাওয়া রিওয়ার্ডগুলো আপনি সিনেমার টিকিট, অনলাইন শপিং ভাউচার, ও প্লে স্টোর ইন-হাউস শপিং-এর জন্য ব্যবহার করতে পারেন।

২. শিরোজ (Sheroes):

আপনি কি এমন একটা অ্যাপ খুঁজছেন, যেটা অনলাইন অর্থ-রোজগারের পাশাপাশি সম্পূর্ণভাবে মহিলাদের জন্যে তৈরী একটা প্ল্যাটফর্ম? তাহলে, Sheroes হল আপনার জন্যে আদর্শ একটা অ্যাপ্লিকেশন। 

এটি শুধুমাত্র মহিলাদের জন্যই তৈরী করা একটি নিরাপদ, সহানুভূতিসম্পন্ন ও নির্ভরযোগ্য সামাজিক প্ল্যাটফর্ম। 

এই চ্যাট-ভিত্তিক হেল্পলাইনটি মহিলাদের আত্মনির্ভর করে তোলার জন্যে বিশেষ কিছু প্রভাবশালী সম্প্রদায় দ্বারা পরিচালিত হয়। 

এখনও পর্যন্ত এটি মহিলাদের জন্য সবচেয়ে বড় সামাজিক নেটওয়ার্কিং অ্যাপ হিসাবে পরিচিত। 

এখানে বিভিন্ন ভিডিও এবং পোস্টের মাধ্যমে মহিলারা তাদের আগ্রহের বিষয়গুলো ভাগ করে নেয়। 

এছাড়াও, এখানে খাবারের রেসিপিগুলি, বিনামূল্যে স্বাস্থ্য ও আইনি পরামর্শও দেওয়া থাকে। 

আপনি এখানে বিনামূল্যে মহিলাদের হেল্পলাইন ব্যবহারও করতে পারেন। 

শিরোজ থেকে আপনি  বিনামূল্যে সৌন্দর্য এবং ফ্যাশন টিপসও পেয়ে যাবেন।

এখান থেকে মহিলারা স্বনামধন্য কোম্পানিগুলোর সাথে ওয়ার্ক-ফ্রম-হোম বা রিসেলিং-এর কাজও করতে পারবেন।

যথাযথ শিক্ষার ডিগ্রি ছাড়াও এখানে মহিলারা কাজ করার যথেষ্ট সুযোগ পেতে পারেন। 

এখানে MARS পার্টনারস হিসাবে সার্টিফিকেট নিলে আপনি ফুল-টাইম বা পার্ট-টাইম কাজও খুঁজে পেতে পারেন।

এছাড়াও, এই অ্যাপটি মহিলাদের বিনামূল্যে পেশাদারি ক্যারিয়ার কাউন্সেলিং পেতে, ওয়ার্কশপে যোগ দিতে, নতুন স্কিল শিখতে, অনলাইন কোর্স করতে, ও আরও অনেক পরিষেবা পেতে সাহায্য করে থাকে। 

এই অ্যাপটি মহিলাদের ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্যে প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও কাউন্সেলিং-এর ব্যবস্থাও করে থাকে। 

আপনি ক্লিনিকাল ডিপ্রেশনের চিকিৎসা, শিশুর যত্নের পরামর্শ, সঠিক গর্ভাবস্থার পরামর্শ, অভিভাবকত্বের পরামর্শ, এবং টিকা নেওয়ার ব্যবস্থাও করতে পারেন এই অ্যাপ্লিকেশনটির সাহায্যে।

৩. ইউ স্পিক উই পে (You Speak We Pay):

২০২২ এর সেরা অনলাইন টাকা রোজগার করার অ্যাপ গুলোর মধ্যে সবথেকে অনন্য অ্যাপটি হল এই You Speak We Pay। 

বর্তমানে, প্রায় লক্ষাধিক ব্যবহারকারী রয়েছে এই অ্যাপ্লিকেশনটির। 

আর, এই অর্থ উপার্জনকারী অ্যাপটিতে ব্যবহারকারীদের স্ক্রিনে লেখা মেসেজ পাঠ করতে হয় আর তার বিনিময়ে তাদের অ্যাকাউন্টে অর্থ পাঠানো হয়। 

এইবার আপনি ভাবতেই পারেন, যে মানুষদেরকে বার্তাগুলো পড়তে বাধ্য করে এই কোম্পানির কী লাভ হচ্ছে ? 

আসলে, ব্যাপারটা হল যে, সারা ভারত থেকে বিভিন্ন ব্যবহারকারীদের পড়া এই বার্তাগুলোকে AI (স্বয়ংক্রিয় বুদ্ধিমত্তা) সিস্টেমগুলোর কথোপকথন-সম্পর্কিত ক্ষমতা ও ভয়েস রিকোগনিশানের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য একটা ডাটাবেস হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। 

৪. আর্নকরো (EarnKaro):

আর্নকরো থেকে অর্থ উপার্জন করা সবথেকে বেশি সহজ। 

এই অ্যাপটির জন্যে টাটা গ্রুপ ফান্ডিং করেছে, তাই এটা যথেষ্টই বিশ্বাসযোগ্য। 

প্রথমে, এখানে আপনাকে কেবলমাত্র একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে ও আপনার পরিচিতদের সাথে ডিল শেয়ার করতে হবে। 

আর, আপনার চেনাশোনা ব্যক্তিদের সাথে অনুমোদিত লিঙ্কগুলো শেয়ার করতে হবে৷ 

আপনি আপনার ই-কমার্স লিঙ্কটিকে আর্নকরো লিঙ্কগুলোতে স্যুইচ করে সেগুলোকে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলোতে ভাগ করতে নিতে পারেন৷ 

এটা অনেকটা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রামের মতো কাজ করে। 

অর্থাৎ, এখানে আপনাকে এই অ্যাপটির সাথে ওয়েবসাইটে তালিকাভুক্ত পণ্য ও পরিষেবাগুলোর প্রচার করতে হবে। 

আর, আপনার সেই লিঙ্ক ব্যবহার করে যদি কেউ কেনাকাটা করে, তাহলে আপনি নগদে আপনার কমিশন পাবেন। 

যখন কেউ আপনার অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক থেকে পণ্য কিনবে তখন আপনি কমিশন পাবেন। 

আপনি একটি নতুন ব্যবহারকারীর মেনশন করার জন্যে আয় করতে পারবেন। 

এমনকি, এখানে কোনো সমস্যা ছাড়াই আপনি আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে অর্থ ট্রান্সফার করতে পারেন। 

অতএব, এটি পড়ুয়া, গৃহিণী ও মায়েদের জন্য অর্থ উপার্জন করার খুবই সহজ একটি পদ্ধতি।

৫. গ্রো (Groww):

অনলাইন অর্থ উপার্জন করার সেরা একটি মাধ্যম হল এই গ্রো অ্যাপ। 

এই অনলাইন শেয়ার ট্রেডিং প্ল্যাটফর্মটি থেকে আপনি সরাসরি কোনো কোম্পানির শেয়ার কিনতে বা বেচতে পারবেন। 

২০২২ সালের মধ্যে অনলাইন ট্রেডিং-এর দুনিয়াতে এই অ্যাপ্লিকেশনটির জনপ্রিয়তা আরও বাড়তে চলেছে। 

এখানে আপনার এসআইপি ও মিউচুয়াল ফান্ড-এ  বিনিয়োগ করারও অপশন রয়েছে। 

এই অ্যাপের সাহায্যে শেয়ার, মিউচুয়াল ফান্ড, ও এসআইপিতে বিনিয়োগ করে সেখান থেকে আপনি অর্থ উপার্জন করতে পারেন। 

আর, এই অ্যাপটির একটি রেফার ও আর্ন প্রোগ্রাম রয়েছে; যেখানে আপনি আপনার পরিচিত কোনো ব্যক্তিকে আপনার রেফারাল কোডের সাহায্যে গ্রো অ্যাকাউন্ট খুলে দিলে তার বাবদ আপনি নগদ টাকা পেয়ে যেতে পারেন।

৬. সোয়্যাগবাকস (Swagbucks):

Swagbucks হল একটি আমেরিকান অনলাইন মানি-মেকিং অ্যাপ। 

এখানে মূলত আপনি অনলাইন সমীক্ষা করে, ভিডিও দেখে, অনলাইন শপিং-এর ক্যাশব্যাক থেকে ও সাধারণভাবে ওয়েবে সার্চ করে অনেক বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। 

তবে, এটি একটি আমেরিকান অ্যাপ হওয়ায় এখান থেকে আপনি আমেরিকান ডলারে অর্থ পাবেন। 

আর, এখান থেকে পেআউট পেতে আপনার একটি PayPal অ্যাকাউন্ট থাকতেই হবে। 

সোয়্যাগবাকস ব্যবহারকারী সদস্যরা প্রতিদিনই নানানভাবে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

এটি ব্যবহার করে আপনি নির্দিষ্ট পণ্যদ্রব্য, উপহার কার্ড, বা নগদ আকারে পুরস্কার রিডিম করতে পারেন। 

অর্থাৎ, এই অ্যাপটি সরাসরি নগদ পুরষ্কার দেয় না। 

বরং, এটি আপনাকে আমাজন, ওয়ালমার্ট, স্টারবাকস, পেপ্যাল ও ফ্লিপকার্ট ভাউচারের মাধ্যমে পুরস্কৃত অর্থ দিয়ে থাকে।

এই ইউসার-ফ্রেন্ডলি অ্যাপের মাধ্যমে অনলাইনে টাকা রোজগার করা খুবই সহজ। 

আপনাকে Swag পয়েন্ট পেতে হলে এই অ্যাপ্লিকেশনটিতে প্রতিদিন লগ-ইন করতে হবে। 

এছাড়াও, ১০% লাইফটাইম কমিশন পাওয়ার জন্য আপনাকে আপনার পরিচিতদের এইখানে ইনভাইট করতে হবে। 

আপনি মাত্র ৭৫০ Swag পয়েন্টে পৌঁছানোর পরে, তবেই আপনার প্রাপ্ত পুরস্কারের অর্থ রিডিম করে আপনি পেপালের মাধ্যমে নগদ অর্থের জন্যে অনুরোধ করতে পারবেন।

৭. স্টেপবেট. (StepBet.):

হাঁটা বা ঘুরে-বেড়ানো কি আপনার নেশা ? 

কিংবা, ওয়াকিং-এর মাধ্যমে নিজেকে ফিট রাখতে চাইছেন ? 

তাহলে, হাঁটতে হাঁটতে টাকা উপার্জন করা আপনার কাছে সবথেকে বেস্ট অপসন। 

আর, স্টেপবেট হল সেই অসাধারণ ফিটনেস অ্যাপগুলোর মধ্যে একটি, যেটি সম্ভবত ২০২২ সালে অতি জনপ্রিয় অ্যাপ হয়ে চলেছে। 

এইটি হল এমন একটি অ্যাপ, যা আপনাকে পার্সোনালাইজড গোলস সেট করতে দেয় আর, সেই লক্ষ্য পূরণের জন্য আপনাকে অর্থ প্রদান করে থাকে। 

এটি আপনাকে নিয়মিত হাঁটতে ও হাঁটার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে উত্সাহিত করে। 

এই অ্যাপ্লিকেশনটিতে অনেকগুলো গেম মোড আছে। 

যেখানে আপনাকে পুরষ্কার পাওয়ার জন্য একটা নির্দিষ্ট সংখ্যক স্টেপস নিতে হবে বা হাঁটাহাঁটি করতে হবে। 

আর, এই অ্যাপটি আপনার হিস্টোরি ট্র্যাক করে আপনাকে কত সংখ্যক স্টেপস নিতে হবে তা জানিয়ে দেয়। 

আপনাকে যেকোনো গেমের উপর ভিত্তি করে একটি চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। 

আর, আপনি সেই লক্ষ্য পূরণে সফল হলে তবেই সেই পুরস্কারের অর্থ ও চ্যালেঞ্জের টাকা পাবেন। 

এবং, এই স্টেপবেট অ্যাপটি আপনি গুগল ফিট, অ্যাপেল ওয়াচ, ফিটবিট, অ্যাপেল হেল্থ, স্যামসাঙ ও গারমিন-এর সাথেও ব্যবহার করতে পারবেন।

৮. কয়েনটিপলাই (Cointiply):

আপনার কি ডিজিটাল কারেন্সি রয়েছে ? 

কিংবা, আপনি কি ডিজিটাল কারেন্সি জমাতে চাইছেন ?

বা, ডিজিটাল কারেন্সির মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে চাইছেন ? 

তাহলে, আপনার জন্যেই ২০২২ এর সেরা ৯টি অনলাইন ইনকাম অ্যাপ গুলোর মধ্যে আমাদের সেরা পছন্দ হল Cointiply। 

এটি সম্পূর্ণভাবে সুরক্ষিত ও ভারতের মধ্যেও যথেষ্ট জনপ্রিয়তা পেয়েছে। 

আর, ২০২২ সালের মধ্যে আশা করা যাচ্ছে যে, এটি ভারতে অর্থ উপার্জন করার সেরা অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হতে পারে। 

এই অ্যাপ্লিকেশনটি আপনাকে সার্ভেতে অংশ নেওয়া, বিজ্ঞাপন দেখা, প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করা, ভিডিও দেখা, ও নানান অনন্য অ্যাপ ইনস্টল করা, এমনকি গেম খেলার জন্যও টাকা দিয়ে থাকে। 

তবে, এই অ্যাপটি তার নামের মতোই ডিজিটাল কার্রেন্সির আকারেই আপনাকে অর্থ দিয়ে থাকে। 

তাই, আপনি টাকা পাবেন কেবলমাত্র bitcoin বা dodge coin কার্রেন্সির আকারে। 

সেক্ষেত্রে, আপনাকে বিটকয়েন বিক্রি করতে ও আসল টাকার আকারে অর্থ পেতে নানা ধরণের এক্সচেঞ্জ অ্যাপ,

যেমন- WazirX, Unocoin, CoinSwitch Kuber ও Crunchbase ইত্যাদির ব্যবহার করতে হবে।

৯. রোজধন (Roz Dhan)

এইটি হল ভারতের সবচেয়ে বিশ্বস্ত অ্যাপগুলোর মধ্যে একটি, যা অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হিসেবে পরিচিত। 

এই অ্যাপটি আপনাকে সহজ কিছু কাজ করতে নির্দেশ দেয়। 

আর, এই কাজগুলোর বদলে আপনি বিনামূল্যে রিচার্জ জিতে নিতে পারেন। 

এখানে, আপনি আপনার পরিচিতদের আমন্ত্রণ জানানোর জন্য পুরস্কার পেতে পারেন, নানান প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারেন। 

খবর বা সর্বশেষ আপডেট পড়ার মাধ্যমে ও অন্যান্য অ্যাপ ইনস্টল করা, বিভিন্ন গেম খেলা, সার্ভে সম্পূর্ণ করার মতো একাধিক বিকল্প কাজের মাধ্যমেও টাকা রোজগার করতে পারেন। 

এমনকি, আপনি কিছু অন্যান্য কাজ; যেমন-আপনার পপুলার সাইট ভিসিট করা, দৈনিক রাশিফল ​​পরীক্ষা করা, ও পাজেল সল্ভ করার মাধ্যমেও দৈনিকভাবে বোনাস টাকা উপার্জন করতে পারবেন। 

আপনাকে দৈনিকভাবে টাকা পেতে গেলে প্রতিদিন অ্যাপ্লিকেশনটিকে অবশ্যই খুলতে হবে।

তবে, আর পাঁচটা অনলাইন অ্যাপের মতো রোজধনও আপনার উপার্জন করা অর্থ ক্রেডিট করার জন্য পেটিএম (Paytm) ওয়ালেট ব্যবহার করে থাকে। 

এই অ্যাপটি আপনি মাত্র দু’দিন ব্যবহার করেই আপনার উপার্জিত টাকা তুলতে পারবেন। 

রোজধনের সর্বনিম্ন পেআউট হল ৩০০ টাকা ও এই টাকা শুধুমাত্র পেটিএম অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেই তোলা সম্ভব। 

আর, মজার ব্যাপার হল এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি হেঁটে ও আপনার  প্রতিটা স্টেপস গণনা করেও টাকা রোজগার করতে পারবেন। 

এই অ্যাপটি যথেষ্ট বিশ্বাসযোগ্য হওয়ার কারণেই আমাদের এই লিস্টের ৯তম স্থানে জায়গা করে নিতে পেরেছে।

আমাদের শেষ কথা,,

২০২২ এর সেরা ৯টি টাকা ইনকাম করার অ্যাপ (online earning apps 2022) নিয়ে লিখা আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি এখানেই শেষ হল। 

লেখাটি পছন্দ হলে অবশ্যই তা কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন। 

এছাড়া, লেখাটি বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলোতে শেয়ার করতে কিন্তু ভুলবেননা।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap