যখন কথা আসে একটি ব্লগ তৈরি করার, তখন সব থেকে জরুরি ও চিন্তাজনক বিষয় আমাদের কাছে একটাই থাকে।

9 profitable niche ideas for bloggers.

সেটা হলো “কোন বিষয় বা নিশ (niche) নিয়ে ব্লগ তৈরি করবো“. কোন বিষয়ে ব্লগ তৈরি করাটা সব থেকে বেশি লাভজনক হবে এবং ব্লগের জন্য profitable niche কোনগুলি।

তাছাড়া, কোন বিষয় নিয়ে ব্লগ বানালে, অধিক ট্রাফিক ও ভিসিটর্স পাবেন এবং এডসেন্স থেকে ভালো ইনকাম হবে ?

আপনি যদি একজন ব্লগার বা এর মধ্যেই একটি ব্লগ বানানোর কথা ভাবছেন, তাহলে হয়তো এই ব্যাপারে আপনিও ভাবছেন।

তাই তো ?

মনে রাখবেন, আপনার বেঁচে নেয়া ব্লগের বিষয় বা নিশ (niche) আপনার ব্লগের ভবিষ্যৎ নির্ধারিত করবে।

আপনার বেঁচে নেয়া ব্লগের বিষয়, টপিক বা নিস এর ওপরে আপনি প্রত্যেক আর্টিকেল লিখবেন।

তাই, আপনার ব্লগের টপিক, বিষয় বা ক্যাটাগরি যদি লোকেদের মধ্যে পপুলার (popular)  না থাকে বা ইন্টারনেটে সেই ক্যাটাগরির সাথে জড়িত টপিক গুলি যদি সার্চ না করা হয়, তাহলে এতটা কষ্ট করে বানানো ব্লগে ট্রাফিক বা ভিসিটর্স আসবে কিভাবে।

এবং, ব্লগে যদি ট্রাফিক বা ভিসিটর্স না থাকে, তাহলে ব্লগ থেকে অনলাইন টাকা আয় করবেন কিভাবে।

তাই, ব্লগ তৈরি করার আগেই, আপনার অনেক রিসার্চ (research) ও প্ল্যানিং (planning) করে একটি ভালো “blog এর niche” বেঁচে  নিতে হবে।

ব্লগের এমন একটি নিশ বেঁচে নিতে হবে, যেটা ইন্টারনেটে অনেক জনপ্রিয়, প্রচলিত বা যেই বিষয় গুলি নিয়ে ভালো পরিমানে গুগল সার্চে সার্চ করা হয়।

Blog niche মানে, আপনার ব্লগের বিষয় বা টপিক, যেই বিষয় নিয়ে আপনি ব্লগ তৈরি করবেন।

আমার ক্ষেত্রে, আমার এই বাংলা ব্লগের niche হলো, “Blogging এবং “online income“.

আপনারা হয়তো অবশই লক্ষ্য করেছেন, যে আমি এই ব্লগে বিশেষ ভাবে ব্লগিং এবং অনলাইন ইনকাম এর সাথে জড়িত বিষয় গুলি নিয়ে কথা বলি। এমনিতে, “Blogging” এবং “online income”, এই দুটোই অনেক ভালো ও লাভজনক niche বা বিষয়।

তাই, এই আর্টিকেলে আমি, এমন ৯ টি লাভজনক niche এর ব্যাপারে বলবো, যেগুলি ২০২০ এ অনেক জনপ্রিয় এবং এই বিষয় গুলি নিয়ে  ব্লগ তৈরি করলে, Google adsense থেকে অধিক ভালো পরিমানের CPC পাওয়ার সুযোগ থাকবে।

আমরা সবাই জানি, Google adsense এ অধিক ভালো CPC পাওয়া মানেই, কম ট্রাফিক এ অধিক ইনকাম।

তাছাড়া, এই ব্লগিং নিস গুলি আসছে সময়ে আরো অধিক পরিমানে জনপ্রিয় হয়ে দাঁড়াবে।

তাই, নিচে দেয়া বিষয় গুলি নিয়ে ব্লগ তৈরি করলে ভবিষ্যতে, আরো অধিক পরিমানে ট্রাফিক ও ইনকাম পাওয়ার সুযোগ আপনার কাছে অবশই থাকবে।

১১ টি লাভজনক নিশ বা ক্যাটাগরি নিয়ে ব্লগ তৈরি করুন (Profitable blog niches)

প্রথমেই আমি আপনাদের বলেদেই, technology category বা niche এমনিতে অনেক বেশি লাভজনক, যদি আপনারা ভালো ভালো content idea নিয়ে নিজের ব্লগে আর্টিকেল লিখতে পারেন।

কারণ, Google adsense দ্বারা অধিক ভালো পরিমানের CPC থাকা বিজ্ঞাপন, টেকনোলজি ব্লগ গুলিতে দেখানো হয়।

এবং Google কেও বিভিন্ন টেকনোলজি কোম্পানি গুলি অধিক পরিমানে টাকা দেন, অনলাইন বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য।

তাই, technology niche, ব্লগার দেড় জন্য অনেক আগের থেকেই অনেক লাভজনক বিষয় বা নিশ ছিল।

তবে, আজ প্রায় প্রত্যেক ১০ জন নতুন ব্লগারের মধ্যে প্রায় ৭ জন টেকনোলজির নিশ বা ক্যাটাগরি নিয়ে ব্লগ তৈরি করছেন।

এই ক্ষেত্রে, ব্লগার দেড় মধ্যে প্রতিযোগিতা (competition) অধিক বেড়ে যাওয়ার ফলে, এই টেকনোলজির বিষয় নিয়ে বানানো ব্লগ গুলি, গুগল সার্চ থেকে ভালো পরিমানে ট্রাফিক ও ভিসিটর্স পেতে অসমর্থ হচ্ছেন।

তাই, আমি আপনাদের বলবো, ইন্টারনেটে বিভিন্ন বিষয় এবং নিশ রয়েছে, যেগুলি নিয়ে অনেক কম ব্লগাররা ব্লগ তৈরি করেছেন এবং যেই বিষয় গুলিতে প্রতিযোগিতা অনেক কম।

তাছাড়া, এরকম অনেক ব্লগিং নিশ রোপিয়েছে, যেগুলির থেকে অধিক ভালো পরিমানে Adsense income বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আপনারা করতে পারবেন।

তাহলে, ব্লগিং করার জন্য এরকম কিছু profitable তার সাথে low competitive niches এর ব্যাপারে আমি এক এক করে নিচে আপনাদের বলে দিচ্ছি।

11 profitable niche ideas for bloggers in Bangla

নিচে দেয়া নিশ বা ব্লগ টপিক আইডিয়া গুলির যেকোনো একটি নিয়ে আপনারা নিজের ব্লগ তৈরি করলে, ভালো ফলাফল পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

১. Personal Finance niche

আজকাল এরকম কোনো লোক নেই, যারা নিজের কষ্টের পয়সা গুলি সেভ (save) করে রাখতে চাননা।

তাই, Personal finance এর বিষয়টি নিয়ে যদি আপনি একটি ব্লগ তৈরি করেন, তাহলে গুগল সার্চ থেকে ট্রাফিক অধিক পরিমানে পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

তাছাড়া, Finance রিলেটেড বিষয় গুলিতে, গুগল এডসেন্স দ্বারা ভালো পরিমানে টাকা আয়ের সুযোগ আমাদের কাছে থাকবে।

এমনিতে, personal finance বিষয়টি অনেক বড়ো এবং এই ক্যাটেগরির অনেক sub-topics রয়েছে।

Finance এর সাথে জড়িত কিছু topics হলো – Budget ও money management, Investment, Mutual funds, Loan, LIC এবং এরকম আরো অনেক বিষয় নিয়ে আপনারা ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।

এই financial niche গুলি এমনিতে অনেক লাভজনক এবং Google Adsense থেকে অনেক ভালো CPC পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

তাছাড়া, ব্লগে লিখা আর্টিকেলে বিভিন্ন financial products গুলি affiliate marketing এর মাধ্যমে বিক্রি করিয়ে অধিক পরিমানে commission income করতে পারবেন।

তবে, ফাইন্যান্স এর বিষয় গুলিতে আপনার ভালো পরিমানে জ্ঞান অবশই থাকতে হবে।

নাহলে, আর্টিকেল গুলি লিখতে আপনার প্রচুর অসুবিধে হতে পারে।

২. Health and Fitness

Health and fitness, এই বিষয়টি চিরকাল ইন্টারনেটে জনপ্রিয় এবং প্রচলিত হয়ে আছে ও থাকবে।

কারণ, প্রত্যেকদিন লোকেরা ইন্টারনেটে বিভিন্ন শারীরিক, মানসিক বা স্বাস্থর সাধারণ অসুবিধে গুলি নিয়ে অনলাইন প্রচুর সার্চ করেন।

Health এর সাথে জড়িত এরকমি এক অনেক লাভজনক বিষয় হলো “Weight loss“.

আজ হাজার হাজার লক্ষ লক্ষ লোকেরা ও মহিলারা নিজের শরীরের ওজন কমাতে চান।

এই ক্ষেত্রে, তারা প্রথমেই ইন্টারনেটের দ্বারা কিছু উপায় ঘরে বসেই খুজেঁ নেয়ার চেষ্টা করেন।

তাছাড়া, Yoga, dieting, Herbal remedies, Natural Therapies and Healthy Living, meditation এবং এই ধরণের টপিক বা বিষয় গুলি health & fitness niche এর মধ্যে সব থেকে বেশি লাভজনক ও পপুলার।

যদি আপনি, নিজেকে সবল ও সুস্থ রাখতে ভালো পান, এবং অন্যদের সুস্থ থাকার ক্ষেত্রে সাহায্য করতে চান, তাহলে এই ব্লগিং নিশ আপনার জন্য সেরা।

এই নিশ থেকে ইনকামের কথা যখন আসবে তখন আপনারা Google adsense এবং affiliate marketing দুটোই ব্যবহার করতে পারবেন।

Health & fitness industry অনেক বিশাল, এবং Google adsene থেকে অনেক ভালো CPC পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

৩. Make Money Online

ঘরে বসে অনলাইন টাকা আয় করার কথা সবাই ভাবেন। এই ক্ষেত্রে, হাজার লক্ষ লোকেরা ইন্টারনেট থেকে টাকা ইনকাম করার বিভিন্ন লাভজনক উপায়ের বেপারে অনলাইন সার্চ করেন।

এবং, এই “অনলাইন টাকা ইনকাম” এর বিষয়টি ইন্টারনেটে আজ সব থেকে বেশি জনপ্রিয় ও লাভজনক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অনলাইন টাকা আয়ের, বিষয়টি নিজে ব্লগ তৈরি করলে, অনেক কম সময়ের ভেতরেই ব্লগে হাজার হাজার ট্রাফিক আসার সুযোগ রয়েছে।

তাছাড়া, এই নিশ বা টপিক নিয়ে ব্লগ তৈরি করা ব্লগার দেড় আয় অন্য বিষয় গুলিতে তৈরি করার ব্লগার দেড় তুলনায় অনেক বেশি।

তাই, গুগল এডসেন্স এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে অধিক টাকা আয় করার জন্য, এই “make money online niche” সেরা।

এই বিষয় নিয়ে ব্লগ তৈরি করে আজ বিভিন্ন ব্লগাররা প্রত্যেক মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছেন।

Make money online বিষয়টির ভেতরে আরো অনেক sub-topic রয়েছে, যেগুলি নিয়ে আপনি ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।

যেমন, Blogging, affiliate marketing niche, YouTube, freelancing এবং outsourcing.

যখন কথা আসবে এই বিষয়ে তৈরি করা ব্লগ থেকে কতটা আয় করতে পারবেন, তখন জেনেরাখুন এই ক্ষেত্রে ইনকামের সুযোগ অনেক।

Online income বা make money online এর বিষয় নিয়ে তৈরি করা ব্লগে Google adsense থেকে অধিক বেশি CPC থাকা বিজ্ঞাপন দেখানো হয়।

তাছাড়া, যে ধরণের বিজ্ঞাপন দেখানো হয়, সেগুলি সহজেই লোকেরা ক্লিক করে ফেলেন।

তাই, “অনলাইন টাকা আয় নিশ” নিয়ে ব্লগ তৈরি করলে আপনার সব থেকে বেশি লাভ হতে পারে।

৪.Food and Recipes

আজকাল অনলাইন বিভিন্ন রকমের খাবার বানানোর বিধি অনেকেই খুজেঁন।

এই ক্ষেত্রে, আপনার যদি বিভিন্ন রকমের খাবার বিধি (food recipe) জানা থাকে, তাহলে একটি ব্লগের মাধ্যমে সেই food recipe গুলি লোকেদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

Food and recipe নিয়ে বানানো ব্লগ গুলিতে, প্রচুর পরিমানে ট্রাফিক ও ভিসিটর্স গুগল সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

তাছাড়া, Google adsense দ্বারা বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ভালো পরিমানে টাকা আয় করার ভালো সুযোগ আপনারা পাবেন।

৫.How To blogs 

How to blog মানে, এমন একটি ব্লগ যেখানে বিভিন্ন আলাদা আলাদা বিষয় নিয়ে আর্টিকেল লিখা হয়।

এবং, এই ধরণের ব্লগে, বিশেষ করে লোকেদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর আর্টিকেলের মাধ্যমে সমাধান হিসেবে দেয়া হয়।

মানে, যেকোনো জিনিস কিভাবে করবেন, কিভাবে বানাবেন বা আরো অন্য অন্য বিষয়ে থাকা যেকোনো প্রশ্নের উত্তর।

এরকম একটি how to blog এর সেরা উদাহরণ হতে পারে “wikihow.com“.

এই ব্লগে আপনারা, যেকোনো বিষয়ে যেকোনো সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন।

তাই, আপনি যদি লোকেদের সাহায্য করে ভালো পান বা লোকেদের সমস্যার সমাধান করে ভালো বাসেন, তাহলে এরকম একটি “How to blog” তৈরি করতে পারবেন।

এই ধরণের ব্লগে আলাদা আলাদা বিষয় নিয়ে আলাদা আলাদা কনটেন্ট লিখা হয়।

তাই, “Google search” থেকে প্রচুর পরিমানে ট্রাফিক পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

৬. Android apps & software 

আপনাদের যদি technology, application বা android, এগুলি বিষয় নিয়ে রুচি থাকে, তাহলে অবশই “এন্ড্রয়েড এপস” এর বিষয়টি নিয়ে একটি ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।

নিজের ব্লগে, আপনারা বিভিন্ন কাজের এপস, নতুন নতুন এপস বা আরো অন্য আলাদা আলাদা apps এর বিষয়ে লিখতে পারবেন।

আজ, ৭৫% লোকেরা এন্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করেন।

তাই, নিজের মোবাইলের জন্য ভালো ভালো apps এর ব্যাপারে খোঁজ করার জন্য, হাজার হাজার লোকেরা গুগল সার্চ অবশই করেন।

তাই, android mobile apps এর বিষয়টি নিয়ে ব্লগ তৈরি করলে, সুযোগ অনেক রয়েছে যে আপনি দ্রুত গতিতে সফলতা পাবেন।

৭. Smartphone

Android apps এর মতোই smartphone এর niche ব্লগার দেড় জন্য আজ অনেক লাভজনক নিশ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আজ, কলেজে পড়া স্টুডেন্ট থেকে শুরু করে বয়স্ক লোকেরাও এন্ড্রয়েড মোবাইল কেনার রুচি রাখেন।

এই ক্ষেত্রে, বিভিন্ন মোবাইলের বিষয়ে লোকেরা প্রথমেই গুগল সার্চ করেন।

প্রত্যেক দিন লক্ষ লক্ষ গুগল সার্চ করা হয় বিভিন্ন মোবাইলের বিষয় গুলি নিয়ে।

এবং, আপনারা যদি নিজের ব্লগে নতুন নতুন smartphone এর বিষয় গুলি নিয়ে আর্টিকেল লিখেন, তাহলে অনেক জলদি ভালো পরিমানের ট্রাফিক ও ভিসিটর্স গুগল সার্চ থেকে পেয়ে যাবেন।

তাছাড়া, বিভিন্ন smartphone ও mobile এর ব্যাপারে যখন আর্টিকেল লিখেছেন, তখন affiliate marketing এর মাধ্যমে মোবাইল বিক্রি করিয়ে প্রচুর পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন।

আপনার কেবল, নতুন নতুন smartphone গুলির specifications, features এবং details নিয়ে আর্টিকেল লিখতে হবে।

তাই, যদি smartphones ও mobile device নিয়ে আপনার রুচি রয়েছে, তাহলে এই niche নিয়ে ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।

৮.Blogging niche 

Blogging niche আজ যেকোনো ক্ষেত্রে অনেক লাভজনক ও জনপ্রিয় নিশ হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে।

আজ, অনলাইন টাকা ইনকাম করার জন্য লোকেরা বিভিন্ন ধরণের উপায় বা মাধ্যম ব্যবহার করেন।

এই ক্ষেতের, blogging করে বা ব্লগ তৈরি করে টাকা ইনকামের মাধ্যম সব থেকে লাভজনক ও সেরা বলে প্রত্যেকেই জানেন।

তাই, লক্ষ লক্ষ লোকেরা প্রত্যেক দিন ব্লগিং শেখার উদ্যেশে গুগল সার্চ করছেন।

এখন, আপনি যদি ব্লগিং কিভাবে করতে হয় বা blogging বিষয়টি নিয়ে এক্সপার্ট (expert), তাহলে blogging এর বিষয় নিয়ে একটি ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।

কিভাবে ব্লগ তৈরি করতে হয় এবং ব্লগিং এর সাথে জড়িত প্রত্যেক বিষয় নিয়ে আপনি নিজের ব্লগে লিখতে পারবেন।

Blogging niche নিয়ে তৈরি করা ব্লগ সজজে পপুলার হয়ে দাঁড়ানোর সুযোগ অনেক বেশি।

তাছাড়া, এই ধরণের বিষয় নিয়ে বানানো ব্লগ থেকে, Google adsense থেকে ভালো পরিমানে টাকা আয় করা যাবে।

. Education & learning 

আপনাদের যদি কোনো বিশেষ বিষয় নিয়ে অভিজ্ঞতা বা জ্ঞান রয়েছে, তাহলে সেই বিষয় নিয়ে একটি educational & learning blog তৈরি করতে পারবেন।

আজ ইন্টারনেট যেকোনো ক্ষেত্রে যেকোনো জায়গায় এতটা জনপ্রিয় ও প্রচলিত যে, লোকেরা যেকোনো জিনিসের নিশ্চয় শেখার জন্য বা জ্ঞান নেয়ার জন্য, প্রথমেই ইনেটেরনেটে সেই বিষয়ে সার্চ করেন।

তাই, আপনি আপনার জানা বিষয় নিয়ে একটি tutorial ও learning ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।

উদাহরণ স্বরূপে, কম্পিউটারের কোর্স, tally software, coding, blogging, android development বা যেকোনো বিষয়ে একটি learning ও educational ব্লগ তৈরি করে, লোকেদের জ্ঞান দিতে পারবেন।

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, ওপরে দেয়া ৯ টি “সেরা ব্লগিং নিশ আইডিয়া”, বিষয়, টপিক বা ক্যাটাগরি গুলি নিয়ে যদি আপনারা একটি ব্লগ তৈরি করেন, তাহলে গুগল সার্চ থেকে অধিক ট্রাফিক পাওয়ার সুযোগ আপনার কাছে অবশই থাকবে।

তাছাড়া, ওপরে দেয়া best blog niche ideas গুলি গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করার ক্ষেত্রে, অনেক লাভজনক।

এর বাইরেও, প্রত্যেকটি নিশ, affiliate marketing থেকে ইনকাম করার জন্য সেরা।

শেষে, কোন বিষয় নিয়ে ব্লগ তৈরি করবো বা কোন ব্লগিং নিশ লাভজনক হবে, এই প্রশ্নের উত্তর হয়তো আপনারা অবশই পেয়ে গেছেন।

Related Contents: