মোবাইলে ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার – কল ভয়েস চেঞ্জার (২০২৪)

Last updated on June 10th, 2024 at 12:10 pm

যদি আপনি নিজের ফোন কোনভার্সেশন গুলিতে একটি আলাদা মজা যোগ করতে চাইছেন বা কল করা ব্যক্তির সাথে কিছুটা মজা করতে চান, এক্ষেত্রে মোবাইলে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার গুলি অবশই ব্যবহার করে দেখতে পারেন। চিন্তা করতে হবেনা, এক্ষেত্রে আপনাকে কোনো ধরণের পেইড কল ভয়েস চেঞ্জার অ্যাপস ব্যবহার করতে হবেনা।

ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার
Best voice changer software list.

আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে আমি আপনাদের সাথে android mobile এর জন্য থাকা সেরা ৮টি real-time voice changer apps গুলির বিষয়ে আলোচনা করতে চলেছি। এই কল ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপস গুলি দিয়ে ভয়েস চেঞ্জ কিভাবে করতে হয়, সেই বিষয়েও আপনারা আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে জানবেন।

মনে রাখবেন, কল করার সময় ভয়েস চেঞ্জ করে কথা বলার এই অ্যাপস গুলিকে কাজে লাগিয়ে আপনারা আলাদা আলাদা গলার আওয়াজের সাথে ফোনে কথা বলতে পারবেন।

তাহলে চলুন, আর সময় নষ্ট না করে মোবাইলে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ করার সেরা সফটওয়্যার গুলির বিষয়ে একে একে জেনেনেই।

রিলেটেড আর্টিকেল:

মোবাইলে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ কিভাবে করবেন?

ফোনে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ করার নিয়ম এমনিতে একাধিক রয়েছে। এবং সত্যি বলতে, আমার এবং আপনার মতো সাধারণ ব্যক্তিরা এই কাজের জন্য একেবারে সোজা উপায়টি খুঁজে থাকি।

১. ম্যানুয়াল ভয়েস ম্যানিপুলেশন:

ম্যানুয়াল ভয়েস ম্যানিপুলেশন হলো এমন একটি প্রক্রিয়া যেখানে আপনি নিজেই বিভিন্ন পিচ, উচ্চারণ বা আওয়াজে কথা বলে আপনার ভয়েস ম্যানুয়ালি পরিবর্তন করার চেষ্টা করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনাকে নিয়মিত নিজের টোন, পিচ এবং গতি পরিবর্তন করে কথা বলার প্রাকটিস করতে হয়।

২. অন্তর্নির্মিত বৈশিষ্ট্য:

বর্তমান সময়ের স্মার্টফোন গুলি প্রচুর উন্নত এবং অ্যাডভান্স। আর তাই, প্রায় বেশিরভাগ smartphone গুলিতে built-in voice changer features গুলি আগের থেকেই দিয়ে দেওয়া হয়।

এক্ষেত্রে আলাদা ভাবে কোনো কল ভয়েস চেঞ্জার অ্যাপ ব্যবহার না করেও সরাসরি মোবাইলের calling app বা settings-এ গিয়ে ভয়েস চেঞ্জ করে কথা বলার অপসনটি খুঁজতে ও ব্যবহার করতে পারবেন।

৩. এক্সটার্নাল ভয়েস চেঞ্জার ডিভাইস:

বাজারে আলাদা আলাদা ধরণের use external voice changer devices গুলি পেয়ে যাবেন যেগুলি মূলত Bluetooth বা headphone jack-এর সাহায্যে আপনার মোবাইলের সাথে কানেক্ট হয়ে যাবে।

এই ভয়েস চেঞ্জ ডিভাইস গুলিতে সাধারণত একাধিক ভয়েস ইফেক্টস গুলি যুক্ত রাখা হয় যেগুলিকে আপনি কল চলাকালীন নিজের ভয়েস পাল্টানোর জন্য ব্যবহার করতে পারবেন।

৪. কল ভয়েস চেঞ্জার অ্যাপ:

শুধুমাত্র বন্ধুদের সাথে মজা করার জন্য আমি বা আপনি কখনোই নিজের টাকা খরচ করে একটি এক্সটার্নাল ভয়েস চেঞ্জার ডিভাইস কিন্তু কিনতে যাবোনা। আবার, যদি আমাদের মোবাইলে আগের থেকেই voice change করার feature-টি দেওয়া না থাকে, তাহলে কি করবেন?

তবে এখন iOS এবং Android mobile ইউজাররা সম্পূর্ণ ফ্রীতে ভয়েস চেঞ্জ করে কথা বলতে পারবেন নানান voice changer apps গুলি ব্যবহার করে। এই অ্যাপগুলি আপনাকে রিয়েল-টাইমে ফোন কল চলতে থাকা অবস্থায় আপনার ভয়েস পরিবর্তন করে কথা বলতে দিবে।

এক্ষেত্রে আপনাকে সরাসরি নিজের app store থেকে একটি ভালো ভয়েস চেঞ্জার এপ্লিকেশন ডাউনলোড করে নিয়ে সেটিকে সঠিক ভাবে সেট-আপ করে নিতে হবে। এপ্লিকেশন সেট-আপ করার নির্দেশ অ্যাপ থেকেই পেয়ে যাবেন। শেষে, উপলব্ধ voice effect গুলির মধ্যে আপনি যেই voice-টি ব্যবহার করতে চান, সেটিকে সিলেক্ট করে নিতে হবে।

কল ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার গুলি আসলে কি?

রিয়েল টাইম কল ভয়েস চেঞ্জার সফটওয়্যার গুলি হলো এমন এক বিশেষ ধরণের মোবাইল অ্যাপস, যেগুলির দ্বারা ফোনে কথা বলার সময় বা ভয়েস চ্যাট সাপোর্ট করে এমন কোনো মেসেজিং অ্যাপ এর মধ্যে ভয়েস চ্যাট করার সময় নিজের আসল ভয়েস পরিবর্তন করে আলাদা আলাদা গলার আওয়াজের সাথে কথা বলতে দেয়।

এই মোবাইল এপ্লিকেশন গুলি নানান ভাবে আপনার ভয়েস পরিবর্তন করতে পারে। যেমন, ভয়েস এর পিচ পাল্টানো, নানান ভয়েস এফেক্ট যুক্ত করা বা সম্পূর্ণভাবে গলার আওয়াজ পাল্টিয়ে কথা বলার সুযোগ দেওয়া। তাহলে চলুন, এবার নিচে আমরা মোবাইলে ভয়েস পাল্টিয়ে কথা বলার সেরা ৮টি অ্যাপস গুলির বিষয়ে জেনেনেই।

অবশই পড়ুন: মোবাইলের জন্য গ্যালারি লক সফটওয়্যার

১. Voice changer with effects:

কল ভয়েস চেঞ্জার অ্যাপ

টোটাল ডাউনলোড: 100M+

প্লে স্টোরে রেটিং: 4.2

Voice Changer with Effects-টিতে আপনারা আলাদা আলাদা ধরণের ভয়েস ইফেক্ট গুলি পেয়ে যাবেন। যেমন ধরুন, echo, reverb, robot, monster, ইত্যাদি নানান রকমের মজার মজার ভয়েস এফেক্ট গুলি ব্যবহার করতে পারবেন।

আপনি চাইলে মোবাইলে নিজের ভয়েস রেকর্ড করে উপরে বলে দেওয়া এই effects গুলি এপ্লাই করে ভয়েস গুলি সেভ করে রাখতে পারবেন। এবার, পরিবর্তন করা ভয়েস রেকর্ডিং গুলি আপনি নিজের পছন্দমতো social media বা messaging apps গুলিতে শেয়ার করতে পারবেন।

Helium, robot, giant, backwards, monster, extraterrestrial, zombie, alien, squirrel, drunk, ইত্যাদি নানান ধরণের voice effects গুলি এখানে পেয়ে যাবেন।

Voice Changer with Effects-এর ফীচার:

  • নিজের ভয়েস রেকর্ড করে নানান ভয়েস ইফেক্ট যুক্ত করুন।
  • আলাদা আলাদা background sound অ্যাড করা যাবে।
  • চেঞ্জ করা ভয়েস গুলি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করা যায়।
  • Text to voice-এর ফীচার ও রয়েছে।
  • Helium এবং robot সহ প্রায় ৪০+ effects গুলি পাবেন।

২. Voice Changer by AndroidRock

মোবাইলে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ

টোটাল ডাউনলোড: 10M+

প্লে স্টোরে রেটিং: 4.1

Voice Changer by AndroidRock App-টি একটি অনেক সোজা এবং সরল প্লাটফর্ম হলেও এর দ্বারা আপনি নিজের ভয়েস গুলিকে নানান ইফেক্টস সহ চেঞ্জ করে নিতে পারবেন। এই app-টিকে কাজে লাগিয়ে আপনার আগের থেকে রেকর্ড করে রাখা অডিও/ভয়েস বা সরাসরি এই ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ থেকে রেকর্ড করা ভয়েস গুলি চেঞ্জ করে নিতে পারবেন।

এখানেও আপনারা squirrel, helium ইত্যাদির মতো নানান ধরণের voice effects গুলি পাবেন। এই app-এর মধ্যেও নিজের modified voice clips গুলিকে সরাসরি social media এবং messaging apps গুলিতে শেয়ার করতে পারবেন।

App-এর কিছু সুবিধা এবং বৈশিষ্ট:

  • বিভিন্ন বিনোদনমূলক ইফেক্ট গুলির সাথে ভয়েস পরিবর্তন করা যায়।
  • এখানে সরাসরি ভয়েস রেকর্ড করার অপসন পাবেন।
  • বিনামূল্যে বিভিন্ন ভয়েস ইফেক্ট গুলি ডাউনলোড করতে পারবেন।
  • ইফেক্ট দিয়ে চেঞ্জ করা ভয়েস গুলিকে রিংটোন হিসেবে সেভ করা যায়।
  • অ্যাপটি অফলাইন মোডেও ব্যবহার করা যায়।

৩. Call Voice Changer – IntCall

Call Voice Changer – IntCall App-টির মূল বৈশিষ্ট এটাই যে এর দ্বারা আপনি ফোনে কথা বলতে থাকা অবস্থায় নিজের ভয়েস চেঞ্জ করার অপসন পেয়ে যাবেন। App-এর মধ্যে থাকা রিয়েল-টাইম ভয়েস মড্যুলেশন ফীচার এর ফলে এখানে আপনি সরাসরি ভয়েস ইফেক্ট লাইব্রেরিটি এক্সেস করে নিতে পারেন।

এতে, মোবাইলে কথা বলার সময়, high-pitched voices, deep tones, এবং নানান character effects-এর সাথে নিজের ভয়েসটিকে পাল্টে নেওয়া যায়। তবে মনে রাখবেন, এই অ্যাপটি হয়তো আপনি Google Play Store-এর মধ্যে খুঁজে পাবেননা।

App-এর কিছু সুবিধা এবং ফীচার:

  • লাইভ কলের সময় রিয়েল-টাইম ভয়েস মড্যুলেশন।
  • ভয়েস ইফেক্ট এর একটি বড় লাইব্রেরি আছে।
  • ব্যাকগ্রাউন্ড সাউন্ড ইফেক্ট ব্যবহার করা যায়।
  • নানান ইফেক্ট গুলির মধ্যে সহজেই সুইচ করা যাবে।
  • এখানে আলাদা ভাবে কল রেকর্ড করার সুবিধাও পাবেন।
  • ইনকামিং এবং আউটগোয়িং, উভয় কল সাপোর্ট করে।

৪. RoboVox Voice Changer Pro

যদি আপনি সম্পূর্ণ প্রফেশনাল ভাবে লাইভ ফোন কল গুলিতে ভয়েস পাল্টিয়ে কথা বলতে চাইছেন, সেক্ষেত্রে এই RoboVox Voice Changer Pro App-টি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এখানে আপনারা অনেক high-quality voice effects গুলি পেয়ে যাবেন যেগুলি যেকোনো ধরণের ব্যবহারকারীরাই পছন্দ করে থাকেন।

এখানে আপনারা প্রচুর মজার মজার ভয়েস ইফেক্ট গুলি পেয়ে যাবেন। যেমন, robot, pitch shift, এবং vocoder effects, ইত্যাদি। এতে আপনি আপনার ভয়েস গুলি সৃজনশীল এবং আকর্ষক ভাবে রূপান্তর করতে সক্ষম হবেন। এছাড়া, এখানে ভয়েস রেকর্ডিং ফীচারও পেয়ে যাবেন যাতে পরিবর্তন করা ভয়েস গুলিকে সেভ করে রাখা যেতে পারে।

App-এর কিছু সুবিধা এবং ফীচার:

  • Robot এবং vocoder সহ নানান হাই কোয়ালিটি ভয়েস ইফেক্ট গুলি পাবেন।
  • মোডিফাই করা ভয়েস গুলিকে রেকর্ড এবং সেভ করা যায়।
  • Social media এবং messaging apps-এ শেয়ার করা যাবে।
  • প্রচুর কাস্টমাইজযোগ্য ভয়েস স্টাইল গুলি পাবেন।
  • ৩২টি আলাদা আলাদা ভয়েস স্টাইল গুলি পাবেন।

৫. Voice Changer Sound Effects

ভয়েস চেঞ্জ করে কথা বলুন

টোটাল ডাউনলোড: 5M+

প্লে স্টোরে রেটিং: 4.4

Android mobile-এর জন্য এটা একটি অনেক দারুন voice change app যেখান আপনি ক্রিয়েটিভ ভাবে আলাদা আলাদা রকমের ভয়েস তৈরি করে নিতে পারবেন। বন্ধুদের সাথে মজা করার জন্যই হোক বা বিনোদন এর জন্য, অ্যাপটি কাজে লাগিয়ে আপনি আপনার ভয়েসকে সম্পূর্ণ ভাবে পাল্টে ফেলতে পারবেন।

Robot, alien, helium, ইত্যাদি নানান ধরণের ভয়েস ইফেক্ট সহ এখানেও real-time voice modulation-এর সুবিধা দেওয়া হয়েছে। এতে কথা বলতে বলে নিজের ভয়েস পাল্টে নিতে পারবেন আপনি। এছাড়া, এখানে background sound এর সুবিধাটিও যুক্ত রাখা হয়েছে। এতে আপনার রেকর্ডিং গুলিকে অধিক মজার এবং আকর্ষণীয় করা যাবে।

App-এর সুবিধা এবং ফীচার:

  • প্রচুর বিনোদনমূলক ভয়েস ইফেক্ট গুলি আছে।
  • ভয়েস রেকর্ডিং গুলি নিজের ডিভাইস এর মধ্যে সেভ করা যায়।
  • অডিও ক্লিপ গুলি সহজেই রেকর্ড, মোডিফাই এবং শেয়ার করা যায়।
  • Background sound-এর ফীচার রয়েছে।
  • সাউন্ড ইফেক্ট গুলিকে এডিট এবং মিক্স করা যায় (customizable settings)।

৬. Voicemod Clips:

যদি আপনি নিজের ভয়েস এর সাথে এক্সপেরিমেন্ট করতে চাইছেন, তাহলে Voicemod Clips App-টি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এখানে অনেক দারুন এবং মজার ভয়েস ইফেক্ট গুলি পাবেন যেগুলি অডিও এবং ভিডিও ক্লিপ উভয়ে ব্যবহার করা যাবে। এখানেও Real-Time Voice Changer/modulation-এর সুবিধা আপনারা পাবেন।

হতে পারে এই app-টি আপনারা Google Play Store বা আপনার পছন্দের অন্য App store-এর মধ্যে খুঁজে নাও পেতে পারেন। তবে, Google Search-এর মধ্যে গিয়ে Voicemod Clips লিখে সার্চ করলেই নানান ওয়েবসাইট গুলি পেয়ে যাবেন যেখান থেকে এই app-টি ডাউনলোড করা যাবে।

যদি আপনারা নিজের ভয়েস রেকর্ডিং গুলিকে আকর্ষণীয় এবং মজার ভয়েস ইফেক্ট এর মধ্যে পরিবর্তন করে সোশ্যাল মিডিয়া বা মেসেজিং অ্যাপ গুলিতে শেয়ার করতে চাইছেন, তাহলে এই ভয়েস চেঞ্জার অ্যাপটি অবশই ব্যবহার করতে পারবেন।

App-এর সুবিধা এবং ফীচার:

  • ভিডিও ক্লিপ এবং অডিও ক্লিপ উভয়ের জন্য voice effects পাবেন।
  • Real-time voice modulation-এর সুবিধা পাবেন।
  • User-friendly interface রাখা হয়েছে।
  • লাইভ ফোন কলের জন্য রিয়েল-টাইমে ভয়েস চেঞ্জ করার অপসন পাবেন।

৭. Voice Changer – audio effects:

Onepixel voice changer audio effects

টোটাল ডাউনলোড: 500K+

প্লে স্টোরে রেটিং: 3.9

OnePixel Studio-এর এই Voice Changer নামের অ্যাপটি হল এই তালিকার সবথেকে জনপ্রিয় অ্যাপগুলোর মধ্যে একটি। এখানে আপনি ২৫টি ভয়েস এফেক্ট পেয়ে যাবেন। যদিও, আপনি কম-বেশি সব অ্যাপেই এই এফেক্টগুলো পেয়ে যাবেন। তবে, এখানে আপনি খুব সহজেই অডিও ফাইল ইম্পোর্ট করতে পারবেন ও সেগুলিতে ভয়েস এফেক্ট অ্যাড করতে পারবেন। 

এছাড়াও, এই ভয়েস চেঞ্জার অ্যাপ্লিকেশনে আপনি রেকর্ডিং সেভ করতে পারেন ও রিংটোন হিসাবেও ব্যবহার করতে পারেন। এমনকি, আপনি এই অডিও ফাইলগুলোকে MP3 কিংবা WAV হিসাবেও সেভ করে রাখতে পারবেন। এই অ্যাপটি ব্যবহার করা যথেষ্ট সোজা ও এর ইন্টারফেসটিও অনেক বেশি ব্যবহারকারী-বান্ধব।

App-এর সুবিধা এবং ফীচার:

  • এখানে রেকর্ডিং সেভ করা যায়।
  • সহজ ও ব্যবহারকারী-বান্ধব ইন্টারফেস রয়েছে।
  • এখানে ২৫টিরও বেশি নানান কুল এফেক্ট রয়েছে।
  • বিভিন্ন অ্যাপের সাহায্যে রেকর্ডিং শেয়ার করা যায়।
  • ডেভেলপার: OnePixel Studio ডেভেলপার 

৮. NCH – Voxal Voice Changer:

ফোনে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ

NCH Voxal Voice Changer হল একটি ব্যবহারকারী-বান্ধব ভয়েস চেঞ্জার সফ্টওয়্যার। এখানে আপনি স্ট্রিম, কল, গেমিং ও মেসেজিংয়ের সময় ইনস্ট্যান্ট ভয়েস পাল্টাতে পারবেন। এই সফটওয়্যারটির মাধ্যেম আপনি সহজেই আপনার গলার স্বরকে চরমভাবে বিনোদনমূলক করে তুলতে পারবেন। 

এই বিনামূল্যের রিয়েল-টাইম ভয়েস চেঞ্জার সফটওয়্যারটি পি.সি ও ম্যাক ব্যবহারকারীদের অডিও রেকর্ডিংয়ের মাধ্যমে অসংখ্য গান রেকর্ড করতে ও ভয়েস এফেক্ট যোগ করতে দেয়। 

App-এর সুবিধা এবং ফীচার:

  • এখানে আপনি অডিওবুকও বানাতে পারেন।
  • এটি রিয়েল-টাইমে ভয়েস পরিবর্তন করার জন্যে ব্যবহার করা যায়।
  • দ্রুত ভয়েস পরিবর্তন নিয়ন্ত্রণ করতে এখানে হটকি সেট করতে পারেন।
  • এখানে আপনি আপনার গলার স্বর খুবই মজাদার আওয়াজে পরিবর্তন করতে পারেন। 
  • আপনি আপনার গলার স্বরে এফেক্ট যোগ করতে পারেন ও এডিটিং মোডে সেভ করেও রাখতে পারেন।

সাপোর্টেড প্ল্যাটফর্ম: উইন্ডোস ও ম্যাক 

অবশই পড়ুন: ছবি সাজানোর এবং সুন্দর করার সফটওয়্যার

পরিশেষে:

আমরা প্রায়ই বিনোদনের উদ্দেশ্যে গেমিং, স্ট্রিমিং ও ভিডিওগুলোকে মজাদার করে তুলতে আমাদের ভয়েস পাল্টে থাকি।এখানে আমরা কিছু সেরা ভয়েস চেঞ্জারের কথা উল্লেখ করলাম, যেগুলোর মাধ্যমে আপনি সহজেই আপনার ভয়েস পরিবর্তন করতে পারবেন। 

এই সমস্ত সফটওয়্যার বা অ্যাপগুলো বিনামূল্যে এবং এককথায় দুর্দান্ত। তবে, আপনি আপনার সুবিধা, অসুবিধা ও প্রয়োজন অনুযায়ী যেকোনো সফটওয়্যার বা অ্যাপ বেছে নিতে পারেন। 

আমাদের আজকের ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ নিয়ে লেখা আর্টিকেলটি এখানেই শেষ হল। এর মধ্যে কোন ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার বা অ্যাপটা আপনার সবথেকে বেশি পছন্দ হয়েছে, অবশ্যই তা কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।  

রিলেটেড: মোবাইলে ভিডিও এডিটিং করার সেরা এন্ড্রয়েড এপস

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top