সিস্টেম সফটওয়্যার কি – (What is system software in Bengali)

সিস্টেম সফটওয়্যার কি ? (what is system software in Bengali): যখন আমরা সফটওয়্যার নিয়ে কথা বলে থাকি, তখন আমাদের কাছে মূলত দুধরণের সফটওয়্যার এর প্রকার গুলো চলে আসে। সেগুলোর মধ্যে একটি হলো এপ্লিকেশন সফটওয়্যার এবং আরেকটি হলো সিস্টেম সফটওয়্যার।  

সিস্টেম সফটওয়্যার কি
সিস্টেম সফটওয়্যার বলতে কি বুঝায় ?

এমনিতে এপ্লিকেশন সফটওয়্যার কি, সেই বিষয়ে আমি আপনাদের আগেই বলেছি, আর আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনারা জানবেন, “সিস্টেম সফটওয়্যার কাকে বলে (What is system software in Bangla)“.

আর্টিকেলেটির মাধ্যমে আপনারা জানবেন, system software কি, সিস্টেম সফটওয়্যার এর বৈশিষ্ট্য, উদাহরণ এবং কাজ। 

সিস্টেম সফটওয়্যার সেই সফটওয়্যার গুলোকে বলা হয় যেগুলো একটি কম্পিউটার হার্ডওয়্যার কে পরিচালনা (manage) এবং নিয়ন্ত্রণ (control) করে থাকে।

আর এই system software গুলোর কারণেই application software গুলো কম্পিউটারে চলতে ও কাজ করতে পারে।

সিস্টেম সফটওয়্যার এর সোজা এবং সরল উদাহরণ এর কথা যদি বলা হয়, তাহলে অপারেটিং সিস্টেম হলো এর একটি দারুন উদাহরণ। মানে, সেই উইন্ডোজ বা ম্যাক অপারেটিং সিস্টেম যেটা আপনি আপনার কম্পিউটার সিস্টেম এর মধ্যে ব্যবহার করছেন।

কেননা, একটি অপারেটিং সিস্টেম বা ওএস (OS), কম্পিউটারের প্রত্যেকটি programs গুলোকে manage করে থাকে।

সিস্টেম সফটওয়্যার গুলো হলো এমন এক কম্পিউটার প্রোগ্রাম যেগুলোকে তৈরি বা ডিজাইন করা হয়েছে, হার্ডওয়্যার এবং এপ্লিকেশন প্রোগ্রাম গুলোকে চলানোর (RUN) জন্যে।

System software গুলোকে, hardware এবং user application এর মধ্যের একটি ইন্টারফেস (interface) হিসেবে ধরা যেতে পারে।

তাহলে চলুন, নিচে আমরা বিস্তারিত ভাবে জেনেনি, আসলে সিস্টেম সফটওয়্যার বলতে কি বুঝায়

সিস্টেম সফটওয়্যার কি ? (what is system software in Bengali)

সিস্টেম সফটওয়্যার হলো সেই মূল সফটওয়্যার, যেগুলো অন্যান্য সফটওয়্যার গুলোকে কাজ করার ক্ষেত্রে একটি প্ল্যাটফর্ম (platform) তৈরি করে দিয়ে থাকে।

সিস্টেম সফটওয়্যার হলো এমন কিছু প্রোগ্রাম (programs) যার কাজ হলো একটি কম্পিউটার সিস্টেম কে চালানো এবং তাকে কাজ করার যোগ্য বানানো।

এই ধরণের সফটওয়্যার গুলোই কম্পিউটার হার্ডওয়্যার গুলোকে নিয়ন্ত্রণ এবং পরিচালনা করে থাকে এবং কাজ করার ক্ষেত্রে তাদেরকে নির্দেশ দিতে সাহায্য করে।

তাই, সিস্টেম সফটওয়্যার ছাড়া একটি কম্পিউটার ডিভাইস এর কল্পনা করাটাও সম্ভব না।

একটি computer device এর মধ্যে থাকা hardware এবং application software গুলোকে Run করানোর ক্ষেত্রে system software মূল ভাবে সাহায্য করে থাকে।

এছাড়া, এই সফটওয়্যার সম্পূর্ণ কম্পিউটার ডিভাইস টিকে পরিচালনা করার কাজ করে থাকে।

যদি সিস্টেম সফটওয়্যার এর উদাহরণ এর কথা বলা হয়, তাহলে বিভিন্ন operating system গুলো যেমন, mac, Android, Microsoft Windows, Linux এছাড়া, BIOS, Drivers (Bluetooth, WLAN, Audio) ইত্যাদি গুলোকে মূল উদাহরণের মধ্যে ধরা যেতে পারে।

এছাড়া, বিভিন্ন game engine, search engines এবং software as a service applications গুলোকেও system software এর মধ্যে ধরা যেতে পারে।

সিস্টেম সফটওয়্যার গুলোর মাধ্যমে mobile এবং computer system গুলোকে পরিচালনা এবং নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

এই ধরণের সফটওয়্যার গুলো মূলত device এর background এর মধ্যে চলতে ও কাজ করতে থাকে এবং প্রয়োজনীয় ফাঙ্কশন (functions) গুলোকে বজায় রাখতে সাহায্য করে।

এই system software গুলোর কারণেই higher-level application software গুলো দক্ষতার সাথে তাদের কাজ সম্পাদন করতে পারে।

যিহেতু সিস্টেম সফটওয়্যার গুলো একটি কম্পিউটার বা মোবাইলের মধ্যে প্রাথমিক স্তরে কাজ করে থাকে, তাই এই ধরণের সফটওয়্যার গুলোকে বলা হয় “low-level software“.

এপ্লিকেশন সফটওয়্যার গুলো যাতে সিস্টেমে কাজ করতে পারে এবং ব্যবহারকারীদের (users) সাথে যাতে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারে তার জন্য সিস্টেম সফটওয়্যার এর দ্বারা একটি প্লাটফর্ম তৈরি করে দেওয়া হয়।

চলুন, এবার আমরা সিস্টেম সফটওয়্যার কত প্রকার ও কি কি সেগুলো বিস্তারিত ভাবে জেনেনেই।

সিস্টেম সফটওয়্যার এর প্রকার – Types of system software in Bengali

যদি আমরা সিস্টেম সফটওয়্যার এর প্রকার গুলোর কথা বলে থাকি, তাহলে সিস্টেম সফটওয়্যার গুলোকে ৫ টি আলাদা আলাদা ভাগে বিভাজিত করা যেতে পারে।

আর মনে রাখবেন, এগুলোর দ্বারাই computer hardware এর প্রক্রিয়া এবং কাজ গুলোকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

  1. Operating system 
  2. Device driver
  3. Firmware
  4. Translator 
  5. Utility 

চলুন প্রত্যেকটি প্রকার গুলোকে নিচে আমরা বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করে নেই।

১. Operating system

অপারেটিং সিস্টেম হলো যেকোনো কম্পিউটার ডিভাইস এর একটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রয়োজনীয় সিস্টেম সফটওয়্যার এর প্রকার বা ভাগ। প্রকৃত ভাবে, user এবং computer এর মধ্যে সংযোগ স্থাপন করার ক্ষেত্রে এর ভূমিকা সব থেকে অধিক।

অপারেটিং সিস্টেম এর মূল কাজ হলো, user এর নির্দেশ গুলোকে কম্পিউটারের কাছে পোঃচানো এবং কম্পিউটার দ্বারা দিয়ে দেওয়া উত্তর, সমাধান বা বার্তা (messages) গুলোকে user এর কাছে পোঃচানো।

এর সাথে সাথে, ইউসার (user) দ্বারা তৈরি করা programs গুলোকে শুরু করা, মান্য করা এবং শেষ করাটাও এই অপারেটিং সিস্টেম এর কাজ।

সোজা এবং সরল ভাবে বলতে গেলে, অপারেটিং সিস্টেম হলো সেই মাধ্যম বা উপায় যার দ্বারা একজন user তার সম্পূর্ণ নির্দেশ গুলোকে computer hardware কাছে তুলে ধরতে পারে এবং সেগুলোর দ্বারা আউটপুট প্রাপ্ত করতে পারে।

একটি কম্পিউটার সিস্টেম এর মধ্যে সব থেকে প্রথমেই একটি অপারেটিং সিস্টেম ইনস্টল করা হয়।

Operating system এর উদাহরণ কিছু হলো, Microsoft Windows, Linux, Mac OS.

২. Device Drivers

Device Driver software গুলো হলো সেই সিস্টেম সফটওয়্যার গুলো হলো এমন কিছু কম্পিউটার প্রোগ্রাম যেটা কম্পিউটারের সাথে সংযুক্ত হয়ে থাকা একটি বিশেষ ধরনের ডিভাইস (device) টিকে পরিচালনা বা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

আপনি এভাবেও বলতে পারবেন যে, একটি device driver এর মাধ্যমে বিভিন্ন কম্পিউটার devices এবং  peripherals গুলোর মধ্যে জীবনের সরবরাহ করে থাকে।

Drivers এর মাধ্যমেই কম্পিউটারের মধ্যে connected প্রত্যেকটি components এবং external add-ons গুলো নিজেদের কাজ করতে পারেন।

Mouse, Keyboard, Soundcard, Display card, Network card, Printer ইত্যাদি গুলো হলো এমন কিছু devices এর নাম যেগুলোর কাজ করার ক্ষেত্রে driver এর প্রয়োজন হয়ে থাকে।

৩. Firmware

Firmware হলো এমন এক প্রকারের সফটওয়্যার যেটাকে মূলত একটি piece of hardware এর মধ্যে embed করে রাখা হয়।

মানে, এই ধরণের সফটওয়্যার গুলোকে flash, ROM বা EPROM memory chip এর মধ্যে embed করা হয়।

এটা যেকোনো একটি single hardware এর প্রত্যেকটি কার্যক্রম (activities) গুলোকে পরিচালনা (manage) এবং নিয়ন্ত্রণ (control) করে থাকে।

Firmware কে আপনি সোজা ভাবে “হার্ডওয়্যার এর সফটওয়্যার” হিসেবে ভেবে বা বুঝে নিতে পারবেন।

৪. Translator / Programming Language Translators

এগুলো সেই বিশেষ কিছু intermediate programs যেগুলোর দ্বারা মূলত high-level language এর source code গুলোকে machine language code এর মধ্যে translate করার কার্য করা হয়।

অনুবাদ (Translate) করাটা এজন্যই জরুরি কারণ, একটি কম্পিউটার কেবল মেশিন ভাষাতে (machine language) লিখা প্রোগ্রাম গুলো বুঝতে পারে ও সেগুলোর পালন করে থাকে।

যেমন, Java, C++, Python, PHP, BASIC ইত্যাদি।

Language Translators গুলোকে মূলত compilers, assemblers এবং interpreters, এই তিনটি ভাগে বিভাজিত করা হয়েছে।

Assembler:

এই language processor এর ব্যবহার করা হয় assembly language গুলোকে machine level language এর মধ্যে রূপান্তর (convert) করার ক্ষেত্রে।

Compilers:

এই language processor এর ব্যবহার করা হয় high-level languages গুলোকে একি সময়ে বা একসাথে machine level languages এর মধ্যে রূপান্তর (convert) করার ক্ষেত্রে।

Interpreter:

এই language processor এর ব্যবহার high level languages গুলোকে machine level languages এর মধ্যে রূপান্তর (convert) করার ক্ষেত্রে করা হয়।

তবে ভাষার রূপান্তর করার ক্ষেত্রে এখানে line by line প্রক্রিয়ার ব্যবহার করা হয়ে থাকে যার ফলে execution time প্রচুর slow হয়ে যায়।

৫. Utility

Utilities সেই system software গুলোকে বলা হয় যেগুলো system এবং application software এর মধ্যে থেকে থাকে। এগুলো হলো সেই ছোট ছোট programs যেগুলো মূলত computer এর diagnostic এবং maintenance tasks এর জন্য থেকে থাকে।

এদের কাজ crucial data security থেকে শুরু করে drive defragmentation পর্যন্ত বিভিন্ন স্তরে এবং আলাদা আলাদা হতে পারে।

Utilities গুলো মূলত কিছু third-party tools হয়ে থাকে যেগুলো operating system এর সাথে bundled হিসেবে চলে আসে।

কিছু utility software গুলোর উদাহরণ হলো, Antivirus, File Management System, Disk Management tools, Disk cleanup tool, Backup utility ইত্যাদি।

সিস্টেম সফটওয়্যার এর বৈশিষ্ট্য – (Features of system software)

এমনিতে system software এর বৈশিষ্ট প্রচুর রয়েছে, তবে নিচে আমরা এর কেবল কিছু গুরুত্বপূর্ণ features গুলোর বিষয়ে জেনেনেই চলুন।

  1. যদি এই ধরণের সফটওয়্যার এর দ্রুততা নিয়ে কথা বলা হয় তাহলে এদের দ্রুততা (speed) অনেক বেশি।
  2. এরা সরাসরি হার্ডওয়্যার এর সাথে সংযুক্ত হয়ে থাকে এবং সিস্টেম এর পাশাপাশি থেকে থাকে।
  3. System Software গুলোকে low-level language এর মাধ্যমে লিখা হয় যাতে CPU এবং অন্যান্য hardware গুলো সহজে বুঝতে পারে।
  4. অন্যান্য applications গুলোর তুলনায় সিস্টেম সফটওয়্যার এর সাইজ তুলনামূলক ভাবে অনেক ছোট থাকে।
  5. এই ধরণের সফটওয়্যার গুলোকে ডিজাইন করাটা অনেক জটিল কাজ হয়ে দাঁড়ায়।
  6. সিস্টেম সফটওয়্যার গুলোর মধ্যে সহজে হেরফের করা সম্ভব না, কেননা এগুলো সরাসরি ইউসার (user) এর সাথে ইন্টারেক্ট করে থাকেনা এবং এই ধরণের সফটওয়্যার গুলোকে জটিল প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করে লিখা হয়।

 

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা, সিস্টেম সফটওয়্যার কি বা কাকে বলে সেই বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে জেনেনিতে পারলাম। 

এছাড়া, সিস্টেম সফটওয়্যার এর প্রকার এবং বৈশিষ্ট নিয়েও আমরা আলোচনা করলাম।

তাই, আমাদের আজকের আর্টিকেল, “সিস্টেম সফটওয়্যার কাকে বলে (about system software in Bangla)“, যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে অবশই আমাদের আর্টিকেলটি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করবেন।

এছাড়া, আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

 

>> Related Articles <<

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap