ইনস্টাগ্রাম কি | কি কাজে লাগে । ইনস্টাগ্রাম কিভাবে ব্যবহার করতে হয়

ইনস্টাগ্রাম মানে কি: বন্ধুরা, আমাদের আর্টিকেলের টাইটেল দেখেই হয়তো আপনারা বুঝতে পেরেছেন যে আমাদের আজকের আর্টিকেলের বিষয় হলো ইনস্টাগ্রাম নিয়ে। আজকে আমরা, ইনস্টাগ্রাম কি (What is Instagram in Bengali), কেন ব্যবহার করবেন এবং ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারের নিয়ম গুলো কি, সেই সম্পূর্ণ বিষয় গুলো নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি। 

ইনস্টাগ্রাম মানে কি
জেনেনিন ইনস্টাগ্রাম এর বিষয়ে সম্পূর্ণটা বাংলাতে।

লকডাউনে মানুষ যখন বাড়ি ফিরতে পারছিল না, পরিযায়ী শ্রমিকেরা দিশেহারা তখন ভগবানের মতো দেবদূত হয়ে সোনু সুদ ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন তাদের বাড়ি ফেরার।

নিয়মিত সকলের থেকে খোঁজখবর নিয়ে এবং নিজ উদ্যোগে নিজের খরচে অনেক বাস ভাড়া নিয়ে তিনি ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন প্রত্যেককে বাড়ি ফেরার। ঠিক এই পরিস্থিতিতে যদি ইনস্টাগ্রাম না থাকতো তাহলে হয়তো অনেক মানুষ বা পরিযায়ী শ্রমিকেরা বাইরে থাকত।

তারা এই লকডাউন এর পরিস্থিতিতে বাড়ি ফিরতে পারত না।

এর জন্য অভিনেতা সোনু সুদকে যেমন ধন্যবাদ তেমন ইনস্টাগ্রামের ও প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম।

কারণ দেখুন, এই ইনস্টাগ্রাম বা এর মতো অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলোর মাধ্যমেই লোকেরা বিশ্বজুড়ে যেকোনো ব্যক্তির সাথে নিমিষের মধ্যে সংযোগ স্থাপর করতে পারছেন।

আবার, ইনস্টাগ্রাম এর মাধ্যমে আমরা বিশ্বজুড়ে প্রত্যেক খবর এবং আপডেট গুলো সাথে সাথেই নিজের মোবাইলে পেয়ে যাচ্ছি।

তাই, লোকডাউন এর মধ্যে প্রচুর লোকেরা ইনস্টাগ্রাম এর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরণের জরুরি খবর এবং আপডেট গুলো নিয়মিত পেয়েছেন যার কারণে তারা নিজেদের ঘরে ঘরে যাওয়ার রাস্তা খুঁজে পেয়েছেন।

চলুন, এবার আসা যাক ইনস্টাগ্রাম কি এই বিষয়ে – 

ইনস্টাগ্রাম মানে কি ? (Instagram Meaning in Bengali)

ইনস্টাগ্রাম শব্দটি এসেছে “ইনস্ট্যান্ট ক্যামেরা” এবং “টেলিগ্রাম” এই শব্দ দুটির যোগফলের সমাস করে।

ইনস্ট্যান্ট ক্যামেরা ও টেলিগ্রাম দুটো মিলিয়ে হয়েছে ইনস্টাগ্রাম।

ইনস্ট্যান্ট ক্যামেরা+টেলিগ্রাম = ইন্সটাগ্রাম। 

ইনস্টাগ্রাম হলো সেই একটি বিনামূল্যের অনলাইন ফটো শেয়ারিং এপ্লিকেশন এবং সামাজিক নেটওয়ার্ক প্ল্যাটফর্ম, যা 2012 সালে ফেসবুক দ্বারা অধিগ্রহণ করা হয়েছিল।

ইনস্টাগ্রাম কি ? (What Is Instagram in Bangla)

ইনস্টাগ্রাম একটি অ্যাপ অর্থাৎ একটি সফটওয়্যার যা আপনি আপনার ফোন বা স্মার্টফোনে পাবেন, ল্যাপটপেও পাবেন, আবার কম্পিউটার ও পাবেন।

সরাসরি বললে, ইনস্টাগ্রাম হলো একটি “American photo and video sharing social networking service“.

তাই, এটা হলো এমন একটি social networking service বা app যার মাধ্যমে মূলত videos এবং photos গুলো share করা হয়।

Instagram আবিষ্কার করা হয় Kevin Systrom এবং Mike Krieger দ্বারা।

এখানে প্রথমেই অ্যাপসটিকে গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করে নিতে হয় এবং প্রয়োজনীয় তথ্য যেমন আপনার নাম, আপনার ছবি আপনার ফোন নাম্বার ইত্যাদি সহযোগে এটিকে সাইন আপ করে রাখতে হয়।

এরপর আপনি যাকে যাকে অনুসরণ করতে চান সেটা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে দেশের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ কিংবা শাহরুখ খান থেকে সালমান খানই হোক বা নিজের রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হোক না কেন, আপনি তাদের ফলো করতে পারবেন।

ফলো করতে পারবেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন কেও।

  • ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীদের একটি মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে ফটো এবং ছোট ভিডিও সম্পাদনা এবং আপলোড করার অনুমতি দেওয়া হয়।
  • ব্যবহারকারীরা তাদের প্রতিটি পোস্টে একটি ক্যাপশন যোগ করতে পারে এবং এই পোস্টগুলোকে হ্যাশট্যাগ দিয়ে ব্যবহার করতে পারে।
  • এর মধ্যে অন্যান্য ব্যবহারকারীদের তারা অনুসন্ধান যোগ্য করে তুলতে পারে ফলোয়ার এবং ফলোয়িং এর মাধ্যমে।
  • একজন ইন্সটাগ্রাম ব্যবহারকারী তার অনুসরণকারীদের ইনস্টাগ্রামে প্রদর্শিত হয় ইন্সটাগ্রাম ব্যবহার করার ফলে এবং ট্যাগ করার জন্য।

সাধারন জনতা দেখতে পায় সবই। ব্যবহারকারীদের কাছে তাদের প্রোফাইল ব্যক্তিগত করার বিকল্প রয়েছে অবশ্য, যাতে শুধুমাত্র তাদের অনুসারীরা / অনুরাগীরা তাদের পোস্ট দেখতে পায়।

অন্যান্য সামাজিক নেটওয়ার্ক প্ল্যাটফর্মের মত ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীরা তাদের অন্যের পোস্টে লাইক, মন্তব্য এবং বুকমার্ক করতে পারেন।

হ্যাঁ, কিন্তু এখানে নেই কোনো ডিসলাইক বাটন। শুধুমাত্র আছে লাভ রিয়্যাক্ট।

ইনস্টাগ্রামের মেসেঞ্জার থেকে আপনি আপনার বন্ধুদেরকে ব্যক্তিগত বার্তা পাঠাতে পারেন। এখান থেকে টুইটার, ফেসবুক সহ একাধিক সোশ্যাল মিডিয়ার সাইটে ছবি শেয়ার করা যেতে পারে একটিমাত্র ক্লিক এর সাহায্যে।

ইনস্টাগ্রাম শুধুমাত্র ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করা বা একে অপরকে ফলো করে লাভ রিয়্যাক্ট এবং কমেন্ট করার জন্যই তৈরি হয়নি।

এখানে ব্যবসা করার জন্য, বিনামূল্যে ব্যবসা শুরু করার সুযোগ ও ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত তথ্য ইনস্টাগ্রামে পেতে পারেন, শেয়ার করতে পারেন। এবং সেখান থেকে বিজনেস করতে পারেন।

শুধুমাত্র নিজের দেশের লোকেরাই যে ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করে তাও নয়, এখানে সমস্ত দেশ ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করার ফলে আপনি যেকোন দেশের মানুষের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারেন এবং তাদেরকে নিজের ব্যবসা সম্বন্ধে উদ্বুদ্ধ করতে পারেন।

তারা আপনার দেওয়া বিজ্ঞাপনের নোটিশ দেখতে যেমন পায় তেমন ই তাদের বিজ্ঞাপনের নোটিশ ও আপনি দেখতে পারেন এই ইন্সটাগ্রাম এর মাধ্যমে।

আপনি যে নিজের বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কে শুধুমাত্র আপনার পোস্টে সীমাবদ্ধ রাখবেন তাই নয় আপনি আপনার নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে সেগুলো শেয়ার করতে পারেন।

এছাড়া, আপনার ফোনে যদি জায়গা কম থাকে বা স্টোরেজ কম থাকে, সেই হিসাবে আপনি আপনার তোলা ছবিগুলো ইনস্টাগ্রামে রেখে দিয়ে আপনার ফোন থেকে বা আপনার ডিভাইস থেকে সে ছবিগুলো ডিলিট করে দিয়ে পরে ইনস্টাগ্রাম থেকে এসে কালেক্ট করতে পারেন বা ডাউনলোড করতে পারেন।

চিরস্থায়ী সংরক্ষণ করে রাখে ইনস্টাগ্রাম আপনার সমস্ত images বা photos গুলিকে।

তাহলে, ইনস্টাগ্রাম বলতে কি বুঝায় বিষয়টি ভালো করে বুঝতেই পেরেছেন হয়তো, আসুন এখন নিচে জেনে নিই ইনস্টাগ্রাম কিভাবে ব্যবহার করতে হয়। 

ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারের নিয়ম । কিভাবে ব্যবহার করবেন

প্রথমে তো আপনি গুগল প্লে স্টোরে ইন্সটাগ্রাম অ্যাপস্টি ডাউনলোড করে নিলেন।

তারপরে অ্যাকাউন্টও খুললেন। কিন্তু করবেন কি ? সারাদিন পাপারাজিৎ-এর মতো সেলিব্রিটিদের ফলো করবেন ? নাকি নিজেও হবেন সেল্ফ সেলিব্রিটি! 

দেখুন বর্তমানে আমাদের হাতে এখন অনেক সময় এবং আমরা যদি সেই সময়কে কাজে না লাগিয়ে শুধুমাত্র অনলাইনে ব্যস্ত থেকে নিজেদের সময় নষ্ট করি তাহলে খুবই মূর্খামি ছাড়া আর কিছুই হবে না।

কিন্তু তারচেয়ে যদি কিছু বিভিন্ন সোশ্যাল সাইট যেমন ইনস্টাগ্রামের মতো কিছু বিভিন্ন সোশ্যাল সাইট গুলো রয়েছে সেগুলো কে ব্যবহার করে নিজেদের জীবনকে আরও অনেক উন্নত করে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন, বাইরের দেশের মানুষের সাথে যোগাযোগ করে নিজেদেরকে অনেক উন্নত করে ফেলতে পারেন তাহলে ক্ষতি কি!

ইনস্টাগ্রাম কিভাবে ব্যবহার করতে হয় ?

ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আপনাকে মূলত ৫ টি অপশনের বিষয়ে ভালো করে জেনে রাখতে হবে।

আপনি যখনি নিজের মোবাইল থেকে ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে প্রবেশ করবেন, আপনাকে এই ৫ টি অপসন প্রত্যেক সময়ে দেখানো হবে।

অপসন গুলো app এর একেবারে নিচের দিকে দেওয়া থাকছে।

চলুন, এবার সরাসরি জেনে নেই কিভাবে ব্যবহার করতে হয় ইনস্টাগ্রাম।

১. Home 

Home হলো সেই জায়গাটি যেখানে আপনার profile এর photo এবং সাথে সেই প্রত্যেকের profiles গুলো দেখানো হবে যাদের আপনি follow করেছেন। এছাড়া, যখন লোকেরা তাদের প্রোফাইলে নতুন কিছু আপডেট দিয়ে থাকে (photo, video) তখন সেগুলোও আপনার এই হোমে নিজে নিজেই দেখানো হবে যেগুলোতে আপনি like বা comment করতে পারবেন।

২. Search 

সার্চ এর মধ্যে ক্লিক করে আপনারা Instagram এর মধ্যে অন্যান্য ব্যক্তিদের প্রোফাইল, ভিডিও বা ফটো গুলো সার্চ করতে পারবেন। সে আপনার বন্ধু-বান্ধবের হতে পারে বা কোনো সেলিব্রিটির ভিডিও বা ছবি হতে পারে। এছাড়া, সার্চ এর মধ্যে আপনাদের নিজে নিজেই সেই ভিডিও এবং ছবি গুলো দেখানো হয় যেগুলো অনেক পপুলার এবং প্রচুর লোকেদের দ্বারা দেখা হয়েছে।

৩. + Icon 

যদি আপনি নিজের Instagram profile এর মধ্যে photo বা video গুলো share করতে চাইছেন, তাহলে আপনাকে এই +icon এর মধ্যে click করে মোবাইলের গ্যালারি থেকে ফাইল (file) সিলেক্ট করে সেটাকে আপলোড করতে হবে।

৪. Instagram Feed Heart Icon

Heart icon এর মধ্যে click করার সাথে সাথে আপনারা আপনাদের friends এবং followers দ্বারা আপনাদের পোস্টে করা likes, comments এবং replies গুলো দেখতে পারবেন।

৫. Profile 

শেষে আপনারা profile icon দেখতে পাবেন যেখানে click করে আপনি নিজের ব্যক্তিগত তথ্য (information) গুলো যোগ করতে পারবেন।

এছাড়া, আপনি যত গুলো ব্যক্তিদের ইন্সটাগ্রামে ফলো করছেন এবং আপনাকে যতজন ব্যক্তিরা ফলো করছেন সেই ফলোয়ার্স দের সংখ্যা আপনারা এই প্রোফাইলের ট্যাবে দেখতে পারবেন।

আপনি নিজের প্রোফাইলে কতগুলো ফটো এবং ভিডিও আপলোড করেছেন সেই সংখ্যা ও আপনারা এখানে দেখবেন।

ইন্সটাগ্রাম এর মূল উদ্দেশ্য কি ?

ইন্সটাগ্রাম আপনাকে অন্যদের সাথে সংযোগ করে রাখতে সক্ষম। আপনার ফটো ভিডিও শেয়ার করতে সক্ষম এবং আপনি শুধুমাত্র আপনার এলাকার, আপনার রাজ্য বা আপনার দেশের সাথে না তবে আপনি বাইরের দেশের সাথে সবসময় যোগাযোগ রাখতে পারবেন ইন্সটাগ্রাম এর সাহায্যে।

এভাবে, আপনার ফলোয়ার্স বা ভক্তের সংখ্যাও বাড়ায়।

ইনস্টাগ্রামের সবথেকে বড় সুবিধা হচ্ছে – 

আপনি যা কিছু শেয়ার করবেন সেটাতে যদি আপনার ফলোয়ার্স বেশি থাকে বা আপনার একাউন্টে যদি ফলোয়ার্স বেশি থাকে বা আপনাকে যদি অনেকে ফলো করেন আপনি পৌঁছে যেতে পারেন এদেশ থেকে ও দেশের বহু প্রান্তে প্রান্তে।

নিজের ব্যক্তিত্ব, নিজের পরিচিতি, নিজের ট্যালেন্টকে প্রকাশ করতে পারেন কোনো টেলিভিশন, রেডিও কিংবা কোনো সোর্স বা অর্থ ছাড়াই।

কাজেই ঘরবন্দি হয়ে বসে থেকে লকডাউন এ কাজ হারিয়ে আপনি যদি মনে করেন যে আপনি ব্যর্থ, অসহায় তাহলে ভুল ভাবছেন।

কেননা, ইনস্টাগ্রামে এমন অনেক কিছু করার আছে যা থেকে আপনি ইনকাম করতে পারেন।

শুধুমাত্র সেলিব্রেটিদের ফলো করেই যে আপনার পেট ভরবে তা তো নাও হতে পারে।

এখানে নিজেও হয়ে যেতে পারেন সেল্ফ সেলিব্রিটি। আসুন জেনে নিই কি কি উপায়ে তা সম্ভব। 

অর্থ উপার্জনের তাগিদেই হোক বা নিজের জন্য, কিভাবে ব্যবহার করবেন আপনার ইন্সটাগ্রামকে ? 

জেনে নিন এর সঠিক ব্যবহারের নিয়ম। 

১) সংযোগ রক্ষা করা

আপনি আপনার প্রোফাইলটি কে বা অ্যাকাউন্ট কে, এমন ভাবে তৈরি করলেন যাতে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ হয়।

আপনার নিজের প্রোফাইল ফটোটা এমন সুন্দর করে দিলেন যাতে মনে হয় হয় তা শুধু দেখতে শুনতে ভাল বা গুড লুকিং বলে নয়, যাতে একটা স্মার্টনেস থাকে।

এমন করুন যাতে এর মধ্যে এমন কোন একটা কোনক ব্যাপার লুকিয়ে থাকে যাতে মানুষ আপনার প্রতি অ্যাট্রাক্টিভ হবে।

এটা একমাত্র আপনার হাতেই। নিজের বাড়িঘর গোছানোর মতো সোশ্যাল মিড়িয়াকেও সাজিয়ে গুছিয়ে রাখুন।

তো আপনি এখানে এর মাধ্যমেই আপনার সংযোগ রক্ষা করতে পারেন।

আপনি নরেন্দ্র মোদিকে ফলো করতে পারেন। যোগাযোগ করতে পারেন বিভিন্ন বাইরের দেশের মন্ত্রী বা বড় বড় সেলিব্রেটিদের। ফলো করতে পারেন তাদের। সেখান থেকে তাদের কোন হেল্প নিতে পারেন।

এখন বর্তমানে অনেক বড় বড় সেলিব্রেটিরা সাধারণ মানুষকে হেল্প করতে এগিয়ে আসছেন দেখা যাচ্ছে।

লকডাউন এ যারা কাজ হারিয়ে বাড়ি ফিরতে পারেনি, কিংবা যে পরিযায়ী শ্রমিকেরা অর্থের অভাবে বাড়ি ফিরতে পারেনি, খাবার জোগাতে হিমশিম খেয়েছে, তাদেরকে ইনস্টাগ্রাম থেকে সাহায্য করেছেন বাড়ি ফেরার জন্য।

ইনস্টাগ্রামে একাউন্ট থেকে সোনু সুদ বলেছিলেন যে তিনি তাদের বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন এবং সেখানে তাদের কমেন্ট করেছিলেন যে যারা বাড়ি ফিরতে চান তারা যেন তার সাথে যোগাযোগ করে এবং সোনু সুদ নিজের উদ্যোগে তাদেরকে ফিরিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করেছিলেন ইনস্টাগ্রাম থেকে।

শুধু তাই নয় অনেক সেলিব্রিটিরাই অক্সিজেনের ও ব্যবস্থা করেছিলেন কোভিড-২এর সময়। অর্থাৎ আপনি সাহায্য বলুন বা লাভবান, হতে পারেন এখান থেকে।

এমনকি এই থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী আপনার কথা শুনতে পারে ইনস্টাগ্রামের মাধ্যমে।

২) বিজনেস 

আগেই বলা হয়েছে যে কিভাবে আপনি ইনস্টাগ্রাম থেকে বিজনেসকে ডেভলপ করতে পারেন।

আপনি যে বিজনেস করছেন সেই বিজনেস টিকে যেমন আপনার স্টোরিতে শেয়ার করতে পারেন তেমন আপনি আপনার পোস্ট এর মাধমেও শেয়ার করতে পারেন।

আপনার যারা ফলোয়ার্স রয়েছে তারা আপনাকে যদি ফলো করে এবং আপনার পাবলিশ করা কনটেন্ট এর প্রতি যদি ইন্টারেস্টেড হন তবে আপনি মার্কেটিং এ অনেক বড় বিজনেস করতে পারবেন।

ভেবে দেখুন তারা সমস্ত খবরা খবর আপনার ইনস্টাগ্রাম থেকে পাবে।

সুতরাং ইনস্টাগ্রাম বিজনেস করার / ছড়িয়ে দেবার উপযুক্ত জায়গা।

৩) বিজ্ঞাপন 

অ্যাডভার্টাইজমেন্ট দেওয়ার জন্য যে আপনি বড় কোম্পানির কাছ থেকে বিজ্ঞাপনের অর্ডারটি নিলেন, বিজ্ঞাপন করলেন এবং সেটি আপনার নিজের পোস্টে আপনি শেয়ার করলেন কোম্পানির নাম দিয়ে।

তারা যেমন আপনার কোম্পানির প্রতি আকৃষ্ট হবে তেমন আপনার প্রতিও আকৃষ্ট হবে এবং অন্য আরও বড় কোম্পানি যারা রয়েছে তারা আপনাকে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট দেওয়ার জন্য অনুরোধ করবে কারণ তারা জানতে পেরেছে যে আপনি বিজ্ঞাপনে কাজ করেন।

ইনস্টাগ্রামে বিজ্ঞাপন কিভাবে চালাতে হয়, এই বিষয়ে সঠিক ভাবে জ্ঞান নিতে পারলে বিভিন্ন কোম্পানি গুলোর ক্ষেত্রে আপনি বিজ্ঞাপন চালাতে পারবেন এবং অনলাইনে পার্ট-টাইম ইনকাম করতে পারবেন।

৪)  আপনার পছন্দের সেলিব্রিটি কি করছে সেটা আপনি জানতে পারবেন

ইনস্টাগ্রামের মাধ্যামে আজকে কোথায় কে বেড়াতে গিয়েছে কিংবা আপনি ধরুন কন্টেন্ট লেখেন তো আপনার পছন্দের অভিনেত্রীর অভিনেতা বেড়াতে গিয়েছে সেটা ইনস্টাগ্রাম থেকে জেনে নিয়ে আপনি লিখতে পারেন।

আপনার প্রতিদিনের নিউজ এর জন্য আপনি ভালভাবে খবর পেয়ে যাবেন এখান থেকে।

৫) গবেষণামূলক কাজ করতে পারেন

আপনি নাসা বা ইসরো এমন সংস্থা গুলোকে ফলো করতে পারবেন যারা গবেষণা করেন। 

আপনি গবেষণামূলক কাজ গুলি জানতে পারবেন।

খবরের আগে আপডেট পাবেন আজ কোন স্যাটেলাইট বা রকেট লঞ্চ হল।

আপনার নিজেরও গবেষণার প্রতি সুবিধা হবে।

৬) সেলিব্রিটি হওয়ার একটা দারুণ সুযোগ বা চাহিদা রয়েছে

এই আজকের ইনস্টাগ্রামের ছবি বা ভিডিও পোস্ট করে বাড়িয়ে নিতে পারেন আপনার ফলোয়ার্স। এবং আপনারা সকলেই জানেন যে ইনস্টাগ্রম ফলোয়ার্স বৃদ্ধির সাথে সাথে তা একটি ইনকামের রাস্তা।

এখানে আপনি রোল-ক্যামেরা-অ্যাকশন-প্রোডিউসার-ডিরেক্টর ছাড়াও হতে পারেন সেল্ফ সেলিব্রিটি!

আপনার মধ্যে থাকতে হবে এমন কোনো দারুন দক্ষতা বা ক্রিয়েটিভিটি যেটা লোকেরা প্রচুর পছন্দ করতে পারে।

৭) ফ্রীল্যান্স মডেল

আপনি হয়ে যেতে পারেন ফ্রীল্যান্সিং মডেল।

ইনস্টাগ্রামে আপনি আপনার ছবি স্টোরিজ বা পোস্ট দিয়ে কাজে লাগিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

৮) বিখ্যাত ব্যক্তিদের কথা বা মোটিভেশনাল স্পিচ

ধরুন যাদের মন খারাপ বা যারা কোন কিছুতে সবসময় নেগেটিভ চিন্তায় থাকে, মাঝে মাঝে ইনস্টাগ্রাম স্ক্রল  করতে করতে দেখতে পান অনেক মনীষীদের উক্তি, বিখ্যাত ব্যক্তির কথা। যেটা তাকে মোটিভেট করবে।

আপনি যে যে কাজ গুলির মধ্যে ইনস্টাগ্রাম কে ব্যবহার করতে পারেন তা উপরে বলা হল।

আপনি ছবি, ভিডিও পোস্ট করার মাধ্যমে, স্টোরিজ করার মাধ্যমে, কমেন্ট করার মাধ্যমে, শেয়ার করার মাধ্যমে হ্যাশট্যাগ করার মাধ্যমে, বিজ্ঞাপন দেওয়ার মাধ্যমে, বিজনেস করার মাধ্যমে, নিজের ছবি বা অন্যান্য ছবি পোস্ট করার মাধ্যমে এই ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করতে পারেন।

নিজের সঙ্গে বাইরের সংযোগ বেশি বাড়াতে পারেন। অর্থ উপার্জন করতে পারেন খুব সহজেই।

আর বর্তমানের অনলাইন দুনিয়ায় বাঁচতে ইন্সটাগ্রামকে নিয়ে চলুন।

সব কিছুর ভালো ও খারাপ দিক আছে। তার ভালো দিক নিয়ে বাঁচুন। দেখবেন। জীবন ভালো কাটছে। 

 

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা, ইনস্টাগ্রাম মানে কি বা ইনস্টাগ্রাম কাকে বলে (meaning of Instagram in Bengali) এবং ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারের নিয়ম গুলো কি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করলাম। 

ইনস্টাগ্রাম বলতে কি বুঝায়, বিষয়টি নিয়ে লিখা আমাদের আর্টিকেল যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে অবশই আর্টিকেলটি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করবেন।

এছাড়া, আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

 

1 thought on “ইনস্টাগ্রাম কি | কি কাজে লাগে । ইনস্টাগ্রাম কিভাবে ব্যবহার করতে হয়”

  1. lutfuzzaman shuvo

    ভাই ইনস্টাগ্রাম সম্পর্কে এতকিছু লিখলেন। মাথা নষ্ট!!!!

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap