কম্পিউটারের ব্যবহার এবং উপকারিতা গুলি কি (Uses & advantages)

আধুনিক জীবনযাত্রার সঙ্গে অঙ্গাঙ্গী ভাবে যুক্ত কম্পিউটার (Computer)।

কম্পিউটারের উপকারিতা
কম্পিউটার ব্যবহারের সুবিধা এবং উপকারিতা

শিক্ষা ক্ষেত্র হোক বা চিকিৎসা ক্ষেত্র, বিনোদন হোক বা কর্মক্ষেত্র সব কিছুতেই জরুরী কম্পিউটার।

দৈনন্দিন জীবনযাত্রার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জরিত কম্পিউটার।

গোটা বিশ্বে কম্পিউটার এমন একটি যন্ত্র (device), যার চাহিদা এবং ব্যবহার দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

তবে, কম্পিউটার (computer) হল এমন একটি যন্ত্র যা সুনির্দিষ্ট নির্দেশ অনুসারে যথাযথ ভাবে অনুসরণ করে দ্রুত গাণিতিক গণনা সংক্রান্ত কাজ নির্ভুলভাবে সম্পন্ন করে।

কম্পিউটার শব্দটির  উৎপত্তি গ্রিক শব্দের “কম্পিউট” থেকে।

এই শব্দের অর্থ হলো “হিসাব বা গণনা করা“।

এবং কম্পিউটার শব্দের অর্থ হলো গণনাকারী যন্ত্র

প্রথমের প্রাচীন কম্পিউটার গুলি গণনাকারী যন্ত্র থাকলেও এখন কিন্তু আধুনিক কম্পিউটার গুলি বিভিন্ন রকমের আলাদা আলাদা কাজ করতে পারে।

বর্তমান যুগে তাই শিক্ষার ক্ষেত্রেও কম্পিউটার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে পরিগণিত হয়।

তাছাড়া, কর্মক্ষেত্রেও আজকাল সব কম্পিউটার ভিত্তিক কাজ।

আগে মানুষের হিসেব করতে অনেক সময় লাগত, অনেক সময়ই সেসব হিসেব ভুল হত।

কিন্তু, কম্পিউটারের  মাধ্যমে সমস্ত হিসেব অনেক দ্রুত এবং নির্ভুল ভাবে হয়ে থাকে।

গোটা বিশ্বের খবরা খবর সংগ্রহ করা থেকে নিজের ভাবনার জগৎ, জ্ঞানের জগৎকে আমাদের বাড়িয়ে তুলতে কম্পিউটার ভীষণ ভাবে সাহায্য করে থাকে।

কম্পিউটারের মাধ্যমে অনলাইনে ফর্মফিলাপ থেকে শুরু করে যে কোনো বিল পেমেন্ট করা সমস্তটাই অনেক সহজে হয়ে যায়।

কেবল একটা ক্লিকে ঘরে বসেই সংযোগ স্থাপন করা যায় বিভিন্ন দেশের মানুষের সাথে।

তবে, কম্পিউটারের উপকারিতার পাশাপাশি কিছু অপকারিতাও আছে, যেমন বিভিন্ন সাইবার ক্রাইম, কম্পিউটারের মাধ্যমে হতেই থাকে।

এছাড়াও দীর্ঘসময় কম্পিউটারে কাজের ফলে চোখে চাপ পড়ে।

শিশুদের মধ্যেও আজকাল কম্পিউটারে গেম খেলার প্রবনতা অনেক বেশি। সেক্ষেত্র অনেকক্ষন কম্পিউটার ব্যবহারে শিশুদের মধ্যে হতাশার সৃষ্টি হয়।

তাই, কম্পিউটারের উপকারিতা গুলির সাথে সাথে অপকারিতা গুলোকেও মাথায় রেখে, সেগুলোর থেকে বিরত থেকে কম্পিউটারের ভালো দিক গুলোতে নিজেকে নিয়োজিত করতে হবে।

তাহলে চলুন, নিচে আমরা আরো ভালো করে জেনেনেই, “কম্পিউটারের উপকারিতা গুলি কি কি“, “কম্পিউটার ব্যবহারের লাভ” এবং “কম্পিউটার ব্যবহারের সুবিধা গুলি কি কি“।

অবশই পড়ুন

বর্তমান যুগে কম্পিউটারের বিভিন্ন ব্যবহার (uses of computer)

বর্তমান সময়ে কম্পিউটার বিবিধ ব্যবহার রয়েছে,

এর প্রধান ব্যবহার গুলি হল –

১. শিক্ষাক্ষেত্রে কম্পিউটারের ব্যবহার

২.সংবাদ মাধ্যমে কম্পিউটারের ব্যবহার

৩.চিকিৎসাক্ষেত্রে কম্পিউটারের ব্যবহার

৪.ব্যাংকিং এ কম্পিউটারের ব্যবহার

৫. গবেষণার কাজে অপরিহার্য কম্পিউটারের ব্যবহার

৬. প্রকাশনায় কম্পিউটারের ব্যবহার উল্লেখযোগ্য

৭.চিত্তবিনোদনের ক্ষেত্রেও অন্যন্য এর ব্যবহার

৮.অনলাইন ব্যবসা বানিজ্যে

৯. আবহাওয়ার পূর্বাভাসে

১০. ট্রাভেল ট্রান্সপোর্ট সংস্থায় ব্যবহার

অবশই পড়ুন :

চলুন, নিচে কম্পিউটারের এই ব্যবহার গুলি বিস্তারিত ভাবে জেনেনেই।

১. শিক্ষার ক্ষেত্রে কম্পিউটারের ব্যবহার

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বর্তমান শিক্ষাক্ষেত্রে পাঠদান পদ্ধতি অনেক বেশি আধুনিক, আর এই আধুনিক শিক্ষা প্রক্রিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে কম্পিউটার।

বর্তমানে অনলাইন ভিত্তিক বহু পাঠক্রম রয়েছে, যেখানে পাঠদান করা হয় কম্পিউটারের মাধ্যমে।

এছাড়াও আজকাল অনলাইনে বহু পরীক্ষা হয়ে থাকা, উত্তরপত্র মূল্যায়ন, রেজাল্ট তৈরী হয় কম্পিউটারের মাধ্যমে।

কম্পিটারের বিভিন্ন অ্যাপ এবং সফটওয়্যার এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার বিকাশ অনেক সহজেই সম্ভব হচ্ছে।

তাছাড়া, বিশ্বের যেকোনো বিষয়, জিনিস, ব্যক্তি বা যেকোনো সমস্যার সমাধান একটি কম্পিউটারে ইন্টারনেট ব্যবহার করে পাওয়া যেতে পারে।

আধুনিক শিক্ষা গ্রহণের প্রক্রিয়া গুলির মধ্যে, কম্পিউটার শিক্ষা আজ অনেক জরুরি।

২. সংবাদমাধ্যমে কম্পিউটারের ব্যবহার 

সংবাদপত্রে প্রকাশের মাধ্যম ছাড়াও, দেশে বিদেশে বিপুল সংখ্যক মানুষের কাছে সংবাদ পৌছে দিতে কম্পিউটারের দ্বিতীয় বিকল্প নেই।

সময়ের অভাবে অনেকেই নিয়মিত সংবাদপত্র পড়তে পারেন না।

কিন্তু বর্তমান যুগে, বিশ্বের যে কোনো খবর যে কোনো প্রান্তের মানুষের কাছে নিমেষের মধ্যে পৌছে যাচ্ছে  এই কম্পিউটারের মাধ্যমে।

কম্পিউটারের মাধ্যমে ব্রেকিং থেকে শুরু করে, যেকোনো খবর ই নিউজ পেপার (e-news paper) এর মাধ্যমে আজ মানুষ পড়তে পারছে।

আর চাইলে, কম্পিউটারের মাধ্যমে সেগুলি প্রিন্ট করেও পড়ে নিতে পারছেন।

৩. চিকিৎসা ক্ষেত্রে কম্পিউটারের ব্যবহার 

চিকিৎসা শাস্ত্রও এখন অনেক আধুনিক হয়ে গেছে। এই ক্ষেত্রেও কম্পিউটারের ব্যবহার প্রচুর পরিমানে করা হয়।

বিভিন্ন রোগ নির্ণয়ে ব্যবহৃত বিভিন্ন যন্ত্রাংশ কম্পিউটার পরিচালিত হওয়ায় চিকিৎসাক্ষেত্রেও কম্পিউটারের ব্যবহার অনেক প্রয়োজনীয়।

সি টি স্ক্যান, আল্ট্রাসনোগ্রাফি, ইত্যাদি পরীক্ষাসমূহতে কম্পিউটার পরিচালিত যন্ত্র ব্যবহারের পাশাপাশি বাইপাস সার্জারি, মাইক্রো সার্জারির প্রভৃতিতে দ্রুততার জন্য ব্যবহৃত হয় এই কম্পিউটার।

৪. ব্যাংকিং এ কম্পিউটারের ব্যবহার

এখন প্রত্যেক ব্যাংকেই কম্পিউটারেই সমস্ত কাজ হয়।

গ্রাহক দের ডাটা সংরক্ষন থেকে, ক্রেডিট ডেবিটের তথ্য, হিসেব সব ধরণের কাজ হচ্ছে কম্পিউটারে।

কম্পিউটার ব্যবহারের ফলে ব্যাঙ্কের গ্রাহকরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে আপ টু ডেট থাকতে পারেন।

৫. গবেষণার কাজে অপরিহার্য কম্পিউটারের ব্যবহার

গবেষণার কাজের আধুনিক মাধ্যম এবং বৃহৎ মাধ্যম হলো কম্পিউটার।

৬. প্রকাশনায় কম্পিউটারের ব্যবহার উল্লেখযোগ্য

বিভিন্ন প্রকাশনার কাজে পুরাতন মুদ্রণ পদ্ধতি বদলে গিয়ে এখন ডেস্কটপ পাবলিশিং বা D.T.P ব্যবহার দেখা যায়।

টাইপরাইটেরর বিকল্প হিসেবে কম্পিউটারের ব্যবহার দেখা যায়।

এবং এই কম্পিউটারের মাধ্যমে, বিভিন্ন হরফে লেখাটা সম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে।

৭. চিত্তবিনোদনের ক্ষেত্রেও অন্যন্য এর ব্যবহার

বিনোদনের ক্ষেত্রে কম্পিউটারে ব্যবহারের তুলনাহীন।

বর্তমান সময়ে আট থেকে আশি সকলেই ভালোবাসে কম্পিটার গেমস।

এছাড়াও যে কোনো সময়ে নিজের পছন্দের সিনেমা দেখা, গান শোনা, প্রভৃতিও সম্ভব হয় কম্পিউটারে। আবার চলচ্চিত্রে অ্যানিমেশন থেকে গ্রাফিক্স সবকিছুই হয় কম্পিউটারে।

৮. অনলাইন ব্যবসা বানিজ্যে

অনলাইনকে মাধ্যম করে এখন অনেকেই বিভিন্ন সাইট খুলে ব্যবসা করছে।

ফলে সেই সব সংস্থার সাথে যুক্ত অনেক কর্মসংস্থানও বাড়ছে।

তাছাড়া, কম্পিউটারের মাধ্যমে blogging, online shopping website, affiliate marketing, freelancing এবং Video upload করে, লোকেরা হাজার লক্ষ টাকা মাসে আয় করে নিচ্ছেন।

৯. আবহাওয়ার পূর্বাভাসে

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে ব্যবহার হয় সুপার কম্পিউটার।

এই সুপার কম্পিউটার নিয়ন্ত্রণ করে মহাকাশে পাঠানো কৃত্রিম উপগ্রহ, এবং স্যাটেলাইট, যার ফলে প্রায় নির্ভূল আবহাওয়ার পূর্বাভাস পাওয়া যায়।

১০. ট্রাভেল ট্রান্সপোর্ট সংস্থায় ব্যবহার 

ট্রাভেল ট্রান্সপোর্ট সংস্থায় কম্পিউটারের ব্যবহার উল্লেখ্যযোগ্য।

অনলাইনে টিকিট কাটা থেকে শুরু করে টিকিট বাতিল, হোটেল বুকিং সমস্তটাই কম্পিউটার ব্যবহার করে হয়ে যাচ্ছে।

অবশই পড়ুন :

কম্পিউটারের উপকারিতা গুলি কি কি (advantages of computer)

আমরা কোনো ব্যাপারে চিন্তা করলে আমাদের যতটুকু মাথায় আসে,তার থেকে অনেক বেশি কিছু আমাদের মনে থাকে যখন আমরা সেই বিষয় নিতে আরও বেশি জানতে চাই।

এই জানার ক্ষেত্রে কিন্তু কম্পিউটারের কোনো বিকল্প নেই।

কম্পিউটারের সামনে বসে আমরা যে বিষয় নিয়ে জানতে চাই, সে ব্যাপারে সহজেই তথ্য পেয়ে যাই।

আর এর ফলে, আমাদের জ্ঞানের সম্প্রসারণ তো হয়, এবং আমাদের ভাবনা এবং চিন্তার ও সম্প্রসারণ ঘটে।

যারা বিভিন্ন রকম কাজে ব্যস্ত থাকেন, প্রথাগত ভাবে শিক্ষা নেওয়ার সময় হয় না, সেইসব মানুষ সহজেই কম্পিউটার এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইনে শিক্ষাগ্রহণ করতে পারেন।

কম্পিউটার অত্যন্ত দ্রুত গতিতে ও নির্ভুলভাবে গণনা করতে পারে।

তাই, বেশিরভাগ কর্মক্ষেত্রে কম্পিউটারের ব্যবহার অনেক লাভজনক হিসেবে প্রমাণিত হচ্ছে।

কম্পিউটার ব্যবহারে সময় অপচয় হয়না।

যেমন, কোনো বই এর দরকার হলে সেটা কিনতে যেতে হয় না, সেটা অনলাইন থেকেই কেনা যায় বা অনলাইনে লাইব্রেরী থেকেও পড়া যায়।

মানুষ ভুল করলেও কম্পিউটার কখনো ভুল করে না।

যদি কখনো কম্পিউটার ভুল তথ্য প্রদান করে থাকে, তাহলে বুঝতে হবে যে কম্পিউটারের প্রোগ্রাম তৈরিকারক অথবা তথ্য প্রদান কারী ব্যক্তি ভুল তথ্যপ্রদান করেছেন।

এই ধরনের ভুলকে Garbage in – Garbage out বলা হয়।

হাজার হাজার খাতার ভিড়ে কোনো নির্দিষ্ট খাতা বা ফাইলে কোনো তথ্য সংরক্ষিত থাকলেও সেই তথ্য খুঁজে বের করাটা জটিল হয়ে যায়।

কিন্তু সেই ফাইল যদি কম্পিউটারে সেভ থাকে, তাহলে তা মুহূর্তের মধ্যেই খুঁজে বের করা সম্ভব হয়।

এই ক্ষেত্রে, কম্পিউটারের লাভ এবং উপকারিতা প্রচুর।

মানুষ একনাগারে দীর্ঘক্ষণ বা দীর্ঘদিন কাজ করলে ক্লান্ত হয়ে যায়, কিন্তু কম্পিউটার কখনো ক্লান্ত হয়না।

কম্পিউটারের আরেকটি বড় গুণ হলো এর স্বয়ংক্রিয়তা।

প্রদত্ত নির্দেশাবলী অনুযায়ী কম্পিউটার স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডাটা প্রসেস করতে সক্ষম।

তবে, সেক্ষেত্রে সঠিক প্রোগ্রাম এবং ডিভাইস থাকা আবশ্যক।

কোনোকিছু কেনাকাটার ক্ষেত্রেও অনলাইনে, কম্পিউটারের মাধ্যমে অতি সহজেই ঘরে বসে কেনাকাটা সম্ভব হয়।

ডাক্তারের পরামর্শ নিতেও কম্পিউটার একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম, এছাড়া মেল এর মাধ্যমে নানা নথিপত্র এক নিমেষে যে কোনো দেশে পাঠানো যায়।

যে কোনো দেশের মানুষের সাথে ঘরে বসে দেখা করা এবং কথা বলা সম্ভব কম্পিউটারের মাধ্যমে।

যে কোনো সমস্যায় অফিসে যেতে না পারলে বাড়ি বসে কাজ সম্পন্ন করা যায় কম্পিউটারের দ্বারা।

কম্পিউটারের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের হাতের কাজ শেখা যায়, সিনেমা দেখা যায়, অনেক অনেক তথ্য জমা করে রাখা যায়।

তাই, কম্পিউটার ব্যবহারের সুবিধা, লাভ এবং উপকারিতার বিষয়ে যতটাই বলবো, সেটাও কম হবে।

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, আশা করছি আমি আপনাদের ভালো করে বুঝিয়ে বলতে পারলাম “কম্পিউটারের ব্যবহার এবং উপকারিতার ব্যাপারে“.

কম্পিউটার ব্যবহারের সুফল এবং লাভ আজকের সময়ে প্রচুর।

বন্ধু বান্ধব এবং প্রিয়জনের সাথে live video call করার থেকে শুরু করে, ATM থেকে টাকা তোলা, online কেনাকাটা করা, অনলাইন সিনেমা ও ভিডিও দেখা, হিসাব নিকাজ করা এবং আরো হাজার হাজার ধরণের কাজ একটি কম্পিউটারের মাধ্যমে অনেক সহজেই আমরা করতে পারছি।

কম্পিউটার এর আবিষ্কার আমাদের মানব জীবনের জন্য একটি অবদান।

Related Contents:

2 thoughts on “কম্পিউটারের ব্যবহার এবং উপকারিতা গুলি কি (Uses & advantages)”

  1. আমি একজন নতুন ব্লগার আমি ৩ দিন হলো এডসেন্স পেয়েছি। আমার ব্লগের যে Ads গুলো দেখাচ্ছে সেই ads গুলোতে কি ভিজিটর্সরা ক্লিক করলে আমার এডসেন্স অ্যাকাউন্ট টাকা যোগ হবে নাকি শুধু ads গুলো আর্টিকেল পড়ার সাথে দেখলে এডসেন্স অ্যাকাউন্টে টাকা যোগ হবে? একটু দয়াকরা বলবেন?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top