১ লাখ টাকায় কি কি ব্যবসা করা যেতে পারে ? – (business ideas)

Small business ideas under 1 lakh – যদি আপনার হাতে কেবল ১ লক্ষ টাকা রয়েছে এবং আপনি ১ লাখ টাকায় ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন, তাহলে আজকের আর্টিকেল কেবল আপনার জন্যে লেখা হয়েছে।

১ লাখ টাকায় ব্যবসার ধারণা
১ লাখ টাকায় ব্যবসার ধারণা

১ লাখ টাকায় কি কি ব্যবসা শুরু করা যাবে তার কিছু আইডিয়া আমি এই আর্টিকেলে দিবো।

বর্তমান সময়ে মাঝারি ব্যবসা (medium scale business) গুলো সব থেকে অধিক পরিমানে করা হচ্ছে।

কেননা, মাঝারি ধরণের ব্যবসা গুলোতে অনেক কম টাকা ইনভেস্ট করে প্রচুর লাভ আয় করা সম্ভব।

বেশিরভাগ small and medium size businesses গুলো দেখলে অনেক ছোট মনে হয়ে থাকে।

তবে, আপনি কল্পনাও করতে পারবেননা, বেশিরভাগ ছোট-মাঝারি ব্যবসা গুলোর থেকে কতটা বেশি ইনকাম সম্ভব।

বর্তমান সময়ে লোকেরা একটি সাধারণ চাকরি করার বিপরীতে ছোট হলেও ব্যবসা করার দিকে রুচি রাখছেন।

কেননা, সাধারণ পরিমানের মেইনর (salary) কারণে অন্যের কোম্পানির জন্যে কষ্ট করার থেকে একজন “entrepreneur” হিসেবে নিজের কাজ চালু করাটা অধিক লাভজনক।

যদি আপনার চিন্তাধারাও এরকম, এবং আপনিও কেবল ১ লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করে নিজের ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন,

তাহলে নিচে দেওয়া ব্যবসার পরিকল্পনা (ideas) গুলো জেনেনিন যেগুলো মাত্র ১ লাখ টাকায় শুরু করা যাবে।

১ লাখ টাকায় ব্যবসা শুরু করার ক্ষেত্রে ১৫ টি বিজনেস আইডিয়া

আপনি কতটুকু পড়াশোনা করেছেন বা আপনি বর্তমানে চাকরি করছেন কি করছেননা,

সেটা কোনো ভাবেই আপনার ব্যবসার ওপরে প্রভাব ফেলতে পারেনা।

কেননা, ব্যবসা করার ক্ষেত্রে আপনার প্রয়োজন হবে, উপস্থিত বুদ্ধির, পরিচালন বা ব্যবস্থাপনা করার কৌশল এবং নিজের ওপরে কিছুটা বিশ্বাসের।

তাছাড়া, অনেক ব্যবসার ক্ষেত্রে আপনি চাকরির সাথে সাথে পার্ট-টাইম সেগুলোকে করতে পারবেন।

তাই, জেকেও যদি তার কাছে ১ লাখ টাকা রয়েছে তাহলে সে নিচে দেওয়া ব্যবসা গুলোর মধ্যে যেকোনো একটি করতে পারেন।

এমনিতে, ১ লাখ টাকার মধ্যে প্রায় অনেক ব্যবসা আপনারা করতে পারবেন।

তবে, আমি কেবল সেই ব্যবসা (business) গুলোর কথা বলবো যেগুলো আমার হিসেবে সত্যি লাভজনক।

15 Best business ideas under 1 lakh rupees

খাবারের গাড়ি (Food Truck)
ক্যাটারিং সার্ভিস
Tiffin Distribution Service
চা-শিঙাড়ার দোকান
ফলের জুসের স্টল
চপের দোকান
জলের সাপ্লাই
দুধের সাপ্লাই
Tailoring and Laundering Business
Newspaper Distribution
কম্পিউটার রিপেয়ারিং সার্ভিস
মিউচুয়াল ফান্ড ব্রোকার
ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সেবা
Tuition and Hobby Classes
Freelance Services – Writing, Designing, Developing

চলুন প্রত্যেকটি ব্যবসার বিষয়ে কিছুটা বিস্তারিত ভাবে জেনেনেই।

খাবারের গাড়ি (Food Truck)

ফুড ট্রাক ব্যবসা

১ লক্ষ টাকার মধ্যে সব থেকে সোজা এবং লাভজনক ব্যবসা হলো খাবারের গাড়ির (food truck) ব্যবসা।

একটি ভালো জায়গা নিয়ে যেখানে অধিক লোকেদের আসা-যাওয়া রয়েছে, এই ব্যবসা চালু করুন।

এই ব্যবসার ক্ষেত্রে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো, “বানানো খাবারের মধ্যে সাদ কতটুকু রয়েছে”.

লোকেরা আপনার বানানো খাবার পছন্দ করলে বার বার আপনার কাছে খেতে আসবেন।

এমনিতে এই ব্যবসার ক্ষেত্রে অধিক খরচ হবে licence এবং permit বের করার ক্ষেত্রে।

খাবারের জিনিস, কাজের লোক এবং গাড়ির ভাড়া নেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার বেশি টাকা খরচ হবেনা।

আপনি গাড়ি ভাড়াতে নিয়ে এই কাজ শুরু করতে পারবেন, নিজের গাড়ি কেনার প্রয়োজন নেই।

ভালো করে নজর দিয়ে দেখলে দেখতে পাবেন বর্তমান এরকম প্রচুর গাড়ি গুলো রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকে,

যেগুলোতে সরাসরি বিভিন্ন ধরণের ফাস্ট-ফুড বানিয়ে বিক্রি করা হয়।

আর এই ব্যবসা সত্যি লাভজনক।

ক্যাটারিং সার্ভিস / ব্যবসা

Food Catering business
Food Catering business

ক্যাটারিং ব্যবসা হলো সেই ব্যবসা যেখানে আপনাকে বিশেষ খরচ করতে হয়না।

তবে, প্রায় ১ লক্ষ টাকা লাগিয়ে এই ব্যবসার থেকে প্রচুর লাভ আয় করা সম্ভব।

বিভিন্ন অনুষ্ঠান যেমন, বিয়া, পার্টি, জন্মদিন ইত্যাদি গুলোতে খাবারের ব্যবস্থা করতে হবে।

বর্তমান সময়ে লোকেদের কাছে সময়ের অভাব।

তাই, লোকেরা বড় বড় ঝামেলা গুলো বাইরের থেকেই করিয়ে নিতে ভালো পান।

যখন আপনাকে ক্যাটারিং এর জন্যে দায়িত্ব দেওয়া হবে,

তখন আপনাকে আপনার কর্মিদল (team) এর সাথে খাবার তৈরি করার থেকে পরিবেশনের দায়িত্ব নিতে হবে।

এবং, এই ক্যাটারিং এর সেবার বিপরীতে আপনি টাকা নিয়ে নিবেন।

একবার এই ব্যবসাতে নিজের নাম করে নিতে পারলে, ঘরে বসে বসে কাজ পেতে থাকবেন।

Tiffin Distribution Service

tiffin distribution service
Tiffin distribution business

একটি food truck এবং catering business এর তুলনায় এই tiffin distribution এর ব্যবসাতে কম টাকা লাগবে।

একটি সাধারণ রান্না ঘর লাগবে যেখানে আপনি খাবার এর ব্যবস্থা করা হবে।

এর সাথে, কিছুটা টিফিন বাক্স এবং অন্যান্য জরুরি উপকরণ গুলোর প্রয়োজন আপনার হবে।

বর্তমান সময়ে প্রায় প্রচুর চাকরি করা ব্যক্তি রয়েছেন যারা দুপুরে ঘরের খাবার খেতে পছন্দ করেন।

তবে কিন্তু কাজ কর্মের কারণে ঘরে গিয়ে খেয়ে আসতে পারেননা।

তাই, আপনি এমন একটি সেবা চালু করতে পারবেন যার ফলে চাকরি করার ব্যক্তিরা তাদের ঘরের খাবার টিফিন এর মাধ্যমে পেয়ে যেতে পারে।

এক্ষেত্রে কেবল টিফিন আনা নেওয়া করার ক্ষেত্রে কিছুটা লোকেদের প্রয়োজন হবে।

আপনি কিছু টাকার বিপরীতে এই সেবা অনেককেই দিতে পারবেন।

চা-শিঙাড়ার দোকান

চায়ের ব্যবসা
চা-শিঙাড়ার ব্যবসা

চা-শিঙাড়ার দোকান দিয়ে আপনি কতটা বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন তার সঠিক অনুমান আপনিও করতে পারবেননা।

এই ব্যবসাতে ৫০ হাজার থেকেও অনেক কম টাকা ইনভেস্ট করে প্রচুর ইনকাম করতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে লোকেরা সকাল, দুপুর এবং বিকেলে চা খেতে অনেক পছন্দ করেন।

আর যখন চা খাওয়ার কথা হচ্ছে তখন শিঙাড়া, কচুরি বা চপ এগুলো তো থাকছেই।

তাই, একটি ভিড়-ভার থাকা জায়গা যেখানে মার্কেট, দপ্তর ইত্যাদি রয়েছে,

এই ধরণের জায়গাতে একটি ছোট্ট দোকান নিয়ে এই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

আপনি নিজে করতে না চাইলেও, এই কাজের জন্যে একজন কর্মচারী অবশই রাখতে পারবেন।

ফলের জুসের স্টল

Fruit juice stall business
Fruit juice stall business

ফলের জুসের দোকান দিয়ে ভালো পরিমানের টাকা রোজগার করা সম্ভব।

এক্ষেত্রে, আপনার কেবল একটি ছোট দোকান নিতে হবে।

এছাড়া, বিভিন্ন রকমের ফল যেমন, কমলা, মৌসুমবি, আম ইত্যাদি দোকানে রাখতে হবে।

তবে, ফলের রস বের করে জুসে পরিণত করার ক্ষেত্রে একটি জুসার (juicer) অবশই থাকতে হবে।

এসব জিনিসে আপনার বেশি টাকা খরচ হবেনা।

কিন্তু, আপনাকে এমন একটি জায়গায় দোকান দিতে হবে যেখানে লোকেদের ভিড় প্রচুর।

তবে দোকান না নিয়ে আপনারা রাস্তার পাশে একটি ষ্টল (ঠেলা) গাড়ির মাধমেও এই ব্যবসা করতে পারবেন।

চপের দোকান

বাঙালি হিসেবে আমরা ফাস্ট-ফুড খেতে অনেক পছন্দ করে থাকি।

আর তাই, বিকেলে রাস্তার পাশে চপের দোকান থেকে আলাদা আলাদা রকমের চপ খাওয়ার মজাই আলাদা।

তাই, আপনিও চাইলে একটি ছোট্ট দোকান নিয়ে গরম চপ বানিয়ে বিক্রি করতে পারবেন।

আপনি নিজে বানাতে না চাইলে, চপ বানানোর জন্যে একজন কর্মচারী অবশই রাখতে পারবেন।

দেখতে অনেক সাধারণ হলেও, যদি আপনার দোকানের চপ লোকেদের পছন্দ হয়ে থাকে,

তখন দেখবেন আপনার দোকানে গ্রাহকের ভিড় একেবারে সামলানোই যাবেনা।

জলের সাপ্লাই

দোকানে দোকানে জলের সাপ্লাই ব্যবসাতে কিন্তু প্রচুর লাভ রয়েছে।

ছোট-বড় বিভিন্ন জলের বতল গুলো কম দামে ডিস্ট্রিবিউটার থেকে কিনুন।

এবার, দোকানে দোকানে গিয়ে সেগুলোকে লাভের সাথে সাপ্লাই করুন।

দোকান ছাড়াও, আপনারা বিভিন্ন বিয়া, অনুষ্ঠান ইত্যাদিতে জলের সাপ্লাই দিতে পারবেন।

দুধের সাপ্লাই

জলের মতোই আপনারা দুধের সাপ্লাই দেওয়ার ব্যবসা করতে পারেন।

এই ব্যবসাতেও আপনাদের বেশি টাকা ইনভেস্ট করতে হবেনা।

ভালো ভালো দুধের গোয়ালার সাথে যোগাযোগ করে তাদের থেকে দুধ কিনে,

সেগুলোকে ঘরে ঘরে সাপ্লাই করে ভালো টাকা রোজগার করতে পারবেন।

ঘরের সাথে সাথে বিভিন্ন দোকানেও দুধ সাপ্লাই করতে পারবেন।

দুধের সাথে সাথে, দৈ, পনির, ঘি, ছানা ইত্যাদি তৈরি করে সেগুলোর ব্যবসা অবশই করতে পারবেন।

Tailoring and Laundering Business

দরজির ব্যবসা/কার্য করার ক্ষেত্রে আপনার বেশি টাকা ইনভেস্ট করতে হবেনা।

একটি দরজির দোকান শুরু করার ক্ষেত্রে আপনার কিছু সেলাই মেশিন এবং ২ থেকে ৩ জন কর্মচারীর প্রয়োজন হবে।

ছোট-বড় বিভিন্ন ধরণের কাপড় সেলাই করার কাজ গুলো আপনি করতে পারবেন।

এছাড়া, অনেক ধরণের কোম্পানির এবং স্কুল গুলোর জন্য ইউনিফর্ম সেলাই করার কন্ট্রাক্ট নিতে পারবেন।

Newspaper Distribution

বিভিন্ন আলাদা আলাদা খবরের কাগজ (news paper) গুলো ঘরে ঘরে সাপ্লাই করার কাজ কিন্তু খারাপ না।

এই কাজে আপনার একেবারেই কোনো টাকা ইনভেস্ট করতে হয়না।

তাছাড়া, আপনাকে প্রত্যেকটি খবরের কাগজ ডেলিভারি করানোর জন্যে ভালো টাকা কমিশন দেওয়া হয়।

আপনাকে একেবারে ভোরের সময়ে গিয়ে depot থেকে newspaper গুলোকে সংগ্রহ করতে হবে।

তারপর, কিছু delivery boy রেখে তাদের মাধ্যমে কাগজ গুলি ঘরে ঘরে ডেলিভারি করতে হবে।

এই ব্যবসা অনেকেই করছেন এবং একটি সাংঘাতিক দারুন পার্ট-টাইম ব্যবসা হিসেবে এই কাজ করতে পারবেন।

কম্পিউটার রিপেয়ারিং সার্ভিস

বর্তমান সময়ে প্রত্যেকের ঘরে একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ রয়েছে।

যখন এই উপকরণ গুলো রয়েছে তখন সেগুলো খারাপ অবশই হয়ে থাকে।

এক্ষেত্রে প্রয়োজন হয় কম্পিউটার রিপেয়ারিং সার্ভিস এর।

তাই, আপনি নিজে কম্পিউটার রিপেয়ারিং কোর্স করে কাজ করতে পারবেন বা স্টাফ রেখে তাদের দিয়েও কাজ করাতে পারবেন।

একটি ছোট office বা দোকান নিয়ে এই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

এছাড়া, অনেক টাকা ইনভেস্ট করে এই ব্যবসা শুরু করা যাবে।

কম্পিউটারের সাথে বিভিন্ন অন্যান্য products যেমন, antivirus, software, hardware, games ইত্যাদি এগুলো নিজের গ্রাহকের কাছে বিক্রি করতে পারবেন।

মিউচুয়াল ফান্ড ব্রোকার

বর্তমান সময়ে টাকা বিনিয়োগ করার একটি দারুন বিকল্প লোকেদের কাছে হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এবং সেটা হলো, “মিউচুয়াল ফান্ড“.

মিউচুয়াল ফান্ডে ইনভেস্ট করে লোকেরা সাধারণ এবং অন্যান্য বিনিয়োগের মাধ্যম গুলোর থেকে অধিক রিটার্ন আয় করতে পারেন।

তবে, লোকেরা নিজেনিজে কিন্তু এখানে ইনভেস্ট করতে ভয় পান।

তাই, একজন ব্রোকার বা financial advisor হিসেবে আপনি mutual fund এর product গুলি লোকেদের বিক্রি করতে পারেন।

মিউচুয়াল ফান্ডের কোন ফান্ড / স্কিম ভালো হলে সেই বিষয়ে লোকেদের পরামর্শ দিতে হবে।

এই ব্যবসা করার আগে আপনাকে আগে নিজেকে এই ক্ষেত্রে শিক্ষিত করতে হবে।

বিভিন্ন কোম্পানির mutual fund scheme গুলোতে টাকা invest করিয়ে আপনি ভালো পরিমানের কমিশন আয় করতে পারবেন।

ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সেবা

আজকাল ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সেবাকে আপনি একটি ব্যবসা হিসেবে নিয়ে প্রচুর ইনকাম করতে পারবেন।

কেননা, বর্তমান সময়ে লোকেদের কাছে সময় থাকেনা।

তাই, বিভিন্ন অনুষ্ঠান, ইভেন্ট, বিয়া ইত্যাদিতে ডেকোরেশন করার সম্পূর্ণ দায়িত্ব এই ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি গুলকে দেওয়া হয়।

এক্ষেত্রে, আপনার লাগবে কিছু স্মার্ট কর্মচারী এবং সহায়ক।

এভাবে, বিভিন্ন ইভেন্ট গুলোর কাজ করে আপনারা ভালো পরিমানের টাকা আদায় করতে পারবেন।

এই ব্যবসা শুরু করার জন্যে আপনার তেমন টাকা ইনভেস্ট করতে হবেনা।

১ লাখ টাকার মধ্যে এই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

Tuition and Hobby Classes

আপনি যদি একটি টিউশন কোচিং ক্লাস শুরু করতে পারেন, তাহলে ইনকাম কিন্তু প্রচুর হতে পারে।

আপনি স্কুলের বাচ্চাদের অথবা ১০ থেকে ১২ ক্লাসের বাচ্চাদের টিউশন করাতে পারবেন।

পড়াশোনা ছাড়াও, আপনারা গান, ছবি, গিটার ইত্যাদি শিখাতে পারবেন।

প্রথম অবস্থায় আপনার একটি coaching center লাগবে যেখান কমেও ২০ থেকে ২৫ জন একসাথে বসতে পারে।

পরে আপনি একটি বড় জায়গা নিয়ে ক্লাস করাতে পারবেন।

Freelance Services – Writing, Designing, Developing

আপনার মধ্যে যদি কোনো বিশেষ দক্ষতা রয়েছে যেমন, content writing, website designing, app development ইত্যাদি,

তাহলে, একজন freelancer হিসেবে কাজ শুরু করতে পারবেন।

ইন্টারনেটে বিভিন্ন অনলাইন ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে প্রচুর কাজ খুঁজতে পারবেন।

আপনি পার্ট-টাইম বা ফুল-টাইম হিসেবে এই কাজ করতে পারবেন।

Freelancing এর কাজ করার জন্যে আপনার কাছে একটি computer বা laptop থাকতে হবে।

তাছাড়া, আপনি ঘরে বসেই সম্পূর্ণ কাজ গুলো করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, যদি আপনারা অনেক কম টাকা ইনভেস্ট করে কেবল ১ লাখ টাকার মধ্যে ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন,

তাহলে, ওপরে দেওয়া ব্যবসা গুলোর মধ্যে যেকোনো একটি করতে পারবেন।

Business Ideas you can start with a minimum investment of Rs 1 lakh“, নিয়ে লিখা আমাদের আর্টিকেল যদি আপনাদের ভালো লেগেছে,

তাহলে আর্টিকেলটি শেয়ার অবশই করবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap