মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো? জানুন দুর্দান্ত উপায় গুলি

মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো? যদি আপনিও নিজের মোবাইলটিকে কাজে লাগিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাইছেন, তাহলে আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার অনেক কাজে লাগবে।

বর্তমান সময়ে ফ্রিল্যান্সিং হলো ঘরে বসে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সেরা একটি উপায়। অনলাইনে কোনো টাকা না লাগিয়ে দৈনিক ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা ইনকাম করার সেরা উপায় হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং অনেকের ক্ষেত্রেই প্রচুর লাভজনক ও কার্যকর হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে।

তবে, কি এই ফ্রিল্যান্সিং এবং কিভাবে শিখবেন ফ্রিল্যান্সিং?

এছাড়া অনেকেই আবার, মোবাইল দিয়ে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারবেন, এই বিষয়টি নিয়েও জানতে চান। চিন্তা নেই, কেননা আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে, আমরা, একটি স্মার্টফোন দিয়ে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শেখা যাবে এই বিষয়ে সম্পূর্ণ স্পষ্ট ভাবে বুঝিয়ে বলবো।

তাই, একটি মোবাইল ফোন ব্যবহার করে কি কি মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং শেখা যাবে, আজকের আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়লেই, বিষয়টা ভালোভাবে বুঝে যাবেন।

অবশই পড়ুন:

ফ্রিল্যান্সিং কি – What is Freelancing in Bangla?

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখব

ফ্রিল্যান্সিং হল এমন একটা স্বাধীন পেশা, যেখানে একজন কর্মী নিজের স্বাধীন ইচ্ছাতে প্রতিটা কাজ বা টাস্কের ভিত্তিতে টাকা ইনকাম করে থাকেন।

এখানে একজন ব্যক্তি সরাসরিভাবে কোনো কোম্পানির সাথে যুক্ত থাকেন না বা কোনো কোম্পানির অধীনে কাজ করেন না। তিনি নিজের খুশিমতো যেকোনো প্রজেক্টে কাজ করে, নির্দিষ্ট কাজের ভিত্তিতে টাকা ইনকাম করে থাকেন।

এমনকি, সেই পেশাদার ব্যক্তি কন্ট্রাক্টে কিংবা এক বা একের বেশি ক্লায়েন্টের অধীনে কাজ করেও অর্থ উপার্জন করতেই পারেন। এছাড়াও, ফ্রিল্যান্সিংয়ে প্রতি ঘন্টা/মাস/বছরের হিসেবেও আয়ের সুযোগ থাকে।

মূলত, যারা ফ্রিল্যান্সিং কাজ করেন, তাদেরকেই ফ্রীল্যান্সার বলা হয়। আর, ফ্রিল্যান্সাররা তাদের দক্ষতা বা স্কিলের বিনিময়েই আয় করেন।

এখন আপনি যদি এই ‘ফ্রিল্যান্সিং কাজ কিভাবে শেখা যায়?‘ এই বিষয়ে জানতে চান, তাহলে চোখ রাখুন আমাদের আজকের আর্টিকেলে।

কারণ এখানে আমরা, একটি মোবাইল ফোন ব্যবহার করে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শেখা যায় এর উপায়গুলো নিয়ে ডিটেইলে আলোচনা করেছি। তবে, প্রথমেই আপনার জানা দরকার যে – মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কেন শিখবো?

অবশই পড়ুন: একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হওয়ার সেরা ১১টি উপায়

মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কেন শিখবো?

শিখুন ফ্রিল্যান্সিং

এক কথায় বলতে গেলে, পেশা হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং কাজের দুনিয়া বিশাল বড়।

মানে, ফটোগ্রাফি থেকে শুরু করে ইঞ্জিনিয়ারিং কিংবা ম্যানেজমেন্ট; সমস্ত ইন্ডাস্ট্রিতেই সমানভাবে ফ্রিল্যান্সিং কাজের জনপ্রিয়তা রয়েছে। আর, এই জনপ্রিয়তার প্রধানত দুটো কারণও আছে।

✔ কোম্পানিগুলোকে ফিক্সড এমপ্লয়ীদের মতো অর্থনৈতিক ও নৈতিক দায়িত্ব (liability) নিতে হয় না। যে কারণে, কোম্পানির কস্ট কাটিং এবং প্রফিট লেভেল অনেকটাই বেশি থাকে।

✔ যুগ পাল্টানোর সাথে-সাথে মানুষের জীবিকার ধরণও পাল্টাচ্ছে।

অনেক মানুষই ফিক্সড জবের তুলনায় স্বাধীনভাবে রোজগারের পথটাই বেছে নিচ্ছেন। তাই, ফ্রিল্যান্সিং কাজের চাহিদা দিনে-দিনে ব্যাপকভাবে বাড়ছে। আর, এই চাহিদার সুযোগেই আপনি ফ্রিল্যান্সিং কাজ শিখে সহজেই নিজেকে একজন সফল ফ্রীলান্সার বানিয়েও তুলতে পারেন। 

এমনকি, মোবাইল থেকে ফ্রিল্যান্সিং শেখার অনেকগুলো সহজ ও ফ্রি উপায়ও আপনি পেয়ে যাবেন। মোবাইল থেকে কাজ শিখতে গেলে, আপনাকে আলাদা কোনো ধরণের খরচও করতে হবে না বা কোথাও যেতেও হবে না।

তাহলে, আসুন দেরি না করে জানি, আমরা একটি মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো?

মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শেখার উপায় গুলো কি কি?

মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শেখার উপায়
How To Learn Freelancing From Mobile?

ফ্রিল্যান্সিংয়ের ক্ষেত্রে প্রথমেই যে বিষয়টা আমাদের মাথায় রাখতে হবে, যে এটা কিন্তু পুরোপুরিভাবেই নিজের দক্ষতা বা স্কিলগুলোকে কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করার জায়গা।

এখানে আমাদের টার্গেটই থাকে নিজেদের স্কিল, যেমন- লেখার দক্ষতা, কথা বলার দক্ষতা কিংবা পরিচালনার দক্ষতা ইত্যাদিকে কাজে লাগিয়ে রোজগারের ব্যবস্থা করা। তাই, এখানে অবশ্যই নিজেদের স্কিলস শেখার দিকেই (skill development) প্রথম নজর দিতে হবে।

তবে, সবার আগে আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা, পছন্দ এবং দক্ষতা অনুযায়ী ফ্রিল্যান্সিং কাজের ইন্ডাস্ট্রিটাকে বেছে নিতে হবে।

যে বিষয়গুলো আপনাকে এই কাজ নির্বাচন করতে সাহায্য করবে, সেগুলো হল,

✔ আপনার বয়স, বাসস্থান, লিঙ্গ ও পেশা

✔ বাড়ি থেকে কাজ করতে চান নাকি ফিল্ড ওয়ার্ক

✔ বর্তমানে মার্কেটে কোন ধরণের ফ্রিল্যান্সিং কাজগুলোর চাহিদা সবথেকে বেশি

✔ আপনার পড়াশোনা বা এডুকেশনাল ব্যাকগ্রাউন্ড (স্ট্রিম/গ্রাডুয়েশন/অনার্স/মাস্টার্স)

✔ ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার মতো সেটআপ আছে কিনা (যেমন- ইন্টারনেট ব্যবস্থা, স্মার্টফোন, ল্যাপটপ ও ইত্যাদি)

✔ স্বাভাবিকভাবে আপনার কোন ধরণের দক্ষতা আছে, যেমন- ছবি তোলার দক্ষতা, কনসাল্ট করার দক্ষতা ও অন্যান্য।

✔ কোন ধরণের কাজ করতে পছন্দ করেন বা আগ্রহ রয়েছে। যেমন- সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট কিংবা ইনফ্লুয়েন্স মার্কেটিং প্রভৃতি।

উপরের বিষয়গুলোর উপর নির্ভর করে আপনি কোন ফ্রিল্যান্সিং কাজ শিখতে চান, সেটা ঠিক করে নিন।

অবশই পড়ুন: সেরা ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোর তালিকা

মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো? জানুন সেরা ৮টি উপায়

মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো
How to learn freelancing using mobile phone?

বর্তমানে, মোবাইল থেকে ফ্রিল্যান্স কাজ শেখার অনেক রাস্তাই রয়েছে।

আপনি এমন প্রচুর ফ্রি বা পেইড ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশনও পেয়ে যাবেন, যেগুলো বিভিন্ন ফিল্ড, যেমন- গ্রাফিক্স ডিজাইনিং, কনটেন্ট রাইটিং, ভার্চুয়াল অ্যাসিস্টিং-এর মতো ইন্ডাস্ট্রির প্রয়োজনীয় কোর্সগুলো আপনাকে শেখাতে পারে।

এমনকি, অনেক ওয়েবসাইট থেকে আপনি এই কোর্সগুলোর সার্টিফিকেট, ইন্টার্নশীপ এবং ওয়ার্ক এক্সপেরিন্সকে কাজে লাগিয়ে নামি-দামি কোম্পানিগুলোতে জবের জন্যে অ্যাপ্লাইও করতে পারেন।

১. ইউটিউব:

ইউটিউব হল এমন একটা প্ল্যাটফর্ম, যেখান থেকে আপনি ফ্রীতে ফ্রীলান্সিং শেখার নানান ফ্রি টিউটোরিয়াল, টিপস এবং পরামর্শ পেয়ে যাবেন।

বিভিন্ন কনটেন্ট ক্রিয়েটাররা এখানে নিজেদের ফ্রীলান্স কাজের এক্সপেরিয়েন্স, মার্কেটিং ও ক্লায়েন্ট ম্যানেজমেন্ট সম্পর্কে মতামত শেয়ার করে থাকেন। এমনকি, কোন ধরণের ওয়েবসাইটে এনরোল করলে আপনার ফ্রীলান্স কেরিয়ার ভালো হবে, সেই সব কথাও জানতে পারবেন।

https://www.youtube.com/@onlineprofits হল এমনই একটা সেরা ইউটিউব চ্যানেল।

২. Udemy:

ইউডেমি হল একটা অনলাইন লার্নিং প্ল্যাটফর্ম, যেখান থেকে প্রফেশনাল ও ফ্রীলান্সিং কোর্সগুলো মোট ৬৫টি ভাষাতে পাওয়া যায়। এই প্ল্যাটফর্মে আপনি ফ্রিল্যান্সিংয়ের উপর অনেক ধরণের ফ্রি ও পেইড কোর্স পাবেন।

এখানকার প্রফেশনাল এক্সপার্টদের সাহায্যে আপনি ফ্রিল্যান্সিংয়ে ভালো প্রোফাইলও বানাতে পারবেন। ইউডেমির এই লিঙ্ক থেকে ফ্রিল্যান্সিং কাজের বেসিকটা জেনে নিন- https://www.udemy.com/course/becomeafreelancer/ এখানে।

৩. Upwork Learning Center:

Udemy-এর মতো Upwork-এও আপনি বিভিন্ন ফ্রীলান্সিং শেখার কোর্সের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্লগও পাবেন।

যেগুলো আপনাকে সরাসরি নিজের ক্লায়েন্ট খোঁজা থেকে শুরু করে প্রজেক্ট পাওয়ার জন্যে ভালোভাবে গাইড করে দেবে। আপনি এই ধরণের কোর্স থেকে পোর্টফোলিও ডিসাইন করার পাশাপাশি নিজের কাজের মার্কেট প্রাইস সম্পর্কেও ধারণা পাবেন।

৪. Fiverr Learn:

Fiverr Learn অনলাইন লার্নিং প্ল্যাটফর্মটি অন্ট্রাপ্রোনিউর ও ফ্রীলান্সারদের জন্যে সেরা একটা লার্নিং সিস্টেম। বিশেষত, এখানে মার্কেটিং, ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইনিং, বিসনেস, প্রোগ্রাম এবং ভিডিও ও ফটোগ্রাফির উপর দুর্দান্ত সমস্ত কোর্স রয়েছে।এছাড়াও, এর ওয়েবসাইটের ‘freelancing‘ সেকশনে নানা ফ্রি ও পেইড ভিডিও টিউটোরিয়ালও আছে।

৫. Coursera:

শুধুমাত্র ফ্রীলান্সিং শেখাই নয়, নিজের স্কিল ডেভেলপমেন্ট, স্পেশ্যালাইজেশান কোর্স ও ডিগ্রীর কোর্সের জন্যে Coursera খুবই উপকারী একটা প্ল্যাটফর্ম। এখানে রাইটিং, ডিজিটাল মার্কেটিং, কোডিং ও ওয়েব ডিজাইনিং-এর বিষয়ে ভালো ভালো সমস্ত ফ্রিল্যান্সিং কোর্সও আছে।

আর, এখানে ৪ সপ্তাহ থেকে শুরু করে ৪ মাসের নানান কোর্স ও ক্লাস করার সুযোগ আছে। এমনকি, এখানে পৃথিবীর সেরা সব ইউনিভার্সিটি থেকে অনলাইন ডিগ্রী কোর্সও করা সম্ভব।

৬. edX:

আপনার যদি কপিউরিটিং, ডেটা সাইন্স, কোডিং, অ্যাকাডেমিক রাইটিং, ভিডিও এডিটিং-এর মতো পেশার প্রতি আগ্রহ থাকে, তাহলে edX-এর ফ্রীলান্সিং কোর্সগুলোও দেখতে পারেন। এখানে সারা বিশ্বের সেরা ইউনিভার্সিটির কোর্সগুলো রয়েছে।

এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি ফ্রিল্যান্সিং প্রোফাইলের জন্যে সেরা প্রফেশনাল CV বানাতেও পারবেন। এখানেও ফ্রি ও পেইড দুই ধরণেরই কোর্স থাকে।

৭. FutureLearn:

বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে ভালো ইংলিশ কম্যুনিকেশন যেকোনো পেশাতেই খুব প্রয়োজনীয়।

তাই, FutureLearn প্ল্যাটফর্মটি আপনাকে দারুণ সব রাইটিং ও স্পোকেন ইংলিশের কোর্স অফার করে। এছাড়াও, এখানে ফ্রীলান্সারদের শেখার জন্যে ডিজিটাল মার্কেটিং, ব্লগিং, গ্রাফিক ডিজাইনিং-এর মতো বিষয়গুলোও রয়েছে।

৮. Skillshare:

Skillshare-এর অনলাইন ফ্রিল্যান্স ও অন্ট্রাপ্রোনিউর ক্লাসগুলো আপনাকে ফ্রীলান্সিং কেরিয়ার শুরু করতে সাহায্য করবে।

এখানে আপনি কোডিং, ই-কমার্স, UI/UX ডিজাইনিং, অ্যানিমেশন ও আরও নানান ফিল্ডের উপর অনলাইন কোর্স করতে পারবেন। তাছাড়াও, এই প্ল্যাটফর্মে মিউসিক, ফাইন আর্ট, ইলাস্ট্রেশন, ক্রিয়েটিভ রাইটিংয়ের মতো বিষয়গুলোর উপরও ক্লাস পেয়ে যাবেন।

FAQ: মোবাইলে ফ্রিল্যান্সিং সুখুন:

১. মোবাইল ফোন দিয়ে কি ফ্রিল্যান্সিং শুরু করা যাবে?

অবশই পারবেন। আপনি যেকোনো সময় নিজের হাতের মুঠোয় থাকা স্মার্টফোনটির দ্বারা ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং কাজ শিখতে ও শুরু করতে পারবেন। ধীরে ধীরে যখন আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার সফল হতে থাকবে, তখন চাইলে কম্পিউটার বা ল্যাপটপ কিনে সেখানে ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলি করা যাবে।

২. কোথায় পাবেন ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলি?

ইন্টারনেটে এমন প্রচুর জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলি রয়েছে যেগুলিতে গিয়ে নিজের একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করার মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলি পেতে পারবেন। কিছু জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং সাইট/মার্কেটপ্লেস গুলি হলো: Fiverr, Freelancer.com, Guru ইত্যাদি।

৩. ফ্রিল্যান্সিং কি মোবাইল দিয়ে শেখা যায়?

অবশই পারবেন, ইন্টারনেটে এমন নানান প্লাটফর্ম গুলি রয়েছে যেগুলিকে কাজে লাগিয়ে নিজের মোবাইল দিয়েই ফ্রিল্যান্সিং এবং নানান ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলিও শিখতে পারবেন।

আজকে আমরা কি শিখলাম?

বন্ধুরা, যদি আপনাদের কাছে একটি ল্যাপটপ বা কম্পিউটার নেই এবং আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে অনলাইনে কাজ করে নিয়মিত টাকা ইনকাম করার কথা ভাবছেন, তাহলে একেবারেই চিন্তা করতে হবে। কেননা, যদি আপনার কাছে একটি স্মার্টফোন আছে, তাহলে সেই স্মার্টফোনটি কাজে লাগিয়ে নানান ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলি করে নিয়মিত ইনকাম করতে পারবেন।

এমন নানান ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলি রয়েছে যেগুলি মোবাইল দিয়ে করা সম্ভব। যেমন ধরুন, কনটেন্ট রাইটিং, ভয়েস ওভার দেওয়া, ট্রান্সলেশন ইত্যাদি। তবে শুরুতেই আপনার মধ্যে ফ্রিল্যান্সিং এর বিষয়টি নিয়ে সাধারণ নলেজ থাকতে হবে।

এক্ষেত্রে আপনি নিজের মোবাইল ফোনটিকে কাজে লাগিয়ে মোবাইল দিয়েই এই ফ্রিল্যান্সিং এর বিষয়ে সম্পূর্ণটা জেনে ও শিখে নিতে পারবেন। তাহলে আশা করছি, আমাদের আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের অবশই কাজে লেগেছে।

আর্টিকেলটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে সোশ্যাল মিডিয়া এবং নিজেদের বন্ধুদের মধ্যে আর্টিকেলটি শেয়ার করতে কিন্তু ভুলবেননা।

অবশই পড়ুন:

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top