যদি আপনি একজন ইউটিউবার, তাহলে ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে ভিডিও এডিটিং করার জন্য আপনার একটি ভালো সফটওয়্যার এর প্রয়োজন অবশই হবে। তবে, Filmora, movavi, Adobe Premiere Pro, Corel VideoStudio, এই ধরণের প্রফেশনাল ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার, প্রথম অবস্থায় ব্যবহার করতে পারাটা কিন্তু সম্ভব না। কারণ, এই ধরণের professional video editor কিনতে অনেক টাকার দরকার।

কম্পিউটারের ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার
Best free video editors for PC.

তাই, এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের “কম্পিউটারের জন্য ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার” ৪ টির ব্যাপারে বলবো। এগুলি আপনারা, ফ্রীতেই ব্যবহার করতে পারবেন এবং কোনো বাধা বা ওয়াটারমার্ক (watermark) ছাড়া, প্রফেশনালি ভিডিও এডিট করতে পারবেন।

হে, আপনারা ঠিক শুনেছেন। ইন্টারনেটে এমন অনেক ভালো ভালো ভিডিও এডিটর এপ্লিকেশন রয়েছে, যেগুলি একটি premium editing software এর মতোই আপনার বানানো ভিডিও গুলিকে এডিট করে আকর্ষণীয় করে তুলতে সাহায্য করবে।

তবে, অবশই মনে রাখবেন, টাকা দিয়ে কেনা premium video editor গুলির কথাই আলাদা। সেগুলিতে আপনারা অনেক এমন দারুন ফিচার পাবেন, যেগুলি অন্য কোথাও আপনাকে দেয়া হবেনা।

কিন্তু, যদি আপনি নতুন করে নিজের YouTube channel শুরু করেছেন বা করবেন, এবং প্রথম অবস্থায় যখন আপনার কোনো ইনকাম সেই চ্যানেল থেকে হবেনা, তখন কম্পিউটারের এই ফ্রি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার গুলি ফ্রীতেই আপনার ভিডিও গুলিকে প্রফেশনাল ভাবে এডিট করতে সাহায্য করবে।

এবং, প্রায় সব ধরণের প্রয়োজনীয় টুলস (tools) বা অপশন আপনাদের দিয়ে দেয়া হবে।

তাই, একজন ইউটিউবার হিসেবে, নিজের বানানো ভিডিও গুলি, ফ্রীতে কম্পিউটারে এডিট করার জন্য, এই ৩ টি ভিডিও এডিটিং এপ্লিকেশন ব্যবহার করার পরামর্শ আমি অবশই দিবো।

কম্পিউটারে ভিডিও এডিটিং করার সেরা সফটওয়্যার (Free + No Watermark )

আপনারা যদি কোনো ওয়াটার মার্ক ছাড়া, পিসির কিছু ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার এর ব্যাপারে ভাবছেন, তাহলে নিচে দেয়া এই ৪ টি সফটওয়্যার সেরা।

এই সফটওয়্যার গুলি ব্যবহার করে, আপনার বানানো ভিডিও গুলি, কম্পিউটারে এডিটিং করাটা অনেক সহজ।

এবং, একটি প্রফেশনাল এডিটিং এপ্লিকেশন এর মতোই, প্রায় সব ধরণের tools এবং functions আপনারা পাবেন।

১. LightWorks video editor 

এখন, lightworks free video editing software টিতে আপনারা বিভিন্ন ধরণের নতুন নতুন features এবং tools পেয়ে যাবেন। এই ফ্রি এডিটিং সফটওয়্যারটি আপনারা windows, Mac এবং Linux প্রত্যেক OS এর জন্য ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন।

তাছাড়া, Lightworks eiditor লোকেদের মধ্যে অনেক জনপ্রিয় হওয়ার জন্য, ইউটিউবে এর সাথে জড়িত অনেক ধরণের ভিডিও টিউটোরিয়াল পেয়ে যাবেন।

ছোট ছোট social media video হোক বা আপনার ইউটিউবের চ্যানেলের জন্য ভিডিও তৈরি করতে চাচ্ছেন, সবটাই এখানে করতে পারবেন।

তাছাড়া, 4K film project করাটাও কিন্তু এখানে অনেক সহজ। কেননা, ফ্রি সফটওয়্যার হলেও এখানে আপনারা ভিডিও এডিটিং করার জন্য সব রকমের tools, effects, modes বা editing functions অবশই পাবেন।

Lightworks eiditor এর কিছু ফিচারস

  • সহজে বুঝতে পাড়া Interface.
  • বিভিন্ন royalty free videos এবং images পেয়ে যাবেন যেগুলি নিজের ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারবেন।
  • সহজে ভিডিওর timeline editing এবং trimming করা সম্ভব।
  • Ready to use audio & video FX.
  • YouTube/Vimeo, SD/HD/mp4 এবং 4K অব্দি ভিডিওর save/export করতে পারবেন।

Lightworks এমনিতে অনেক শক্তিশালী এবং professional ভাবে ভিডিও তৈরি করার জন্য অনেকেই ব্যবহার করেন।

তবে, এই ফ্রি ভিডিও এডিটর, আপনারা কেবল ৭ দিনের ফ্রি ট্রায়াল (free trial) হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।

এবং, ভবিষ্যতে ব্যবহার করার জন্য আপনার টাকা দিতে হবে।

২. OpenShot – (Award winning software)

Openshot, এমন একটি open source editing software যার ব্যবহারের জন্য আপনার কোনো টাকা দিতে হয়না। এই সফটওয়্যার সম্পূর্ণ ফ্রি এবং ফ্রীতে যেকোনো ভিডিও এডিট করার জন্য সব থেকে সেরা।

Openshot আপনারা Windows, Linux এবং Mac, সব ধরণের OS এর জন্য ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন।

Video cutting এবং trimming করাটা এখানে অনেক সহজ।

কিছু শক্তিশালী animation framework এর সাহায্যে, আপনারা ভিডিওতে fade, slide, bounce এবং বিভিন্ন রকমে animate ব্যবহার করতে পারবেন।

Video effects engine এর ব্যবহার করে আপনারা বিভিন্ন advanced editing tools পেয়ে যাবেন।

এগুলির ব্যবহার করে, ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করা, video color invert, brightness adjust এবং আরো অনেক রকমের কাজ করতে পারবেন।

ভিডিওতে Text বা title যোগ করাটাও এই সফটওয়্যার এর বিশেষত্ব। তাছাড়া, text বা title যোগ করার জন্য আপনাদের অনেক সুন্দর সুন্দর templates অবশই দেয়া হবে।

Snow, lens flares এবং flying text এগুলির মতো অনেক 3D animated titles এবং effects আপনারা এই সফটওয়্যারটিতে পাবেন।

এখন আপনারা যদি ইউটিউবে অনেক ভিডিও দেখেন, তাহলে অবশই লক্ষ করেছেন, অনেক ভিডিওতে সময়ে সময়ে “slow motion”, “video reversing”, “speeding up video” এই ধরণের কিছু আকর্ষণীয় effects ব্যবহার করা হয়।

তবে আপনিও যদি এই ধরণের effects নিজের বানানো ভিডিওতে দিতে চাচ্ছেন, তাহলে Openshot সফটওয়্যারে এইগুলি সব রয়েছে।

তাছাড়া, HD এবং বিভিন্ন resolution এর ভিডিওর সাথে সাথে 4K video অব্দি এই সফটওয়্যার সাপোর্ট করে।

শেষে, আপনি আপনার file manager থেকে যেকোনো video, audio এবং image এই openshot সফটওয়্যার টিতে নিয়ে এসে, সহজে নিজের মতো কোরে এডিটিং করতে পারবেন।

Openshot ব্যবহার করা অনেক সহজ এবং নতুন দেড় থেকে শুরু করে প্রায় অনেক YouTuber রা এই সফটওয়্যার ব্যবহার করেন।

৩. Hitfilm Express

Hitfilm Express সম্পূর্ণ ফ্রি এমন এক ভিডিও এডিটর যেটা ব্যবহার করে আপনারা professional ভাবে ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন।

Video ediding এর বিষয় নিয়ে পড়া শুনা করা ছাত্রদের জন্য বা আমার এবং আপনার মতো ইউটিউবাররা, এই সফটওয়্যার সবাইর জন্য সেরা।

Professional-grade video editor, Full 2D এবং 3D compositing, 410 থেকে বেশি video effects এবং presets, আনলিমিটেড tracks এবং transitions এবং আরো অনেক ধরণের advanced features এর সাথে hitfilm express আপনার ভিডিওকে অনেক বেশি আকর্ষণীয় করে দিবে।

তাছাড়া, splicing, audio editing, video cutting, trimming, text এবং title এর ব্যবহার, এই ধরণের সাধারণ ফীচার আপনাদের অবশই দেয়া হবে।

গ্রীনস্ক্রিন (Greenscreen) অপশনের মাধ্যমে ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ড (background) এখানে বদলাতে বা চেঞ্জ (change) করতে পারবেন।

Free package এ আপনাদের প্রায় ১৮০ special effects দেয়া হয়।

Hitfilm express অনেক professional একটি ভিডিও এডিটর (video editor), যেটা নতুনদের সাথে অনেক বিখ্যাত ইউটিউবাররাও ব্যবহার করছেন।

Windows এবং MAC কম্পিউটার ব্যবহার কারীরা এই সফটওয়্যার ফ্রীতে ডাউনলোড করে চিরকাল ফ্রীতেই ব্যবহার করতে পারবেন।

নতুন দেড়, এই প্রফেশনাল ফ্রি সফটওয়্যার ব্যবহার করতে প্রথম অবস্থায় অল্প কষ্ট হতে পারে যদিও, বিভিন্ন tutorial videos দেখে কেবল কিছু দিনেই সবটা শিখে নিতে পারবেন।

৪. Shotcut – (Open source)

Shotcut কম্পিউটারে ভিডিও এডিট করার এমন একটি open source এডিটর যেটা ব্যবহার করাটা অনেক সহজ। এবং, এই এডিটিং সফটওয়্যার আপনারা উইন্ডোস, লিনাক্স এবং ম্যাক OS এর জন্য ডাউনলোড করতে পারবেন।

Shotcut একটি open source সফটওয়্যার, তাই জেকেও এই সফটওয়্যার চিরকাল ফ্রীতেই ব্যবহার করতে পারবেন।

নতুন নতুন ভিডিও এডিটিং এর কাজ শুরু করা ইউটিউবার দেড় জন্য এই সফটওয়্যার অনেক কাজের।

কারণ, shotcut এর interface সহজে জেকেও বুঝে যেতে পারবেন।

এর সাথে, এই সফটওয়্যার ব্যবহার করে আপনারা কম্পিউটার স্ক্রিন এবং অডিও রেকর্ড করতে পারবেন।

আপনি যদি একটি সহজ এবং সরল ভিডিও এডিটর সফটওয়্যার খুঁজছেন, যেটা দিয়ে সহজে সাধারণ video trimming, editing, video cropping, screen recording, simple video effects ব্যবহার করে আকর্ষণীয় প্রফেশনাল ভিডিও তৈরি করা যাবে, তাহলে shotcut আপনার জন্য সেরা।

আমাদের শেষ কথা

তাহলে বন্ধুরা, আপনারা যদি কম্পিউটারের জন্য ফ্রি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার খুঁজছেন, তাহলে ওপরে দেয়া এই ৩ টি এপ্লিকেশন প্রফেশনালি ভিডিও এডিট করার জন্য সব থেকে সেরা।

আজ, প্রায় ৫০% ইউটিউবাররা Hitfilm express বা Openshot এর মতোই কিছু ফ্রি ভিডিও এডিটর সফটওয়্যার ব্যবহার করেই, নিজের বানানো ভিডিও গুলি অনেক আকর্ষণীয় এবং সুন্দর বানিয়ে নিচ্ছেন।

তাই, আপনার কাছে যদি বাজেট অনেক কম বা একটি ফ্রি ভিডিও এডিটর ব্যবহার করেই ভিডিও এডিট করতে চাচ্ছেন, তাহলে এই ৩ টি এপ্লিকেশন থেকে যেকোনো একটি ব্যবহার করতে পারবেন।