মোবাইলের সেরা ১৩টি ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার গুলো 

মোবাইলের ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার ডাউনলোড: অ্যান্টিভাইরাস সফ্টওয়্যার (AV সফ্টওয়্যার নামেও পরিচিত) হল কোনো ডিভাইসের যাবতীয় থ্রেট সনাক্ত করতে, ব্লক করতে ও মুছে দিতে সাহায্য করার জন্যে ডিসাইন করা এক ধরণের প্রোগ্রাম। 

ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার ডাউনলোড
Mobile antivirus software download.

থ্রেটের মধ্যে ভাইরাস, স্পাইওয়্যার, ম্যালওয়্যার, ব্লোটওয়্যার ও নানান ক্ষতিকারক প্রোগ্রাম অন্তর্ভুক্ত থাকে। 

যেগুলো আমাদের মোবাইল বা অন্য কোনো ডিভাইসে নানান ওয়েবসাইট, লিঙ্ক বা অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে প্রবেশ করে, আমাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের ব্যাপকভাবে ক্ষতি করতে পারে।

যেহেতু, আমরা এমন এক ডিজিটাল যুগে রয়েছি, যেখানে বেশিরভাগ গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলোই স্মার্টফোনের মাধ্যমে সম্পাদিত করা হয়। 

তাই, আমাদের কাছে এমন সফ্টওয়্যারগুলো থাকাটা জরুরি;

যেগুলো আমাদের ব্যক্তিগত তথ্যগুলোকে (ফিন্যান্সিয়াল ডিটেলস, পাসওয়ার্ড ও আরও অন্যান্য) অসাধু ব্যক্তিদের হাত থেকে বাঁচাতে পারে।

অ্যান্টিভাইরাস সফ্টওয়্যার ডিভাইস গুলোকে ভাইরাস থেকে সুরক্ষা প্রদানের পাশাপাশি, চুরির যাওয়া থেকে খুঁজে পেতে, রিমোটলি লক বা ফর্ম্যাট করতে, VPN-এর সাহায্যে নিরাপদে ব্রাউজ করতে ও আরও নানান কাজের একটা টুল হিসেবে কাজ করে।

মোবাইলের সেরা ১৩টি ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার গুলোর তালিকা:

আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করবো,

এমনই কিছু সেরা ১৩ টি ভাইরাস সরানোর সফটওয়্যারগুলো সম্পর্কে

যেগুলো আপনার মোবাইলকে সর্বাধিক সুরক্ষা দিয়ে আপনাকে ইন্টারনেটের দুনিয়াতে সুরক্ষিত করবে।    

১. AVG Antivirus Free:

AVG Antivirus Free হল অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপগুলোর মধ্যে সেরা একটা বিনামূল্যের অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার। 

এর আবার পেইড ফীচারও আছে. তবে এর ফ্রি ট্রায়াল পিরিয়ড আছে ৩০ দিনের জন্যে। 

এই সফটওয়্যারটি থেফ্ট ও ভাইরাস থেকে আপনার ফোনকে নিরাপদ রাখে। 

আপনি আপনার প্রাইভেসীকে সুরক্ষিত রাখার জন্যে অ্যাপগুলোকে পাসওয়ার্ড প্রটেকশন দিতে পারেন।   

ফিচার:

  • চুরি যাওয়া ফোন খুঁজে দিতে সাহায্য করে 
  • সমস্ত অ্যাপগুলোকে পাসওয়ার্ড দিয়ে সুরক্ষিত করা যায় 
  • সিম রিপ্লেস করা হলে অটোমেটিক্যালি আপনার ফোন লোক করে দেওয়া হয় 
  • আপনার ডিভাইসকে ম্যালওয়্যার, ভাইরাস, স্পাইওয়্যার, আনসেফ অ্যাপ ও আরও নানান থ্রেট থেকে সুরক্ষিত রাখে  
  • পরপর তিনবার ফোনের পাসওয়ার্ড ভুল হলে, এই সফটওয়্যারটি অটোমেটিক্যালি অজ্ঞাত ব্যক্তির ছবি তুলে আপনাকে মেইল করে দেয়     

২. Kaspersky Mobile Antivirus:

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসগুলোকে ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত রাখতে Kaspersky Mobile Antivirus হল খুবই পরিচিত একটা নাম। 

এই অ্যাপটি তার টুল ও অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রামের সাথে আপনার আইডেন্টিটি ও প্রাইভেসীকে সুরক্ষা দেয়। 

এর আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স পর্যায়ক্রমিকভাবে পোটেনশিয়াল থ্রেটগুলো ব্লক করতে থাকে।

ফিচার:

  • ২৪X৭ থ্রেটগুলোকে মনিটর করে   
  • অটোমেটিক্যালি আপনার অ্যাপগুলো স্ক্যান করে 
  • যে অ্যাপগুলো আপনার ফোন স্পাই করছে সেগুলোকে খুঁজে বের করে 
  • যেসব URL আপনার তথ্য চুরি করছে সে সম্পর্কে আপনাকে নোটিফাই করে 
  • বিভিন্ন অ্যান্টি থেফ্ট ফিচার, যেমন- লকিং, ওয়াইপিং এ স্টোলেন ডিভাইস ও ইত্যাদি রয়েছে     

৩. Avast Mobile Security:

Avast Mobile Security হল একটা হালকা ও শক্তিশালী অ্যান্ড্রয়েড ভাইরাস কাটার স্মার্টফোন অ্যাপ। 

এর সাহায্যে আপনি বিনামূল্যে অ্যান্ড্রয়েড ফোন নিরাপত্তা পাবেন। 

এটি আপনার ফোনের পার্ফরম্যান্সকে বজায় রেখে সর্বাপেক্ষা বেশি প্রাইভেসী, ও সিক্যুরিটি দেয়। 

ফিচার:

  • ক্ষতিকারক অ্যাপগুলো খুঁজে বের করে 
  • Wi-Fi নেটওয়ার্কের সিক্যুরিটি চেক করে 
  • এটিকে আপনি মোট ১০টা ডিভাইসে শেয়ার করতে পারেন  
  • ওয়েবের খারাপ লিংকগুলো ব্লক করে আপনাকে সুরক্ষা দেয় 
  • এর নিজস্ব VPN আপনার ব্রাউসিং হিস্টোরিকে সুরক্ষিত রাখে  

৪. Google Play Protect:

Google Play Protect অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন অ্যাপটি আপনার ডেটা সেফটির উপর সবথেকে বেশি নজর দেয়। 

এই অ্যাপটির সাহায্যে আপনি আপনার ডিভাইসকে পোটেনশিয়াল হার্মফুল অ্যাপ্লিকেশান থেকে সুরক্ষিত রাখতে পারেন। 

আপনি এখানে অ্যান্টি থেফ্ট টুলস পেয়ে যাবেন। 

আপনার ডিভাইস লোকেশন যদি কেউ মনিটর করার চেষ্টা করে বা অন্য কোনো ক্ষতিকারক ক্রিয়াকলাপ করে,

তাহলে এই সফটওয়্যার আপনাকে এইসব থ্রেট থেকে বাঁচতে সাহায্য করে।     

ফিচার:

  • অটোমেটিক্যালি PHA রিমুভ ও ব্লক করে 
  • চুরি যাওয়া ডিভাইস খুঁজে পেতে সাহায্য করে  
  • রিমোটলি ডেটা মুছে ফেলতে কিংবা ডিভাইস লক করতে সাহায্য করে 
  • ক্লাউড-বেসড অ্যাপ ভেরিফিকেশন পদ্ধতি পোটেনশিয়াল হার্মফুল অ্যাপ্লিকেশান থেকে ডিভাইসকে দূরে রাখে 

৫. McAfee Mobile Security:

এই অ্যান্টিভাইরাস অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন অ্যাপটি আইডেন্টিটিতে সবথেকে বেশি সুরক্ষা দেয়। 

এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে আপনি আপনার ডিভাইসকে ভাইরাস থেকে দূর রেখে আপনার আইডেন্টিটি সেফ রাখতে পারবেন। 

এখানে আপনি একটা সিকিউর VPN-ও পেয়ে যাবেন।

ফিচার:

  • বিপদজনক লিঙ্ক ও ওয়েবসাইট থেকে সুরক্ষিত রাখে 
  • নিয়মিত স্ক্যান করে ক্ষতিকারক অ্যাপগুলোকে ব্লক করে 
  • এর নিজস্ব VPN আপনার গোপনীয় তথ্যকে সুরক্ষা দেয়  
  • ঝুঁকিপূর্ণ ওয়েবসাইট বা লিঙ্কগুলো থেকে গোপনীয় তথ্য নিরাপদ করে 

৬. Malwarebytes Security:

ভাইরাস কাটার অ্যাপগুলোর মধ্যে Malwarebytes Security অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন সফটওয়্যারটি অনেকটাই বিশ্বাসযোগ্য। 

এখান থেকে আপনি সাইবার নিরাপত্তা, ফিসিং URLs ট্র্যাক করতে পারবেন ও আরও নানা ধরণের পরিষেবা পাবেন।   

ফিচার:  

  • নিজস্ব নিরাপদ VPN দেয়  
  • ফিসিং URL খুঁজে বের করে 
  • স্বয়ংক্রিয়ভাবে থ্রেট ডিটেক্ট ও রিমুভ করে 
  • ব্লোটওয়্যার গুলো ডিলেট করে ফোনের পারফরম্যান্স বাড়িয়ে দেয় 
  • প্রাইভেসী অডিট ফিচার আপনার অ্যাপগুলোকে প্রতিনিয়ত মনিটর করে 

৭. F-Secure SAFE:

F-Secure SAFE অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রামটি সব ধরণের অপারেটিং সিস্টেমের সাথেই চলে। 

এর সাথে একটা স্ট্যান্ডঅ্যালোন অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রামও রয়েছে। 

এই সফটওয়্যারটি আপনাকে সবথেকে সেরা ব্যাঙ্কিং প্রোটেকশন দিয়ে থাকে।  

ফিচার:

  • রিমোট একাউন্ট ম্যানেজমেন্ট দেয় 
  • হারানো মোবাইলের ফাইন্ডার রয়েছে 
  • ক্রস-প্ল্যাটফর্ম প্যারেন্টাল কন্ট্রোল দেয় 
  • ভালোভাবে ক্ষতিকারক ও ফ্রড সাইট ব্লক করে      

৮. Emsisoft Emergency Kit:

Emsisoft Emergency Kit হল এক ধরণের অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার সফটওয়্যার। 

এই অ্যান্টিভাইরাস অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন অ্যাপটি খুবই লাইটওয়েট ও আপনার ডিভাইসে খুবই স্মুথলি রান করে। 

ফিচার:

  • যথেষ্ট লাইটওয়েট একটা অ্যাপ 
  • পোর্টেবল অ্যাপ হিসেবে কাজ করে 
  • ম্যালওয়ার ডিটেকশন ও রিমুভের সেরা অ্যাপ 
  • যেকোনো ইনফেক্টেড PC রিকভার করতে পারে 

৯. ESET Smart Security Premium:

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন থাকলে ESET Smart Security Premium অ্যাপ হল যথেষ্ট উন্নতমানের অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার। 

এটি Windows, Mac, Linux ও আরও নানান অপারেটিং সিস্টেমের সাথেও কাজ করে। 

এই অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রামটি স্ট্যান্ডঅ্যালোন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের তুলনায় অনেকটাই সাশ্রয়ী।

ফিচার:

  • ফাইল এনক্রিপশন সিস্টেম রয়েছে 
  • এখানে মোট ৫টা সিক্যুরিটি লাইসেন্স পাওয়া সম্ভব 
  • Windows, Android ও macOS OS-এ প্রোটেকশন দেয়  
  • ওয়েব ক্যাম প্রোটেকশন, পাসওয়ার্ড ম্যানেজমেন্ট ও এনক্রিপশন আছে

১০. Bitdefender Mobile Security:

Bitdefender Mobile Security হল এমন একটা অ্যান্ড্রয়েড অ্যান্টিভাইরাস স্মার্টফোন অ্যাপ,

যেটি আপনাকে ভাইরাস, ম্যালওয়্যার থেকে দূরে রাখে- তাও আপনার মোবাইলের ব্যাটারির চার্জ দ্রুত শেষ না করে। 

ফিচার:

  • অ্যাকাউন্টের প্রাইভেসী বাজার রাখে   
  • ইন্টারেনট ফাঙ্কশন থাকলে তবেই কাজ করে  
  • Android 5.0 ও এর পরবর্তী ভার্শনে কাজ করে 
  • ইমেইল অ্যাকাউন্ট ব্রীচ হয়েছে কিনা খেয়াল রাখে 
  • ইন্টারনেট সার্ফের জন্যে সুরক্ষিত VPN-এর ব্যবস্থা  
  • মোবাইলের ব্যাটারি লাইফে খুব সামান্য প্রভাব ফেলে   
  • ফোন হারালে বা চুরি গেলে রিমোটলি লক বা ফরম্যাটের অপশন দেওয়া

১১. Norton 360 Deluxe:

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলের জন্যে Norton 360 Deluxe হল অন্যতম সেরা একটা স্মার্টফোন সফটওয়্যার অ্যাপ। 

এটি আপনার ডিভাইসকে বিপজ্জনক Wi-Fi নেটওয়ার্ক, সাইবার ক্রাইম থেকে রক্ষা করে সুরক্ষিত নেট ব্রাউসিং করতে দেয়।  

ফিচার:

  • ক্ষতিকারক ওয়েবসাইট শনাক্ত করে 
  • সাইবার ক্রাইম থেকে ডিভাইসকে সুরক্ষিত রাখে 
  • আশঙ্কাজনক Wi-Fi নেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত হলে নোটিফিকেশন দেয় 
  • পেটেণ্ট-প্রোটেক্টেড অ্যাপ স্ক্যানিং টেকনোলজি মোবাইলকে দারুণ সুরক্ষা দেয় 
  • Google Play থেকে কোনো অ্যাপ নামানোর সময় প্রাইভেসী রিস্ক দেখা যায়  

১২. Trend Micro Maximum Security:

Trend Micro Maximum Security অ্যান্ড্রয়েড অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি হল একটা পুরোনো ও বিশ্বস্ত অ্যাপ। 

এই স্মার্টফোন ভাইরাস কাটার অ্যাপটি iOS, Mac, Windows, Android ও Chromebook ও আরও নানান ইন্টারফেসের সাথে কাজ করে। 

এই বিনামূল্যের সফটওয়্যারটি ব্যবসায়িক কিংবা ব্যক্তিগত সবক্ষেত্রেই সুরক্ষা দেয়। 

আরও, এক্সট্রা ফিচার পেতে এর পেইড প্ল্যানগুলো দেখতে পারেন।  

ফিচার:

  • শিশুদের সুরক্ষা দেয়
  • স্পাইওয়্যার থেকে আইডেন্টিটিকে সুরক্ষিত রাখে   
  • স্মার্ট ক্লাউড-বেসড নেটওয়ার্ক ডিভাইসে থ্রেট আসা থেকে আটকায়
  • ফোনের পারফরম্যান্স বাড়ানোর জন্যে অপ্টিমাইজেশন ফীচার আছে      
  • Android 4.1/iOS 11-এর ভার্সন বা এর উপরের ভার্শনে কাজ করে 

১৩. Avira Prime:

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের জন্যে একটা ভালো অ্যান্টিভাইরাস হল Avira Prime। 

এখানে আপনি প্রাইভেসির সুরক্ষা সহ, ক্ষতিকারকর অ্যাপ ও ওয়েবসাইট থেকে বাঁচার জন্যে প্রতিদিন ১০০MB-এর জন্যে বিনামূল্যের VPN পাবেন। 

এখানেও অনেক পেইড প্ল্যান রয়েছে, যেখানে আপনি VIP কাস্টমার সাপোর্ট পেতে পারবেন।  

ফিচার:

  • ১০০MB ইন্টারনেট সার্ফিংয়ের জন্যে ফ্রি VPN আছে 
  • ডেটা ব্রিচিং-এর ক্ষেত্রে আপনাকে দ্রুত নোটিফাই করে 
  • যেসব ওয়েবসাইট ফোনের জন্যে ক্ষতিকারক সেগুলোকে ব্লক করে  
  • চুরির ক্ষেত্রে এমন অনেক টুল আছে, যা আপনাকে ফোন খুঁজে দিতে পারে
  • পাসওয়ার্ডের সাহায্যে আপনাকে ফোনের অ্যাপগুলো সুরক্ষিত করতে দেয় 

 

আমাদের শেষ কথা,,

উপরিউক্ত সমস্ত সফটওয়্যারগুলোই আপনাকে ভাইরাসের বিরুদ্ধে ব্যাপক সুরক্ষা দিতে সক্ষম। 

এদের মধ্যে বেশ কতগুলো সফটওয়্যার বিনামূল্যে পরিষেবা দিলেও, কয়েকটা প্রিমিয়াম সফটওয়্যার রয়েছে। 

তাই, আপনি আপনার সুবিধা ও প্রয়োজনমতো যেকোনো একটা প্রোগ্রাম বেছে নিতে পারবেন।

আমাদের আজকের সেরা ভাইরাস কাটার সফটওয়্যারের তালিকাটি এখানেই শেষ হল। 

লেখাটি পছন্দ হলে অবশ্যই তা কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top