এমনিতে আমি আমার আগের আর্টিকেল গুলিতে, “ব্লগ কি” এবং “ব্লগ থেকে কিভাবে টাকা আয় করবেন” এবেপারে আপনাদের বলেছি। কিন্তু আজ আমি আপনাদের কিছু নতুন শিখাবোনা।

আপনি যদি একজন ব্লগার (blogger), ব্লগ বানাতে চান বা ব্লগিং এ রুচি রাখেন, তাহলে আপনার জন্য এই আর্টিকেল একটি motivational বা informational আর্টিকেল হিসেবে প্রমাণিত হবে। কারণ, আজকে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো, “বাংলায় ব্লগ লিখে আমি কত টাকা আয় করছি” এর ব্যাপারে। (How much I earn money from blogging).

ব্লগ লিখে টাকা আয়

ব্লগিং এর লাইনে আমার প্রায় ৫ বছর পুরো হতে চললো। এবং, বাংলাতে আর্টিকেল লিখে ব্লগ চলতে চলতে আমার আজ ১.৫ বছর হয়ে গেলো। এই সময়ে আমি অনেক কিছুই শিখেছি। কিন্তু, বাংলায় ব্লগ লেখার আমার সিদ্ধান্ত একদম সঠিক ছিল বলে আমি আজ অনুভব করি।

প্রত্যেক, মাসেই আমি কিছু ডলার বা টাকা আমার বাংলা ব্লগ থেকে আয় করছি। এবং, আয়ের সংখ্যা প্রত্যেক মাসেই কিছু পরিমানে বাড়ছে। কিন্তু, এই সফলতা আমি একদিনেই পাইনেই। এর জন্য কষ্ট যথেষ্ট হয়েছে এবং এখনো করছি।

তবে হে, আমার আয়ের সংখ্যা তেমন একটি বরো নয়। কিন্তু, আমি যেই হিসেবে ব্লগে কাজ করি বা যতটা সময় দিচ্ছি তার তুলনায় কিন্তু অনেক বেশি।

আমি আমার বাংলা ব্লগে আর্টিকেল লিখে মাসে কত টাকা আয় করছি এবং কিভাবে আয় করছি সেবেপারে সবটাই আজ আপনাদের বলবো।

তাই, আমি আপনাদের সাথে আমার এই বাংলা ব্লগের ভ্রমণ শুরু থেকে আজ অব্দি সবটাই শেয়ার করতে চাই।

এবং, হতে পারে আপনি আমার ব্লগিং ইনকাম (blogging income) এর বেপারে জেনে এইটা নির্ধারিত (decide) করতে পারবেন যে, “ব্লগিং করাটা আপনার জন্য লাভজনক হবে কি না“.

অবশই পড়ুন

তাহলে চলুন, আমি বাংলা ব্লগ লিখে কত টাকা আয় করি, কিভাবে ব্লগিং কোরে টাকা আয় করি, ব্লগিং এ কতোটা সময় দিচ্ছি এবং ভবিষতে ব্লগিং থেকে অনলাইন আয়ের সম্ভাবনা কতোটা হতে পারে সেগুলি এক এক কোরে জেনেনেই।

আমি ব্লগ থেকে কিভাবে এবং কত টাকা আয় করছি ?

কিছু সংখক ব্লগার দেড় ভেতরে করা একটি অনলাইন survey দ্বারা পাওয়া গেছে যে, ২০% লোকেরা যারা ব্লগিং (blogging) করেন, তারা মাসে ব্লগিং থেকে এতো টাকা আয় করেন যে নিজের family এবং lifestyle সুন্দর ভাবে চালিয়ে নিতে পারেন। তারা একটি high profile চাকরির থেকেও বেশি অনলাইন ইনকাম কোরে নিচ্ছেন নিজের ব্লগ থেকে।

আবার, ৬০% এমন ব্লগার রয়েছেন, যারা নিজের ব্লগের আয়ের (blogging income) থেকে এখনো মাসে ১০০ ডলার ( $200) টাকাও কমিয়ে নিতে পারছেনা।

এবং, শেষ ২০% এমন ব্লগার রয়েছেন যারা একদিনে কেবল ২ থেকে ৩ ঘন্টা কাজ কোরেই ২০০ ডলার ( প্রায় Rs.১৪,০০০/-) থেকেও বেশি টাকা প্রত্যেক মাসেই কামিয়ে নিচ্ছেন।

এবং, আমিও সেই ২০% ব্লগার দেড় ভেতরেই আসি যারা কেবল দিনে ২-৩ ঘন্টা নিজের ব্লগে কাজ করেই ২০০ ডলার বা তার থেকেও বেশি টাকা প্রত্যেক মাসেই আয় করছি। (কিছু কিছু দিনে তো একেবারেই কাজ করা হয়না)।

অবশই, আমি যদি আমার বাংলা ব্লগে আরো বেশি সময় দিয়ে কাজ করি তাহলে এই আয়ের সংখ্যা অনেক বেশি হতে পারবে বলে আমি মনে করি।

কারণ, একটি ব্লগে আপনি সঠিকভাবে যত বেশি সময় দিয়ে কাজ করবেন, যত বেশি আর্টিকেল লিখবেন ততোটাই বেশি ট্রাফিক (traffic) বা ভিসিটর্স (visitors) আপনার ব্লগে আসবে। এবং, যত বেশি ট্রাফিক ব্লগে আসবে ততোটাই ব্লগ থেকে টাকা ইনকামের সুযোগ বেড়ে যাবে।

তাই, এখানে আপনার দেয়া সময় এবং কাজের ওপর আপনি আনলিমিটেড টাকা আয় করতে পারবেন।

যিহেতু, আমি একটি private company তে চাকরিও করছি, তাই ব্লগিং full-time হিসেবে এখনো নিয়ে নেয়ার সময় আমি পাচ্ছিনা। তাই, কেবল ২-৩ ঘন্টা কাজ কোরে part-time হিসেবে নিয়ে আমি ব্লগিং চালিয়ে যাচ্ছি।

কিন্তু, ভবিষ্যতে ব্লগিং কে full-time ক্যারিয়ার হিসেবে নিয়ে কাজ করার আমার স্বপ্ন একদি পুরো হবে বলে আমার যথেষ্ট আশা রয়েছে। কারণ, সঠিক নিয়ম জানা থাকলে ব্লগিং দ্বারা আপনি যেকোনো ভালো চাকরির থেকেও অনেক গুনে বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

অবশই পড়ুন

আমি ব্লগ থেকে কিভাবে টাকা আয় করি ? (How do I earn money from blogging)

যদি আপনারা জানতে চান যে, “আমি কিভাবে ব্লগ লিখে টাকা আয় করছি” তাহলে এর উত্তর হলো “Google adsense” দ্বারা।

Google adsense কি, এবেপারে আমি আমার আগের আর্টিকেলে আপনাদের বলেছি। আসলে, গুগল এডসেন্স হলো একটি Online Advertisement company যার ব্যবহার কোরে বেশিরভাগ ব্লগাররা নিজের ব্লগে বিজ্ঞাপন (advertisement) দেখিয়ে তার থেকে টাকা ইনকাম করেন। এবং, Google adsense বেশিরভাগ ব্লগারের সব থেকে প্রিয় ইনকামের মাধ্যম।

এমনিতে, এডসেন্সের কিছু নিয়ম কানুন রয়েছে যেগুলি না মেনে চললে আপনার ব্লগ এডসেন্সের জন্য কখনোই অনুমোদন (approve) করা হবেনা।

কিন্তু, একবার এডসেন্স আপনার ব্লগ কে বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য অনুমতি দিয়ে দিলেই আপনি এর থেকে সব থেকে বেশি সহজে এবং সব থেকে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

তাছাড়া, এফিলিয়েট মার্কেটিং, product selling, brand promotion, eBook selling বা অন্যান অনেক ad-network company ব্যবহার কোরে আপনি নিজের ব্লগের দ্বারা ইনকাম করতে পারবেন।

কিন্তু, লক্ষ লক্ষ ব্লগার দেড় মতোই আমার জন্য ব্লগ থেকে ইনকামের সেরা উপায় কেবল “Google adsense” এবং এর দ্বারা ব্লগে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় করা”.

Also read

 ব্লগ এবং ব্লগিং নিয়ে আমি ভবিষ্যতে কি করতে চাই ?

আমি ব্লগ থেকে কত টাকা আয় করছি এবং কিভাবে বা কি মাধ্যম ব্যবহার কোরে আয় করছি সেটা আপনারা ভালোকরেই বুঝলেন।

এখন, আমি ব্লগ এবং আমার ব্লগিং ক্যারিয়ার (blogging career) নিয়ে কি ভাবছি, সেবেপারে আপনাদের বলবো।

আজ, একটি ১০,০০০ টাকা বেতন (salary) পাওয়া চাকরি পাওয়াটাও অনেকের জন্য অনেক কঠিন। কারণ, আজ প্রতিযোগিতা (competition) অনেক বেশি যার তুলনায় কাজ অনেক কম। ভালো এবং অধিক গুন্ থাকা লোকেরাও আজ চাকরি (job) খুঁজে পাচ্ছেননা।

এই ক্ষেত্রে, ব্লগিং এর প্রতি আমার ইন্টারেস্ট (interest), ইচ্ছা এবং আবেগ (passion) যদি আমাকে ঘরে বসে কেবল ২-৩ ঘন্টা কাজের বদলেই প্রায় Rs.১৪,০০০ টাকা প্রত্যেক মাসেই দিয়ে দিচ্ছে (কেবল একটি বাংলা ব্লগ থেকে), তাহলে অবশই আমি ব্লগিং কে ভবিষ্যতে আমার একটি ফুল টাইম অনলাইন ব্যবসা (online business) হিসেবে নিয়ে কাজ করার কথা ভাবাটা স্বাভাবিক।

এবং, একদিন হলেও আমি আমার এই স্বপ্ন পুরো করেই ছাড়বো। একটি থেকে ৫-৬ টি ব্লগ, আমার ব্লগে আর্টিকেলে লেখার জন্য একটি team এবং আমি আমার নিজের মালিক (boss) হয়ে দাঁড়াবো।

ভাবলে স্বপ্ন, কিন্তু চেষ্টা করলে বাস্তব।

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে, বন্ধুরা আমার ব্লগিং ক্যারিয়ার বা blogging journey র বেপারে যদি আপনারা আরো কিছু জানার ইচ্ছুক, তাহলে নিচে কমেন্ট করুন এবং আমাকে জিগেশ করুন। এবং, আর্টিকেল ভালো লাগলে, শেয়ার অবশই করবেন। ধন্যবাদ।

অবশই পড়ুন