আমার টিকটক ভিডিও ভাইরাল হয় না কেন ? কারণ ও সমাধান

আপনি কি একজন সেই টিকটকার যার টিকটক ভিডিও ভাইরাল হয় না ? যদি অনেক চেষ্টা করেও আপনার টিকটক ভিডিও গুলো ভাইরাল হচ্ছেনা তাহলে আপনাকে প্রথমেই ভিডিও ভাইরাল না হওয়ার সঠিক কারণ গুলো জেনেনিতে হবে। এবং এর পর, টিকটক ভিডিও ভাইরাল করার সঠিক নিয়ম ও উপায় গুলো আপনাকে বুঝতে হবে।

অনেকেই আবার বলতে পারে যে, টিকটক অ্যালগরিদম এর কারণে আপনার ভিডিওতে ভিউস আসছেনা। অবশই, এক্ষেত্রে টিকটক অ্যালগরিদম এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা অবশই রয়েছে। তবে, টিকটক অ্যালগরিদম আপনার ভিডিও ভাইরাল কেন করছেন ?

অবশই পড়ুন: ফেসবুকে ফলোয়ার বৃদ্ধির ৯টি দুর্দান্ত উপায়

আপনি যদি নিয়মিত প্রচুর ভিডিও কন্টেন্ট টিকটকে পোস্ট করছেন কিন্তু ভিউস পাচ্ছেননা বা বুঝতে পারছেননা যে কেন টিকটকে ভিডিও ভাইরাল হচ্ছেনা, তাহলে টিকটক ভিডিও ভাইরাল হয় না কেন এর কারণ গুলো নিচে বুঝে নিন।

টিকটক ভিডিও ভাইরাল না হওয়ার ৫টি কারণ

টিকটক ভিডিও ভাইরাল হয় না কেন

নিচে আমরা এমন ৫টি কারণের বিষয়ে জানবো যেগুলির কারণেই হয়তো আপনার TIKTOK ভিডিও গুলি ভাইরাল হচ্ছেনা বা ভিডিওতে প্রচুর ভিউস আসছেনা। কারণ গুলো বুঝে নিয়ে এগুলোর ওপর ভালো করে কাজ করলেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সুযোগ বাড়বে এবং ভিডিওতে ভিউস বৃদ্ধি পাবে।

১. ভাল ভাল অডিও বাছাই করছেন না ?

শুরুতে TikTok-কে আমরা Musical.ly-নামে চিনতাম ও জানতাম।

টিকটক এর একটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো এখানে থাকা songs এবং audio গুলো। এই সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম এর ক্ষেত্রে ভিডিওতে ব্যবহার করা গান এবং অডিও গুলো কিন্তু শ্রোতাদের আকর্ষণ লাভ করতে অনেক সাহায্য করে থাকে।

যদি টিকটকে আপনার ভিডিও গুলো ভাইরাল হচ্ছেনা, তাহলে হতে পারে আপনি নতুন নতুন, জনপ্রিয় বা ট্রেন্ডিং গান বা অডিও গুলো নিজের ভিডিওতে ব্যবহার করছেননা। ইন্টারনেটের দুনিয়াতে কোন গান বা অডিও গুলোর ট্রেন্ড প্রচুর বাড়ছে ?

এই বিষয়ে কি আপনি নজর রাখছেন ?

যেকোনো গানের প্রবণতা (trend) বাড়ার সাথে সাথে যতটা তাড়াতাড়ি সম্ভব সেই অডিও ব্যবহার করে ভিডিও বানিয়ে আপলোড করুন। 

মনে রাখবেন, ২ থেকে ৩ সপ্তাহ পর ট্রেন্ডিং গান গুলো নিয়ে লক্ষ লক্ষ ক্রিয়েটররা টিকটকে ভিডিও আপলোড করবেন। এক্ষেত্রে, এই সময় আপনি ট্রেন্ডিং গান গুলো নিয়ে ভিডিও বানালেও সেগুলো টিকটকে ট্রেন্ড হওয়ার সুযোগ একেবারেই কম থাকবে।

তাই, আপনাকে কেবল সেই ট্রেন্ডিং অডিও গুলোর সাথে ভিডিও তৈরি করতে হবে যেগুলো কেবল কয়েক ঘন্টা বা দিন পুরানো।

তবে ট্রেন্ডিং অডিও খুঁজে পাওয়ার পর যা তা কনটেন্ট তৈরি করলেই কিন্তু ভিডিও ভাইরাল হবেনা। ভালো করে একটি আকর্ষণীয় ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করতে না পারাটাও কিন্তু টিকটকে ভিডিও ভাইরাল না হওয়ার আরেকটি কারণ।

২. তৈরি করা কনটেন্ট এর কোয়ালিটি ভালোনা ?

আপনি যতই ট্রেন্ডিং অডিও বা গান নিজের ভিডিওতে ব্যবহার করে থাকুন, যদি আপনার ভিডিওর বিষয়বস্তু একেবারেই লো বা নিম্ন মানের, তাহলেও ভিডিও ভাইরাল হবেনা। এক্ষত্রে আপনি কোনো টিপস বা ট্রিকস ব্যবহার করেও টিকটকে ভাইরাল হতে পারবেননা।

TikTok-এর অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে, এই বিষয়ে জানলে আপনি বুঝতে পারবেন কেন আমি সেরা এবং উচ্চ মানের কনটেন্ট তৈরি করার কথা বলছি।

টিকটকে, ট্রেন্ডিং অডিও ব্যবহার করে উচ্চমানের ভিডিও কনটেন্ট পাবলিশ করার মাধ্যমে কেবল views-এর বাইরেও প্রচুর likes এবং comments পাবেন।

শুরুতে, TikTok দ্বারা আপনার ভিডিওটি কেবল কিছু সংখ্যক লোকেদের কাছে সরবরাহ করা হয়। এতে ভিডিওতে কিছুটা views অবশই পাবেন। তবে, ভিউস এর সাথে সাথে ভিডিও গুলিতে বেশ ভাল পরিমানে likes এবং comments-ও হতে হবে।

এতে টিকটকের অ্যালগরিদম বুঝতে পারে যে আপনার ভিডিও লোকেরা পছন্দ করছেন এবং শ্রোতারা likes এবং comment-এর মাধ্যমে আপনার ভিডিও গুলির সাথে সংযোগ তৈরি করতে পারছেন। ফলে সেই ভিডিও অধিক শ্রোতাদের দেখানো হয়, যার ফলে ভিডিওতে প্রচুর ভিউস বাড়বে এবং ভিডিও ভাইরালও হতে পারে।

এর বিপরীতে, আপনার ভিডিও গুলিতে যদি উপযুক্ত পরিমানে likes এবং comments না হয়, তাহলে টিকটক মনে করবে যে আপনার কনটেন্ট লোকেরা এতটা পছন্দ করছেনা এবং তাই আপনার সেই ভিডিও ধীরে ধীরে টিকটকে দেখানো বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তাই, টিকটকে অধিক views পাওয়ার জন্য এবং ভাইরাল হওয়ার জন্য আপনার ভিডিও গুলোতে বেশ ভালই likes এবং comments হতে হবে।

আর এর জন্য আপনাকে নির্ধারিত শ্রোতাদের কথা মাথায় রেখে কেবল তাদের রুচি ও চাহিদা অনুযায়ী ভালো ভালো টপিক নিয়ে কনটেন্ট তৈরি করতে হবে। যখন আপনি নির্ধারিত শ্রোতাদের জন্য ভিডিও তৈরি করবেন তখন তারা আপনার ভিডিও গুলোর সাথে অনেক তাড়াতাড়ি সংযোগ স্থাপন করতে পারবেন।

এতে, ভিডিওতে likes এবং comments বাড়বে এবং শেষে গিয়ে ভিডিওটি প্রচুর শ্রোতাদেরকে দেখানো হবে।

রিলেটেড: টিকটক ভিডিও কিভাবে বানাবো ? জেনেনিন সঠিক নিয়ম

৩. মনোযোগ আকর্ষণকারী ইন্ট্রো তৈরি করছেননা ?

ভিডিও গুলোর শুরুতেই যদি মনোযোগ আকর্ষণকারী পার্ট বা কনটেন্ট না থাকে, তাহলে আপনার সম্পূর্ণ ভিডিও অনেক কম লোকেরাই দেখবেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই TikTok ভিডিও গুলো কিন্তু 15-30 seconds বা এর থেকেও কম সময়ের হওয়া দেখা যায়।

অবশই, প্রচুর TikTok stars রয়েছেন যারা লং কনটেন্ট তৈরি করতে পছন্দ করেন। তবে, আমার হিসেবে শর্ট ভিডিও গুলো অনেক সহজেই ভাইরাল করা সম্ভব।

কারণ, শর্ট ভিডিও গুলো অনেক কম সময়ের হয়ে থাকে এবং সেগুলোর শুরুতেই এমন কিছু আকর্ষণীয় অংশ বা ভাগ রাখা যায় যেগুলো দেখার পর ১০ থেকে ২০ সেকেন্ড এর ভিডিও প্রায় প্রত্যেকেই অবশই দেখে নিবেন।

ভিডিওর শুরুতেই আপনাকে এমন ইন্ট্রো রাখতে হবে যেটা দেখার পর শ্রোতারা আপনার সম্পূর্ণ ভিডিও দেখতে বাধ্য। আপনাকে উত্তেজনাপূর্ণ বা মজার কিছু করতে হবে বা অনেক সময় ক্লিক বেইট টাইপ বিষয়গুলিও করতে লাগতে পারে।

৪. Community guidelines মেনে কাজ করছেন  ?

টিকটক ভিডিও ভাইরাল হয় না কেন, এর আরেকটি অনেক সাধারণ কারণ থাকতে পারে যেটা মূলত TikTok community guidelines-এর সাথে জড়িত। 

অনেক সময় আমরা জেনে বা অজান্তেই এরকম অনেক কনটেন্ট গুলো পাবলিশ করে থাকি যেগুলো টিকটকের নিয়ম ভঙ্গ করে থাকে।

আর যদি আপনি নিয়ম ভঙ্গ করে টিকটকে ভিডিও পাবলিশ করছেন, তাহলে টিকটক আপনার ভিডিও গুলোতে ভিউস না দেওয়াটাই স্বাভাবিক। এতে অনেক সময় আপনার TikTok একাউন্ট banned হয়ে যাওয়ারও ভয় থাকে।

তাই, একবার হলেও TikTok-এর community guidelines page অবশই পড়ে নিবেন। এতে আপনি আগের থেকেই জেনেনিতে পারবেন যে কোন কোন বিষয়ে ভিডিও পাবলিশ করা হলে TikTok-এ নিয়ম ভঙ্গ করা হবে।

নিয়ম ভঙ্গ করে ভিডিও বানালে সেই ভিডিও কখনোই টিকটকে ভাইরাল হবেনা।

রিলেটেড: কিভাবে ফেসবুকে লাইক বাড়ানো যায় ?

৫. Hashtags ভালোকরে ব্যবহার করছেননা ?

TikTok-এর ভিডিও ভাইরাল করার ক্ষেত্রে Hashtags গুলোর সঠিক ব্যবহার অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। কারণ, সঠিক ভাবে Hashtags ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি আপনার ভিডিও গুলোকে প্রচুর শ্রোতাদের কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন।

ভিডিও সম্পর্কিত সঠিক Hashtags গুলো ব্যবহার করলে, অজস্র দর্শকরা আপনার ভিডিওটি খুঁজে পাওয়ার সুযোগ প্রচুর পরিমানে বেড়ে যায়। তাই, সব সময় ভিডিও আপলোড করার পর ভিডিওর মধ্যে ৩-৫টি হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করতে ভুলবেননা।

এছাড়া, #FYP, #foryou এর মতো সাধারণ হ্যাশট্যাগ গুলো ব্যবহার করবেননা, এগুলি কাজ করবেনা। আপনাকে, অধিক ব্যবহূত ও ট্রেন্ডিং হ্যাশট্যাগ এবং ভিডিওর সাথে সম্পর্কিত হ্যাশট্যাগ গুলোর মিশ্রণ ব্যবহার করতে হবে।

যেমন, বর্তমানের কিছু ট্রেন্ডিং হ্যাশট্যাগ গুলো হলো, #tiktokchallenge, #tiktokviral, #tiktoktravel, #tik_tok, #tiktoktraditions, #tiktokers, #lovegoals, #lovestory, #lovesong, #like, #likeforlike, #follow ইত্যাদি।

FAQ:

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার জন্য কত লাইক এবং ভিউস লাগবে ?

একটি ভিডিও ভাইরাল হওয়ার জন্য কত likes এবং comments লাগবে সেই সংখ্যাটি কেও বলতে পারবেনা। তবে, আপনার ভিডিওতে একটি ভালো ব্যস্ততার হার রাখার জন্য 4% views-to-likes (প্রত্যেক 1000 views-এর মধ্যে 4 likes) থাকা জরুরি। 4% ভিউ-টু-লাইক এর অনুপাত, টিকটক অ্যালগরিদমকে এটি একটি আকর্ষণীয় ভিডিও হিসেবে বুঝিয়ে দিবে। এতে, ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার সুযোগ বৃদ্ধি পাবে।

কত ভিউ হলে টিকটকে ভিডিও ভাইরাল হওয়া বলে ধরা হবে ?

সাধারণত যদি আপনার ভিডিওটি TikTok-এর মধ্যে 250,000 থেকে 1 million-এর মধ্যে ভিউ হয়ে থাকে, তাহলে ভিডিওটিকে ভাইরাল ভিডিও বলে ধরা হয়।

ফলোয়ার্স ছাড়া কি টিকটক ভিডিও ভাইরাল হওয়া সম্ভব ?

অবশই পারবেন। কেননা একটি টিকটক একাউন্টে কতটা ফলোয়ার্স রয়েছে সেটা দেখে TikTok algorithm ভিডিও গুলোকে বিতরণ করেনা। তাই, আপনি একেবারে কম সংখ্যক বা কোনো ফলোয়ার্স ছাড়াও টিকটকে ভিডিও ভাইরাল করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, আপনার টিকটক ভিডিও ভাইরাল হচ্ছেনা কেন এবং কি কি বিষয়ে নজর রাখলে TikTok-এ ভাইরাল হওয়া যাবে, এই বিষয়ে ভালো করে বুঝতেই পেরেছেন বলে আশা করছি। যেকোনো কাজে সফল হওয়ার জন্য কঠোর পরিশ্রম এবং দৃঢ়তার সাথে কাজ করতে হবে। একদিনেই তো আর সফলতা পাবেননা। তাই, নিয়মিত ভালো ভালো ভিডিও তৈরি করুন এবং নিজের TikTok একাউন্ট এর মধ্যে ধারাবাহিকভাবে পাবলিশ করতে থাকুন। সবাই যখন ভিডিও ভাইরাল করতে পারছেন তবে আপনিও পারবেন।

অবশই পড়ুন: Snapchat কি এবং একাউন্ট কিভাবে খুলবেন ?

2 thoughts on “আমার টিকটক ভিডিও ভাইরাল হয় না কেন ? কারণ ও সমাধান”

  1. Avatar

    ভাই রে ভাই, টেক ব্লগের ভিতরে এসব কি জগা খিচুড়ি শুরু করেছেন??

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top