কারেন্ট / বিদ্যুৎ বিল কমানোর উপায় গুলো কি কি ? (সেরা ১৫ টিপস)

বিদ্যুৎ বিল কমানোর উপায় : প্রত্যেক মাসেই হাতে মাইনে (salary) পাওয়ার আগেই, অধিক বেশি বিদ্যুৎ বিল আসার চিন্তা আমাদের মাথায় চলে আসে।

বিদ্যুৎ বিল কমানোর উপায়
How to reduce electricity bill in Bangla ?

তবে, সে তো আসবেই।

কেননা, বর্তমানে আমাদের ঘরে কেবল light বা fan ছাড়াও অন্যান্য বিভিন্ন ধরণের আধুনিক “electronic equipment” গুলো ব্যবহার করা হয়।

যেমন, refrigerator, inverter, AC (air conditioners), smart TV, microwave, induction cooktop, cooler ইত্যাদি আরো রয়েছে।

এই ধরণের আধুনিক উপকরণ গুলো অধিক বেশি বিদ্যুতিক শক্তি বা ইউনিট (unit) ব্যবহার করে থাকে।

যার ফলে, মাসের শেষে আমাদের হাতে চলে আসে অধিক বেশি কারেন্টের বিলের নথি-পত্র।

তাই, আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাদের বিদ্যুৎ বিল কমানোর উপায় বা বিদ্যুৎ বিল বেশি আসলে করণীয় কি এবিষয়ে বলবো।

ইলেকট্রিক / বিদ্যুৎ বিল কমানোর উপায় গুলো কি কি ?

বিদ্যুৎ বিল বেশি আসলে করণীয় এমনিতে তেমন কিছু আমাদের হাতে থাকছেনা।

কিন্তু, নিচে দেওয়া টিপস গুলো ব্যবহার করে আপনারা এটা অবশই বুঝতে পারবেন যে, পরের মাস থেকে কিভাবে বিদ্যুৎ বিল কমানো যাবে।

মনে রাখবেন, বিদ্যুৎ বিল বেশি আশার কারণ মূল কারণ হলো,

“অধিক বেশি পরিমানে ইলেকট্রনিক উপকরণ গুলোর ব্যবহার”. উপকরণের অধিক ও অনুপযুক্ত ব্যবহারের ফলেই অধিক ইউনিট বাড়তে থাকে।

আর তাই, কারেন্টের বিল কমানোর জন্য এই উপকরণ গুলোর সঠিক এবং উপযুক্ত ব্যবহারের বিষয়ে আপনার ভাবতেই হবে।

কিভাবে বিদ্যুৎ বিল কমানো যায় – (১৫ টি পরামর্শ)

  • বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম গুলোর সময়ে সময়ে সঠিক যাচাই (servicing).
  • Light এবং fan এর সঠিক ব্যবহার।
  • কেবল LED light এর ব্যবহার করবেন।
  • Solar panel ব্যবহার করুন। (৭৫% বিদ্যুৎ বিল কমানো যাবে)
  • Natural light এর লাভ নিতে হবে।
  • ব্যবহার না হওয়া অবস্থায় বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম গুলোকে unplugged রাখুন।
  • আধুনিক এবং নতুন মডেলের বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম গুলো ব্যবহার করুন।
  • Water heater এর ব্যবহার করা বন্ধ করুন।
  • Night lamp এর ক্ষেত্রে 2 wat এর led bulb ব্যবহার করুন।
  • AC ব্যবহার করার সময় সঠিক ধ্যান দিতে হবে।
  • Washing machine ব্যবহারের সঠিক ব্যবহার জানতে হবে।
  • Desktop PC বিপরীতে laptop এর ব্যবহার লাভজনক।
  • Refrigerators (fridge) এর সঠিক ব্যবহার।
  • Ceiling fan এর মধ্যে speed controller regulator ব্যবহার করে মোটরের গতি কম রাখুন।
  • রাতের ভাগে কাজ করলে table lamp / night এর ব্যবহার করুন।

তাহলে বন্ধুরা, এই কয়টি বিষয়ে ধ্যান দিয়ে থাকলে আপনার ঘরের কার্রেন্টের বিল তুলনামূলক ভাবে কম আসার সুযোগ রয়েছে।

How to reduce electricity bill ? (Tips in Bengali)

চলুন, এবার আমরা ওপরে বলা বিষয় গুলোর ওপরে বিস্তারিত ভাবে চর্চা করি।

১. বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম গুলোর সঠিক ভাবে যাচাই (servicing)

মনে রাখবেন, যেকোনো নতুন electrical appliances যেমন, fridge, washing machine, ইত্যাদি নতুন অবস্থায় যতটা energy efficient থাকে,

পুরোনো হয়ে যাওয়ার পর কিন্তু সে তেমন energy efficient থাকতে পারেনা।

ফলে, কার্যক্ষমতা কমে যাওয়ার সাথে সাথে অপ্রয়োজনীয় ও অত্যাধিক electricity এর ব্যবহার করে থাকে এই পুরোনো উপকরণ গুলো।

তাই, যতটা সম্ভব পুরোনো প্রত্যেক electrical appliances গুলোকে সময়ে সময়ে সার্ভিসিং করানোটা অনেক জরুরি।

এতে, আপনার উপকরণ গুলো আবার আগের মতোই কাজ করবে এবং যতটা বিদ্যুৎ প্রয়োজন ঠিক ততটাই বিদ্যুৎ ব্যবহার করবে।

এর ফলে, আপনার ইলেকট্রিক বিল অবশই কম আসার সুযোগ থাকছে।

২. Light এবং fan এর সঠিক ব্যবহার

হে, যদি আপনি নিজের electricity bill এর ওপরে নিয়ন্ত্রণ রাখতে চাচ্ছেন তাহলে অবশই আপনার এই বিষয়ে ধ্যান দিতে হবে।

আমি জানি আপনি কি ভাবছেন,

আপনি ভাবছেন যে, এখানে নতুন কথা কি আছে। তাই তো ?

তবে নতুন কথা হলো যে, যেভাবে খালি ঘর (room) থেকে বাইরে যাওয়ার সময় fan বা light বন্ধ না করার অভ্যেস আমাদের হয়ে গেছে,

ঠিক তার বিপরীত ভাবে, ঘর থেকে বের হওয়ার সময় প্রত্যেক বার light বা fan এর সুইচ (switch) বন্ধ করার অভ্যেস আমাদের করতে হবে।

এভাবে, প্রত্যেক দিন অল্প হলেও বিদ্যুতের সঞ্চয় করে সম্পূর্ণ মাসের মধ্যে কমেও প্রায় ১৫% কারেন্ট এর বিল কমানো সম্ভব।

৩. LED light এর ব্যবহার করবেন

LED light গুলো সাংঘাতিক ভাবে energy efficient, যার ফলে অন্যান্য light / bulb এর তুলনায় অনেক কম electricity এর ব্যবহার হয়ে থাকে।

এই ধরণের LED light গুলোকে এভাবে তৈরি করা হয়েছে, যাতে এগুলো কম থেকে কম তাপ (heat) উৎপাদন করে প্রচুর আলো দিয়ে থাকতে পারে।

আর যিহেতু, এই লাইট গুলোতে কম তাপ উৎপাদন হয়ে থাকে তাই তাপ উৎপাদনের ক্ষেত্রেও প্রচুর কম বিদ্যুতের ব্যবহার হয়ে থাকে।

তাই, LED light / bulb গুলোর ব্যবহার করলে, CFL light এর তুলনায় প্রায় ১৮% কারেন্ট এর ব্যবহার কমানো সম্ভব।

আর, কারেন্ট এর ব্যবহার কম হওয়া মানেই কারেন্ট বিল কম আসা।

৪. Solar panel ব্যবহার করুন 

হে, সোলার প্যানেল এর ব্যবহার করে আপনারা অনেক বেশি পরিমানে electricity bill কমিয়ে নিতে পারবেন।

তবে, এক্ষেত্রে আপনার প্রথমে কিছু টাকা খরচ করে একটি ভালো solar storage system / panel কিনে নিতে হবে।

একবার solar storage system কিনে নেওয়ার পর,

সূর্যের কিরণের শক্তির থেকে বিদ্যুৎ এর উৎপাদন হয়ে সেই বিদ্যুৎ, solar panel এর সাথে সংযুক্ত ব্যাটারিতে চলে আসে।

তারপর, ব্যাটারী থেকে inverter এবং inverter থেকে আপনার ঘরের electrical appliances গুলোতে বিদ্যুৎ ছড়িয়ে দেওয়া হবে।

এভাবেই, ঘরের ছাদে থাকা solar panel প্রত্যেক দিন সূর্যের কিরণের মাধ্যমে বিদ্যুৎ তৈরি করবে এবং সেই বিদ্যুৎ আপনারা ঘরে ব্যবহার করতে পারবেন।

তাই, এই ধরণের solar electricity storage system একবার কিনে নেয়ার পর, প্রত্যেক মাসে প্রায় ৭০% বিদ্যুৎ বিল কম আসার সুযোগ রয়েছে।

কারণ, আপনার সম্পূর্ণ ঘরে মূলত সোলার প্যানেল থেকে সংগ্রহ করা বিদ্যুৎ ব্যবহার হয়ে থাকবে।

৫. Natural light এর লাভ নিতে হবে

এবিষয়েও আপনার কিছুটা ভাবা অবশই দরকার।

দিনের ভাগে, ঘরের ভেতরে লাইট জালিয়ে রাখার অভ্যেস আপনার ভুলতে হবে।

যতটা সম্ভব জালনা-দরজা খুলে রাখুন এবং সূর্যের কিরণ ঘরের ভেতরে চলে আসতে দিন।

এতে, দিনের ভাগে ঘরে light জালানোর প্রয়োজন হবেনা আর বিদ্যুতের ব্যবহার কম হবে।

6. ব্যবহার না করা বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম গুলো আনপ্লাগ করুন 

হে, এভাবেও আমরা বিদ্যুতের অপ্রয়োজনীয় ব্যবহার কমিয়ে নিতে পারবো।

কেননা, যখন আমরা ব্যবহার না হয়ে থাকা বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম গুলোকে plug point এর মধ্যে plugged-in করে রাখি,

যেকোন, মোবাইলের চার্জার, ল্যাপটপের চার্জার, টিভি (TV), Dish TV box, ইত্যাদি, তখন সামান্য পরিমানের বিদ্যুতের ব্যবহার হতেই থাকে।

এভাবেই, অনেক সময় ধরে অনেক গুলো বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম গুলোর অপ্রয়োজনীয় ভাবে করা বিদ্যুতের ব্যবহার আপনার বিদ্যুৎ বিল বেশি আসার কারণ হতে পারে।

তাই, যখন কোনো ইলেকট্রনিক উপকরণ ব্যবহার করা হচ্ছেনা তখন অবশই সেগুলোকে unplugged করে রাখবেন।

এতে, সামান্য হলেও electricity bill এর ওপর কিছুটা পার্থক্য অন্তত দেখতেই পাবেন।

৭. আধুনিক এবং নতুন মডেলের বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম

আগেকার সময়ের বেশির ভাগ electronics গুলোকে energy efficiency ওপরে ধ্যান দিয়ে তৈরি করা হতোনা।

তাই, আগেকার পুরোনো মডেলের বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম গুলো আমাদের সুবিধে তো দিয়ে থাকে,

তবে বিপরীতে, বিদ্যুতের অন্যদিক ব্যবহার সেই appliances গুলো অবশই করে।

কিন্তু, বর্তমানের আধুনিক এবং উন্নত electronics, kitchen appliances ইত্যাদি গুলোকে তৈরি করার সময় energy efficiency র ওপরে প্রচুর ধ্যান দেওয়া হচ্ছে।

তাই, নতুন মডেলের AC, fridge, inverter, smart tv ইত্যাদি গুলোকে ব্যবহার করলেও, আগের মডেলের তুলনায় অধিক কম বিল ওঠার সম্ভাবনা প্রচুর।

এক্ষেত্রে, সব সময় নতুন মডেলের electronic item কেনার কথা ভাববেন যেগুলোতে energy efficiency নিয়ে প্রচুর ধ্যান দেওয়া হয়েছে।

৮. Water heater ব্যবহার করবেননা 

Water heater গুলো ব্যবহার করে আমরা বিভিন্ন কারণে জল গরম করে থাকি।

তবে, মনে রাখবেন যে এই ধরণের ওয়াটার হিটার গুলো জল গরম করার জন্য কেবল কিছু সেকেন্ডের মধ্যেই সাংঘাতিক ভাবে গরম হয়ে ওঠে।

এভাবে সাংঘাতিক ভাবে গড়ন হওয়ার ক্ষেত্রে এই হিটার গুলো  সাংঘাতিক বেশি পরিমানে বিদ্যুতের ব্যবহার করে থাকে।

তাই, আমি পরামর্শ দিবো যতটা সম্ভব ইলেকট্রিক / বিদ্যুৎ এর ব্যবহার করে জল গরম করবেননা।

আপনি একটি সাধারণ কাঠের চুলা বা গ্যাস স্টোভে জল গরম অবশই করে।

৯. Night lamp নিয়ে ভাবুন 

যদি আপনি রাতে ঘুমানোর সময় light lamp / night bulb ব্যবহার করেন,

তাহলে সেখানে অধিক বেশি wat এর power থাকা light ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই।

আপনার কেবল কিছুটা আলোর প্রয়োজন হয়ে থাকে, তাই কেবল ২ ওয়াট (2 wat) এর লাইট ব্যবহার করলেই হলো।

এবং, যতটা সম্ভব LED night bulb ব্যবহার করবেন।

১০. AC ব্যবহার করার সময় খেয়াল রাখুন 

যদি আপনার ঘরে এসি (AC) রয়েছে তাহলে অবশই অধিক বেশি কারেন্টের বিল আসার সমস্যা নিয়ে আপনি ভুগছেন।

তাই তো ?

তবে কিছু সাধারণ বিষয় নিয়ে খেয়াল রাখলে, এসির বিল কমানো যেতে পারে।

  • সময়ে সময়ে AC air filter সাফা করতে হলে। এতে, তাড়াতাড়ি cooling হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে।
  • যেই ঘরে এসি আছে সেই ঘর ভালো ভাবে insulated করে রাখতে হবে। যাতে, এসির ঠান্ডা গ্যাস বাইরে না যেতে পারে।
  • AC ব্যবহার করার সাথে সাথে ceiling fan ব্যবহার করুন। এতে, সম্পূর্ণ ঘরে ঠান্ডা ভাব ছড়ানোর জন্য এসির কষ্ট হবেনা।
  • সব সময় নতুন মডেলের energy efficient AC কেনার কথা ভাবুন। পুরোনো মডেলের এসি ব্যবহার করবেননা।
  • সময়ে সময়ে এসির maintenance করাতে ভুলবেননা।
  • ছোট ঘরের জন্য অধিক বেশি ton এর ac কিনবেননা। যত ছোট রুম ততই কম টনের এসি ব্যবহার করুন।
  • খেয়াল রাখবেন, আপনি যেই এসি কিনছেন তার star rating যত বেশি থাকবে সেই এসি ততটাই energy efficient. তাই, 5 star rating এসি কেনার চেষ্টা করুন।
  • Window AC গুলোর তুলনায় আধুনিক split AC গুলো আমার হিসেবে অধিক energy efficient.

তাহলে বুঝলেন, ইলেকট্রিক বিল বাঁচানোর ক্ষেত্রে এসি নিয়ে আপনার কোন কোন বিষয়ে ভাবা দরকার।

১১. Washing machine এর সঠিক ব্যবহার 

ঘরে যদি washing machine রয়েছে, তাহলে কিছু সাধারণ বিষয়ে ওপরে ধ্যান দিয়ে ওয়াশিং মেশিন এর দ্বারা হওয়া বিদ্যুৎ খরচ কমানো সম্ভব।

মনে রাখবেন, যখনি একসাথে অনেক কাপড় জমা হবে তখন একসাথে সব কাপড় গুলো ওয়াশ করবেন।

তাছাড়া, বর্তমানের আধুনিক washing machine গুলোতে কাপড় শেখানোর সুবিধা একসাথেই দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তবে, কখনো washing machine এর মধ্যে কাপড় সুখাবেননা।

এতে, মেশিন এর ভেতরে প্রচুর তাপের সৃষ্টি হয় এবং ফলে অনেক বিদ্যুৎ ব্যবহার হয়ে থাকে।

তাছাড়া, ব্যবহার হয়ে গেলে বা ব্যবহার করার আগেই washing machine চালিয়ে রাখবেননা।

Standby mode এ থাকলেও, সে প্রচুর বিদ্যুৎ ব্যবহার করতেই থাকে।

১২. ডেস্কটপ কম্পিউটারের জায়গায় ল্যাপটপ ব্যবহার করুন 

হে, কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ দুটোর মধ্যেই আলাদা আলাদা সুবিধে রয়েছে।

তবে, যখন কথা চলে আসছে যে, “কিভাবে বিদ্যুৎ বিল কমানো যাবে” তখন ল্যাপটপ ব্যবহার করার পরামর্শ আমি দিবো।

কারণ দেখুন, কম্পিউটার আপনি যত সময় ব্যবহার করবেন ঠিক ততটুকু সময় তাকে সরাসরি বিদ্যুতের সাথে সংযুক্ত করে রাখতে হবে।

কিন্তু ল্যাপটপের ক্ষেত্রে,

আপনি একবার ফুল চার্জ দিয়ে প্রায় ৩ থেকে ৪ ঘন্টা সরাসরি বিদ্যুৎ ছাড়া তার মধ্যে থাকা rechargeable battery মাধ্যমে তাকে ব্যবহার করতে পারবেন।

আবার চার্জ দিয়ে আবার ৩ থেকে ৪ ঘন্টা ব্যবহার করতে পারবেন।

এভাবে, ল্যাপটপের মাধ্যমে আপনারা ঘন্টার পর ঘন্টা কাজ করতে পারবেন এবং প্রায় প্রচুর বিদ্যুৎ বিল বাঁচাতে পারবেন।

১৩. Refrigerator এর ব্যবহার 

যদি আপনার ঘরে fridge রয়েছে তাহলে অবশই কিছু সাধারণ বিষয়ে ধ্যান দেওয়াটা জরুরি।

ফ্রিজ এর cooling এর ক্ষমতা medium হিসেবে সেট করে রাখুন।

এতে, সামান্য ভাবে ফ্রিজ ঠান্ডা হতে থাকবে এবং এর সাথে কম বিদ্যুৎ এর  ব্যবহার হবে।

একেবারে গড়ন খাবার ফ্রিজ এর মধ্যে রাখবেননা, আগে যেকোনো খাবার বাইরে ঠান্ডা করে তারপর সেটাকে ফ্রিজ এর মধ্যে রাখুন।

শেষে, বার বার ফ্রিজ খোলার থেকে বাঁচুন।

যত বেশি পরিমানে ফ্রিজ খুলবেন ততটাই বেশি গরম হাওয়া ফ্রিজে ঢুকবে বা ফ্রিজ এর ভেতর ঠান্ডা রাখার গ্যাস বাইরে বেরিয়ে আসবে।

ফলে, ফ্রিজ এর ভেতর ঠান্ডা রাখার ক্ষেত্রে ঠান্ডা করার গ্যাস ছাড়া হবে, যার কারণে আবার অধিক বিদ্যুতের ব্যবহার হয়ে থাকবে।

১৪. Fan এর speed regulator ব্যবহার করুন 

আমাদের ঘরে থাকা ceiling fan গুলো প্রায় সব সময় চলতে থাকে।

এবং, ফ্যান এর মোটর এর দ্রুততা যত বেশি থাকবে ততটাই বেশি বিদ্যুৎ ব্যবহার করে থাকবে আপনার ফ্যান।

তাই, ঘরের সিলিং ফ্যান গুলোতে স্পিড কন্ট্রোল করার ক্ষেত্রে রেগুলেটর (regulator) অবশই ব্যবহার করবেন।

এতে, আপনি নিজের প্রয়োজন হিসেবে ফ্যান এর দ্রুততা কমিয়ে নিতে পারবেন।

এর সাথেই, ফ্যান এর মাধ্যমে হওয়া বিদ্যুতের ব্যবহার কমিয়ে কিছু বিদ্যুৎ বিল সেভ করে নিতে পারবেন।

১৫. Night table light এর ব্যবহার 

যদি রাতের ভাগে আপনার কাজ থাকে তাহলে একটি কম power এর table lamp ব্যবহার করুন।

এতে, সম্পূর্ণ ঘরের লাইট জালানোর প্রয়োজন হবেনা এবং আপনার কাজ ও হয়ে যাবে।

এভাবে, আপনি প্রত্যেক দিন কিছু হলেও লাইট এর মাধ্যমে হওয়া বিদ্যুতের ব্যবহার কমিয়ে নিতে পারবেন।

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, প্রত্যেক দিন ছোট ছোট কিছু অভ্যেস এবং সাধারণ ক্রিয়াকলাপ এর মাধ্যমে, অধিক পরিমানে আসা আপনার electricity bill কমাতে পারবেন।

বিদ্যুৎ বিল কমানোর এই ছোট ছোট টিপিস গুলো ফলো করে সম্পূর্ণ মাসের মধ্যে প্রায় প্রচুর টাকা সেভ করতে পারবেন।

যখন অধিক কারেন্ট বিল চলে আসে তখন আমরা ভাবি যে, হঠাৎ বিদ্যুৎ বিল বেশি আসার কারণ কি হতে পারে।

তবে হঠাৎ নয়,

প্রত্যেক দিন সাধারণ পরিমানে হওয়া অতিরিক্ত এবং অপ্রয়োজনীয় বিদ্যুতের ব্যবহার গুলো, মাসের শেষে সাংঘাতিক বড় ব্যবহারে রূপান্তর হয়ে যায়।

তাই, যদি আপনি নিজের ঘরে হওয়া মোট বৈদ্যুতিক খরচ কমাতে চাচ্ছেন, তাহলে ওপরে বলা এই ছোট ছোট বিষয় গুলোতে নজর অবশই দিন।

আমার সবসমই এটাই চেষ্টা রয়েছে, আমি যাতে আপনাদের সম্পূর্ণ কাজে আসা তথ্য দিয়ে থাকতে পারি।

তাই, আর্টিকেলটি কিরকম লাগলো সেটা কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

 

1 thought on “কারেন্ট / বিদ্যুৎ বিল কমানোর উপায় গুলো কি কি ? (সেরা ১৫ টিপস)”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap