কম্পিউটার হার্ডওয়্যার কি : বন্ধুরা, আপনাদের মধ্যে প্রায় অনেকেই একটি কম্পিউটার ও ল্যাপটপ (computer & laptop) প্রায় প্রত্যেক দিন নিজের ঘরে, স্কুল বা অফিসে ব্যবহার করছেন। কিন্তু, আপনারা কি জানেন এই কম্পিউটারের মূলত দুটি ভাগ (parts) রয়েছে। একটি হার্ডওয়্যার (hardware) ও আরেকটি সফটওয়্যার (software).

কম্পিউটার হার্ডওয়্যার কাকে বলে ?

Computer software, যাকে অনেক সময় computer programs ও বলা হয়। আমরা নিজের কম্পিউটারে আলাদা আলাদা কাজ বা প্রোগ্রামের জন্য আলাদা আলাদা সফটওয়্যার ব্যবহার করি।

যেমন, কম্পিউটারে ভিডিও দেখার জন্য, একটি video player software ব্যবহার করা। ফটো এডিট করার জন্য “Photoshop” সফটওয়্যার এর ব্যবহার, অফিসিয়াল কাজের জন্য, MS excel, PowerPoint, MS word এর ব্যবহার, কম্পিউটারের OS (Windows ৭, ৮, ১০ বা MAC OS), এগুলি সব এক একটি কম্পিউটার সফটওয়্যার।

কিন্তু, একটি কম্পিউটারে সফটওয়্যারের ভূমিকা যতটাই বেশি, ততটাই বেশি ভূমিকা হার্ডওয়্যার এর ও রয়েছে। হার্ডওয়্যার (Hardware) এর ব্যবহার ছাড়া কম্পিউটারের ব্যবহার করতে পারাটা কিন্তু অসম্ভব।

ভাবুনতো দেখি, যদি আপনি নিজের কম্পিউটারে MS-excel এ একটি ফাইল বানাতে চান তাহলে কি “keyboard” ছাড়া সেটা সম্ভব ?

Photoshop এর ব্যবহার করার সময় যদি mouse এর ব্যবহার না করেন, তাহলে photo edit কিভাবে করবেন ?

তাছাড়া, কম্পিউটারে যদি একটি Hard Disk (storage device) না থাকে, তাহলে বিভিন্ন ফাইল কম্পিউটারে কিভাবে সেভ (save) ও স্টোর (store) করে রাখতে পারবেন ?

অসম্ভব তাই তো ?

কম্পিউটারের keyboard, mouse, CPU, UPS, monitor, Hard Disk, mother board বা sound system, সবটাই একটি একটি কম্পিউটার হার্ডওয়্যার।

এবং, হার্ডওয়্যার ছাড়া একটি কম্পিউটারে কোনো ধরণের কাজ করাটা সম্ভব না।

তাছাড়া, কিছু বিশেষ ও প্রয়োজনীয় হার্ডওয়্যার ছাড়া তো কম্পিউটার চালু পর্যন্ত হবেনা। যেমন, CPU বা RAM.

হার্ডওয়্যার ছাড়া, একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপের কল্পনা করাটা অসম্ভব।

তাহলে, চলুন সোজা সজি জেনেনেই যে, “কম্পিউটার হার্ডওয়্যার কি” (What Is A Computer Hardware In Bangla).

কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার কি বা কাকে বলে ?

Hardware, কম্পিউটারের এমন একটি অংশ, যাকে আমরা নিজের চোখ দিয়েও দেখতে পারি এবং physically নিজের হাত দিয়ে ধরতেও পারি। যেমন, কম্পিউটারের CPU, mouse, keyboard বা monitor, এগুলি সবটাই computer hardware যেগুলি আমরা দেখতেও পারি ও হাত দিয়ে স্পর্শ করতে পারি।

তাছাড়া, একটি কম্পিউটার হার্ডওয়্যার, CPU তে থাকা বিভিন্ন electronic components গুলিকেও বলা যেতে পারে। যেমন, বিভিন্ন IC, circuit board বা অন্য অনেক ধরণের electronic parts বা components গুলি।

হার্ডওয়্যার কে এই “HARD” নাম এজন্যই দেয়া হয়েছে, কারণ একটি হার্ডওয়্যার বদলানো বা অদলবদল (modification) করাটা অনেক হার্ড (hard) বা কষ্টকর।

এবং, অন্যদিকে software কে “Soft” নাম এজন্যই দেয়া হয়েছে কারণ একটি সফটওয়্যার বদলানো বা আপডেট (update) করাটা অনেক সহজ।

একটি হার্ডওয়্যারকে সঠিক ভাবে কাজ করার জন্য সঠিক সফটওয়্যার এর প্রয়োজন। হার্ডওয়্যারে সম্পাদন করা যেকোনো command বা instructions, তার সফটওয়্যার দ্বারাই পরিচালিত (direct) করা হয়।

সোজা ভাবে বললে, একটি হার্ডওয়্যারকে কাজ করানোর জন্য প্রথমে software দ্বারা নির্দেশ (instructions) দিতে হবে।

উদাহরণ স্বরূপে,

যদি আপনি নিজের কম্পিউটারে গান শুনতে চাচ্ছেন, তাহলে কম্পিউটারের স্পিকারে (speaker) গান নিজে নিজেই চলবেনা।

প্রথমেই আপনার যেকোনো গান, একটি video বা audio player software (VLC, Gom player, Windows media player) এ চালাতে হবে। কেবল তারপরেই, আপনার audio device বা speaker (যেটা একটি হার্ডওয়্যার) এ গান শোনা যাবে।

হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যারের সঠিক মিশ্রনের ফলেই একটি ব্যবহার যোগ্য কম্পিউটিং সিস্টেম (computing system) তৈরি হয়।

কম্পিউটার হার্ডওয়্যারের প্রকার কতটি ও কি কি ?

এমনিতে যদি আপনার কম্পিউটার এবং ল্যাপটপের কথা বলি, তাহলে দুটোই ডিভাইস প্রায় একি রকমের এবং দুটোতেই এক ধরণের হার্ডওয়্যার ব্যবহার করা যেতে পারে।

কেবল পার্থক্য এটাই যে, ল্যাপটপের বিভিন্ন হার্ডওয়্যার পার্ট গুলি একসাথেই থাকে কিন্তু desktop computer এ আলাদা আলাদা থাকে।

Different types of computer hardware (হার্ডওয়্যার এর প্রকার)

এমনিতে, হার্ডওয়্যার এর বিভিন্ন রকমের অনেক প্রকার রয়েছে। এবং, সব গুলির ব্যাপারে একসাথে বলাটা সম্ভন না।

তাই, নিচে আমি প্রয়োজনীয় এবং সহজে যেকোনো কম্পিউটারে দেখতে পাওয়া কিছু হার্ডওয়্যার এর বিষয়ে আপনাদের বলে দিচ্ছি।

কম্পিউটারের কিছু ইন্টারনাল (internal) হার্ডওয়্যার ডিভাইস 

প্রথমে আমি নিচে এমন কিছু computer hardware components এর বিষয়ে বলবো, যেগুলি একটি কম্পিউটারের ভেতরেই আপনারা দেখতে পাবেন।

১. Motherboard :

এই computer motherboard আপনার সিস্টেমের CPU cabinet এর ভেতরে থাকে। এবং, motherboard হলো কম্পিউটারের circuit board যেখানে অন্য সব ধরণের জরুরি components লাগানো থাকে। এবং বিভিন্ন অন্য hardware components একটি connector এর দ্বারা এখানে সংযোগ করতে হয়।

২. Central processing unit (CPU) :

CPU বা central processing unit কে একটি কম্পিউটারের brain বোলে বলা হয়। CPU একটি কম্পিউটারের মুখ্য এবং গুরুত্বপূর্ণ অংশ। CPU দাড়াই কম্পিউটারে সব রকমের কম বা প্রসেস (process) সম্পন্ন করা হয়।

এই CPU কে অনেক সময় “Processor” বলেও বলা হয়। এবং, একটি কম্পিউটারের “motherboard” এ CPU ইনস্টল (install) করা থাকে।

৩. Random access memory (RAM)

RAM যার পুরো নাম, random access memory, হলো এক ধরণের physical hardware যেটা কম্পিউটারের motherboard এ লাগানো থাকে।

RAM এর কাজ হলো, কম্পিউটারে বর্তমানে সম্পন্ন হওয়া বিভিন্ন program ও data গুলিকে অস্থায়ী ভাবে (temporarily) জমা (save) করে রাখে। যত বেশি পরিমানে RAM আপনার কম্পিউটারে থাকবে, কম্পিউটারের কর্মক্ষমতা ও স্পিড বাড়বে।

৪. Power supply unit (PSU) :

Power supply (PSU) বা SMPS আপনার কম্পিউটারের কেবিনেটের ভেতরে থাকা এমন এক হার্ডওয়্যার এর প্রকার, যেটা না থাকলে কম্পিউটার স্টার্ট (start) হওয়াটা অসম্ভব।

কারণ, একটি power supply বা SMPS কম্পিউটার ও motherboard এর সব আলাদা আলাদা অংশতে বৈদ্যুতিক শক্তি (electrical power) প্রদান করে।

৫. Hard drive / disk :

একটি hard drive হলো কম্পিউটারের স্টোরেজ সিস্টেম। মানে, আমরা কম্পিউটারে যেগুলি files, games, movies, data রাখি, সেগুলি সব কম্পিউটারের hard disk বা hard drive এ স্টোর হয়ে থাকে।

তাই, hard disk কে একটি কম্পিউটারের storage system বলা হয়। একটি হার্ড ডিস্ক বিভিন্ন সাইজের হতে পারে। যেমন, ১৬০ জিবি, ৩২০ জিবি, ৫০০ জিবি বা ১ টিবি।

৬. Optical Drive

Optical drive গুলির কাজ হলো ডাটা বা ফাইল সংগ্রহ কোরে কম্পিউটারের স্টোরেজে বা হার্ড ড্রাইভে স্টোর করা। যেমন, DVD বা CD ড্রাইভের মাধ্যমে, কম্পিউটারে একটি CD বা DVD disc ঢুকিয়ে আমরা বিভিন্ন ডাটা বা ফাইল সংগ্রহ করতে পারি।

এই ধরণের হার্ডওয়্যার বা অপটিক্যাল ড্রাইভ কিছুদিন আগে প্রচুর পরিমানে ব্যবহার করা হতো। কিন্তু, বর্তমানে এর জায়গায় pen-drive বা USB flash drive অধিক ব্যবহার করা হচ্ছে।

৭. GPU (Graphics card) :

এই ধরণের “internal computer hardware” ব্যবহার করা হয়, কম্পিউটারের গ্রাফিক্স (graphics) এবং ডিসপ্লে (display) কোয়ালিটি অধিক ভালো বানানোর জন্য।

একটি ভালো GPU (graphics processing unit) আপনার সিস্টেমের images, videos, animation বা গেম এর গ্রাফিকস এর কোয়ালিটির অধিক ভালো করে দিতে পারে।

আপনার কম্পিউটারের motherboard এ একটি graphic card slot থাকে, যেখানে আপনারা আলাদা ভাবে উন্নতমানের একটি graphic card লাগিয়ে নিতে পারেন।

এমনিতে, প্রায় CPUর সাথে একটি ইন্টারনাল গ্রাফিক্স আগের থেকেই দিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু, সেই inbuilt graphics এর কোয়ালিটি তেমন ভালো থাকেনা।

কম্পিউটারের কিছু এক্সটার্নাল (external) হার্ডওয়্যার ডিভাইস 

এখন আমি আপনাদের কম্পিউটারের কিছু এক্সটার্নাল হার্ডওয়্যার ডিভাইস গুলির ব্যাপারে বলবো। এই external hardware গুলি, আমাদের আলাদা ভাবে বাইরের থেকে CPU তে লাগাতে হবে।

১. Keyboard & mouse :

Keyboard এবং mouse এর ব্যাপারে আমরা সবাই জানি। এই দুটি এমন এক্সটার্নাল হার্ডওয়্যার যেগুলি ছাড়া একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ব্যবহার করাটা অসম্ভব।

কম্পিউটারে কিবোর্ডের ব্যবহার কোরে আমরা text বা অন্য characters, এর বিভিন্ন প্রোগ্রামে লিখতে পারি।

Mouse এমন এক অসাধারণ এক্সটার্নাল হার্ডওয়্যার যেটাকে একটি “pointer” বলেও বলা যেতে পারে। মাউসকে নিজের হাত দিয়ে পরিচালনা (operate) করতে হয়।

পুরো কম্পিউটারের সব ধরণের প্রোগ্রাম গুলি, নিয়ন্ত্রণ করার জন্য এবং প্রোগ্রাম গুলিকে নির্দেশ দেয়ার জন্য, মাউস (mouse) নামের hardware component টির ব্যবহার করতেই হবে।

২. Monitor (display unit) :

Computer Monitor ব্যবহারের ফলে আমরা আমাদের কম্পিউটারের সব ধরণের output নিজের চোখে দেখতে পাই। মানে, ধরুন আমরা কম্পিউটারে একটি ভিডিও এডিট করছি বা MS excel এ কিছু কাজ করছি।

যদি আমরা আমাদের কাজের প্রক্রিয়া চোখে দেখতেই না পারি, তাহলে কাজ করবো কিভাবে।

তাই, মনিটরের (monitor) ব্যবহারের ফলে আমরা আমাদের কম্পিউটারের প্রোগ্রাম গুলির মাধ্যমে করা সব ধরণের প্রক্রিয়া চোখে দেখতে পারি। মনিটরের গঠন এবং কাজ প্রায় পুরোটাই TV মতোই।

৩. Speakers :

কম্পিউটারে আমরা আলাদা ভাবে speakers বা sound system লাগিয়ে শব্দ শুনার জন্য ব্যবহার করতে পারি।

Speakers হলো কম্পিউটারের এক output device যেটা একটি এক্সটার্নাল হার্ডওয়্যার। এবং, গান শুনার সময়, ভিডিও দেখার সময় বা গেম খেলার সময় এই speakers গুলি আমাদের sound শুনতে সাহায্য করে।

৪. Printers :

Printer হলো একটি output device যাকে external HW. এর ভেতরে ধরা হয়। এই, হার্ডওয়্যার ব্যবহার কোরে, আমরা কম্পিউটারের থেকে ডাটা (data), ছবি (images), লেখন (text) কাগজের মাধ্যমে ছেপে (print) সেগুলির output নিতে পারি।

প্রিন্টারের মাধ্যমে, ডাটার আউটপুট নেয়াটা অনেক সহজ এবং দ্রুত প্রক্রিয়া।

৫. External flash drive :

একটি flash drive হলো, ছোট্ট এবং সহজে যেকোনো জায়গায় নিয়ে যেতে পাড়া এক ধরণের storage device যার কাজ hard disc এর মতোই। একটি Hard drive কম্পিউটারের CPU র ভেতরে লাগানো থাকে এবং যেটাকে তার জায়গার থেকে সরানো যায়না।

তবে, এই flash drive গুলি ব্যবহার করে, আপনারা যেকোনো কম্পিউটার থেকে files, data, movies বা games copy করে নিতে পারবেন, এবং তারপর অন্য যেকোনো কম্পিউটারে সেই ডাটা বা ফাইল গুলি transfer করতে পারবেন।

Flash drive গুলি, বিভিন্ন storage size এর পাওয়া যায়। যেমন, ৮ জিবি থেকে ৬৪ জিবি বা আরো বেশি।  কিছু কিছু 3.0 USB flash drive, আপনারা ২ টিবি অব্দি সাইজের পেয়ে যাবেন।

কম্পিউটারের CPU তে থাকা USB port এর মাধ্যমে এই ফ্ল্যাশ ড্রাইভ গুলি লাগাতে হয়।

এই ধরণের কম্পিউটার হার্ডওয়্যার অনেক জনপ্রিয় ও লোকেদের মধ্যে প্রচলিত।

 হার্ডওয়্যার আপগ্রেড (hardware upgrade) মানে কি ?

যখন আমাদের কম্পিউটারে থাকা বিভিন্ন হার্ডওয়্যার অংশ গুলি খারাপ হয়ে যায় বা কম ক্ষমতার হার্ডওয়্যার সরিয়ে অধিক ক্ষমতার নতুন হার্ডওয়্যার লাগানো হয়, তখন এই প্রক্রিয়াকেই “Hardware upgrade” বলা হয়।

Hardware upgrade, বেশিরভাগ লোকেরাই তাদের কম্পিউটারের performance, speed এবং ক্ষমতা বাড়িয়ে নেয়ার জন্য করেন।

উদাহরণ স্বরূপে, 

ধরুন আমার কম্পিউটারে ৪ জিবি রেম (RAM) লাগানো আছে। এখন, আমি যদি নিজের কম্পিউটারের performance বৃদ্ধি করার জন্য, আরো একটি ৪ জিবি রেম (RAM) বা একটি সম্পূর্ণ ৮ জিবি রেম সিস্টেমে লাগিয়ে নেই, তাহলে এই প্রক্রিয়াকেই “হার্ডওয়্যার আপগ্রেড” বলা হয়।

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার কি (What Is Computer Hardware In Bangla) এবং হার্ডওয়্যার এর বিভিন্ন প্রকারের বিষয়ে হয়তো আপনারা সবটাই বুঝে গেছেন। যদি, আপনাদের কোনো রকমের প্রশ্ন বা সমস্যা থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাকে জিগেশ অবশই করুন।

Related Contents: