ডেস্কটপ কম্পিউটার না ল্যাপটপ ? কোণটা কিনব এবং কেন

এমনিতে, প্রায় বেশিরভাগ লোকেরা নিজেদের ঘরে ঘরে এবং অফিসে একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার ব্যাবহার করাটা লাভজনক ও সুবিধা জনক বলে মনে করেন।

তবে, একটি ল্যাপটপ ব্যাবহার করার জনপ্রিয়তা ও প্রচলন দিনে দিনে বেড়ে জাওয়ার ব্যাপারটা কিন্তু আমরা প্রত্যেকেই জানি।

কাড়ন, একটি ল্যাপটপ ব্যাবহার করার জা জা সুবিধে রয়েছে, সেগুলির দিকে লোকেরা আজ অবশই চোখ দিচ্ছেন।

তাই, আপনি যদি নিজের ঘর বা অফিসে কাজ করার জন্য কোণটা কেনা ভাল হবে শেই ব্যাপারে ভাবছেন, “ডেস্কটপ কম্পিউটার না ল্যাপটপ“, তাহলে এই আর্টিকেলে আপনারা নিজের প্রশ্নের উত্তর সহজ ভাবেই পেয়ে যাবেন।

Desktop Computer না laptop কোণটা ভালো বা কোণটা কিনবেন ? ডেস্কটপ কম্পিউটারের লাভ কি কি এবং ল্যাপটপের কি কি লাভ রয়েছে, তাছাড়া ল্যাপটপ ও কম্পিউটারের সুবিধা এবং অসুবিধা গুলি কি কি, শেই শব ব্যাপারে আমি আপনাদের বলব।

তাই, শেসে আপনারা ভালো করে বুঝে যাবেন যে, একটি কম্পিউটার না ল্যাপটপ, কোণটা আপনার জন্য ভালো হবে।

ডেস্কটপ কম্পিউটার না ল্যাপটপ – কোণটা ভালো এবং কেন ?

যা, আমি ওপরে বললাম, ল্যাপটপ না কম্পিউটার এই দুটির মধ্যে কোণটা কিনবেন, এই প্রশ্নের উত্তরটি যানার জন্য, আপনার প্রথমেই জানতে হবে “কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ কি” তাছাড়া “কম্পিউটার এবং ল্যাপটপের মধ্যে কি কি পার্থক্য রয়েছে“।

শেসে, কম্পিউটার এবং ল্যাপটপের সুবিধে ও অসুবিধের ব্যাপারে জানার পড়েই, কোণটা আপনার জন্য ভালো হবে, শেটা আপনি ঠিক করতে পারবেন।

ডেস্কটপ কম্পিউটার মানে কি ? (What Is A Desktop Computer)

একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার হলো এক রকমের ডিভাইস (Device) যেটা বিভিন্ন digitalized data র মাধ্যমে information গ্রহণ করে শেসে বিভিন্ন program, software বা process ব্যবহার করে আমাদের সমাধান দেয়।

একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার সম্পূর্ণ ভাবে কাজ করার জন্য, বিভিন্ন অংশের প্রয়োজন।

এই অংশ গুলিকে external hardwareinternal hardware বলা হয়।

তবে, এই হার্ডওয়্যার পার্টস গুলি ল্যাপটপেও পাওয়া যায় যদিও, ল্যাপটপের ক্ষেত্রে সবটাই একসাথে লাগানো থাকে।

এতে, ল্যাপটপের ক্ষেত্রে আপনার অধিক জায়গার প্রয়োজন নেই।

কিন্তু, ডেস্কটপ কম্পিউটারের ক্ষেত্রে, সব হার্ডওয়্যার গুলি আলাদা ভাবে CPU cabinet এর ভেতরে থাকে।

তাছাড়া, ডিসপ্লে পাওয়ার জন্য monitor scree ও আলাদা ভাবেই থাকবে।

ফলে, আপনার অধিক বেশি জায়গার প্রয়োজন এবং যেকোনো একটি জায়গায় স্থায়ী ভাবে রাখতে হবে এই ধরণের ডেস্কটপ পিসি।

সাধারনে, desktop computer রাখার জন্য আপনার একটি table বা desk এর প্রয়োজন।

তাই, এই ধরণের personal computer গুলিকে desktop computer বলা হয়।

Gaming করার জন্য gamer রা বেশির ভাগ এই ধরণের desktop PC ব্যবহার করেন। তাছাড়া, অফিসে এই ধরণের কম্পিউটার অধিক ব্যবহার করা হয়।

তাহলে, ডেস্কটপ কম্পিউটার কি, সেটা হয়তো আপনারা ভালো করে বুঝে গেছেন।

ল্যাপটপ মানে কি ? (What Is A Laptop)

ল্যাপটপ (laptop) বা ল্যাপটপ কম্পিউটার এমন এক portable computer device যেটা সম্পূর্ণ ভাবে desktop computer এর মতোই সমান ভাবে কাজ করে।

এটাও একটি personal computer বা PC যেগুলিকে অনেক ক্ষেত্রে notebook PC বলা হয়।

একটি ল্যাপটপের ক্ষেত্রে, এর সব ধরণের হার্ডওয়্যার পার্টস একসাথে লাগানো থাকে।

যেমন, ডিসপ্লে দেখার জন্য LCD screen, keyboard, mouse board এবং battery সবটাই একসাথে থাকবে।

এতে, আপনি আপনার laptop pc যেকোনো জায়গায় নিয়ে গিয়ে সহজে ব্যবহার করতে পারবেন এবং ব্যবহারের জন্য আপনার অধিক জায়গার প্রয়োজন হবেনা।

Desktop computer এর তুলনায় laptop গুলির screen size তুলনামূলক ভাবে ছোট থাকে।

তাই, laptop আপনি যেকোনো জায়গায় নিয়ে গিয়ে বা ভ্রমণ করার সময় ব্যবহার করতে পারবেন।

তাহলে, ল্যাপটপ মানে কি সেটা হয়তো আপনারা বুঝে গেছেন।

ডেস্কটপ কম্পিউটারের সুবিধে কি কি ?

১. Upgrade Hardware anytime

এই ধরণের Desktop Pc র সব থেকে লাভজনক বিষয়টি হলো “এখানে সহজে আপগ্রেড সম্ভব“.

মানে, যেকোনো সময় আপনি আপনার কম্পিউটারের যেকোনো অংশ বা হার্ডওয়্যার চেঞ্জ (change) করে বা যোগ করে আরো উন্নত হার্ডওয়্যার লাগিয়ে নিতে পারবেন।

উদাহরণ স্বরূপে, আপনি চাইলে অনেক সহজে বাজার থেকে hard disc কিনে এনে, নিজের কম্পিউটারের storage space অধিক পরিমানে বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

এভাবেই, RAM বৃদ্ধি করা, উন্নত মানের প্রসেসর (processor) লাগানো বা ভালো মানের monitor screen লাগানো, Graphics card লাগানো, সবটাই আপনি সময়ে সময়ে নিজের হিসেবে লাগিয়ে ও বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

২. Possible to use larger display screen

Desktop PC গুলি ব্যবহার করলে, আপনারা অধিক বড়ো মানের ডিসপ্লে স্ক্রিন (display screen) ব্যবহার করতে পারবেন।

বিশেষ ভাবে, গেম খেলার জন্য gamer রা এবং video editing এর কাজ করার জন্য বা অন্য বিভিন্ন উদ্দেশ্যে লোকেরা একটি বড়ো ২২ ইঞ্চি বা তার থেকেও বেশি বড়ো LCD / LED monitor screen ব্যবহার করার কথা ভাবেন।

তাই, এই ক্ষেত্রে আপনি যদি নিজের প্রয়োজন হিসেবে একটি বড়ো স্ক্রিন ব্যবহার করতে চাচ্ছেন, তাহলে সেটা কেবল desktop computer এর ক্ষেত্রে সম্ভব।

৩. Cheaper than laptops & tablets

ডেস্কটপ কম্পিউটার পিসি, আপনারা ল্যাপটপ বা ট্যাবলেটের তুলনায় অনেক কম টাকা খরচ করেই কিনে নিতে পারবেন।

হে, আপনি যেই hardware configuration এর লেপ্টপন ৪০ হাজার টাকায় পাবেন, সেই একি hardware configuration এর ডেস্কটপ কম্পিউটার প্রায় ২৫ হাজার থেকে ৩০ হাজার টাকার ভেতরেই কিনে নিতে পারবেন।

তাই, মনে রাখবেন যে, laptop বা tablet গুলির তুলনায় একই ক্ষমতার desktop computer গুলির দাম অনেক কম।

৪. Can be assembled as per needs

আপনার বাজেট (budget) এবং প্রয়োজন হিসেবে হার্ডওয়্যার একত্রিত (assemble) করে একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার তৈরি করা সম্ভব।

এতে, আপনার কাজের বা প্রয়োজনের হিসেবেই টাকা খরচ করতে হয়।

যেগুলি জিনিস বা হার্ডওয়্যার এর আপনার প্রয়োজন নেই, সেগুলিতে অপ্রয়োজনীয় টাকা খরচ করার প্রয়োজন হয়না।

উদাহরণ স্বরূপে,

আপনি যদি অফিসিয়াল কাজের জন্য কম্পিউটার কেনার কথা ভাবছেন, সাধারণ কাজ করা, ইন্টারনেট ব্যবহার করা, সিনেমা দেখা এই ধরণের কাজ করবেন বলে ভাবছেন, তাহলে আপনার অধিক শক্তিশালী processor, RAM, Storage device বা graphics card লাগানোর কোনো প্রয়োজন নেই।

আপনি সোজা, নিজের প্রয়োজন হিসেবে processor, RAM , Storage space বা graphics card সহ কম্পিউটার সেট তৈরি করে প্রচুর টাকা বাঁচিয়ে নিতে পারবেন।

একটি ডেস্কটপ পিসি তৈরি করার সময় আপনি সম্পূর্ণ ভাবে নিজের প্রয়োজন হিসেবে হার্ডওয়্যার লাগিয়ে নিতে পারবেন।

কিন্তু, একটি ল্যাপটপের ক্ষেত্রে এটা অসম্ভব।

Desktop PC র ক্ষেত্রে এটা এক অনেক গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা ও লাভ।

তাহলে বন্ধুরা, ডেস্কটপ কম্পিউটারের সুবিধা ও লাভ কি কি সেটা হয়তো আপনারা ভালো করে বুঝে গেছেন।

ল্যাপটপের সুবিধে কি কি ?

১. Easy to carry 

যদি আপনি যেকোনো জায়গা থেকে নিজের কাজ করতে চান, তাহলে ল্যাপটপ (laptop) আপনার জন্য অনেক কাজের।

Laptop এর এই সুবিধা ও লাভ অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

আপনি আপনার ল্যাপটপ অনেক সহজে যেকোনো জায়গায় নিয়ে যেতে পারবেন এবং কাজ করতে পারবেন।

২. Battery for backup 

আপনারা অবশই জানেন, যেকোনো ল্যাপটপে ব্যাটারী (Battery) অবশই থাকে এবং সেই ব্যাটারির সাহায্যে, বিদ্যুৎ (electricity) ছাড়াই আপনারা ল্যাপটপ ব্যবহার করতে পারবেন।

একটি ল্যাপটপের এটাই এক অনেক গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা ও লাভ।

এবং, এই একটি সুবিধার জন্যই আজকাল লোকেরা ল্যাপটপ (laptop) কেনার কথা ভাবেন।

Laptop এর ভেতরে থাকা ব্যাটারী আপনারা চার্জে (charge) দিয়ে ল্যাপটপ ব্যবহার করতে পারবেন।

পরে ব্যাটারী চার্জ হয়ে গেলে, প্রায় ৬ থেকে ১০ ঘন্টা electricity ছাড়াই ল্যাপটপ ব্যবহার করতে পারবেন।

আলাদা আলাদা ল্যাপটপের আলাদা আলাদা ব্যাটারী ব্যাকআপ (battery backup) ক্ষমতা থাকে।

৩. Stylish & slim 

ল্যাপটপের অধিক প্রচলনের বা জনপ্রিয়তার কারণ হলো, ল্যাপটপ গুলি দেখতে অনেক সুন্দর হয় এবং অনেক হালকা হয়।

Mat finish বা Mattel finish ল্যাপটপ গুলি দেখতে অনেক সুন্দর হয়।

তাই, অনেক লোকেরা ল্যাপটপের সুন্দর্যের জন্য ল্যাপটপ ব্যবহার করেন।

৪. Powerful

আজকাল প্রায় প্রত্যেক ল্যাপটপ বা ল্যাপটপের মডেল গুলি অনেক  শক্তিশালী হয়। ফলে, যেকোনো কাজ আপনারা অনেক সহজে এবং অসুবিধে ছাড়া করতে পারবেন।

তবে, একটি ল্যাপটপে কি কি hardware configuration থাকবে, সেটা আগের থেকেই নির্ধারিত করা থাকবে।

কম্পিউটার এবং ল্যাপটপের মাঝে পার্থক্য

তাহলে, ল্যাপটপ এবং কম্পিউটারের কিছু লাভ ও সুবিধা জানার পর, চলুন এখন আমরা ল্যাপটপ এবং কম্পিউটারের মাঝে থাকা পার্থক্য গুলি কি সেগুলি দেখে নেই।

  1. ডেস্কটপ কম্পিউটার এবং ল্যাপটপের মাঝে দামের পার্থক্য রয়েছে। ল্যাপটপের তুলনায় ডেস্কটপ পিসি গুলির দাম তুলনামূলক ভাবে কম।
  2. ল্যাপটপ আপনারা বিদ্যুৎ ছাড়া তার ব্যাটারী ব্যাকআপ এর মাধ্যমে প্রায় অনেক ঘন্টা ব্যবহার করতে পারবেন। তবে, বিদ্যুৎ ছাড়া ডেস্কটপ পিসি ব্যবহার করা অসম্ভব।
  3. একটি desktop computer এর hardware configuration আপনি নিজের প্রয়োজন এবং বাজেট এর হিসেবে করতে পারবেন। তবে, ল্যাপটপের ক্ষেত্রে এটা সম্ভব না।
  4. Desktop PC র ক্ষেত্রে যেকোনো সময় আপনি hardware বা functions গুলি upgrade বা downgrade করতে পারবেন। তবে, ল্যাপটপের ক্ষেত্রে এ তেমন সুবিধাজনক না।
  5. একটি ল্যাপটপ ব্যবহার করার জন্য আপনার বেশি জায়গার প্রয়োজন হয়না। তাছাড়া, যেকোনো জায়গায় নিয়ে গিয়ে বা শুয়ে শুয়ে এবং বসে বসে ল্যাপটপ ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু, একটি desktop computer ব্যবহার করার জন্য আপনার অনেক বেশি জায়গার প্রয়োজন ফলে এক জায়গার থেকে আরেক জায়গাতে নিয়ে ব্যবহার করাটা সম্ভব না।
  6. প্রায় প্রত্যেক ল্যাপটপ আজকাল অনেক দামি হয় এবং কম দামে একটি ভালো ল্যাপটপ পাওয়াটা আজকাল অসম্ভব। কিন্তু, ডেস্কটপ কম্পিউটারের ক্ষেত্রে আপনারা নিজের প্রয়োজন এবং বাজেট হিসেবে হার্ডওয়্যার লাগিয়ে সিস্টেম তৈরি করতে পারবেন। তাই, ১০ হাজার টাকার মধ্যেও desktop pc তৈরি করা সম্ভব।

তাহলে, এই কয়টি ছিল ল্যাপটপ এবং কম্পিউটারের মধ্যে থাকা কিছু সাধারণ পার্থক্য।

শেসে এখন প্রশ্ন হলো, “কোনটা ভালো এবং কোনটা ব্যবহার করাটা আপনার জন্য ভালো হবে ?”.

কোণটা ভালো এবং কোণটা কিনবেন ?

দেখুন, ওপরে আপনারা দেখলেন, laptop এবং desktop computer, তাদের নিজের নিজের আলাদা আলাদা সুবিধে ও অসুবিধে রয়েছে।

এই ক্ষেত্রে, আপনার নিজের প্রয়োজন, চাহিদা এবং বাজেট এর ওপরে নির্ভর করে computer না laptop দুটির মধ্যে একটি কিনতে হবে।

  • যদি আপনি গেমিং (gaming) করে ভালো পান, বা ভিডিও এডিটিং এর মতো ভারী কাজ করতে চাচ্ছেন, তাহলে আপনার জন্য ল্যাপটপ তেমন ভালো প্রমাণিত হবেনা।

কারণ, গেমিং এর ক্ষেত্রে আপনার অনেক কিছু অ্যাডভান্সড হার্ডওয়্যার লাগানোর প্রয়োজন হয়। এই ক্ষেত্রে, একটি ডেস্কটপ পিসি আপনাদের জন্য সুবিধাজনক বলে প্রমাণিত হবে।

তবে, গেমিং এর জন্য অনেক অ্যাডভান্সড গেমিং ল্যাপটপ (gaming laptop) রয়েছে যদিও সেগুলির দাম প্রচুর বেশি।

  • কিন্তু, যদি আপনারা চান একটি portable device, যেটা আপনারা যেকোনো জায়গায় নিয়ে গিয়ে যেকোনো সময় ব্যবহার করতে পারেন, তাহলে ল্যাপটপ পিসি আপনার জন্য কাজের বলে প্রমাণিত হবে।

তাছাড়া, বিদ্যুৎ ছাড়া যদি ঘন্টার পর ঘন্টা কাজ করার সুবিধে আপনি চাচ্ছেন, তাহলে যেকোনো ল্যাপটপ এই সুবিধে আপনাকে দিবে।

শেসে, এগুলি সাধারণ সুবিধে ও অসুবিধে ছাড়া, একটি ল্যাপটপ এবং কম্পিউটারের মাঝে বিশেষ কোনো পার্থক্য নেই।

যেই কাজ একটি ল্যাপটপ করবে সেই একি কাজ ডেস্কটপ পিসি করতে পারবে।

তাই, অবশেষে আমি আপনার ওপরেই এই প্রশ্নটি রাখলাম, “আপনার জন্য কোনটা ভালো হবে ? ল্যাপটপ না কি ডেস্কটপ পিসি ?কোনটি আপনি কিনবেন ?

 

Related Contents:

BanglaTech

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top