মোবাইল অ্যাপস তৈরি করার ৫ টি ওয়েবসাইট । Make android apps

Last updated on May 8th, 2024 at 12:06 pm

Free-তে কিভাবে এপস বানানো যায় ? মোবাইল দিয়ে app তৈরি করার নিয়ম কি ? কিভাবে এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করা যায় ? যদি আপনারা মনে এই প্রশ্ন গুলো ঘুরছে তাহলে, মোবাইল অ্যাপস তৈরি করার দারুন একটি উপায় আমি আপনাদের বলতে চলেছি।

কিভাবে এপস বানাব
কিভাবে এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করা যায় ?

কিভাবে নিজের একটি app তৈরী করব এবং ফ্রীতে কোনো কোডিং ছাড়া মোবাইল এপস বানানোর নিয়ম কি, যদি আপনি এই জিনিস গুলি নিয়ে ভাবছেন, তাহলে চিন্তা করবেননা।

আজ এই আর্টিকেলে আমি, আপনাদের এমন ৫ টি ওয়েবসাইটের নাম বলবো,

যেগুলিতে গিয়ে আপনারা নিজের একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল app ফ্রীতে বানিয়ে নিতে পারবেন।

এবং, app তৈরি করার জন্য আপনার কোনো রকমের কোডিং স্কিল (coding skill) বা নলেজ (knowledge) এর প্রয়োজন হবেনা।

কিভাবে এপস বানানো যায় ? মোবাইল দিয়ে app তৈরি

এন্ড্রয়েড apps আজকাল জনসাধারণের মধ্যে অনেক পপুলার এবং ৯৫% লোকেরা নিজের android মোবাইলে বিভিন্ন ধরণের apps ব্যবহার করেন।

আজকাল সব ধরণের ওয়েবসাইট, বিসনেস বা প্রোডাক্টের একটি করে app version আপনারা অবশই পেয়ে যাবেন।

এমনিতে তো এন্ড্রয়েড এপস তৈরির নিয়ম আলাদা এবং তার জন্য আপনার কিছু বিশেষ ধরণের কোডিং বা programming language এর নলেজ থাকাটা অনেক জরুরি।

এবং, এমনি একটি প্রোগ্রামিং ভাষা হলো JAVA.

আপনার যদি জাভা (java) language এর জ্ঞান থাকে, তাহলে অনেক সহজেই apps তৈরি করতে পারবেন।

তবে, এই জাভা language এর আলাদা কোর্স থাকে যেটা আপনারা যেকোনো কলেজ বা ইনস্টিটিউট (institute) থেকে করতে পারবেন।

বা, যদি চান তাহলে অনলাইন “w3school java tutorial” ওয়েবসাইট টিতে গিয়ে জাভা language শিখতে পারবেন।

এবং, তারপর নিজেই যেরকম মন সেরকম মোবাইল app বানাতে পারবেন।

কিন্তু, এখন যদি আপনারা বলেন যে,

“আমাদের কোনো প্রোগ্রামিং ভাষার নলেজ নেই” বা “আমরা জাভা বা অন্য কোনো programming না শিখেই মোবাইল এপস তৈরী করতে চাই” তাহলে সেটাও সম্ভব।

মোবাইল দিয়ে app তৈরি করার বর্তমানে প্রচুর আলাদা আলাদা উপায় রয়েছে।

ইন্টারনেটে এমন কৈয়েকটি ওয়েবসাইট আছে যেগুলি ব্যবহার করে, আপনারা ফ্রীতেই নিজের android app বানিয়ে নিতে পারবেন।

এবং, সেগুলি দিয়ে টাকা ও আয় করতে পারবেন।

আমি নিচে সেই সেরা ওয়েবসাইট গুলির ব্যাপারে এক এক করে বলবো।

Also read

নিজের একটি ফ্রী মোবাইল অ্যাপস তৈরি করে কি লাভ হবে ?

আপনারা হয়তো Google play store এ গিয়ে নিজের android মোবাইলের জন্য এপস ডাউনলোড সব সময় করেন। তাই তো..?

সেখানে আপনারা হাজার রকমের লক্ষ লক্ষ apps পেয়েযান যেগুলির মধ্যে ৮০% ফ্রি।

তাহলে কথা হলো যে, যারা সেই apps গুলি বানাচ্ছেন এবং play store দিয়ে আমাদের ফ্রীতে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে দিচ্ছেন, তাদের কি লাভ হচ্ছে ?

তারাও তো কিছু না কিছু নিয়মে কারণে apps বানিয়ে play store এ দিচ্ছেন।

এটার উত্তর হলো, “টাকা কমানোর জন্য“.

তারা নিজের app এর দ্বারা টাকা কমিয়ে নিচ্ছেন।

হে, একটি এন্ড্রয়েড app বানিয়ে টাকা কামানো অনেক সোজা।

আপনার কেবল একটি আকর্ষণীয় (ইন্টারেষ্টিং) মোবাইল এন্ড্রয়েড app বানাতে হবে।

উদাহরণ স্বরূপে, মোবাইল গেম, ফটো এডিটর app বা অন্য যেকোনো app যেটা লোকেরা ব্যবহার করে ভালো পাবে।

তারপর, Google admob এ গিয়ে নিজের একটি একাউন্ট বানাতে হবে।

Admob একাউন্ট বানানোর জন্য আপনার জিমেইল আইডির প্রয়োজন হবে।

এখন, AdMob একাউন্টে নিজের app এ দেখানোর জন্য কিছু বিজ্ঞাপন তৈরি করতে হবে।

বিজ্ঞাপন বানিয়ে নেয়া অনেক সোজা। এতে আপনার কেবল ২ থেকে ৩ মিনিট লাগবে।

এখন বানিয়ে নেয়া বিজ্ঞাপনের কিছু কোড আপনাকে admob দিবে যেটা আপনাকে নিজের app এ লাগাতে হবে।

এতে, যখন কেও আপনার app ব্যবহার করবে, সে আপনার লাগানো admob এর বিজ্ঞাপন দেখতে পাবে।

আর এতে, যত বেশি লোকেরা আপনার app ব্যবহার করবে আপনি বিজ্ঞাপনের দ্বারা ততটাই বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

এবং, লোকেরা Google play store এ তাদের apps গুলি আপলোড করেন বা রেজিস্টার করেন এজন্যই কারণ,

এটাই একটা জায়গা যেখান থেকে আপনার app প্রচুর পরিমানে লোকেরা ডাউনলোড করে ব্যবহার করবেন।

বিশ্বাস করুন, আজ অনেকেই একটি ফ্রী app বানিয়ে তাতে admob এর বিজ্ঞাপন ব্যবহার করে অসংখ টাকা কমিয়ে নিচ্ছেন এবং সেটা আপনিও পারবেন।

কিভাবে এন্ড্রয়েড এপস তৈরি করা যায় ?

তাহলে, হয়তো এখন আপনি জেনে গেছেন,

“কেন লোকেরা app বানিয়ে Google playstore এ দেন এবং তাতে কি লাভ হয়” .

এবং, হয়তো এটাও জেনে গেছেন, যদি আপনি ফ্রি android মোবাইল এপস বানিয়ে নেন,

তাহলে তাতে আপনার কি লাভ হবে। জেনে গেছেন তো। .?

  1. নিচে দেয়া ওয়েবসাইট গুলি ব্যবহার করে ফ্রি app তৈরি করুন
  2. নিজের বানানো app গুগল প্লে স্টোরে দিন (রেজিস্টার করুন) Google play console দ্বারা.
  3.  Admob এর ব্যবহার করে বানানো app এ বিজ্ঞাপন লাগান।
  4. নিজের android app দিয়ে টাকা আয় করুন।

যদি আপনারা ভাবছেন, কিভাবে android app বানানো যাবে, তাহলে এর উত্তর হলো নিচে দেয়া এই ৫ টি ওয়েবসাইট ব্যবহার করে।

সবকয়টি ওয়েবসাইট, আপনারা ফ্রীতে ব্যবহার করতে পারবেন এবং নিজের জন্য অনেক রকমের এন্ড্রয়েড গেম এবং অন্য রকমের এন্ড্রয়েড এপস বানিয়ে নিতে পারবেন।

ওয়েবসাইট গুলি ব্যবহার করার জন্য আপনাদের, একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপের প্রয়োজন হবে।

এবং, মনে রাখবেন আপনার ব্যবহার করা কম্পিউটার বা ল্যাপটপে যাতে, ইন্টারনেট কানেক্শন থাকে।

Android apps তৈরী করার ৫টি ফ্রী ওয়েবসাইট

তাহলে চলুন, আমরা ফ্রি মোবাইল এপস বানানোর জন্য ৫ টি ওয়েবসাইটের বেপারে জেনেনেই।

১. Appsgeyser.Com – build unlimited apps

Create android apps free !

যদি আপনি একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগকে app এ রূপান্তর (convert) করতে চান,

তাহলে appsgeyser থেকে আপনি অনেক সহজে যেকোনো ব্লগ বা ওয়েবসাইট ফ্রীতে android app এ রূপান্তর করতে পারবেন।

তা ছাড়া, মেসেঞ্জার এপস বানানো, মোবাইল ওয়েব ব্রাউসার, ফটো এডিটর apps তৈরি, মোবাইল লাইভ টিভি এপস, ভিডিও ডাউনলোড apps এবং আরো অন্যান্য অনেক ধরণের android application আপনারা এই ওয়েবসাইটে গিয়ে বানিয়ে নিতে পারবেন।

আপনার কোনোধরনের কোডিং নলেজ এর প্রয়োজন নাই।

কেবল, সাইট টিতে যান এবং নিজের মন মতো যেরকম app বানাতে চান সেটা বেঁচে নিন।

আর, এখানে যেকোনো ধরণের Apps তৈরির নিয়ম অনেক সরল এবং সোজা।

হে, Appsgeyser ওয়েবসাইট এ বানানো apps আপনারা Google play store এ জমা করে তার থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

Visit websiteAppsgeyser free app builder 

২. Mobincube – create apps and earn

Free Mobincube mobile app maker !

Mobincube থেকে app বানানো অনেক সোজা এবং এই app builder থেকে আপনারা অনেক advanced এবং stylish মোবাইল apps বানিয়ে নিতে পারবেন।

আপনাদের কেবল ওয়েবসাইট টিতে গিয়ে sign up করতে হবে।

এর পর, নিজের ফ্রি মোবাইল app তৈরি করে সেগুলি publish করতে পারবেন।

এখানে আপনারা কেবল android app ছাড়া, উইন্ডোস মোবাইল app এবং অন্য অনেক ধরণের অপারেটিং সিস্টেমের এপস ফ্রীতে বানাতে পারবেন।

জরুরি কথা, এখানে বানানো এপস গুলি আপনারা গুগল প্লে স্টোরে আপলোড করে অসংখ ডাউনলোড বা ইনস্টল পেয়েযাবেন।

তাছাড়া, mobincube এর monetization অপসন চালু করে app এ বিজ্ঞাপন দ্বারা আপনারা টাকা আয় করতে পারবেন।

তাই, এপস বানিয়ে টাকা আয় করা এখন অনেক সহজ এবং সোজা।

কোনো কোডিং ছাড়া আপনারা এখানে সুন্দর সুন্দর মোবাইল application বানিয়ে এখানথেকেই টাকা আয় করা শুরু করতে পারবেন। এবং, সব কিছুই ফ্রি।

Visit websiteMobincube ওয়েবসাইট

৩. App.Yet – convert any website to app

Convert website to apps !

Appyet.com ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করে আপনারা অনেক সহজে যেকোনো  ব্লগ বা ওয়েবসাইট একটি android app এ কনভার্ট (convert) করতে পারবেন।

এই ওয়েবসাইট  বিশেষ করে একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইটকে app বানানোর জন্যই আপনাকে সুবিধা দেয়।

সবকিছুই ফ্রি এবং কোনো কোডিং নলেজ ছাড়াই আপনি করে নিতে পারবেন।

২ থেকে ৫ মিনিটের ভেতরে নিজের app বানিয়ে নিন এবং Google play store বা অন্য কোনো app store এ নিজের app আপলোড করে ইনস্টল বাড়িয়ে নিন।

Visit websiteAppyet app creator 

৪. Andromo

Andromo হলো একটি দারুন iOS এবং Android native apps development platform যেখানে iOS এবং Android দুটোই এপস আপনারা তৈরি করতে পারবেন।

তবে কেবল এটাই নয়, আপনারা এই ওয়েবসাইটের দ্বারা unlimited mobile apps তৈরি করতে পারবেন।

যদি আপনারা নিজের online store app তৈরি করার কথা ভাবছেন, তাহলে সেটাও তৈরি করা যাবে।

কোনো ধরণের  coding skills ছাড়া নিমিষের মধ্যে নিজের android app বানিয়ে নিতে পারবেন।

এছাড়া, নিজের তৈরি করা app গুলোতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে প্রচুর টাকা ইনকাম করার প্রত্যেকটি সুযোগ আপনাকে দেওয়া হবে।

তবে, এখানে আপনারা free trial হিসেবে কোনো credit card ছাড়া নিজের free মোবাইল অ্যাপস তৈরি করতে পারবেন।

তবে প্লাটফর্মটি পছন্দ হলে সাধারণ monthly subscription নিয়ে নিজের app চালিয়ে যেতে পারবেন।

>> Visit andromo.com site 

৫. Quickappninja.com

আপনি যদি সরাসরি mobile game app তৈরি করে টাকা ইনকাম করতে চাইছেন,

তাহলে quickappninja.com ওয়েবসাইট আপনার কাজে অবশই আসবে।

এই ওয়েবসাইট এর দ্বারা আপনারা সম্পূর্ণ ফ্রীতে Android Quiz Games app তৈরি করতে পারবেন।

অবশই, এই mobile game তৈরি করার জন্যে আপনার কোনো ধরণের coding knowledge থাকতে হবেনা।

একবার app তৈরি করার পর সরাসরি Google Play-তে গিয়ে নিজের app-টি upload করুন এবং ads-এর দ্বারা অনলাইন ইনকাম করুন।

আপনারা 20 languages এর সাথে নিজের quiz game তৈরি করতে পারবেন।

>> Visit quickappninja.com

৬. appygen.net

এটাও একটি দারুন platform যেখান থেকে আপনারা নিজের জন্যে একটি ফ্রি মোবাইল অ্যাপস তৈরি করে নিতে পারবেন।

এই platform ব্যবহার করে আপনারা mobile apps এবং mobile games, দুটোই তৈরি করতে পারবেন।

কোনো ধরণের coding এর knowledge ছাড়া তৈরি করা নিজের apps গুলোতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ইনকাম করা যাবে।

Platform-টিতে আপনারা আগের থেকে তৈরি করা বিভিন্ন template গুলো পেয়ে যাবেন।

যেগুলোর মধ্যে নিজের পছন্দ মতো একটি template সিলেক্ট করতে হবে।

এবার images, videos এবং অন্যান্য content গুলো যোগ করুন এবং নিজের app তৈরি করুন।

>> Visit appygen.net website 

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, আপনারা যদি একটি ফ্রী এবং কোনো কোডিং ছাড়া একটি সহজ উপায় বা নিয়ম খুঁজছেন এন্ড্রয়েড এপস তৈরী করার,

তাহলে উপরে আমি বলা ৫টি সাইট অবশই ব্যবহার করে দেখবেন।

আপনি খুব সহজে আপনার মন মতো অনেক রকমের মোবাইল apps বানিয়ে নিতে পারবেন।

আশা করছি, ফ্রীতে মোবাইল এপস তৈরি করার নিয়ম কি ? এই প্রশ্নের উত্তর আপনারা অবশই পেয়েছেন।

 

45 thoughts on “মোবাইল অ্যাপস তৈরি করার ৫ টি ওয়েবসাইট । Make android apps”

  1. Avatar

    ভাই আমি আগেও Apps Create করেছি আজও করলাম প্লে স্টরে আমার ১১ টি Apps আছে এগুলো Developers করে আমি অনেক Earnings করছি

      1. Avatar

        ভাই আমার কম্পিউটার ও ল্যাপটপ নাই তাহলে আমি কি আমার মোবাইল দিয়ে এপস তৈরি করতে পারব?

      1. Avatar

        ভাই একটি এপস তৈরী করতে কত টাকা লাগতে পারে একটু বলবেন? ‍আমি ‍আমার মনের মতো করে একটা এপস বানাতে চাই। তাই ভাই আপনি যদি আমায় সাহায্য করতেন তাহলে আমার খুব উপকার হতো।

        1. Avatar

          ভাই আমি তো app তৈরি করতে জানিনা, তবে app টির features এবং function এর ওপরে তার costing নির্ধারিত করা হয়। কিরকম app বানাতে চাচ্ছেন ?

  2. Avatar
    মোঃ আবদুল্লাহ আল হোসাইন

    ভাই।
    আমাকে একটা এপ্স তৈরি করে দিবেন
    জে এপ্স দিয়ে আমিও ইনকাম করতে পারবো
    আর জে এপ্স এ কাজ করবে সেও ইনকাম করতে পারবে

    1. Avatar

      ভাই আপনি যেরকম customized app এর কথা বলছেন, সেটা তৈরি করতে প্রচুর coding knowledge এর প্রয়োজন এবং যেটা app তৈরির ক্ষেত্রে আমার নেই।
      প্রথম অবস্থায় আপনার কিছু টাকা দিয়ে app developer এর মাধ্যমে এরকম app তৈরি করিয়ে নিতে পারবেন।

  3. Avatar

    Hi, ভাই আপনি কেমন আছেন ? আমি একটি ব্যাবসা করার জন্য এপস চাই আপনি কি একটি এপস তৈরী করেদিতে পারবেন ।

  4. Avatar

    স্যার আপনার এই পোস্ট পড়ার পর। আমার সমস্ত কনফিউশোন দুর হয়ে গেছে।আপনার সাইট ভিজিট করে আমি খুব উপকৃত হয়েছি।আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

      1. Avatar

        App development এর কোর্স করুন। এতে, বিভিন্ন ধরণের app তৈরি করার কৌশল শিখতে পারবেন।

  5. Avatar
    MD. Sayful Islam

    আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।
    ওয়েবসাইট কিভাবে তৈরি করা যায়?

    1. Avatar

      আপনাকেও ধন্যবাদ। ওয়েবসাইট বানানোর জন্য WordPress বা blogger.com ব্যবহার করতে হবে। এই বিষয়ে আমি আর্টিকেল লিখেছি।

  6. Avatar

    আমি একটি app বানাতে চাই,, App টি হবে টাঙ্গাইল জেলা নিয়ে টাঙ্গাইল জেলার রাস্তা ঘাট কেমন কোন যায়গায় কিভাবে জাবেন সব তথ্য এই app. থেকে পাবেন

    1. Avatar

      অবশই তৈরি করুন। তবে এরকম একটি professional app তৈরি করার জন্য একজন professional app developer থেকে সাহায্য নিতে হবে।

      1. Avatar

        নিজে নিজে অন্য কারো সহায়তা ছাড়া কি অ্যাপ্স তৈরি করতে পারবো না.?

      2. Avatar
        Tarikul Islam Jony

        আপনার লেখাগু‌লো খুব ম‌নো‌যোগ দি‌য়ে পড়লাম। খুব অ‌নেক কিছু জানা হ‌লো। জা‌নি না কতটা কা‌জে লাগা‌তে পার‌বো। Thank you so much

        1. Avatar

          ওয়েবসাইট গুলো ব্যবহার করে তৈরি করতে পারবেন।

  7. Avatar

    অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার জন্য।

  8. Avatar

    Vai ami appgyser diye koyekta apps baniyesilam and admod code add kresilam add show krto but kno earn hoto na eta kno hoy bolte paren?

    1. Avatar

      admob থেকে কত ইনকাম হবে, সেটা apps এর install এর সংখ্যার ওপরে নির্ভর।

  9. Avatar

    ধন্যবাদ,ভাইয়া।তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির দিক দিয়ে বাঙালীরা এগিয়ে থাকতে,এরকম আর্টকেল নানা ভাবে সাহায্য করবে।
    আপনার আর্টিকেল থেকে সহজে অ্যাপ বানানোর বিসিক আইডিয়াটা সহজে নিতে পারলাম।

  10. Avatar

    আমজ যদি কোন এপ্স বানানোর পরে যদি সেটা ভালো মার্কেট ডেভেলপমেন্ট হয়ে যায় তখন কি এই ফ্রী সাইট গুলো কোন ঝামেলা করবে নাকি? এবং ভবিষ্যতে চাইলে আমি আমার প্রাইভেট ভাবে নিয়ে নিতে পারবো কিনা?

    1. Avatar

      না বন্ধু। এখানে বানানো এপস গুলি এখানেই রয়ে যাবে। তবে, আপনি এখানে বানানো apps গুলি স্বাধীন ভাবে promote ও গুগল প্লে স্টোরের মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

  11. Avatar
    নুসাইব

    হ্যালো দাদা আমি আপনার সাথে একটু আলাপ করতে চাই

    1. Avatar

      আমি প্রায় ৬ বছর থেকে ব্লোগ্গিং করছি এবং ৪ বছর আমি কেবল নতুন নতুন জিনিস শিখেছি। এই বাংলা ব্লগ কেবল ৩ থেকে ৫ মাস পুরোনো।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top