ই-ব্যাংকিং কি ? ইন্টারনেট বা অনলাইন ব্যাংকিং কাকে বলে

ই ব্যাংকিং কি ? (what is net banking in Bengali), অনলাইন ব্যাংকিং বা ইন্টারনেট ব্যাংকিং কি, আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা সবটা জানতে চেষ্টা করবো। 

ই ব্যাংকিং কি
নেট ব্যাংকিং কাকে বলে ?

নেট ব্যাংকিং বা ই-ব্যাংকিং বা ইন্টারনেট ব্যাংকিং বা অনলাইন ব্যাংকিং প্রত্যেকটি শব্দ আলাদা আলাদা হলেও এদের মানে একি। 

আগেকার সময়ে Internet banking এর প্রচলন এতটা কখনোই ছিলোনা, কেননা আগেকার সময়ের লোকেদের আছে ইন্টারনেট এর সুবিধা খুব কম ছিল।

তবে, আজকের সময়ে যখন ইন্টারনেটের ব্যবহার, প্রচলন এবং জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেয়েছে তখন ই ব্যাংকিং (e-banking) বা ইন্টারনেট ব্যাংকিং (internet banking) এর লাভ প্রায় প্রত্যেকেই নিতে পারছেন। 

আজকাল আমরা প্রত্যেকেই আমাদের আয় করা টাকার কিছুটা বা সম্পূর্ণটাই কোনো না কোনো bank account এর মধ্যে জমা করে রাখছি।

Bank account এর মধ্যে থাকা টাকা যখন আমাদের প্রয়োজন হয়ে থাকে তখন টাকা তুলার জন্য আমাদের যেতে হয় ATM বা bank এর branch এর মধ্যে।

এখানেই internet banking বা e-banking এর বিষয়টা আমাদের বুঝা দরকার।

বিভিন্ন ধরণের banking transactions গুলো রয়েছে, যেগুলোর জন্য আমাদের বার বার ATM বা bank branch এর মধ্যে গিয়ে টাকা তুলতে হয়না।

যেমন অন্য কোনো ব্যক্তিকে নিজের bank account থেকে টাকা পাঠানো, bill payment করা, online shopping, DTH বা mobile recharge, RTGS, NEFT, cheque book apply ইত্যাদি।

এই ধরণের payment গুলোর ক্ষেত্রে আপনি নিজের mobile বা computer থেকে অনলাইন ব্যাংকিং এর সুবিধার ব্যবহার করে সবটা অনলাইনে করে নিতে পারবেন।

আর ব্যাংক এর দ্বারা নিজের mobile বা computer device ব্যবহার করে যেকোনো জায়গার থেকে online transaction করার এই সুবিধা টিকেই বলা হয়, ই-ব্যাংকিং বা ইন্টারনেট ব্যাংকিং।

আজ অনলাইন ব্যাংকিং এর ফলে লোকেদের অনেকটা কাজ ঘরে বসে বসেই নিজের মোবাইল এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে হয়ে যাচ্ছে। 

এছাড়া, অনলাইন ব্যাংকিং (online banking) এর মাধ্যমে আপনারা নিজের bank account statement, bank balance, recurring deposit account ইত্যাদি সবটাই ঘরে বসে বসে দেখে ও জেনে নিতে পারবেন। 

চলুন, অনলাইন ব্যাংকিং কি (What is online banking in Bengali) এবং ই ব্যাংকিং বলতে কি বুঝায় বিষয়টা নিচে বিস্তারিত ভাবে জেনেনেই। 

ই ব্যাংকিং কি ? (What is e-banking in Bengali)

আমরা অনেকেই ই-ব্যাংকিং (e-banking) এবং ইন্টারনেট ব্যাংকিং (internet banking) এর মধ্যে থাকা পার্থক্য বুঝতে পারিনা।

দুটোই নাম শুনতে একি রকমের হওয়ার কারণে আমরা e-banking এবং internet banking দুটোর মানে একি বলে মনে করে থাকি।

তাহলে, ই-ব্যাংকিং বলতে কি বুঝায় ?

ই ব্যাংকিং মানে হলো, “ইলেক্ট্রনিক ব্যাংকিং (electronic banking)“, যেখানে fund transfer করার ক্ষেত্রে cash, checks বা যেকোনো ধরণের paper documents এর ব্যবহার করা হয়না।

কেননা, electronic banking এর ক্ষেত্রে fund transfer বা banking transaction গুলো করার ক্ষেত্রে electronic signals বা ইলেক্ট্রনিক মাধ্যম গুলোর ব্যবহার হয়ে থাকে।

যখনি আপনি নিজের ATM থেকে টাকা তুলবেন বা শপিং এর বিপরীতে নিজের ডেবিট কার্ড বা ক্রেডিট কার্ড এর মাধ্যমে টাকা পেমেন্ট করবেন, তখন আপনার টাকা ইলেকট্রনিক ব্যাংকিং (electronic banking) এর মাধ্যমে ট্রান্সফার হয়ে থাকে।

ই-ব্যাংকিং শব্দটি বললে, যেকোনো computer device, electronic device, telephone বা telecommunications ইত্যাদির এর ব্যবহার করে banking transaction গুলোকে করা বুঝায়।

তাই, e-banking মানে কেবল অনলাইন ব্যাংকিং, ইন্টারনেট ব্যাংকিং বা নেট ব্যাংকিং বলে বলা যাবেনা।

তবে, অনলাইন ব্যাংকিং বা ইন্টারনেট ব্যাংকিং কিন্তু ই-ব্যাংকিং এর একটি ভাগ বা প্রকার।

আশা করছি ই ব্যাংকিং মানে কি বিষয়টা ভালো করে বুঝতেই পেরেছেন। 

এখন চলুন, অনলাইন ব্যাংকিং কি এবিষয়ে ভালো করে জেনেনেই। 

ইন্টারনেট ব্যাংকিং কি । What is net banking in Bengali

ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর ক্ষেত্রে প্রত্যেকটি banking transaction গুলোকে অনলাইনে ইন্টারনেটের ব্যবহার করে করা হয়।

আর তাই, ইন্টারনেট ব্যাংকিং কেই অনলাইন ব্যাংকিং বা নেট ব্যাংকিং বলে বলা হয়।

Online banking এর ব্যবহার করে ব্যক্তি বিভিন্ন ধরণের financial transaction গুলোকে internet এর মাধ্যমে করতে পারেন।

যেমন, ফান্ড ট্রান্সফার, চেক বুক এপ্লাই, NEFT, RTGS, balance check করা, account statement বের করা, নতুন fixed deposit বা অন্য investment শুরু করা, অনলাইনে বিল পেমেন্ট, ইত্যাদি।

এছাড়া, ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর মাধ্যমে আপনি নিজের ব্যাংক একাউন্টে ঘরে বসে বসে টাকা জমা (deposit) করতে পারবেন।

তাই, deposits, transfers, bill payments ইত্যাদি যেসব জরুরি সেবা উপভোগ করার জন্য আগে আমরা bank এর branch এর মধ্যে যেতাম, সেগুলো সবটাই অনলাইন ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ঘরে বসেই করে নিতে পারছি।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং বা অনলাইন ব্যাংকিং হলো একটি আধুনিক ব্যাংকিং সেবা (banking service), যেই সেবা প্রায় প্রত্যেক bank এর তরফ থেকে তাদের গ্রাহক দের দিয়ে দেওয়া হয় যাতে গ্রাহকেরা যেকোনো জায়গার থেকে নিজের ব্যাংক একাউন্ট এর সাথে জড়িত financial transaction গুলোকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে করতে পারেন।

আশা করছি, অনলাইন বলতে কি বুঝায় বিষয়টা বুঝতেই পেরেছেন।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর সুবিধা গুলো কি ?

আজকের আধুনিক সময়ে নেট ব্যাংকিং এর জনপ্রিয়তা, গুরুত্ব এবং ব্যবহার অনেকটাই বেশি।

আজ প্রত্যেকের ঘরে ঘরে মোবাইল, কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট রয়েছে।

তাই, বার বার ছোট বড় কাজ গুলোর জন্য ব্যাংক এর মধ্যে যাওয়ার থেকে ঘরে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমেই কাজ গুলো করে নেওয়াটা অধিক সুবিধাজনক।

যদি আমি নিজের অভিজ্ঞতার কথা বলি, তাহলে internet banking কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই আমাদের জীবন অনেক সোজা এবং সহজ বানিয়ে দিয়েছে।

চলুন, ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর সুবিধা এবং ব্যবহার গুলোর বিষয়ে এক এক করে জেনেনেই।

  1. যেকোনো ব্যাংক এর net banking সেবা activate করা এবং net banking ব্যবহার করাটা অনেক সহজ।
  2. DTH, broadband এবং অন্যান্য প্রচুর জরুরি bill payment গুলো online ঘরে বসে বসে করা সম্ভব।
  3. Bank এর branch এ visit না করেই নিজের account থেকে অন্যের ব্যাংক একাউন্টে সাথে সাথে টাকা পাঠানো সম্ভব।
  4. Cheque book, debit card, credit card ইত্যাদি ঘরে বসে net banking এর মাধ্যমে apply করা যাবে।
  5. Bank এর passbook update করার প্রয়োজন হয়না কেননা net banking এর মাধ্যমে যেকোনো সময়ের account statement বের করে download করে নিতে পারবেন।
  6. সম্পূর্ণ কাজ ঘরে বসে অনলাইনে করা সম্ভব তাই আপনার প্রচুর সময় বেঁচে যাবে।
  7. Fixed deposit বা recurring deposit শুরু করতে হলে আপনি নিজের net banking account থেকেই সাথে সাথে অনলাইনে শুরু করতে পারবেন।
  8. নেট ব্যাংকিং একাউন্ট থেকে loan এর জন্য apply করতে পারবেন।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর অসুবিধা গুলো

যেই জিনিসের লাভ বা সুবিধা রয়েছে সেই জিনিসের কিছু অসুবিধা এবং সমস্যা অবশই থেকে থাকে।

তাই, অনলাইন ব্যাংকিং এর ক্ষেত্রেও এর কিছু অসুবিধা অবশই রয়েছে যেগুলো জেনে রাখাটা জরুরি।

এমনিতে, যেকোনো bank এর online banking platform অধিক সুরক্ষিত এবং নিরাপদ থেকেই থাকে, তবে আপনি যদি কিছু সাধারণ বিষয়ে ধ্যান না রাখেন তাহলে অবশই বিপদে পড়ার সুযোগ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

  1. অনলাইন ব্যাংকিং এর ক্ষেত্রে ইন্টারনেট এবং একটি computer device বা smartphone জরুরি হয়ে থাকে। তাই, ইন্টারনেট এর সমস্যা থাকলে বা device এর সমস্যা হয়ে থাকলে net banking করা সম্ভব না।
  2. এমনিতে bank এর online banking platform গুলো সম্পূর্ণ secure এবং safe. তবে অনেকেই এই ধরণের আধুনিক banking services গুলোকে অবিশ্বাস করে থাকেন বা ব্যবহার করতে কিছুটা সংকোজ করেন।
  3. আপনার Net banking এর লগইন তথ্য যদি কেও জেনে যায় তাহলে সেটার মাধ্যমে অ-স্বীকৃত ট্রান্সেকশন করে নিতে পারাটা কিন্তু সম্ভব।
  4. ইন্টারনেটে সাবধান ভাবে নিজের online banking সেবা ব্যবহার না করলে বিভিন্ন মাধ্যমে আপনার login id এবং password অন্যরা জেনেনিতে পারার সুযোগ রয়েছে।
  5. অনলাইন ব্যাংকিং পোর্টাল ব্যবহার করার সময় ভালো করে bank এর website টি যাচাই করে নিবেন। অনেক সময় আপনার bank এর নামেই অন্যান্য fake website থাকতে পারে যেগুলো আপনার account details চুরি করার ক্ষেত্রে সক্রিয় থাকে।
  6. অন্যান্য ব্যক্তির mobile বা computer এর মধ্যে নিজের net banking account খুলবেননা। কেবল নিজের মোবাইলে বা কম্পিউটারে অনলাইন ব্যাংকিং করার চেষ্টা রাখবেন।
  7. অনলাইন ব্যাংকিং ব্যবহার করা mobile বা কম্পিউটারে একটি ভালো antivirus software থাকা জরুরি। নাহলে কখন কোন spyware বা অন্যান্য কম্পিউটার ভাইরাস আপানার account details চুরি করে নিবে আপনি বুঝতেও পারবেননা।
  8. Net banking account এর মধ্যে কাজ হয়ে গেলে logout করেই কম্পিউটার বন্ধ করবেন।

 

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাদের বললাম অনলাইন ব্যাংকিং কি (what is net banking in Bengali) এবং ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর অসুবিধা এবং সুবিধা গুলো কি কি। 

আমি আশা করছি ই-ব্যাংকিং এবং ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর বিষয়ে আপনারা সবটা ভালো করে বুঝতে পেরেছেন।

যদি about internet banking in Bangla নিয়ে লিখা আমাদের আজকের আর্টিকেল আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশই আর্টিকেলটি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করবেন।

এছাড়া, আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap