এন্ড্রয়েড মোবাইলের সেরা ৯টি অডিও প্লেয়ার সফটওয়্যার: নতুন লিস্ট

আমাদের আশেপাশে এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন, যারা গান শুনতে পছন্দ করেনা। বিশেষ করে, ট্রেনেবাসে কিংবা কাজের ফাঁকে মোবাইলে গান শোনার অভ্যাস কমবেশি আমাদের সবারই আছে। 

তবে, বেশিরভাগ অ্যান্ড্রয়েড ফোনের নিজস্ব অডিও প্লেয়ার সফটওয়্যার গুলো সেরকম ভালো হয় না। আবার, অনেক ফোনেই ইনবিল্ট প্রিমিয়াম মিউসিক অ্যাপ থাকে; যেগুলো আবার ইন্টারনেট ছাড়া চলে না, অথবা টাকা দিয়ে সেগুলোর সাবস্ক্রিপশন নিতে হয়। 

এইসব সমস্যার কারণে, বহু মানুষই অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্যে ফ্রিতে ভালো অডিও প্লেয়ারের খোঁজ করেন। আর তাই, আজকে আমাদের এই আর্টিকেলে আমরা এরকমই ৯টি বেস্ট অডিও প্লেয়ার অ্যাপস গুলোর ব্যাপারে আলোচনা করবো। 

অবশই পড়ুন: অনলাইনে বই পড়ার সেরা ৬টি অ্যাপস

তবে মনে রাখবেন, এই প্লেয়ারগুলোতে কোনো ইনবিল্ট অডিও ফাইল থাকে না। মোবাইলে আগের থেকে গান বা অডিওবুক ডাউনলোড করা থাকলে, তবেই এই প্লেয়ারগুলোতে সেগুলো শোনা যায়। 

অবশই পড়ুন: পোশাক চেঞ্জ করার এন্ড্রয়েড সফটওয়্যার অ্যাপস

এন্ড্রয়েড মোবাইলের সেরা ৯টি অডিও প্লেয়ার সফটওয়্যার:

অডিও প্লেয়ার সফটওয়্যার
Best android mobile audio player software apps.

চলুন, তাহলে আমরা জানি, এই সেরা অডিও প্লেয়ারগুলোর সম্পর্কে।  

১. InShot – Music Player:

রেটিং: 4.7/5

ডাউনলোড: 10Cr+

এই অ্যাপটি স্মার্টফোনের ফ্রি অডিও প্লেয়ার অ্যাপ্লিকেশন হিসেবে MP3, AAC, MIDI, WAV, FLAC, APE বা যেকোনো অডিও ফর্ম্যাটের ফাইল চালাতে পারে। এর নিজস্ব ইকুয়ালাইজার টুলের সাহায্যে রিভার্ব এবং বেস বুস্টের মতো বিভিন্ন এফেক্টগুলো অডিওতে ব্যবহার করা যায়। এই সফটওয়্যারটি নিজে থেকেই অডিও ফাইলগুলোকে স্ক্যান, ম্যানেজ ও শেয়ার করে। যাতে, আপনি সহজেই ডাউনলোড করা অডিওগুলো খুঁজে নিয়ে শুনতে পারেন।

ফিচার:

স্লীপ টাইমার সেট করা যায়। 

কীওয়ার্ড দিয়ে সহজে গান খোঁজা যায়। 

হাইকোয়ালিটি অফলাইন মিউজিক প্লেয়ার। 

সুবিধা:

নোটিফিকেশন বারে গান চালায়।  

লকস্ক্রিনে মিউসিক কন্ট্রোলের সুবিধা। 

ওয়ার্কআউটের সময় ব্যবহারের সুবিধা। 

অসুবিধা:

অ্যাড ইনঅ্যাপ পার্চেজ আছে 

২. Music player, MP3 Player:

রেটিং: 4.6/5

ডাউনলোড: 1Cr+

আমাদের তালিকার এই অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপটিতে বিভিন্ন ফর্ম্যাটের অডিওগুলো একদম সেরা কোয়ালিটিতে শোনা যায়। এই অ্যাপ্লিকেশনটির ‘স্মার্ট ট্র্যাক’ ফিচারটি আপনার গান শোনার হ্যাবিটের উপর নির্ভর করে প্লেলিস্ট গুলো সাজায়। তাই, আপনি আপনার পছন্দের অডিওগুলো সার্চ না করেই যেকোনো সময়ে শুনতে পারেন। এর ডিপ স্ক্যান ও অটো রিফ্রেশ ফিচারটি নিজে থেকেই আপনার প্লেলিস্টগুলোকে আপডেট করতে থাকে।

ফিচার:

গানের লিরিক্স দেখা যায়।  

গানের নাম অ্যালবাম কভার পাল্টানো যায়। 

অফলাইন থেকে ব্যাকগ্রাউন্ডে গান শোনা সম্ভব।  

সুবিধা:

রিংটোন সেটিংএর সুবিধা। 

প্লেলিস্ট ব্যাকআপ রিস্টোর করে।  

ওয়্যার্ড/Bluetooth হেডফোনে ভালোভাবে কাজ করে।   

অসুবিধা:

অনলাইন মোডে গানের মাঝে অ্যাড আসে।  

৩. Frolomuse:

রেটিং: 4.6/5

ডাউনলোড: 10L+

রাতে গান শুনে ঘুমাতে যাওয়ার অভ্যাস থাকলে, এই অডিও প্লেয়ারের স্লীপ টাইমার ফাঙ্কশনটি আপনার কাজে লাগতে পারে। এই সফটওয়্যারের রিভার্ব এফেক্টের মাধ্যমে আপনি মিউসিক ফাইলগুলো বেস্ট কোয়ালিটিতে শুনতে পারবেন। এখানে অ্যালবাম, আর্টিস্ট, জনার ও প্লেলিস্টের ভিত্তিতে খুব সহজেই অডিও খুঁজে পাওয়া যায়। এমনকি, মোবাইলের স্ক্রিন লক থাকা অবস্থায় আপনি এর মিউসিকগুলোকে নোটিফিকেশন বার থেকেই কন্ট্রোল করতে পারবেন।

ফিচার:

রিংটোন কাটার রয়েছে। 

স্মার্ট স্লীপ টাইমার ফাঙ্কশন। 

বেস্ট অডিওকোয়ালিটি ফিচার।  

সুবিধা:

সম্পূর্ণভাবে অ্যাডফ্রি একটা অ্যাপ। 

সহজে প্লেলিস্ট বানানো এডিটের সুবিধা। 

যেকোনো গানের সিলেক্টেড অংশ শোনা সম্ভব।  

অসুবিধা:

হেডফোন থেকে গান চেঞ্জ করতে অনেকবার বাটন প্রেস করতে হয়।   

৪. Audify Music Player:

রেটিং: 4.6/5 

ডাউনলোড: 5Cr+

গানের পাশাপাশি অডিও বুক শোনার নেশা থাকলে, এই অডিও প্লেয়ার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশনটি সম্পূর্ণভাবে আপনার জন্যেই। MP3, WAV, AC3, AAC, WMA, ACC, MIDI, FLAC-এর মতো বিভিন্ন ধরণের ফর্ম্যাটের অডিওগুলো এখানে সহজেই প্লে করা যায়। এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনি ইন্টারনেট ছাড়াও নিয়ার-বাই শেয়ারিংয়ের সাহায্যে অডিও ফাইল শেয়ার করতে পারেন। এছাড়াও, এই প্লেয়ারটিতে আপনার মুড্ অনুযায়ী প্লেলিস্ট বানানো যায়।

ফিচার:

বেস রিভার্ব ইফেক্ট ইকুইলাইজার।    

অ্যাপের নিজস্ব ফোল্ডার থেকে গান চালানো যায়।  

কিউ ফিচারের সাহায্যে ইন্সট্যান্ট গান অ্যাড করা যায়। 

সুবিধা:

ইন্টারনেট ছাড়াও অডিও শেয়ারিংয়ের সুবিধা। 

মিউসিক প্লেয়ার থেকে রিংটোন সেট করা যায়। 

গানগুলো সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করা যায়। 

অসুবিধা:

ইনঅ্যাপ অ্যাড রয়েছে। 

৫. Pulsar Music Player:

রেটিং: 4.6/5

ডাউনলোড: 50L+

এই অডিও প্লেয়ার সফটওয়্যারটি একেবারেই অ্যাড-ফ্রি একটা অ্যাপ্লিকেশন। এখানে আপনি অফলাইনে থেকে ডাউনলোড করা গানগুলো আরামসে শুনতে পারেন। এর সেভ/রিস্টোর প্লেব্যাক ফাঙ্কশনের সাহায্যে এখানে অডিওবুক বা পডকাস্টও শোনা যায়। এখানেও ফোল্ডার, আর্টিস্ট, অ্যালবাম ও জনার অনুসারে গান খোঁজা সম্ভব। আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটি গুগল ভয়েস কম্যান্ড দিয়েও চালাতে পারবেন।

ফিচার

স্লীপ টাইমার। 

লিরিক্স দেখার সুবিধা।   

প্লে স্পিড অ্যাডজাস্টমেন্ট ফিচার।  

সুবিধা:

দ্রুত গান সার্চের সুবিধা।   

গুগল ভয়েস কম্যান্ডের সুবিধা।  

নিজস্ব মিউসিক ফোল্ডার ম্যানেজমেন্ট আছে।   

৬. Oto Music:

রেটিং: 4.6/5

ডাউনলোড: 10L+

অফলাইন মিউসিক প্লেয়ার হিসেবে এই Oto Music অ্যাপ্লিকেশনটি খুবই ভালো। এখানে Chromecast সাপোর্ট আছে, যাতে আপনি আপনার পছন্দের গানগুলো সহজেই মোবাইল, ল্যাপটপ, কম্পিউটার বা টিভিতে শুনতে পারেন। এর ব্যাটারী-সেভার ও স্লীপ টাইমার ফাঙ্কশন দুটো আপনার জন্যে যথেষ্ট উপকারী। এমনকি, এই অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপটি আপনার ফোন মেমোরিতে খুবই অল্প জায়গা নেয়।

ফিচার:

Chromecast সাপোর্ট আছে। 

ইনবিল্ট মিউসিক ইকুইলাইজার।  

অটোমেটিক আর্টিস্ট/অ্যালবাম ইনফো/ইমেজ ডাউনলোড করে।  

সুবিধা:

অফলাইনে বিজ্ঞাপন ছাড়া চলে।  

খুবই ছোট সাইজের অ্যাপ্লিকেশন। 

যেকোনো ডিভাইসে প্লেলিস্ট ইম্পোর্ট/এক্সপোর্ট করা যায়।  

অসুবিধা:

ইনবিল্ট ইকুইলাজারে ফিল্টার অপশন কম। 

৭. Apps10X – Music Player:

রেটিং: 4.6/5

ডাউনলোড: 10Cr+

অডিও প্লেয়ারের সাথে-সাথে এই অ্যাপ্লিকেশনটিতে একটা ছোট ভিডিও প্লেয়ারও আছে। এই অ্যান্ড্রয়েড সফটওয়্যারটিতে আপনি যেকোনো ফর্ম্যাটের অডিও সহজেই প্লে করতে পারবেন। এছাড়াও, এর ইনবিল্ট ইকুইলাইজার এবং স্লীপ টাইমার দেওয়ার মতো সুবিধাগুলো গান শোনার অভিজ্ঞতাকে আরও সুন্দর করে। এই অ্যাড-ফ্রি অ্যাপটি অফলাইন মোডে এবং লকস্ক্রিনেও ভালোভাবে কন্ট্রোল করা যায়।

ফিচার:

ব্যাটারীসেভিং ফিচার। 

স্মার্ট কাস্টম প্লেলিস্ট। 

রিংটোন কাটার/ স্লীপ টাইমার। 

সুবিধা:

HD কোয়ালিটি অডিও প্লেয়িং। 

লিরিক্স দেখতে পাওয়ার সুবিধা। 

কাস্টোমাইজেবল লকস্ক্রিনের সুবিধা। 

অসুবিধা:

অনলাইন মোডে গানের মাঝখানে ভিডিও অ্যাড চলে। 

৮. Mobile_V5 Audio Player:

রেটিং: 4.4/5 

ডাউনলোড: 10Cr+

এই অডিও প্লেয়ার সফটওয়্যারের ইউনিক ‘shake it’ ফিচারের সাহায্যে আপনি শুধু ফোন নাড়িয়েই গান চেঞ্জ করতে পারেন। ২২টি প্রি-সেট মিউসিক টোনের সাহায্যে এক ক্লিকেই অডিও ফাইলের টোন পাল্টানো যায়। এছাড়াও, এর নিজস্ব ৫-ব্যান্ড ইকুইলাইজার আছে। এই অ্যাপ্লিকেশনের অটোম্যাটিক লিরিক্স সাপোর্ট ফিচারটি নিজে থেকেই লিরিক্স ফাইল স্ক্যান করে লিরিক্সগুলোকে গানের সাথে মিলিয়ে দেয়।

ফিচার:

অটোম্যাটিক লিরিক্স সাপোর্ট।  

HD-কোয়ালিটি অডিও প্লেয়িং।  

ব্যান্ড ইকুইলাইজার/ বেস বুস্টার ফাঙ্কশন।  

সুবিধা:

ফ্রি রিংটোন কাটারের সুবিধা।  

সহজে হেডসেট/Bluetooth কন্ট্রোলের সুবিধা।  

অনলাইনে হট মিউসিক ভিডিও সার্চের সুবিধা।

অসুবিধা:

অনলাইন অ্যাড রয়েছে। 

৯. Music Player – MP3 & Audio:

রেটিং: 4.4/5

ডাউনলোড: 10Cr+

এই হাই-কোয়ালিটি মিউসিক প্লেয়ার অ্যাপ্লিকেশনটিতে 3D সারাউন্ডিং সাউন্ডের জন্যে এখানে গান শোনার মজাই আলাদা। এখানেও আপনি অফলাইন মোডে অডিও শুনতে পারবেন। এই অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের সং ও অ্যালবাম ট্যাগ এডিটরের সাহায্যে সহজেই গানের নাম ও ডিটেইলস বদলানো যায়। এমনকি, এই সফটওয়্যারে অডিওবুক কন্ট্রোলও আছে।

ফিচার:

সং অ্যালবাম ট্যাগ এডিটর। 

Bluetooth মিউসিক কন্ট্রোল রয়েছে।  

লকস্ক্রিন  নোটিফিকেশন কন্ট্রোল।   

সুবিধা:

অডিওবুক প্লে করা যায়। 

HD অডিও প্লেব্যাকের সুবিধা।  

জনার/অ্যালবাম/আর্টিস্ট অনুসারে অডিও খোঁজার সুবিধা।   

অসুবিধা:

বেশিরভাগ ফিচার কিনতে হয়। 

পরিশেষে:

আমাদের উল্লেখ করা প্রতিটা এন্ড্রয়েড অডিও প্লেয়ার Google Play Store-এর থেকে ফ্রিতেই ডাউনলোড করা যায়। এমনকি, এই সফটওয়্যারগুলো ব্যবহার করা খুবই সহজ এবং আপনি মিউসিকগুলো ইচ্ছেমতো শাফেলও করতে পারবেন। এছাড়াও, অ্যাপগুলো খুবই লাইটওয়েট হওয়ায়, মোবাইল সহজে হ্যাং হবে না। তাই, আপনি অন্য অ্যাপ চালানোর পাশাপাশি ব্যাকগ্রাউন্ড থেকেই গান শুনতে বা চেঞ্জ করতে কিংবা ভলিউম অ্যাডজাস্টও করতে পারবেন। 

অবশই পড়ুন:

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top